রংপুরে ৩ হাজার কেজি পলিথিন জব্দ

রেজাউল করিম মানিক, রংপুর

রংপুরে ৩ হাজার কেজি পলিথিন জব্দ

রংপুর নগরীর নবাবগঞ্জ বাজার এলাকায় মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চারটি পলিথিনের দোকান ও তাদের গুদামে অভিযান চালিয়ে সর্বমোট ১৫২ বস্তা পলিথিন (মোট ওজন ৩০৪০ কেজি) জব্দ করেছে। জব্দ পলিথিনের মূল্য প্রায় দশ লাখ টাকা বলে জানা গেছে।

সোমবার বিকেলে রংপুর মেট্টোপলিটন ডিবি কার্যালয়ে উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে গতকাল রোববার রাতে নবাবগঞ্জ বাজার এলাকায় কয়েক ঘণ্টার সাড়াশি অভিযানে এসব জব্দ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রংপুর নগরীর নবাবগঞ্জ বাজার এলাকায় অভিযান চালায় ডিবি পুলিশ। এতে চারটি পলিথিনের দোকান ও তাদের গুদামে অভিযান চালিয়ে সর্বমোট ১৫২ বস্তা পলিথিন জব্দ করা হয়।


ধান ক্ষেতে ফেলে গৃহবধূকে পেটানোর ভিডিও ভাইরাল

কিশোরীকে গণধর্ষণের পর ৬০ টাকা ধরিয়ে দিল অভিযুক্তরা

অস্ট্রেলিয়ার পূর্ব উপকূলে ভয়াবহ বন্যা সতর্কতা

বিএনপি যুদ্ধাপরাধীদের প্রতিষ্ঠিত করেছে: চীফ হুইপ


তিনি আরও বলেন, অভিযানে শালবন মিস্ত্রিপাড়ার আলাউদ্দিনের ছেলে ওবায়দুল ইসলাম , এর মেসার্স নয়ন স্টোর ও গোডাউন ঘর তল্লাশি করে ষাট বস্তা পলিথিন উদ্ধার করা হয়। যার মূল্য প্রায় তিন লাখ ষাট হাজার টাকা। নবাবগঞ্জ বাজার এলাকার আমান উল্ল্যাহ খান এর দোকান ও গোডাউন থেকে ষাট বস্তা, এছাড়াও ফরিদ নামে এক ব্যবসায়ীর ভাড়ায় চালিত
গোডাউন ঘর তল্লাশি করে চব্বিশ টি পুরাতন প্লাস্টিকের বস্তার ভেতরে চারশ' আশি কেজি (যার মূল্য এক লক্ষ চুয়াল্লিশ হাজার টাকা) এবং হনুমানতলা এলাকার আবু তাহেরের গোডাউন ঘর তল্লাশী করে ৮ টি পুরাতন প্লাষ্টিকের বস্তা থেকে একশত ষাট কেজি পলিথিন জব্দ করা হয়।

অভিযানে সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি) ফারুক আহমেদ নেতৃত্বে ইন্সপেক্টর সালেহ আহমেদ পাঠান, এবিএম ফিরোজ ওয়াহিদ, এসআই গোলাম মোর্সেদ, এসআই তছলিম উদ্দিন আহমেদ, এসআই নাজমুল ইসলাম, এসআই আবু ছাইয়ুম তালুকদার, এসআই লাকু সরকার এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি অংশ নেন।

জব্দ পলিথিনের উৎপাদন, মজুদ, পরিবহন ও বাজারজাতকরণ থেকে খুচরা বিক্রির সাথে জড়িত সকলকে বিস্তৃত ও নিবিড় তদন্তের মাধ্যমে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে রংপুর মেট্টোপলিটন ডিবি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ, নারীসহ গ্রেপ্তার ৩

অনলাইন ডেস্ক

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ, নারীসহ গ্রেপ্তার ৩

প্রতীকী ছবি।

বিয়ের প্রলোভনে এক স্কুলছাত্রীকে (১৫) ধর্ষণ ও ধর্ষণের ভিডিও ধারণের অভিযোগ পাওয়া গেছে পাবনার চাটমোহরে। এ ঘটনায় পুলিশ ওই স্কুলছাত্রীর প্রেমিক, এক নারী সহযোগীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এর আগে, ওই স্কুলছাত্রীর মা এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করেন 

আটককৃতরা হলেন - চাটমোহর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের শাহজাহান আলীর ছেলে ও স্কুলছাত্রীর কথিত প্রেমিক সাজেদুল ইসলাম (৩৬) ও তার সহযোগী ফরিদপুর উপজেলার রামনগর উত্তরপাড়া গ্রামের আমির হোসেনের স্ত্রী সাহেদা খাতুন (৪২)। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, প্রায় তিন বছর আগে নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার ওই স্কুলছাত্রীর সঙ্গে মোবাইলের মাধ্যমে প্রেম হয় সাজেদুল ইসলামের। গত বুধবার (১৬ জুন) সকালে সাজেদুল ওই স্কুলছাত্রীকে চাটমোহরে আসতে বলেন। স্কুলছাত্রী চাটমোহরে আসলে সাজেদুল তাকে পৌর শহরের নারিকেলপাড়া মহল্লায় নিজাম উদ্দিনের ভাড়াটিয়া ও তার আত্মীয় সাহেদা খাতুনের বাসায় নিয়ে আসেন। সেখানে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার ধর্ষণ করে এবং সেই দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করেন। ওই স্কুলছাত্রী বিয়ের কথা বললে তাকে বাসা থেকে বের করে দিয়ে ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। 

এনিয়ে স্কুলছাত্রীর সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে বিষয়টি জানতে বাড়ির মালিক নিজাম উদ্দিনসহ স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। তারা ওই স্কুলছাত্রীর বাবা-মা ও পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার ও অভিযুক্ত দুজনকে আটক করে।

চাটমোহর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাসান বাশীর জানান, মামলা হওয়ার পর দুজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:


শনিবার থেকে সিনোফার্মের টিকাদান কার্যক্রম শুরু

ব্রাজিলের কাছে পাত্তাই পেল না পেরু

আবারও গাজায় বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী

নন্দীগ্রামের ভোটের ফলাফল নিয়ে হাইকোর্টে মমতা


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

শেরপুরে কিশোরীকে গণধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার

শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুরে কিশোরীকে গণধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার

শেরপুরের শ্রীবরদীতে কিশোরীকে (১৪) গণধর্ষণের ঘটনায় সুন্দর আলী (৩৮) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  আজ শুক্রবার (১৮ জুন) ভোরে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সুন্দর আলী উপজেলার চুকচুকি গ্রামের লংগর আলীর ছেলে। শুক্রবার বিকেলে গ্রেপ্তারকৃত সুন্দর আলীকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

জানা যায়, গত ১৬ জুন বুধবার বিকেলে শ্রীবরদী উপজেলার বালিঝুড়ি খ্রিস্টানপাড়া পাহাড়ি এলাকার জনৈক কৃষকের কিশোরী কন্যা ছোট ভাইকে সাথে নিয়ে বাড়ির অদূরে পাহাড়ে থাকা তার খালুর করলা ক্ষেতে করলা তুলতে যায়। ওই সময় একই এলাকার সুন্দর আলীসহ সঙ্গীয় তিনজন মিলে ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। 

ওই ঘটনায় কিশোরীর পিতা বাদী হয়ে ধর্ষণে সম্পৃক্ত ৪ জনকে আসামি করে শ্রীবরদী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পরে শুক্রবার পুলিশ সুন্দর আলীকে গ্রেপ্তার করে। অপর ৩ আসামি পলাতক রয়েছে।

এ ব্যাপারে শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিপ্লব কুমার বিশ্বাস জানান, ওই ঘটনায় ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষা ও আদালতে জবানবন্দির জন্য পাঠানো হয়েছে। ইতোমধ্যে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

আরও পড়ুন:


শনিবার থেকে সিনোফার্মের টিকাদান কার্যক্রম শুরু

ব্রাজিলের কাছে পাত্তাই পেল না পেরু

আবারও গাজায় বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী

নন্দীগ্রামের ভোটের ফলাফল নিয়ে হাইকোর্টে মমতা


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

যুবককে পায়ে পেরেক ঢুকিয়ে নির্যাতন!

অনলাইন ডেস্ক

যুবককে পায়ে পেরেক ঢুকিয়ে নির্যাতন!

চোর সন্দেহে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে তার পায়ে পেরেক ও সুঁচ ঢুকিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করার অফিযোগ উঠেছে। এ ঘটনা ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে বগুড়ার কাহালু উপজেলা অহর মালঞ্চা গ্রামে। ওই যুবককের নাম আতাইর রহমান শিরু (২৪)।

নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পাওয়ায় এলাকায় ব্যাপক সমালোচনা চলছে।

ঘটনার শিকার শিরুর বাবা মজনু সোনার বাদী হয়ে কাহালু থানায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। আগের দিন বুধবার (১৬ জুন) গভীর রাতে কাহালু উপজেলার অহর মালঞ্চা গ্রামে শিরুকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে নিয়ে গিয়ে এ নির্যাতন চালানো হয় বলে পরিবারের অভিযোগ।

শিরুর বাবা মজনু সোনার বলেন, গত বুধবার (১৬ জুন) গভীর রাতে শিরুকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে নিয়ে যান একই গ্রামের সেলিনা, আছিয়াসহ তার পরিবারের পাঁচ-ছয়জন। পরে তাকে সেলিনার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শিরুকে গ্যাস সিলিন্ডার চুরির অভিযোগে প্রথমে হাত-পা বেঁধে মারধর করা হয়। পরে তার আঙুলে সুঁচ ও বাম পায়ে হাতুড়ি দিয়ে লোহার পেরেক ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে কাহালু থানা পুলিশ শিরুকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

জানা গেছে, গত বুধবার রাতে গ্যাস সিলিন্ডার চুরি হয় অভিযুক্তদের বাড়ি থেকে। এরপর তারা চোর সন্দেহে শিরুকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে নিয়ে নির্যাতনের এই ঘটনা ঘটে। 

এদিকে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া তিন মিনিট ছয় সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা গেছে, শার্ট পরা  লাঠি হাতে এক ব্যক্তি আতাউর রহমান শিরুর দুই পা বেঁধে নির্যাতন করছেন। আর চারপাশে স্থানীয়রা তা দেখছে। ভিডিওটি প্রকাশিত হওয়ার পর এলাকার সর্বত্র ব্যাপক সমালোচনা শুরু হলেও পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

এ ব্যাপারে কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমবার হোসেন বলেন, 'নির্যাতনের ঘটনায় শিরুর বাবা বাদী হয়ে থানায় পাঁচজনের নামে মামলা করেছেন। নির্যাতনকারীদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।'

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

মমেক হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযান, ১৩ দালাল আটক

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

মমেক হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযান, ১৩ দালাল আটক

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে দালালচক্রের ১৩ সদস্যকে আটক করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)-১৪। বৃহস্পতিবার সকালে হাসপাতালের জরুরি বিভাগ ও বর্হিবিভাগ বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলো- নগরীর চরপাড়া এলাকার এনায়েত কবির (৪২), একই এলাকার মনোয়ার হোসন (৪২), রতন মিয়া (৪৫), মনির হোসেন (৩৭), মাসুদুল করিম, দিঘারকান্দা এলাকার ফিরোজ মিয়া (৫০), মাসকান্দার আলাল উদ্দিন (৬০), শিকারীকান্দার নজরুল ইসলাম (৪০), সদরের সিরতা আলা উদ্দিন (৫৫), বাঘমারা এলাকার টুটুল আহমেদ শরীফ (৩৭), সদরের বোররচর এলাকার সোহেল মিয়া (৩১), কালীবাড়ি এলাকার আলমগীর হোসেন (৪২) ও বড়ভিলা এলাকার আসাদুল ইসলাম মিশু (২৭)।

র‌্যাব জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৪’র সদস্যরা হাসপাতালে গিয়ে দুই ঘন্টা তল্লাশী চালিয়ে বিভিন্ন ওয়ার্ড ও জরুরি বিভাগের সামনে থেকে তাদের আটক করে। আটকরা সবাই মমেক বিভিন্ন বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও অ্যাম্বুলেন্স সিন্ডিকেটের সক্রিয় দালাল।

আরও পড়ুন:


ঠাকুরগাঁওয়ে ঋণের চাপে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

মালয়েশিয়ায় করোনায় প্রবাসীর মৃত্যু


র‍্যাব সহকারী পরিচালক ও মিডিয়া অফিসার আনোয়ার হোসেন জানান, সম্প্রতি মমেক হাসপাতালে দালালের দৌরাত্ম বেড়েছে বলে আমরা অভিযোগ পেয়েছি। তারা ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বেসরকারি ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগীদের নানাভাবে হয়রানি করে আসছিল। অসহায় রোগীদের সরকারি ওষুধ দেওয়ার কথা বলে ও উন্নত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেওয়ার নামে হাতিয়ে নিতো টাকা।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

গোসলের ভিডিও ধারণ করে গৃহবধূকে ব্ল্যাকমেইল করে ধর্ষণ, অতঃপর

রেজাউ করিম মানিক, রংপুর :

গোসলের ভিডিও ধারণ করে গৃহবধূকে ব্ল্যাকমেইল করে ধর্ষণ, অতঃপর

রংপুরে নগরীতে গৃহবধূর গোসলের ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করে ধর্ষণ ও টাকা আদায়ের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আরিফুল ইসলাম নামের এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার (১৬ জুন) বিকেলে ঠাকুরগাঁও থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে রংপুুুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (মাহিগঞ্জ জোন) আল ইমরান হোসেন। আসামি নগরীর হারাগাছ থানাত বাহার কাছনা এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সিগারেট কোম্পানি বাহার কাছনা এলাকার এক গৃহবধূর গোসলের ভিডিও গোপনে ধারণ করেন একই এলাকার আরিফুল ইসলাম। এরপর সেই গোসলের ভিডিও দেখিয়ে আরিফুল ওই গৃহবধূর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা না দিলে ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেন। সংসার বাঁচাতে বিষয়টি গোপন রেখে জমি কেনার জন্য জমা করা ৪০ হাজার টাকা আরিফুলকে দেন ওই গৃহবধূ। 

একই সঙ্গে ভিডিওটি ফেসবুকে না ছড়ানোর জন্য অনুরোধ করেন। এর কিছুদিন পর ফের ওই গৃহবধূকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৬০ হাজার টাকা আদায় করেন আরিফুল। ৯ এপ্রিল রাতে স্বামীর অনুপস্থিতিতে ওই গৃহবধূর বাড়িতে ঢুকে আরও ১০ হাজার টাকা দাবি করেন আরিফুল। ওই সময় চিৎকার করলে ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেন এবং একপর্যায়ে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন আরিফুল।

পরদিন একইভাবে ওই গৃহবধূর বাড়িতে ঢুকে ধর্ষণ করেন এবং ধর্ষণের ভিডিওটি মুঠোফোনে ধারণ করেন। পরে কয়েকজন বন্ধুকে ধর্ষণের ভিডিওটি দেখান আরিফুল। এরপর বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়।

পরে ওই গৃহবধূ ঘটনাটি জানালে আত্মসম্মান রক্ষায় পরিবারের লোকজন ঘটনাটি আরিফুলের পরিবারকে জানায়। কিন্তু স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করার কথা বলে কালক্ষেপণ করেন আরিফুলের প্রভাবশালী বাবা আব্দুর রাজ্জাক ও তার দুই চাচা। পরে উপায়ন্ত না পেয়ে ওই গৃহবধূ পরিবারের পরামর্শে গত রোববার (১৩ জুন) রাতে আরিফুলসহ চারজনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন এবং পর্নগ্রাফী আইনে মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর আব্দুর রাজ্জাককে গ্রেপ্তার করা হলেও আরিফুল গা ঢাকা দেন।

সহকারী পুলিশ কমিশনার (মাহিগঞ্জ জোন) আল ইমরান হোসেন জানান, তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ঠাকুরগাঁও থেকে আসামি আরিফুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন


পরীমনি কেনো এতো রাতে বোট ক্লাবে যাবে: সোহান (ভিডিও)

ক্লাবে ঢুকে মদ না পেয়ে তারা ভাঙ্গচুড় চালায় : ক্লাব কর্তৃপক্ষ (ভিডিও)

অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ অস্বীকার করলেন পরীমনি (ভিডিও)

মদ পানে গভীর রাতে যুবক-যুবতী নিয়ে ক্লাবে যেতেন পরীমনি


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর