বিলুপ্ত প্রজাতির মৃত নীলগাইটিকে রাখা হলো জাদুঘরে

অনলাইন ডেস্ক

বিলুপ্ত প্রজাতির মৃত নীলগাইটিকে রাখা হলো জাদুঘরে

পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার তোড়িয়া ইউনিয়নের দাড়খোর সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করে বিলুপ্ত প্রজাতির একটি নীলগাই। স্থানীয়দের ধাওয়ায় গাইটি ওই এলাকা থেকে পালিয়ে প্রায় কয়েক কিলোমিটার অতিক্রম করে মির্জাপুর ইউনিয়নের খচপাড়া এলাকায় গিয়ে আশ্রয় নেয়। পরে সেখানে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় নীলগাইটি।

মৃত অবস্থায় উদ্ধার বিলুপ্ত  প্রজাতির নীলগাইটির মরদেহ সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু মিউজিয়ামে পাঠানো হয়েছে। বুধবার রাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনটিকে বরণীয় করে রাখতে সংরক্ষণের জন্য মরদেহটি জাদুঘরে পাঠানো হয়।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার দুপুরে ভারত থেকে নীলগাইটি বাংলাদেশে প্রবেশ করলে স্থানীয়রা নীলগাইটিকে ধরার জন্য ধাওয়া করে। নীলগাইটি ওই এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় প্রায় ১৫ কিলোমিটার অতিক্রম করে খচপাড়া এলাকায় গিয়ে আশ্রয় নেয় নীলগাইটি। পরে আহত অবস্থায় নিলগাইটিকে উদ্ধার করে আটোয়ারী থানায় খবর দেন স্থানীরা। ঘটনাস্থলে গিয়ে নীলগাইটি মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। পরে উপজেলা বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আরও পড়ুন


বিসিএস পরীক্ষার্থী পৌনে ৫ লাখ, মানতে হবে যে ১১ নির্দেশনা

শেষ মুহূর্তে বিসিএস পরীক্ষা বন্ধ সম্ভব নয়: পিএসসি চেয়ারম্যান

মাওলানা মামুনুল হককে কটূক্তি: গ্রামবাসীর হামলায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে র‌্যাব

মওদুদের মৃত্যুতে বসুরহাটে কাদের মির্জার ৩ দিনের শোক ঘোষণা


আটোয়ারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইজার  উদ্দিন জানান, নীলগাই উদ্ধার হয়েছে, এমন খবর পেয়ে আমাদের পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই নীলগাইটি মারা যায়।

পঞ্চগড়ের বন্যপ্রাণী আলোকচিত্রী ফিরোজ আল সাবা জানান, স্থানীয়দের ধাওয়া খেয়ে নীলগাইটি ক্লান্ত হয়ে পড়ে। পড়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায় বলে চিকিৎসক নিশ্চিত করেছেন। 

বাংলাদেশে বিলুপ্ত প্রাণী নীলগাই। আগে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এই প্রাণীটির দেখা মিলত। তবে বন্যপ্রাণী বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ১৯৫০ সালের পরে বাংলাদেশে কোনো দেশীয় নীলগাই দেখা যায়নি। দু একটা হঠাৎ দেখা গেলেও তা ভারত থেকে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়ে।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভিজিএফ-এর কার্ড দেয়ার কথা বলে টাকা নেয়ার অভিযোগ

রফিকুল আলম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভিজিএফ-এর কার্ড দেয়ার কথা বলে টাকা নেয়ার অভিযোগ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারকপুর ইউপি চেয়ারম্যান তোহিদুর রহমান মিঞার বিরুদ্ধে ভিজিএফ কার্ডধারীদের কাছ থেকে অগ্রিম ২৫০ টাকা করে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন চেয়ারম্যান তোহিদুর রহমান মিঞা।

জানা গেছে, পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নে ২ হাজার ৩’শ ৫টি অসহায় পরিবারের জন্য ৪ ৫০ টাকা হারে ১০ লাখ ৩৭ হাজার ২৫০ টাকা ও অতিদরিদ্র ৫’শ পরিবারের জন্য ৫’শ টাকা হারে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। কিন্তু এ ইউনিয়নের শিকারপুর ও দাইপুখুরিয়া গ্রামের প্রায় ৭’শ পরিবারের কাছ থেকে অগ্রিম ২ শত ৫০ টাকা করে ইউপি চেয়ারম্যান তৌহিদুর রহমান মিঞার নাম করে আদায় করেছেন তার সহকারি দাইপুখুরিয়া গ্রামের আবু বক্করের ছেলে একরামুল হক। একই সঙ্গে তিনি ওই পরিবারগুলোর পরিচয়পত্রের ফটোকপিতে সিরিয়াল নম্বর উল্লেখ করে দেন।

আরও পড়ুন


বরিশালে ৪০০ অসহায় পরিবারের মাঝে সেনাবাহিনীর ত্রাণ বিতরণ

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গাছ কাটা ও অবকাঠামো নির্মাণ বন্ধে হাইকোর্টে রিট

নওগাঁয় অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিল শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

করোনামুক্ত খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতি: ফখরুল


আজ রোববার সকালে মোবারকপুর ইউনিয়নের শিকারপুর ও দাইপুখুরিয়া গ্রামের প্রায় শতাধিক ভুক্তভোগী নারী ইউপি চত্বরে ভিজিএফের টাকা নেয়ার জন্য জড়ো হন। এ সময় ভূক্তভোগী নারীদের উপস্থিতি টের পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ও একরামুল হক সটকে পড়েন। ওই নারীরা আরও জানান, যদি ভিজিএফের টাকা না পাওয়া যায়, তাহলে আদায় করা টাকাগুলো তাদের ফেরত দেয়া হোক।

এ বিষয়ে একরামুল হকের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে মোবারকপুর ইউপি চেয়ারম্যান তৌহিদুর রহমান মিঞা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি কোন টাকা নেননি এবং কেউ টাকা নিয়েছে কিনা এব্যাপারে তিনি কিছু বলতে পারবেন না। এদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল-রাব্বি বলেন, জরুরী ভিত্তিতে ট্যাগ অফিসারকে সাথে নিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

বরিশালে ৪০০ অসহায় পরিবারের মাঝে সেনাবাহিনীর ত্রাণ বিতরণ

রাহাত খান, বরিশাল

বরিশালে ৪০০ অসহায় পরিবারের মাঝে সেনাবাহিনীর ত্রাণ বিতরণ

বরিশালের শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের পক্ষ থেকে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ ৪শত অসহায়-দুঃস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

রোববার ১০টায় বাকেরগঞ্জ উপজেলার দেউলী বিলকিস জাহান টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড বিএম কলেজ মাঠে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই অসহায় দুঃস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়।

৬ পদাতিক ব্রিগেডের ব্যবস্থাপনায় এবং ৬২ ইস্ট বেঙ্গলের আয়োজনে ৬ পদাতিক ব্রিগেডের কমান্ডার এই ত্রাণ বিতরণ করেন। এ সময় শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন


সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গাছ কাটা ও অবকাঠামো নির্মাণ বন্ধে হাইকোর্টে রিট

নওগাঁয় অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিল শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

করোনামুক্ত খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতি: ফখরুল

যে যেখানে আছে, সেখানে থেকেই ঈদ উদযাপনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর


এর আগেও বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন স্থানে শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের পক্ষ থেকে একইভাবে দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। আগামীতে এই সহায়তা কার্যক্রম অব্যহত রাখার কথা জানিয়েছেন সেনা বাহিনীর কর্মকর্তারা।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

পাহাড়ে দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সেনাবাহিনীর খাদ্য সহায়তা

ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি:

পাহাড়ে দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সেনাবাহিনীর খাদ্য সহায়তা

পার্বত্যাঞ্চলের করোনায় কর্মহীন মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছে সেনাবাহিনী। রবিবার খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের উদ্যোগে ও খাগড়াছড়ি সদর জোনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। 

এ সময় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার প্রায় ২২০ পরিবারকে এ দেওয়া হয়। এসময় খাগড়াছড়ি সেনা সদর জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর মো. সুলতান মাহমুদ শেখ, ক্যাপ্টেন সাফিন আল সাইফ পলক উপস্থিত ছিলেন।

সহায়তার মধ্যে ছিল প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক লিটার তৈল, ৫ কেজি লবণ, এক কেজি চিনি, একটি সাবানসহ বিভিন্ন দ্রব্যসামগ্রী। এছাড়া করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ করা হয়।

শুধু তাই নয় করোনা মহামারী শুরুর পর থেকেই দেশের সংকটময় মুহূর্তে পার্বত্যাঞ্চলের জনসাধারণের সেবায় এগিয়ে আসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। করোনা মহামারী ও দেশের সংকটাপন্ন অবস্থা শেষ না হওয়া পর্যন্ত দেশের মানুষের সহায়তায় এ মানবিক কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানায় সেনাবাহিনী।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

নওগাঁয় অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিল শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

নওগাঁয় অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিল শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

নওগাঁর মহাদেবপুরের রাইগাঁ ডিগ্রী কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এক অসহায় কৃষকের ধান কেটে মাড়াই করে ঘরে তুলে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। করোনা ভাইরাসের মহামারিতে যখন কৃষক বাবুল হোসেন শ্রমিকের অভাবে জমির ধান কাটতে পারছিলেন না তখন খবর পেয়ে রাইগাঁ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আরিফুর রহমানের নেতৃত্বে ২৫-৩০জন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ ওই কৃষকের ৩ বিঘা জমির ধান কেটে মাড়াই করে ঘরে তুলে দিয়েছেন।

গতকাল রবিবার দুপুরে মহাদেবপুর উপজেলার সহরাই পশ্চিম পাড়া মাঠে গিয়ে দেখা যায় কলেজের অধ্যক্ষ আরিফুর রহমানের নেতৃত্বে কাস্তে হাতে নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা জমিতে নেমে ধান কাটছেন। পরে ওই ধানগুলো কৃষক বাবুলের বাড়িতে এনে মাড়াই করে দিয়েছেন। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তারা ওই কৃষকের জমির সকল ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মহাদেবপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান, একাডেমিক সুপারভাইজার ফরিদুল ইসলাম প্রমুখ। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

অসহায় কৃষক বাবুল হোসেন বলেন, আমি গরীব এবং বয়স্ক মানুষ। করোনা ভাইরাসের কারণে ধান কাটার শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। আবার পাওয়া গেলেও তাদের মজুরী অনেক বেশি। তাই আমার পক্ষে এতো বেশি মজুরী দিয়ে শ্রমিক নিয়ে ধান কাটা সম্ভব নয়। আমার এমন অবস্থার কথা জানতে পেরে রাইগাঁ কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এসে জমির ধান কেটে আমার ঘরে তুলে দিয়েছে। এতে আমি অনেক খুশি। আমি তাদের জন্য মন থেকে দোয়া করছি।

আরও পড়ুন


করোনামুক্ত খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতি: ফখরুল

যে যেখানে আছে, সেখানে থেকেই ঈদ উদযাপনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

এবার নার্সের ‘নিমুরা নিমুরা’ গানের নাচের ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

করোনার ভারতীয় ধরণ, বিপদজনক ভবিষ্যতেরই পূর্বাভাস: কাদের


অধ্যক্ষ আরিফুর রহমান জানান, শুধু কৃষকের ধান কাটাই নয় এমন জনহিতকর কাজ তিনি অনেক আগে থেকেই করে আসছেন। তিনি নিজ উদ্যোগে মুজিব শতবর্ষে বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান এবং রাস্তার দুপাশ দিয়ে প্রায় সাড়ে এগার হাজার ফলদ ও বনজ গাছের চারা রোপন করেছেন।

এছাড়া এলাকায় সবুজায়নের জন্য বিভিন্ন জাতীয় ও গুরুত্বপ‚র্ন দিবসেও দীর্ঘদিন ধরেই তিনি গাছের চারা রোপন করে আসছেন। এসব কাজের পাশাপাশি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক আমার কলেজের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যদের নিয়ে মাঠে গিয়ে অসহায় কৃষকের ধান কাটার কার্যক্রম শুরু করেছি। যতদিন মাঠে ধান আছে ততদিন আমাদের এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। যেখানে খবর পাবো সেখানে গিয়ে আমরা স্বেচ্ছায় ওই কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়ে আসবো।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

মাদারীপুরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে যুবক নিহত

মাদারীপুর প্রতিনিধি

মাদারীপুরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে যুবক নিহত

মাদারীপুরের শিবচরে দুইপক্ষের সংঘর্ষের ঘটপায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাকিব খালাসি (২৪) নামে ব্যক্তি নিহত হয়েছে। শনিবার রাত নয়টার দিকে উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের আর্য্য দত্তপাড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেলে উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের আর্য্য দত্তপাড়া এলাকার বেপারীকান্দি গ্রামের ফারুক খালাসীর ছেলে তাওসিফ (১২) পাশ্ববর্তী মঙ্গল হাওলাদারের আম গাছে ঢিল ছুড়ে। এ নিয়ে বিকেলে কথা কাটাকাটি হয়। 

ওই সূত্র ধরে রাত ৮ টার দিকে মঙ্গল হাওলাদারসহ ৮/১০ জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাওসিফদের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তাওসিফের মা রুবি বেগমকে (৪৫) মারধর করে। বাঁধা দিতে গেলে তাওসিফের ভাই রাকিব খালাসী (২৪) তুলে নিয়ে পাশের কলাবাগানে নিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। এ সময় প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে কালু মিয়া (৩৭), সাবিনা বেগম (৩২), এবং উর্মি বেগম (তৃতীয় লিঙ্গ) আহত হন।

আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে রাকিব ও তার মা রবি বেগমকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। রাত দেড় ১ টার দিকে রাকিব মারা যায়।

নিহতের পিতা ফারুক খালাসী বলেন,'আমার ছেলেকে ওরা ধইরা নিয়া পাশের কলাবাগানে কুপাইয়া মারছে। আমি এই হত্যার বিচার চাই'

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মিরাজ হোসেন বলেন, ' পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।'

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর