নরসিংদীতে বাড়ছে সূর্যমুখী ফুলের আবাদ

হৃদয় খান, নরসিংদী

নরসিংদীতে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে সূর্যমুখী ফুলের বাগান। অল্প পুঁজি  ও কম পরিশ্রমে বেশি আয়ের ফলেই এখানে বৃদ্ধি পাচ্ছে এ ফুলের আবাদ।

সূর্যমুখী ফুলের বীজের মাধ্যমে যে পরিশোধিত তেল পাওয়া যায় তা পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যসম্মত হওয়ায় বাজারে এর চাহিদা রয়েছে ব্যাপক। চলতি মৌসুমে এ  জেলার  ১২ হেক্টর জমিতে সূর্যমুখী ফুলের  চাষ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ । 

ঢাকার নিকটবর্তী একটি জেলা শহর নরসিংদী। লেবু, শাকসবজি ও লটকের পর এবার সূর্যমুখী চাষেও খ্যাতি অর্জন করেছে এ জেলা। 

কৃষি বিভাগ এ অঞ্চলের অনাবাদি জমিগুলোকে ব্যবহারের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে নরসিংদী সদর উপজেলায় গেল বছর  মাত্র ২ বিঘা জমিতে পরীক্ষামূলক সূর্যমুখী ফুলের চাষ করা হয়।

পরীক্ষামূলকভাবে সফল হওয়ায় কৃষকদের মাঝে আগ্রহ বাড়ছে সূর্যমুখী চাষের। কামারগাও এলাকায় ১৫ বিঘা জমিতে  সূর্যমুখীর বাগান করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন সাইদুর রহমান শিমুল নামে এক স্কুল শিক্ষক। বাজারে এই ফুলের দর ভাল থাকায় আর্থিকভাবে লাভবানও হচ্ছেন সে।


মিঠুনের দিকে তাকিয়ে বিজেপি

সত্যিই কী ধনি ! বিতর্ক চলছে !

অসুস্থ ইশরাক, দোয়া চাইলেন ফখরুল

শিক্ষকের অভাবে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে স্কুল


আর সুর্যমুখী ফুলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিদিনই  দুর-দুরান্ত থেকে আসছেন প্রকৃতি প্রেমীরা। এই জেলায় সুর্যমুখী ফুলের চাষ প্রসারের লক্ষ্যে কাজ করছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

এ বছর নরসিংদী জেলায় মোট ১২ হেক্টর জমিতে সূর্যমুখী ফুলের বাগান করেছে কৃষকরা।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

স্বপ্ন দেখাচ্ছে বারোমাসি সজনে

জামান আখতার, চুয়াডাঙ্গা

বারোমাসি সজনের আবাদ করে সফলতা পেয়েছেন চুয়াডাঙ্গার এক যুবক। এই সবজি চাষে বাড়তি কোনো খরচ না থাকায় লাভের পরিমান বেশি হচ্ছে ওই কৃষকের। 

ভারত থেকে আনা বীজ দিয়েই সফল হয়েছেন তিনি। তাকে দেখে অনেকে আগ্রহী হচ্ছেন সজনে চাষে। 

উচ্চ খাদ্যগুণ সম্পন্ন সবজি সজনের দেশি জাত থেকে বছরে মাত্র একবার ফলন পাওয়া যায়। এজন্য সজনের বাণিজ্যিক চাষের কথা খুব একটা শোনা যায়নি। তবে এখন বারোমাসি সজনে বাণিজ্যিক চাষাবাদের স্বপ্ন দেখাচ্ছে।

চুয়াডাঙ্গা সদরের ভান্ডারদহ গ্রামের তোতা মিয়া সজনের বাণিজ্যিক চাষ নিয়ে কাজ করছেন। অনলাইনে বারোমাসি সজনের কথা জেনে বছর খানেক আগে ভারত থেকে বীজ আনান তিনি। পরে এক বিঘা জমিতে তা রোপন করে এখন বেশ ভালো ফল পাচ্ছেন।

তোতা মিয়ার মতো এলাকার বেশ কয়েকজন যুবক সজনের বাগান করতে চান। মূলত, বেশি চাহিদা ও লাভের পরিমান ভালো হওয়ায় আগ্রহী তারা।

আরও পড়ুন:


চলমান ‘বিধি নিষেধ’ আরও এক মাস বাড়ল

স্বাধীনতার মূল শর্ত হচ্ছে বাক, চিন্তা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা: ফখরুল

