রাজশাহীতে সড়কে ১৭ জন নিহতের ঘটনায় মামলা, আসামি গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজশাহীতে সড়কে ১৭ জন নিহতের ঘটনায় মামলা, আসামি গ্রেপ্তার

রাজশাহীর কাটাখালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৭ জন নিহতের ঘটনায় একমাত্র আসামি হানিফ পরিবহনের চালক আবদুর রহীমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ দুপুরে বেলপুকুর থানার মাহিন্দ্র বাইপাস এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার মো. গোলাম রুহুল কুদ্দুস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কাটাখালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৭ জন নিহতের ঘটনায় শুক্রবার (২৬ মার্চ) রাতে নগরীর কাটাখালি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নূর মোহাম্মদ বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। মামলা নম্বর-৩১। 


কাল রাস্তা বের হলেই গণধোলাই দেয়া হবে: ছাত্রলীগ সভাপতি

হেফাজতের হরতালে সমর্থন, সঙ্গে ৬টি দাবি জানাল ইসলামী আন্দোলন

হাটহাজারীতে সংঘর্ষের মরদেহ নিয়ে তিন দফা বৈঠকেও সিদ্ধান্ত হয়নি

সাফল্যের বিচিত্র ধারায় এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ

আজও করোনায় দেশে ৩৯ জনের প্রাণহানি


মামলায় ওই বাসচালককে একমাত্র আসামি করা হয়। পরে আজ দুপুর ২টার দিকে মহানগরীর উপকণ্ঠ বেলপুকুর থানার মাহিন্দ্র বাইপাস এলাকা থেকে হানিফ পরিবহনের চালক আবদুর রহীমকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও জানান, গ্রেপ্তার আবদুর রহীম পুঠিয়া উপজেলার বাড়ইপাড়া এলাকার ফজলুল হকের ছেলে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভাড়া না দিতে পারায় সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের করে দিল মালিক, রাতে গণধর্ষণের শিকার নারী

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর

ভাড়া না দিতে পারায় সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের করে দিল মালিক, রাতে গণধর্ষণের শিকার নারী

গাজীপুরের শ্রীপুরে নারী পোশাক শ্রমিককে গণধর্ষণের অভিযোগে সুলতান উদ্দিন নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গেল গভীর রাতে তাকে উপজেলার তেলিহাটির মুলাইদ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়াও ধর্ষণের শিকার ওই নারী পোশাক শ্রমিক আরো তিনজনের নাম উল্লেখ থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, ওই নারী পোশাক শ্রমিক মুলাইদ এলাকায় একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। পরে ভাড়া না দিতে পারায়, ওই বাড়িওয়ালা তাকে ১৮ এপ্রিল সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে রাতে থাকার সন্ধানে সড়কে একা ঘুরতে থাকলে স্থানীয় মিজান উদ্দিনসহ চারজন তাকে তুলে নিয়ে যায়।


মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনির ১মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ভাইরাল

ডাক্তার-পুলিশের এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত: হাইকোর্ট

একদিনে করোনা শনাক্ত ৪৫৫৯

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯১ জন


পরে মিজান উদ্দিনের বাড়িতে ওই নারী পোশাক শ্রমিককে পালাক্রমে গণধর্ষণ করেন তারা। এ ঘটনায় মামলা হওয়ার পর অভিযান চালিয়ে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বাকী আসামিদের গ্রেপ্তারেও অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ময়মনসিংহে ব্যবসায়ী-পুলিশ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

ইউএনও ও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে ব্যবসায়ী-পুলিশ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের সাথে ব্যবসায়ীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে লকডাউনে কড়াকড়ি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে গেলে ব্যবসায়ীদের সাথে এই সংঘর্ষ হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা শহরের বড় মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মনসুর লকডাউনে স্থানীয় বড় মসজিদ মার্কেটে গিয়ে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করতে নির্দেশ দেন। এ সময় তার সঙ্গে দোকানদারদের বাক-বিতণ্ডার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তখন দোকান ফেলে ব্যবসায়ীরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় পুলিশ চড়াও হলে ব্যবসায়ীদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে বিক্ষোব্ধ ব্যবসায়ীরা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এক পর্যায়ে ব্যবসায়ীদের ইট-পাটকেল নিক্ষেপে পিছু হটে পুলিশ। পরে ব্যবসায়ীরা বড় মসজিদের সামনে অবস্থান নেয়।


মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনির ১মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ভাইরাল

ডাক্তার-পুলিশের এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত: হাইকোর্ট

একদিনে করোনা শনাক্ত ৪৫৫৯

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯১ জন


তবে ঘটনার বিষয় অস্বীকার করে মুক্তাগাছা থানার ওসি মোহাম্মদ দুলাল আকন্দ বলেন, ‘সরকারের নির্দেশনা পালনে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। বড় মসজিদের সামনে ব্যবাসয়ীদের লকডাউন সম্পর্কে বুঝানো হয়েছে। এর পর তারা ব্যবসায়ীদের বুঝিয়ে থানায় চলে যান। কোনো ধরনের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেনি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মনসুর বলেন, ‘সরকারের নিয়মিত ডিউটি পালন করতে বড় মসজিদ মার্কেটে যাওয়া হয়। এ সময় লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে ব্যবসায়ীদের বোঝানো হয়। এরপর কী ঘটনা ঘটেছে এটা তার জানা নেই।’

তবে একাধিক ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, চলতি লকডাউনে প্রশাসনের পক্ষ থেকে যখন যার যেভাবে যেমন ইচ্ছা তথন সেভাবেই তারা নানা কথা বলছেন। সে জন্য ছোট ছোট দোকানদার ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মাঝে বিভিন্ন ধরনের ক্ষোভ রয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খোলা রেখে বেঁচে থাকার জন্যই ব্যবসা বাণিজ্য চালু রাখতে চান বলে তারা জানান।

news24bd.tv তৌহিদ 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

তরুণীকে ধর্ষণ এবং অন্তঃসত্ত্বা হলে গর্ভপাতের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

অনলাইন ডেস্ক

তরুণীকে ধর্ষণ এবং অন্তঃসত্ত্বা হলে গর্ভপাতের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

বিয়ের আশ্বাস দিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে।

ওই তরুণী গতকাল সোমবার রাতে জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন বরিশাল নগর পুলিশের বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ হালদার।

তিনি আজ মঙ্গলবার দুপুরে বলেন, ওই তরুণী ছাত্রলীগের নেতা জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি প্রাথমিকভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। সত্যতা পেলে মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হবে।

তবে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন অভিযোগটিকে মিথ্যা দাবি করেন।


মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনির ১মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ভাইরাল

ডাক্তার-পুলিশের এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত: হাইকোর্ট

একদিনে করোনা শনাক্ত ৪৫৫৯

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯১ জন


তিনি বলেন, ওই তরুণী তাঁর আত্মীয়। তিনি গত রোববার বিয়ে করেছেন। এরপরই অজ্ঞাত কারণে ওই তরুণী তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ তুলেছেন। জসিমের দাবি, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তাঁকে ফাঁসাতে ওই তরুণীকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করিয়েছে।

লিখিত অভিযোগে তরুণী উল্লেখ করেছেন, ২০১৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর জসিম উদ্দিন তাঁর বাসায় ঢুকে তাঁকে ধর্ষণ করেন। এরপর বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে গিয়ে জসিম তাঁকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হলে তাঁকে গর্ভপাতের ওষুধ খাওয়ানো হয় এবং নগরের সদর হাসপাতালে নিয়ে গর্ভপাত করানো হয়।

এরপর তিনি জসিম উদ্দিনকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে গত ৫ মার্চ জসিম দুদিনের মধ্যে তাঁকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তবে পরে জসিম তরুণীকে জানিয়ে দেন, তিনি বিবাহিত। তাঁকে (তরুণী) বিয়ে করা সম্ভব নয়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রবাসীর স্ত্রীকে শ্বশুরবাড়িতেই ধর্ষণের পর হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

প্রবাসীর স্ত্রীকে শ্বশুরবাড়িতেই ধর্ষণের পর হত্যা

সাউথ আফ্রিকা প্রবাসীর স্ত্রীকে শ্বশুরবাড়িতে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার রাতে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ১৩নং বাঁশতৈল ইউনিয়নের একটি বাড়ি থেকে দুই হাত পেছনে বাঁধা ও ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বাড়ির  আশপাশের লোকজন তার লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে পুলিশকে খবর দেন। রাতে মির্জাপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

ঘটনার পর থেকেই বাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে বলে জানা গেছে।

ওই গৃহবধূর পিতা জানান, মেয়ের জামাই সাউথ আফ্রিকায় থাকায় বাড়ির লোকজনদের দেখাশোনার জন্য তার মেয়ে শ্বশুরবাড়িতেই বেশিরভাগ সময় থাকতো। রোজার কয়েক দিন আগে তার মেয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে তাদের বাড়িতে বেড়াতে আসে। দুই দিন আগে আবার শ্বশুরবাড়ি চলে যায়।

তিনি অভিযোগ করেন, তার মেয়ের নুনাসের জামাই বিভিন্ন সময় তার মেয়েকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। আমার মেয়ে আমাকে সব ঘটনা মোবাইল ফোনে কয়েক দিন আগে জানায়। নুনাসের জামাইয়ের কুপ্রস্তাবের কথা আমার মেয়ের মোবাইলে রেকর্ডিং করা আছে বলে আমাদের জানিয়েছিল। আমার মেয়েকে ধর্ষণ করার পর হত্যা করা হয়েছে।

তিনি জানান, সোমবার রাতে পরিকল্পিতভাবে তার মেয়েকে খুন করে ওড়না দিয়ে দুই হাত পিছনে বেঁধে লাশ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ওসি মো.রিজাউল হক বলেন, দুই হাত ওড়না দিয়ে পেঁচানো অবস্থায় গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সালথায় তাণ্ডব : সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

সালথায় তাণ্ডব : সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গ্রেফতার

ফরিদপুরের সালথায় সহিংস তাণ্ডবের ঘটনায় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ওয়াহিদুজ্জামানকে (৪০) গ্রেফতার করেছে ওয়াহিদুজ্জামানকে (৪০) গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ। সোমবার রাত ৮টার দিকে ডিবি পুলিশের একটি দল ফরিদপুর শহরের ঝিলটুলি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

সালথার তাণ্ডবের ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় ওয়াহিদকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ। ওয়াহিদ উপজেলার ভাওয়াল ইউনিয়নের ইউসুফদিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল হাই মোল্যার ছেলে।

বিষয় নিশ্চিত করে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলীমুজ্জামান বলেন, সালথায় সরকারি অফিসে তাণ্ডবের ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া সাত আসামির আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে ওয়াহিদের নাম ওঠে আসায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাণ্ডবের ঘটনায় সালথা থানা পুলিশের এসআই মিজানুর রহমানের দায়ের করা মামলায় ওয়াহিদকে গ্রেফতার দেখিয়ে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, লকডাউনকে কেন্দ্র করে ও পরে নানা গুজব ছড়িয়ে গত ৫ এপ্রিল সোমবার রাতে সালথা উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন সরকারি অফিসে তাণ্ডব চালায় কয়েক হাজার উত্তেজিত জনতা। এ সময় দু’টি সরকারি গাড়িসহ কয়েকটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয় তারা। এতে প্রায় আড়াই কোটি টাকার সম্পদ ধ্বংস হয়েছে।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত সালথা থানায় মোট সাতটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে মোট ৩৬৪ জনকে এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়েছে। অজ্ঞাতনামা আসামি দেখানো হয়েছে আরও কয়েক হাজার জনকে। এসব মামলায় মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মোট ৯৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে ৯৫ জনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। 

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর