নিভৃত পল্লী টুঙ্গীপাড়াতেই কেটেছে জাতির জনকের শৈশব আর কৈশোর
নিভৃত পল্লী টুঙ্গীপাড়াতেই কেটেছে জাতির জনকের শৈশব আর কৈশোর

নিভৃত পল্লী টুঙ্গীপাড়াতেই কেটেছে জাতির জনকের শৈশব আর কৈশোর

Other

আর দশটা শিশু কিশোরের মতই কেটেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের বাল্যকাল। তবে ছোট বেলা থেকেই নেতৃত্ব, ধর্ম নিরপেক্ষতা, সহমর্মীতার মত গুনাবলী গুলো প্রকাশ পায় কিশোর মুজিবের মধ্যে। শিশুকালের এই গুণগুলো নিজের মধ্যে আমৃত্যু লালন করেছেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।  

টুঙ্গি পাড়ার এ মাঠেই ফুটবল খেলতেন বঙ্গবন্ধু।

ছোট বেলা থেকে পছন্দ করতেন খেলাধুলা। তবে ফুটবলই ছিল তার প্রিয় খেলা।   আজকের এই শিশুদের মত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানেরও নির্ভার শৈশব কেটেছে খোলা মাঠে।


মওদুদ আহমদের মৃত্যুতে ওবায়দুল কাদেরের শোক

মওদুদ আহমদের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

শুভ জন্মদিন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান


১৯২০ সালের ২১ মার্চ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম নেন জাতির জনক। ১৯২৭ সালে ৭ বছর বয়সে গিমা ডাঙা স্কুলে শুরু হয় তার শিক্ষা জীবন। ২ বছর পড়েন এখানে। বর্তমানে বহুতল এই ভবনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির পাঠদান হলেও, সে সময় গোল পাতার ঘরে ১২ জন শিক্ষার্থীর সঙ্গে ক্লাস করতেন তিনি।

বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব গুণ প্রকাশ পায় স্কুল জীবন থেকেই। তার সমসাময়িক কেউ বেঁচে না থাকলেও, জাতির জনকের এই গুণের কারণে গর্ব করেন উত্তর প্রজন্ম।

জীবনের শেষ দিন পর্য়ন্ত যে অসাম্প্রদায়িকতার চর্চা করেছেন বঙ্গবন্ধু সেই চর্চার প্রথম পাঠ হয় শৈশব কালে। নিভৃত পল্লী টুঙ্গীপাড়া আর গোপালগঞ্জ সদরে কেটেছে জাতির জনকের শৈশব আর কৈশোর। বেরিবেরি আর চোখের রোগে আক্রান্ত হয়ে চার বছর লেখাপড়া করতে না পারলেও ১৯৩৭ সালে গোপালগঞ্জের মিশনারী স্কুল থেকে এনট্রান্স পাশ করেন তিনি।
 news24bd.tv আয়শা