এখনও খোঁজ মেলেনি আবু ত্ব-হা আদনানের, যা বলছে পুলিশ

রোনালদোকাণ্ডের পর এবার টেবিল থেকে বিয়ারের বোতল সরালেন পগবা


এই কৃষিপণ্যের চাষ ছড়িয়ে দিতে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তারা। সবজি হিসেবে সজনের ব্যবহার বেশি হলেও, গাছের বাকল, পাতা, ফুল এবং বীজেরও রয়েছে ঔষধিগুণ।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ডিজিটাল মাধ্যমে অর্থ পাচার রোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে কঠোর হওয়ার তাগিদ

সুলতান আহমেদ

দুশ্চিন্তার নতুন নাম ডিজিটাল মাধ্যমে অর্থ পাচার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন অ্যাপ ব্যবহার করে শত শত কোটি টাকা পাচার হচ্ছে বলে সম্প্রতি জানিয়েছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী। মহামারির সময়ে অন্য মাধ্যমে পাচার কিছুটা কমে আসলেও বাড়ছে ডিজিটাল মাধ্যেমে। 

বিশেষজ্ঞ বলছেন, উঠতি এসব পাচারকারিদের ব্যাপারে কঠোর হতে হবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। পাশাপাশি যেসব অর্থ এরই মধ্যে দেশ থেকে পাচার হয়েছে তা ফিরিয়ে আনার তাগিদ তাদের। 

করোনা মহামারিতে বাড়ছে রেমিট্যান্স, কমে আসছে অর্থপাচার এমন স্বস্তির মধ্যে নতুন অস্বস্তির নাম ডিজিটাল মাধ্যমে পাচার। সম্প্রতি এমন অভিযোগে সিআইডি গ্রেপ্তার করেছে বেশ কয়েকজন উঠতি বয়সি তরুন-তরুনীকে। 

যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ভিডিও স্টিমিং অ্যাপ বিগো, লাইকির মাধ্যমে ভার্চুয়াল ডায়মন্ড বিক্রি করেন তারা। এতে দেশ থেকে প্রতি মাসে কয়েকশ কোটি টাকা দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে বলেও জানায় সিআইডি।

এর সঙ্গে যুক্ত মূলত বিত্তবান তরুন-তরুণীরা। তাদের নিয়ন্ত্রণে আইনের কঠোর নজরদারির পাশাপাশি পারিবারিক ভুমিকার উপর জোর দেন বিশেষজ্ঞরা।

অবশ্য অর্থপাচার নিয়ে দুশ্চিন্তা নতুন নয়। যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ফিনান্সিয়াল ইন্টিগ্রিটি-জিএফআই এর হিসেবে বাংলাদেশ থেকে বছরে পাচার হচ্ছে গড়ে ৬৫ হাজার কোটি টাকা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, দূর্নীতি কমিয়ে বিনিয়োগ পরিবেশ আরেকটু ভালো করা গেলে কমে আসবে পাচার প্রবণতা। যেসব অর্থ পাচার হয়েছে তা ফিরিয়ে আনতে কুটনৈতিক তৎপরতা বাড়াতে জোর দিচ্ছেন তারা।

পাশাপাশি অর্থপাচার রোধে কেন্দ্রিয় ব্যাংক, দুদক, এনবিআর ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাজের মধ্যে সমন্বয় বাড়ানোর তাগিদ বিশ্লেষকদের।  

আরও পড়ুন


অভিনব কায়দায় ব্যাংকে চুরি করতে গিয়ে আটক

নারীকে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে ব্লাকমেইল করে কবিরাজ, অতঃপর

পাকিস্তানের সংসদে বাজেট অধিবেশনের সময় মারামারি (ভিডিও)

চলমান ‘বিধি নিষেধ’ আরও এক মাস বাড়ল


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

সূচক বেড়েছে পুঁজিবাজারে

অনলাইন ডেস্ক

সূচক বেড়েছে পুঁজিবাজারে

সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বাড়ার মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে। 

আজ ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশিরভাগ শেয়ারের দর বেড়েছে। এদিন বেলা ১১টা ২০ মিনিটে ডিএসইতে ৭২৯ কোটি ২৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ডিএসই প্রধান বা ডিএসইএক্স সূচক ২৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৬ হাজার ৫১ পয়েন্টে। অন্য সূচকগুলোর মধ্যে  ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক দশমিক ৬ পয়েন্ট বেড়ে  অবস্থান করছে ১ হাজার ২৯০ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৮১ পয়েন্টে।

আজ ডিএসইতে ৩৬৬টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২২০টির, কমেছে ১০২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৪টির।

আরও পড়ুন:


স্বাধীনতার মূল শর্ত হচ্ছে বাক, চিন্তা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা: ফখরুল

এখনও খোঁজ মেলেনি আবু ত্ব-হা আদনানের, যা বলছে পুলিশ

রোনালদোকাণ্ডের পর এবার টেবিল থেকে বিয়ারের বোতল সরালেন পগবা


 

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের উত্থানে লেনদেন চলছে। এই সময়ে সিএসইতে ২০ কোটি ৫৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

মরিচের বাম্পার ফলন, তবুও হাসি নেই কৃষকের মুখে

সরকার হায়দার, পঞ্চগড়

চলতি মৌসুমে পঞ্চগড়ে মরিচের আশানুরুপ উৎপাদন হয়েছে। কৃষকরা জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার বিভিন্ন জেলা থেকে পাইকাররা আসছে না। এ কারণে মরিচের ন্যায্যমূল্যও পাচ্ছেন না তারা। এ অবস্থায় উৎপাদন খরচ তোলা নিয়ে দিশেহারা তারা। 

চলতি মৌসুমে বিভিন্ন জাতের মরিচের চাষ করেছেন পঞ্চগড়ের কৃষকরা। গেল বছর নানা রোগের কারণে মরিচের উৎপাদন অর্ধেক হলেও এ বছর ফলন ভাল হয়েছে।

কৃষকরা জানান, গেল বছরের লোকসান পুষিয়ে নেয়ার আশায় এ বছর বেশি জমিতে মরিচের আবাদ করেছেন তারা। তবে করোনার কারণে বিভিন্ন জেলা থেকে পাইকাররা না আসায় মরিচের বাজারে ধ্বস নেমেছে। এ অবস্থায় লোকসানের আশঙ্কায় দিশেহারা তারা।

আরও পড়ুন:


আম্পায়ারের ওপর চড়াও হয়ে লাথি দিয়ে স্ট্যাম্প ভাঙলেন সাকিব (ভিডিও)

রাজশাহী মেডিকেলে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৫ জনের মৃত্যু

সুযোগ পেলে নায়ক হিসেবে অভিনয় করতে রাজি বেরোবি উপাচার্য কলিমউল্লাহ

পাওনা টাকা না দেওয়ায় প্রায় ৬ কোটি টাকার বাড়ি ভেঙে দিলেন মিস্ত্রি


 

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আবহাওয়ায় অনুকূলে থাকায় মরিচের আশানুরুপ ফলন হয়েছে।  এবছর প্রায় ৩০ হাজার মেট্রিক টন মরিচ উৎপাদন হবে।

কৃষি অফিসের তথ্য মতে, এবছর পঞ্চগড়ে প্রায় ১১ হাজার হেক্টর জমিতে মরিচের আবাদ হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আম নিয়েও সফলতার স্বপ্ন দেখছেন দিনাজপুরের চাষিরা

ফখরুল হাসান পলাশ, দিনাজপুর

লিচুর জন্য বিখ্যাত দিনাজপুরের চাষিরা আম নিয়েও সফলতার স্বপ্ন দেখছেন। বিশেষ করে নবাবগঞ্জ উপজেলার আম এখন স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে অনেক জেলায় সরবরাহ হচ্ছে। 

স্বাদ এবং আকারে ভিন্নতা থাকায় দ্রুত জনপ্রিয় হচ্ছে সেখানে উৎপাদিত ফল। এরইমধ্যে সংগঠন করে তার মাধ্যমে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। 

ক্ষিরসাপাত, ল্যাংড়া আম্রপালির পাশাপাশি রংপুর অঞ্চলের জনপ্রিয় হাড়িভাঙ্গা আমও উৎপাদন হচ্ছে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায়। মাটির গুণাগুণের কারনে মানের দিক থেকে অন্য অনেক জেলা থেকে এ অঞ্চলের আম ভালো। তাই বাজারও সম্প্রসারণ হচ্ছে দ্রুত।

চলতি মৌসুমের আম এরইমধ্যে পাকা শুরু হয়েছে। আনাগোনা বেড়েছে বিভিন্ন জেলার ব্যবসায়ীদের। এছাড়া অনেক বাগানি অনলাইনে বিক্রি করছেন পণ্য। এতে সফলতাও পেয়েছেন তারা।

আরও পড়ুন:


করোনা: দেশে একদিনে মৃত্যু ছাড়াল অর্ধশতক, বেড়েছে শনাক্তও

পুলিশ বাহিনী আজ জনগণের ভালোবাসায় পরিণত হয়েছে: আইজিপি

পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা: প্রধান আসামি নাসিরসহ পাঁচজন গ্রেপ্তার


 

আমের বাজারজাত নিয়ে সমস্যায় আছেন চাষিরা। উপজেলা পর্যায়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা এর অন্যতম কারণ।

এ বছর উৎপাদন কিছুটা কম হলেও মান ভালো হওয়ায়, কৃষক খরচ পুষিয়ে নিতে পারবেন বলে দাবি কৃষি কর্মকর্তাদের।

চলতি বছর নবাবগঞ্জে ৮২৫ হেক্টর জমিতে আমের বাগান করা হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর