শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় যুবককে যাবজ্জীবন

বাগেরহাট প্রতিনিধি

শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় যুবককে যাবজ্জীবন

নিহত শিশু ফারিয়া ও যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত শোয়েব

বাগেরহাটে সদরের পাতিলাখালী গ্রামের প্রথম শ্রেণিতে পড়ুয়া মাদ্রাসা ছাত্রী লামিয়া আক্তার ফারিয়াকে (৭) ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা অভিযোগে মিনহাজুল ইসলাম শোয়েব নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে বাগেরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল- ১ এর বিচারক জেলা জজ মো. সাইফুল ইসলাম। 

আজ বৃহস্পতিবার বিকালে চাঞ্চল্যকর এই মামলার রায় ঘোষণা কালে একমাত্র আসামি ঘাতক মিনহাজুল ইসলাম শোয়েব আদালতে উপস্থিত ছিলেন। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্ত মিনহাজুল ইসলাম শোয়েব পাশ্ববর্তী পিরোজপুর জেলার নামাজপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম ইমনের ছেলে।
 
বাগেরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল- ১ এর আদালতের সরকারী কৌশলী (পিপি) এ্যাডভোকেট সিদ্দিকুর রহমান খান জানান, বিগত ২০১৯ সালের ৫ মে বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়নের পাতিলাখালী ওমর আলী শেখের মেয়ে ও স্থানীয় কোন্ডলা বড়ু বিবি দাখিল মাদ্রাসার প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী লামিয়া আক্তার ফারিয়াকে (৭)  শিশুটিকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে স্থানীয় দিঘিরজান খালের চরে লাশ পুঁতে রাখে হত্যাকারী যুবক মিনহাজুল ইসলাম শোয়েব। ওইদিন রাত ৮টার দিকে স্থানীয়রা শিশু লামিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার করে। পুলিশ শিশুটির লাশ উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। 


মামুনুল হকসহ জতিড়দের গ্রেপ্তারের দাবিতে সিলেটে বিক্ষোভ

যশোরে স্ত্রীর লাঠির আঘাতে স্বামীর মৃত্যু

তিন মাসের মধ্যে করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত

মালদ্বীপের সঙ্গে ৪ সমঝোতা স্মারক সই


এ হত্যায় জড়িত সন্দেহে স্থানীরা নানা বাড়িতে থাকা বখাটে যুবক মিনহাজুল ইসলাম শোয়েবকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। আটক যুবক মিনহাজুল ইসলাম শোয়েব পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে শিশু লামিয়া আক্তার ফারিয়াকে ধর্ষণ- শ্বাসরোধে হত্যার পর খালের চরে লাশ পুতে রাখার কথা স্বীকার করে। এ ঘটনায় ওইদিন রাতে শিশুটির পিতা ওমর আলী শেখ বাদী হয়ে বাগেরহাট মডেল থানায় মিনহাজুল ইসলাম শোয়েবকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

ডাক্তারদের দেয়া ময়নাতদন্তের রিপোর্টের ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার বিষয়টি উল্লেখ থাকার পর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বাগেরহাট মডেল থানায় এসআই হীরন্ময় ওই বছরের ১৩ জুলাই ঘাতক মিনহাজুল ইসলাম শোয়েব ও তার সহযোগী কোন্ডলা গ্রামের মো. সাহেব শেখর ছেলে মিঠু শেখকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্চশীট দাখিল করে। আদালত ১৬ জনের স্বক্ষ্য গ্রহণ শেষে আজ বৃহস্পতিবার বিকালে বিচারক এই রায় প্রদান করেন।  

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

আরও তিন দিনের রিমান্ডে মামুনুল হক

অনলাইন ডেস্ক

আরও তিন দিনের রিমান্ডে মামুনুল হক

হেফাজতে ইসলামের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালে সহিংসতার অভিযোগে আরও এক মামলায় দলটির সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

সোমবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারহানা ফেরদৌস ভার্চ্যুয়াল আদালতের মাধ্যমে এ আদেশ দেন।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরির্দশক আসাদুজ্জামান বলেন, হরতালে নাশকতার আরও একটি মামলায় মামুনুল হককে গ্রেপ্তার দেখিয়ে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন জানালে শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শুনানিতে মামুনুল হক কাশিমপুর কারাগার থেকে ভার্চ্যুয়ালি অংশ নেন।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যা মামলা: আরেক আসামি গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যা মামলা: আরেক আসামি গ্রেফতার

প্রায় পাঁচ বছর পর চট্টগ্রামের মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যায় ‘চাঞ্চল্যকর’ তথ্য সামনে নিয়ে এলো মামলার তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মিতু হত্যার পর মামলার বাদী হয়েছিলেন তার স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তার। পাঁচ বছর পর সেই বাবুল আক্তারই এখন মিতু হত্যা মামলার প্রধান আসামিতে পরিণত হয়েছেন। পিবিআই দাবি করেছে, মিতু হত্যাকাণ্ডে তার স্বামী বাবুল আক্তার সম্পৃক্ত ছিলেন। আর বাবুলের ‘বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের’ জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে।  এদিকে এই হত্যা মামলার এজহার নামীয় আসামি সাইদুল ইসলাম সিকদার প্রকাশ শাকু (৪৫) -কে আটক করেছে র‍্যাব। 

র‌্যাবের পরিচালক (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া) কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বুধবার (১২ মে) রাতে রাংগুনিয়া থেকে সাইদুল ইসলাম সিকদারকে আটক করে র‌্যাব-৭ এর একটি চৌকশ টিম। সাইদুল ইসলাম সিকদার প্রকাশ সাকু মিতু হত্যা মামলার সাত নম্বর আসামি। 

২০১৬ সালের ৫ জুন ভোরে চট্টগ্রাম শহরের জিইসি মোড়ে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় মাহমুদা খানম ওরফে মিতুকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় বুধবার (১২ মে) বাবুল আক্তারসহ আটজনকে আসামি করে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেছেন মিতুর তার বাবা মোশারফ হোসেন।

এ মামলার অপর আসামিরা হলেন- কামরুল ইসলাম শিকদার ওরফে মুসা, এহতেশামুল হক ভোলা, মোতালেব মিয়া ওরফে ওয়াসিম, আনোয়ার হোসেন, খায়রুল ইসলাম ওরফে কালু, সাইফুল ইসলাম সিকদার ওরফে সাকু ও শাহজাহান মিয়া।

এর আগে, মঙ্গলবার (১১ মে) স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পিবিআই। এদিন দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তাকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর বুধবার তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

মিতু হত্যা মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে স্বামী বাবুল আক্তার

অনলাইন ডেস্ক

মিতু হত্যা মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে স্বামী বাবুল আক্তার

পাঁচ বছর পর চাঞ্চল্যকর চট্টগ্রামের মাহমুদা খানম মিতু হত্যার রহস্য উম্মোচন হতে শুরু করেছে। বাবুলকে এক নম্বর আসামি করে মোট ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন। আজ বুধবার পাঁচলাইশ থানায় এ মামলা দায়ের করেন মিতুর বাবা।

পরে মিতুর বাবার দায়ের করা মামলায় স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারকে ৫ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার জাহানের আদালতে বাবুলের ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছিল। পরে ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

আরও পড়ুন


স্ত্রী মিতুকে খুন করতে হত্যাকারীদের ৩ লাখ টাকা দিয়েছিলো বাবুল আক্তার

গণমাধ্যমের শৃঙ্খলা ফেরাতে ঈদের পরই ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী

গাজীপুরে র‍্যাবের গাড়িতে মাইক্রোবাসের ধাক্কা, র‍্যাব সদস্যসহ নিহত ২

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরিতে যাত্রীদের চাপে ৫ জনের মৃত্যু


সাংবাদিকদের মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘বাবুলই তার স্ত্রী মিতুকে হত্যার পরিকল্পনা করেছে। অন্য এক মেয়ের সঙ্গে বাবুলের পরকীয়া ছিল। এ নিয়ে মিতুর সঙ্গে বাবুলের ঝগড়া হয়েছিল।’ 

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে পাঁচলাইশ থানার ও আর নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে বাসার অদূরে গুলি ও ছুরিকাঘাত করে খুন করা হয় মিতুকে। এই ঘটনায় পাঁচলাইশ থানায় বাদী হয়ে স্বামী বাবুল আক্তার একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছিলেন।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

ধর্ষণসহ ৫ মামলায় হেফাজত নেতা মামুনুল হক ১৫ দিনের রিমান্ডে

অনলাইন ডেস্ক

ধর্ষণসহ ৫ মামলায় হেফাজত নেতা মামুনুল হক ১৫ দিনের রিমান্ডে

হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হকের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় দায়ের করা ধর্ষণ ও সহিংসতার পাঁচ মামলায় ৩ দিন করে মোট ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার (১২ মে) সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ুন কবিরের আদালতে এ রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের ইন্সপেক্টর মো. আসাদুজ্জামান।

আরও পড়ুন


নতুন গান নিয়ে এলো প্রবাসী ব্যান্ড ‘এস অ্যান্ড আর’

আল-আকসা মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় প্রধানমন্ত্রীর নিন্দা

বঙ্গবন্ধুকন্যা মানবিক বলেই খালেদা জিয়া জেলের বাইরে চিকিৎসা নিচ্ছেন: কাদের

চীন থেকে আরও ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে চেষ্টা চলছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী


এর আগেও তিন দফা রিমান্ডে নেয়া হয় মামুনুল হককে। পুলিশ দাবি করেছিল, সরকার পতনের জন্য ২০১৩ সালের ৫ মের হেফাজতের তাণ্ডব, কওমি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের সহিংসতায় ব্যবহার, চুক্তিভিত্তিক দুই নারীর সঙ্গে সম্পর্ক করাসহ সাম্প্রতিক সহিংসতার বিষয়ে নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য দিছেছেন তিনি।

গত ১৮ এপ্রিল দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা থেকে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

মিতু হত্যা : জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাবেক এসপি বাবুল আক্তার গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

মিতু হত্যা : জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাবেক এসপি বাবুল আক্তার গ্রেফতার

পাঁচ বছর আগে চট্টগ্রামে স্ত্রী মিতু হত্যা মামলায় সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

মঙ্গলবার (১১ মে) সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতরা করা হয়। এর আগে মিতু হত্যা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকা থেকে বাবুল আক্তারকে চট্টগ্রামে নেওয়া হয়।

২০১৬ সালের ৫ জুন ভোরে চট্টগ্রাম শহরের জিইসি মোড়ে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় কুপিয়ে এবং গুলি করে হত্যা করা হয় মাহমুদা খানম মিতুকে। তিনি সে সময়ের পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী ছিলেন। 

ঘটনার সময় পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার অবস্থান করছিলেন ঢাকায়। চট্টগ্রামে ফিরে তিনি পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এর কিছুদিন পর বাবুল আক্তারের শ্বশুর মোশাররফ হোসেন মিতু হত্যাকাণ্ডের জন্য বাবুলকে দায়ী করেন। প্রথম দিকে মামলাটি ডিবি তদন্ত করলেও ২০২০ সাল থেকে মামলাটি তদন্ত করছে পিবিআই।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর