শেরপুরে পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর গ্রেপ্তার

জুবাইদুল ইসলাম, শেরপুর

শেরপুরে পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর গ্রেপ্তার

শেরপুরের নকলায় পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে হাসমত আলী ওরফে হাসু (৫০) নামে এক শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ দুপুরে তাকে উপজেলার পাঠাকাটা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

হাসমত উপজেলার পাঠাকাটা ইউনিয়নের কুড়েরপাড় এলাকার মৃত আব্দুল জুব্বারের পুত্র। এদিকে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো  হয়েছে।


নানা আয়োজনে দেশব্যাপী বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

নাসির প্রেমিক না আমার বন্ধু : মডেল মিম

আমার বয়ফ্রেন্ড নিয়ে আমিও মজায় আছি : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা

বউ যেন এদিক-ওদিক ভাইগা না যায় : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা (ভিডিও)


পুলিশ জানায়, হাসমত আলীর ছেলে দীর্ঘদিন থেকে ঢাকায় কাঁচামালের ব্যবসা করে। এজন্য সে কয়েক মাস পরপর বাড়িতে আসতো। এ সুযোগে গত ৬ মার্চ দুপুরে হাসমত তার পুত্রবধূকে ঘরের ভেতরে ডেকে নিয়ে দরজা বন্ধ করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় গতকাল (১৪ মার্চ) রবিবার রাতে পুত্রবধূ বাদী হয়ে নকলা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আজ তার শ্বশুর হাসুকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

এ ব্যাপারে নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মুশফিকুর রহমান জানান, ধর্ষণের অভিযোগে পুত্রবধূর দায়ের করা মামলায় তার শ্বশুর হাসুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভিকটিম পুত্রবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে ও গ্রেপ্তারকৃত শ্বশুর হাসুকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

লাইকি ভিডিও করার কথা বলে তরুণীকে ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

লাইকি ভিডিও করার কথা বলে তরুণীকে ধর্ষণ

সিলেটের জাফলংয়ে গিয়ে লাইকি ভিডিও করার কথা বলে এক তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছে ধর্ষক ও তার সহযোগীরা।

অভিযোগ রয়েছে, আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছে সিলেট নগরে। উল্টা মামলা তুলে নিতে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। এতে নিরাপত্তহীনতায় রয়েছেন নির্যাতিতা কিশোরী ও তার বাবা-মা।

সোমবার (১৪ জুন) বেলা আড়াইটায় সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান ওই তরুণীর বাবা।

ধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর বাড়ি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায়। বর্তমানে তারা জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর বাজার এলাকায় বসবাস করছেন। নির্যাতিতার বাবা পেশায় একজন রিকশাচালক।

আরও পড়ুন:


ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য হতে লাগে ১৮ লাখ টাকা

নাসিরের বাসায় উঠতি বয়সী তরুণীদের দিয়ে চলত অনৈতিক কার্যকলাপ

মাত্র ৫ হাজার টাকা পেয়েই হত্যার মিশনে নামে খুনিরা

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২


 

সংবাদ সম্মেলনে নির্যাতিতা তরুণীর বাবা বলেন, সম্প্রতি লাইকি অ্যাপসে ভিডিও প্রকাশের মাধ্যমে সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরাণ থানার টিলাগড় এলাকার লিজা নামে এক মেয়ের সঙ্গে পরিচয় হয় আমার মেয়ের। তার মাধ্যমে সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাণীগাজী গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে জুবায়ের আহমদ ওরফে মি. ফান্নী আহমদের সঙ্গে ফোনে পরিচয় হয়। জুবায়ের বর্তমানে সিলেট নগরের শিবগঞ্জ লামাপাড়া এলাকার মোহিনী ৮৩/এ বাসায় তার বোনের সঙ্গে থাকে। এরপর তারা সবাই ফোনে একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করত। জুবায়ের মি. ফান্নী আহমদ নামে লাইকি অ্যাপ ব্যবহার করে বিভিন্ন ভিডিও প্রকাশ করত।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও উল্লেখ করেন, গত ১৭ মে তার মেয়ে বাসার মালিকের বাড়ি সিলেটের বিশ্বনাথ বেড়াতে যায়। সেখানে অবস্থান করাকালে ১৯ মে লিজা আমার মেয়েকে বলে লাইকি ভিডিও করতে জাফলং বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে। সেখানে গিয়ে সবাই মিলে ভিডিও করবে বলে জানায়।
বিষয়টি আমার মেয়ে আমাকে অবগত করলে আমি লিজার সঙ্গে কথা বলে তাকে জাফলং যাওয়ার অনুমতি দেই। এরপর লিজা আমার মেয়েকে বিশ্বনাথ উপজেলার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। সেখান থেকে লিজা তাকে সিলেট নগরের শিবগঞ্জ এলাকায় জুবায়েরের বাসায় নিয়ে যায়। এসময় আমার মেয়ে ওই বাসায় যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে লিজা তাকে বলে এখানে একটু সময় বসতে হবে। সে বাসা থেকে কাপড় বদলে আসলে জাফলংয়ের উদ্দেশে যাত্রা শুরু হবে। তখন জুবায়ের আমার মেয়ে নাস্তা খেতে দেয়।

নাস্তা খাওয়ার পরপরই সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। অসুস্থ অবস্থায় জুবায়ের আমার মেয়েকে রাতভর ধর্ষণ ও মারধর করে।

পরদিন সকালে আমার মেয়েকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে বিশ্বনাথ আমার এক আত্মীয়ের বাসাতে দিয়ে যায়। এসময় জুবায়ের এই ঘটনা কাউকে না বলার জন্য হুমকি দিয়ে যায়।

নির্যাতিতার বাবা আরও বলেন, আমার মেয়েকে বাসায় নিয়ে আসার পর সে আবার অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ ঘটনায় গত ২৬ মে সিলেটের শাহপরাণ থানায় গিয়ে বিষয়টি পুলিশকে জানাই। পরে বিষয়টি তদন্ত ও সরেজমিনে তদন্ত করে গত ১ জুন মামলা রুজু হয়। মামলা দায়েরর এতদিন পরও পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার করেনি।

আসামিরা প্রকাশ্যে সিলেট নগরে ঘুরাফেরা করছে। এছাড়া, মামলা তুলে নেওয়ার জন্য আমাকে হুমকি দিচ্ছে। আমার মেয়েকে প্রাণে মারার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। এতে আমি ও আমার পরিবারের সদস্য চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। ধর্ষক ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করেন নির্যাতিতার অসহায় বাবা।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ওরা যখন পরীমনিকে গালাগাল করছিল তখন আমার হাত কাঁপছিল : জিমি

অনলাইন ডেস্ক

ওরা যখন পরীমনিকে গালাগাল করছিল তখন আমার হাত কাঁপছিল : জিমি

আজ সোমবার সকালে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে উত্তরা ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও অমিসহ ছয়জনকে আসামি করে সাভার মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমণি। দুপুরের মধ্যে প্রধান আসামিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। 

এ ঘটনার পর আজ রাতে বনানীর বাসা থেকে আবারও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন পরীমণি। এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন পরীমনি ও  সেই রাতে ঘটনার সময় পরীমনির সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার কস্টিউম ডিজাইনার জিমি।  সেই রাতে কি হয়েছিল তা গণমাধ্যমে তুলে ধরেছেন নায়িকার সঙ্গে থাকা কস্টিউম ডিজাইনার। 

গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের উত্তরে কস্টিউম ডিজাইনার বলেন, আমার নাম জিমি। আমি ফ্যাশন ডিজাইনার। সব কথা বলার মতো সাহস সবসময় থাকে না। কথাগুলো বলার সময় হইছে। আমি সবার প্রতি কৃতজ্ঞ। সব কিছু বের হবে, সবার সামনে আসবে, আমি এটা বিলিভ করি। 

তিনি বলেন, তারা আপিকে বাজেভাবে গালাগাল করল।  আপি আমাকে আগেই বলেছিল যদি কখনো এমন পরিস্থিতি তৈরি হয় তাহলে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করতে। ওরা যখন আপিকে গালাগাল করছিল তখন আমার হাত কাঁপছিল। আমি আপির মোবাইল ফোন বের করেছি, তার মোবাইলের ভেতরে ঢুকতে পারিনি। আমি আমার মোবাইল বের করে ফেলছি।  বের করে ১৫ সেন্ডের একটি ভিডিও করেছি। 

‘ওটা হাতে নিয়ে দেখার পরে আমাকে এসে ওনারা দুইজন অ্যাটাক করেছে।  আমি আপির ফোনটা ওখানেই রেখে এসেছি। ওরা ভাবছে আপির ফোনেই ভিডিওটা করেছি। আপির ফোন উড়ায় ফেলে দিছে’। 

জিমি বলেন, ওরা লাইট বন্ধ করে দিছে। এসি বন্ধ।  আপির অক্সিজেন কমে আসছে। আমি ওয়েটার কে বলেছি ভাইয়া এসিটা ছাড়েন আপি শ্বাস নিতে পারছে না। ওরা আমাকে সাপোর্ট দিয়েছে। ওরা এসি ছেড়েছে। ওয়েটাররা সব পাশেই ছিল। আর এর মধ্যে ওরা চলে গেছে। ওয়েটারদের বলেছি ভাইয়া লাইটা জ্বালিয়ে দেন। তখন তো আপি নিশ্বাস নিতেই পারছিল না। হাসপাতালে নিতে হবে, অক্সিজেন দিতে হবে। 

‘তখন আমি তাদের বলছি প্লিজ আপিকে ধরেন, তো আমি ধরছি আমার সঙ্গে তারাও ধরছে গাড়িতে তুলে দিছে’। 

সাংবাদিক সম্মেলনে পরীমণি বলেন, ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তার নাসির উদ্দিন মাহমুদের সঠিক বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমি লড়াই চালিয়ে যাব। আপনারা আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন বলেই নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ। আইনের প্রতি আমার আস্থা রয়েছে।

এ সময় নায়িকা পরীমণি প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, যাকে আমি মা বলেছি তিনি আমার দায়িত্ব নিয়ে নিয়েছেন। আমার এখন কোনো ভয় নেই।

পরীমনি বলেন, আমাকে ক্যামেরার সামনে এভাবে দাঁড়াতে হবে। আমি এভাবে দাঁড়িয়ে ইউজটু না। আমার কাজ নিয়ে সবসময় দাঁড়িয়েছে। আজকে আমি অনেক খুশি। আজকে শান্তি লাগতেছে। যখন দেখছি যে এত তাড়াতাড়ি জিনিসগুলো হইছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

পরকীয়া করে গোপনাঙ্গ হারালেন যুবক

জুবাইদুল ইসলাম, শেরপুর

পরকীয়া করে গোপনাঙ্গ হারালেন যুবক

শেরপুরে পরকীয়া প্রেমে পিছুটান দেওয়ায় সাইফুল ইসলাম (২৮) নামে এক যুবকের পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছে এক গৃহবধূ। ১৪ জুন সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার কামারিয়া ইউনিয়নের চকআন্ধারিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

সাইফুল রৌহা ইউনিয়নের কলাপাড়া গ্রামের আব্দুল মিয়ার ছেলে এবং পেশায় ট্রলিচালক।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চকআন্ধারিয়া এলাকার এক প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে পাশের গ্রামের বিবাহিত যুবক সাইফুল ইসলামের দীর্ঘদিন যাবত পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। সেইসূত্রে সাইফুল ওই গৃহবধূর কাছ থেকে অনেক টাকা-পয়সাও হাতিয়ে নেয় বিভিন্ন সময়। সম্প্রতি সাইফুল তার সাথে সম্পর্কের দূরত্ব রেখে চলতে শুরু করে। এ কারণে সোমবার রাতে কৌশলে ওই যুবককে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় ওই গৃহবধূ। এক পর্যায়ে দৈহিক মেলামেশার ছলনায় সাইফুলের পুরুষাঙ্গ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কেটে দেয় গৃহবধূ। পরে তার ডাক-চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে গিয়ে তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন।

আরও পড়ুন:


ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য হতে লাগে ১৮ লাখ টাকা

নাসিরের বাসায় উঠতি বয়সী তরুণীদের দিয়ে চলত অনৈতিক কার্যকলাপ

মাত্র ৫ হাজার টাকা পেয়েই হত্যার মিশনে নামে খুনিরা

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২


এদিকে সাইফুলের বড়ভাই সাকিরসহ তাদের পরিবারের সদস্যরা দাবি করেন, পূর্বশত্রুতার জের ধরে তাকে স্থানীয় বাজার থেকে ডেকে নিয়ে পাশের মাঠে নিয়ে কয়েকজন যুবক ওই ঘটনা ঘটিয়েছে।

সদর থানার নবাগত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনসুর আহাম্মদ বলেন, ঘটনাটি শোনার পরপরই ওই এলাকায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

সহকর্মীকে আটকে রেখে নারী পোশাক শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর

সহকর্মীকে আটকে রেখে নারী পোশাক শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে সহকর্মীকে আটকে রেখে এক নারী পোশাক শ্রমিককে সংঘবদ্ধ দুইজন যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে তিন যুবককের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করলে রোববার উপজেলার রতনপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হলো, উপজেলার রতনপুর গ্রামের বাবুল হোসেনের ছেলে নাইম হোসেন (২৬) ও একই গ্রামের জুইনুদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন(২৫)।

আরও পড়ুন:


ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য হতে লাগে ১৮ লাখ টাকা

নাসিরের বাসায় উঠতি বয়সী তরুণীদের দিয়ে চলত অনৈতিক কার্যকলাপ

মাত্র ৫ হাজার টাকা পেয়েই হত্যার মিশনে নামে খুনিরা

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২


পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ৯জুন বিকেলে তার এক সহকর্মীকে নিয়ে রতনপুর রেল স্টেশন এলাকায় বেড়াতে যায়। সেখান থেকে অভিযুক্তরা সহকর্মীসহ ওই নারী শ্রমিককে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গজারি বনের ভেতর নিয়ে যায়। পরে তাকে একটি বাড়িতে নিয়ে সহকর্মীকে আটককে রেখে ওই নারী শ্রমিককে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

বিষয়টি ওই নারীর পরিবারকে জানালে লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

কালিয়াকৈর থানায় ওই নারী শ্রমিক মামলা দায়ের করলে রোববার পুলিশ অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

মামলার তদন্তকারী কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক মাহবুব রহমান জানান, ওই নারী শ্রমিকের মামলার জের ধরে দুই যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর অভিযুক্ত নাহিদকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

১৫ সেকেন্ডের ভিডিও শুনলে সহ্য করতে পারবেন না : পরীমণি

অনলাইন ডেস্ক

১৫ সেকেন্ডের ভিডিও শুনলে সহ্য করতে পারবেন না : পরীমণি

আজ সোমবার সকালে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে উত্তরা ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও অমিসহ ছয়জনকে আসামি করে সাভার মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমণি। দুপুরের মধ্যে প্রধান আসামিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। 

এ ঘটনায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ঢালিউডের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী।

এ ঘটনার পর আজ রাতে বনানীর বাসা থেকে আবারও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন পরীমণি। এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন পরীমনি।

সাংবাদিক সম্মেলনে পরীমণি বলেন, ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তার নাসির উদ্দিন মাহমুদের সঠিক বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমি লড়াই চালিয়ে যাব। আপনারা আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন বলেই নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ। আইনের প্রতি আমার আস্থা রয়েছে।

এ সময় নায়িকা পরীমণি প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, যাকে আমি মা বলেছি তিনি আমার দায়িত্ব নিয়ে নিয়েছেন। আমার এখন কোনো ভয় নেই।

পরীমনি বলেন, আমাকে ক্যামেরার সামনে এভাবে দাঁড়াতে হবে। আমি এভাবে দাঁড়িয়ে ইউজটু না। আমার কাজ নিয়ে সবসময় দাঁড়িয়েছে। আজকে আমি অনেক খুশি। আজকে শান্তি লাগতেছে। যখন দেখছি যে এত তাড়াতাড়ি জিনিসগুলো হইছে।

এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকরা নাসির উদ্দিনের সঙ্গে পরীমনির পরিচয় কিভাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নাসিরের সঙ্গে ওখানেই দেখা হয়েছে। ওনার নাম যে নাসির উদ্দিন আমি নামই জানি না।

মদ নিতে বাধা দেওয়ায় আপনার সঙ্গে থাকা ছেলেগুলো মারধর করেছে এমন প্রশ্নে পরীমনি বলেন, এটা তো কেমন বাচ্ছা সুলভ আচরণ হয়ে গেলো না। ১৫ সেকেন্ডের ভিডিও শোনেন। এটা আপনার কান নিতে পারবে না। তারপরেও এটা, কিছু বলার নেই আমার।

সেখানে কেন গিয়েছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেখানে ইনভাইটেও যাইনি। ওটা যে ক্লাব; আমি জানতাম না। আমাদের সঙ্গে যে অমি ভাইয়া ছিল তার একটা কাজ ছিল। আমি বলিনি অমি ভাইয়া আমাকে প্ল্যান করে নিয়ে গেছে। সে আমাকে আগেও বলেনি ওখানে চলো।

তিনি বলেন, অমি বলেন, তোমরা এখানে সিকিউরড। তখন রাত ১২টা প্রায়। ওখানে সিকিউরিটি ঢুকতে দিচ্ছিল না। পরে কাউকে ফোন করেছিল।

ওই ব্যক্তি আইজিপির বন্ধু আপনি জানেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে পরীমণি বলেন, ওখানে যে ছিলেন সে বারবার বলেছেন উনি (নাসির উদ্দিন) আইজিপির বন্ধু।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর