মতিঝিলে সংঘর্ষের মামলায় ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতা মাজহারুলের স্বীকারোক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক

মতিঝিলে সংঘর্ষের মামলায় ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতা মাজহারুলের স্বীকারোক্তি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে গত ২৫ মার্চ সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরুর নেতৃত্বে রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করা হয়।

যুব অধিকার ও ছাত্র অধিকারের নেতা-কর্মীদের এ মিছিলে পুলিশ বাধা দিলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে পুলিশ বাহিনীর সাত সদস্য আহত হন। ছাত্র অধিকার ও যুব অধিকার পরিষদের অন্তত ৪৫ জন আহত হন। এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে ৫১ জনের নাম উল্লেখ করে মতিঝিল থানায় মামলা হয়। এই মামলায় আজ ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র অধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম।


সিরিজ বাঁচাতে পারলো না বাংলাদেশ

হেফাজতের হরতালের সহিংসতায় ৬টি মামলা

গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

তারল্য সংকট মোকাবেলায় বৈশ্বিক পদক্ষেপ জরুরি : প্রধানমন্ত্রী


আদালত আসামির জবানবন্দি নিয়ে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। 

জানা গেছে, একই মামলায় গ্রেপ্তার ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আল আমিনসহ পাঁচজনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। দুই দিনের রিমান্ড শেষে তাদের আজ আদালতে হাজির করা হয়। মামলার নথি বলছে, এই ঘটনায় এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আছেন ৩৭ জন।

এর আগে গত শুক্রবার একই মামলায় ঢাকার আদালত গ্রেপ্তার ৩০ জনকে দুইদিন দিন করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দিয়েছিলেন। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সাংবাদিক রোজিনার রিমান্ড নামঞ্জুর

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাংবাদিক রোজিনার রিমান্ড নামঞ্জুর

চুরি ও অফিসিয়াল সিক্রেটস আইনের করা মামলায় দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। এ বিষয়ে আগামী বৃহস্পতিবার জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

আজ সকালে ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসিম শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

আগামী ২০ মে রোজিনা ইসলামের জামিন শুনানি হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘শাহবাগ থানায় দায়ের হওয়া মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আরিফুর রহমান সরদার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিলেন। বিচারক রিমান্ড মঞ্জুর করেননি। তিনি সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।’

আসামিপক্ষের আইনজীবী প্রশান্ত কুমার কর্মকার সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের জামিনের আবেদন করেন। অপরদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু বিরোধিতা করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক রিমান্ড নামঞ্জুর করেন। 

আজ বেলা ১১টার একটু পরে সিএমএম আদালতে তোলা হয়ে রোজিনাকে। এর আগে তাকে শাহবাগ থানা থেকে আদালতে নেওয়া হয়। সকাল ৮টার দিকে রোজিনা আদালতে পৌঁছান। সে সময় তাকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়।


স্বাস্থ্য বিভাগের পিয়ন থেকে শুরু করে ওপরের সবাই কোটি কোটি টাকার মালিক

যুদ্ধবিরতির জন্য ফিলিস্তিনিদের শর্ত মেনে নিতে বাধ্য হবে ইসরাইল: হামাস

রোজিনার মুক্তির দাবিতে শাহবাগ থানার সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

আরশের ছায়াতলে আশ্রয় পাবেন যে সাত ব্যক্তি


উল্লেখ্য, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যান। সেখানে বিকেল তিনটার দিকে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাঁকে একটি কক্ষে আটক করেন। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রোজিনা ইসলামকে শাহবাগ থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রোজিনা ইসলামকে ৯টার দিকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তার বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার রাতে শাহবাগ থানায় মামলাটি করা হয়েছে। মামলার বাদী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী।

সাংবাদিক রোজিনার পাঁচ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আদালতে নেওয়া হয়েছে

রোজিনার মুক্তির দাবিতে শাহবাগ থানার সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সাংবাদিক রোজিনার পাঁচ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাংবাদিক রোজিনার পাঁচ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ

রোজিনা ইসলাম

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের পাঁচ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এমনটাই জানিয়েছেন।

আজ সকালে তাকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে হাজির করা হয়। 
এখনো তাকে এজলাসে তোলা হয়নি।

বিস্তারিত আসছে...

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আদালতে নেওয়া হয়েছে

রোজিনার মুক্তির দাবিতে শাহবাগ থানার সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আদালতে নেওয়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আদালতে নেওয়া হয়েছে

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে নেওয়া হয়েছে। 

আজ সকাল ৮টার দিকে শাহবাগ থানা থেকে তাকে পুরান ঢাকার সিএমএম আদালতে নেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যান। সেখানে বিকেল তিনটার দিকে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাঁকে একটি কক্ষে আটক করেন। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রোজিনা ইসলামকে শাহবাগ থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রোজিনা ইসলামকে ৯টার দিকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তার বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার রাতে শাহবাগ থানায় মামলাটি করা হয়েছে। মামলার বাদী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী।


যুদ্ধবিরতির জন্য ফিলিস্তিনিদের শর্ত মেনে নিতে বাধ্য হবে ইসরাইল: হামাস

রোজিনার মুক্তির দাবিতে শাহবাগ থানার সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

আরশের ছায়াতলে আশ্রয় পাবেন যে সাত ব্যক্তি


পুলিশের রমনা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, এই মামলায় রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আরও তিন দিনের রিমান্ডে মামুনুল হক

অনলাইন ডেস্ক

আরও তিন দিনের রিমান্ডে মামুনুল হক

হেফাজতে ইসলামের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালে সহিংসতার অভিযোগে আরও এক মামলায় দলটির সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

সোমবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারহানা ফেরদৌস ভার্চ্যুয়াল আদালতের মাধ্যমে এ আদেশ দেন।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরির্দশক আসাদুজ্জামান বলেন, হরতালে নাশকতার আরও একটি মামলায় মামুনুল হককে গ্রেপ্তার দেখিয়ে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন জানালে শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শুনানিতে মামুনুল হক কাশিমপুর কারাগার থেকে ভার্চ্যুয়ালি অংশ নেন।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যা মামলা: আরেক আসামি গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যা মামলা: আরেক আসামি গ্রেফতার

প্রায় পাঁচ বছর পর চট্টগ্রামের মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যায় ‘চাঞ্চল্যকর’ তথ্য সামনে নিয়ে এলো মামলার তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মিতু হত্যার পর মামলার বাদী হয়েছিলেন তার স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তার। পাঁচ বছর পর সেই বাবুল আক্তারই এখন মিতু হত্যা মামলার প্রধান আসামিতে পরিণত হয়েছেন। পিবিআই দাবি করেছে, মিতু হত্যাকাণ্ডে তার স্বামী বাবুল আক্তার সম্পৃক্ত ছিলেন। আর বাবুলের ‘বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের’ জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে।  এদিকে এই হত্যা মামলার এজহার নামীয় আসামি সাইদুল ইসলাম সিকদার প্রকাশ শাকু (৪৫) -কে আটক করেছে র‍্যাব। 

র‌্যাবের পরিচালক (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া) কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বুধবার (১২ মে) রাতে রাংগুনিয়া থেকে সাইদুল ইসলাম সিকদারকে আটক করে র‌্যাব-৭ এর একটি চৌকশ টিম। সাইদুল ইসলাম সিকদার প্রকাশ সাকু মিতু হত্যা মামলার সাত নম্বর আসামি। 

২০১৬ সালের ৫ জুন ভোরে চট্টগ্রাম শহরের জিইসি মোড়ে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় মাহমুদা খানম ওরফে মিতুকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় বুধবার (১২ মে) বাবুল আক্তারসহ আটজনকে আসামি করে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেছেন মিতুর তার বাবা মোশারফ হোসেন।

এ মামলার অপর আসামিরা হলেন- কামরুল ইসলাম শিকদার ওরফে মুসা, এহতেশামুল হক ভোলা, মোতালেব মিয়া ওরফে ওয়াসিম, আনোয়ার হোসেন, খায়রুল ইসলাম ওরফে কালু, সাইফুল ইসলাম সিকদার ওরফে সাকু ও শাহজাহান মিয়া।

এর আগে, মঙ্গলবার (১১ মে) স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পিবিআই। এদিন দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তাকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর বুধবার তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর