যারা দেশের বাড়ি গেছেন এবং দেশের বাড়িতে আছেন....

অনলাইন ডেস্ক

যারা দেশের বাড়ি গেছেন এবং দেশের বাড়িতে আছেন....

এই সাতদিনের লকডাউনকালে অথবা ছুটিতে যাঁরা ঢাকা ছেড়ে দেশের বাড়িতে গেছেন,তাঁদের প্রতি বিনয়ের সাথে একটি অনুরোধ, আপনারা নিশ্চই এই সাতটি দিন পরিচিত জন, আত্মীয়, বন্ধুদের সাথে মিশবেন, গল্প করবেন, আড্ডা দেবেন, বেড়াতে যাবেন। কিন্তু যেখানেই যান, নিজ ঘরে না ফেরা পর্যন্ত দয়া করে নাক-মুখ ঢেকে মাস্কটা পরে থাকবেন। আর অন্যজনের থেকে কমপক্ষে তিনফুট দূরত্ব বজায় রাখবেন।

সবচেয়ে ভালো হয় বাড়িতে থাকলে, খোলা জায়গায়, ফসলের মাঠে একা বেড়ালে।

আপনার যেমন স্বজন, নিজগ্রামের প্রতি মায়া আছে, ভালোবাসা আছে, ঠিক তেমনিভাবে তাদের সবাইকে করোনার সংক্রমণ থেকে নিরাপদে রাখার দায়টাও কিন্তু আছে।

ভুলে যাবেন না আপনি একটি একটি জনঘনত্বপূর্ণ করোনাময় শহর থেকে গ্রামে গেছেন, আপনার যাত্রাটাও ছিল সংক্রমণঝুঁকিতে ভরা। মন খারাপ করবেন না, হয়তো আপনি করোনামুক্ত একজন মানুষ, কিন্তু এমনওতো হতে পারে আপনি হয়তো জানেনও না আপনি করোনা পজিটিভদের একজন। হয়তো আগামী পাঁচ, ছয়দিনে করোনার কোনো লক্ষণও আপনার মাঝে প্রকাশ পাবে না। আপনি পজেটিভ, নেগেটিভ যাই হোন দয়া করে একটু সতর্ক থাকুন যেন আপনার প্রাণের গ্রামটার,পাড়াটার, মহল্লার প্রিয়জনেরা আপনার কারণে বিপন্ন না হয়।

অন্যদিকে যাঁরা বরাবরই গ্রামে বাস করছেন তাঁদের প্রতিও একটি বিনীত অনুরোধ, আপনারাও মাস্কটা পরুন।

বিশেষ করে এই বন্ধ বা ছুটিতে যাঁরা ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে এসেছেন তাঁরা যত ঘনিষ্ট আত্মীয়ই হোন না কেন তাঁদের সাথে কথা বলার সময়, দেখা করার সময়, গল্প করবার সময় কোনো অবস্থাতেই নিজের মুখ থেকে মাস্কটা সরাবেন না। আর একজন থেকে অন্যজনের মাঝে কমপক্ষে তিনফুট দূরত্ব বজায় রাখুন।

মনে রাখবেন, গতবারের করোনার চেয়ে এবারের করোনা অনেক বেশি সংক্রামক এবং বিপজ্জনক। নিজকে সুস্থ, নিরাপদ রাখতে সামান্যতম সংকোচ করবেন না। কে কী ভাবল সেটা ভাববেন না। সময়টা ভালো না, আপনার, আমার জন্য আইসিইউতো নেইই, এমন কি হাসপাতালে একটি সিটও হয়তো মিলবে না।

ভালো থাকুন সবাই, নিরাপদে থাকুন, মাস্ক পরুন, কমপক্ষে তিনফুট দূরত্ব বজায় রাখুন।

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

worldometers এ সার্চ দিলেই ধরতে পারবেন শুভঙ্করের ফাঁকি

মজনু শাহ

worldometers এ সার্চ দিলেই ধরতে পারবেন শুভঙ্করের ফাঁকি

করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা, সরকার যা দেখাচ্ছে, সেটা সত্য হোক। মানুষ যত কম আক্রান্ত হয়, ততই ভালো।  যদিও সরকারের দেওয়া পরিসংখ্যান বিশ্বাসযোগ্য না।

ইতালিতে যেটা দেখা যাচ্ছে, গত মাস খানেক ধরে প্রতিদিন গড়ে আক্রান্ত হচ্ছে ১৫/২০ হাজার করে, মৃত প্রতিদিন ৫০০র কাছাকাছি বা বেশি। জনসংখ্যা মোটে ৬ কোটি। লোকজন যথেষ্ট সতর্ক হয়ে চলার পরও এই পরিস্থিতি।


খালেদা জিয়াসহ ফিরোজা বাসভবনের সবাই করোনায় আক্রান্ত, চলছে চিকিৎসা

ভ্যাকসিন নিয়ে পাইলট-কেবিন ক্রুরা ৪৮ ঘণ্টা ফ্লাইটে যেতে পারবেন না

মাদরাসা ও মসজিদ লকডাউনের আওতামুক্ত রাখার দাবি


worldometers ওয়েব সাইটে কেউ একটু সার্চ দিলেই শুভঙ্করের ফাঁকিটা ধরতে পারবেন।

বাংলাদেশ ছাড়া, করোনার সংক্রমণ সব দেশেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ে। আজ যেখানে ১০ হাজার দেখবেন, পরদিনই হতে পারে ২০/২৫ হাজার।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই শত্রু কোনো দলমত মানে না

রুমি আহমেদ

এই শত্রু কোনো দলমত মানে না

সুপ্রভাত বাংলাদেশ! 

নুতন কেইস স্পাইক প্ল্যাটো মেইটেইনড হচ্ছে! 
নিচের ছবিই তার প্রমাণ!

আরেকটা ভালো খবর হচ্ছে টেস্ট পজিটিভিটি ডাটা - টেস্ট পসিটিভিটি রেইট ও কমছে  ২৩% - ২০% - ১৯% 
যদি টেস্ট পজিটিভিটি রেইট আর নুতন কেইস কাউন্ট একই সাথে কমে - তাহলে আমরা হয়তো আসলেই কার্ভটাকে বেন্ড করছি!

আর একটা গুরুত্বপূর্ণ কথা - 
এই করোনাভাইরাস আমাদের বহিঃশত্রু! এই শত্রু কোনো দলমত মানে না - ধর্ম বর্ণ জাতীয়তা মানে না!
এই শত্রুর বিরুদ্ধে আমাদের কোনো বিভাজন নাই! এই শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াই দলমত নির্বিশেষে সবাইকে হাতে হাত মিলিয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে করতে হবে!


খালেদা জিয়াসহ ফিরোজা বাসভবনের সবাই করোনায় আক্রান্ত, চলছে চিকিৎসা

ভ্যাকসিন নিয়ে পাইলট-কেবিন ক্রুরা ৪৮ ঘণ্টা ফ্লাইটে যেতে পারবেন না

মাদরাসা ও মসজিদ লকডাউনের আওতামুক্ত রাখার দাবি


আজ খবর পেলাম প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী খালেদা জিয়া কভিড আক্রান্ত হয়েছেন। উনি এদেশের একজন সিনিওর  সিটিজেন, এইদেশের পাবলিক সার্ভিসে সারা জীবনটাই ব্যয় করেছেন  - ওঁনার আশু রোগমুক্তি কামনা করছি!

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশ নিজে থেকে যেন এই সিদ্ধান্ত না নেয়

শরিফুল হাসান

বাংলাদেশ নিজে থেকে যেন এই সিদ্ধান্ত না নেয়

জীবিকার তাগিদে বাংলাদেশ থেকে রোজ হাজারো প্রবাসী কর্মী বিদেশে যাচ্ছেন। আন্তর্জাতিক রুটে তাই বিমান চলাচল বন্ধ না করার অনুরোধ করছি। অন্তত বাংলাদেশ নিজে থেকে যেন এই সিদ্ধান্ত না নেয়।

দেখেন, গত তিন মাসে প্রায় দেড় লাখ কর্মী বিদেশে গেছেন। এখনো রোজ যাচ্ছেন। বিদেশে গেলে করোনা ছড়ায় না। আর নেগেটিভ সনদ নিয়েই এরা যাচ্ছেন। প্রয়োজনে বিশেষ বিমান দেন। কারণ একবার যাওয়া পিছিয়ে গেলে পরে নানা সংকট তৈরি হয়। টিকেটের দামও বাড়ে।

মনে রাখবেন কোভিডের মধ্যেও রেকর্ড পরিমাণ প্রবাসী আয় এসেছে। কাজেই বৈদেশিক এই কর্মসংস্থানটা যেন কোনোভাবেই বন্ধ না হয়।

শরিফুল হাসান, সিনিয়র সাংবাদিক ও উন্নয়ন কর্মী

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কিছু মানুষের জন্য প্রশংসা কম হয়ে যায়

আব্দুন নূর তুষার

কিছু মানুষের জন্য প্রশংসা কম হয়ে যায়

আমি গত বছর আমার জন্মদিনের পরের সপ্তাহে যখন বেশ কিছুদিন হাসপাতালে ছিলাম তখন এক সদাহাস্যময় যুবক রোজ সকাল বিকাল চিকিৎসকের বেশে আমাকে দেখতে আসতো। সাথে আরো কিছু তরুণ মেধাবী চিকিৎসক। 

রাউন্ড শেষে আমি বাচ্চা ডাক্তারগুলোর সাথে বসে বসে গল্প করতাম। বক্তৃতা দিতাম বলা যায়।

সে অসাধারণ আত্মবিশ্বাসী এক মানুষ। হাসে, রোগীকে উৎসাহ দেয়। বেঁচে থাকার সাহস জোগায়।

চিকিৎসা সবাই করে। সবাই রোগীর কাছে প্রিয় চিকিৎসক হতে পারে না।

সে প্রকৃতই চিকিৎসক এবং যোগ্যতা সম্পন্ন মানুষ। পড়াশোনা করে। জুনিয়রদের বেডের পাশেই শেখায়।

আমি তাকে নিয়ে পরে বিস্তারিত লিখব।

শুধু তাই না আমার দেখা ভালো মানুষ চিকিৎসকদের নিয়ে লিখব।


খালেদা জিয়াসহ ফিরোজা বাসভবনের সবাই করোনায় আক্রান্ত, চলছে চিকিৎসা

ভ্যাকসিন নিয়ে পাইলট-কেবিন ক্রুরা ৪৮ ঘণ্টা ফ্লাইটে যেতে পারবেন না

মাদরাসা ও মসজিদ লকডাউনের আওতামুক্ত রাখার দাবি


এই ছেলেটি এতই ভালো যে হাসপাতাল থেকে আমি বাড়ি ফেরার পরে বেশ কিছুদিন রোজ সকাল দশটা থেকে এগারোটার মধ্যে আমার মনে হতো একটু পরে সে আমাকে দেখতে আসবে সকালের রাউন্ডে।

এই ছেলেটির নাম ডা. মহিউদ্দিন।

সে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে কাজ করে। সারাদিন পরিশ্রম করে।

সারাক্ষণ হাসিমুখে থাকে। রোগীর শত কথায় বিরক্ত হয় না।

এই ডাক্তার যে কোনো হাসপাতালের জন্য সম্পদ।

কিছু মানুষের জন্য প্রশংসা কম হয়ে যায়।

ডা. মহি সেরকম একজন।

ধন্যবাদ মহি। একদিন এসে আমাকে দেখে যেও।

আব্দুন নূর তুষার, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। 

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

অন্য নেতারা ভয় পাচ্ছে মামুনুলকে বহিষ্কার করতে, কারণ...

আমিনুল ইসলাম

অন্য নেতারা ভয় পাচ্ছে মামুনুলকে বহিষ্কার করতে, কারণ...

বাংলাদেশে নতুন প্রগতিশীল দলের আবির্ভাব হয়েছে! নাম হচ্ছে- হেফাজত!

গতকাল টেলিভিশনে দেখলাম হেফাজতের কয়েকজন নেতা বলেছেন- মামুনুল হুজুর যা করেছেন, সেটা ব্যভিচারের শামিল! 

তো, সেই ক্ষেত্রে আপনারা তাকে পাথর মারতে বলছেন না কেন? আপনারা তো সব সময় ওয়াজে বলে এসেছেন- ব্যভিচার করলে পাথর মারতে হবে?

আজ আবার পত্রিকায় পড়লাম হেফাজতে ইসলাম ঘোষণা করেছে- ‘রিসোর্ট কাণ্ড মামুনুলের ব্যক্তিগত ব্যাপার!’

বাহ, কি চমৎকার ভাবেই না আপনারা প্রগতিশীল হয়ে গেলেন! এখন মামুনুলের কর্মকাণ্ড তার ব্যক্তিগত ব্যাপার!

তাহলে আপনারা যে দিনে-রাতে অন্য মানুষের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন, সেটার কী হবে? কেমন জামা কাপড় পরতে হবে। কে কার সাথে মেলামেশা করতে পারবে ইত্যাদি ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে তো আপনারা ওয়াজ করে থাকেন। তখন এইসব ব্যক্তিগত বিষয় থাকে না? তখন ঠিক'ই মাথর মারা'র কথা বলে বেড়ান!


খালেদা জিয়াসহ ফিরোজা বাসভবনের সবাই করোনায় আক্রান্ত, চলছে চিকিৎসা

ভ্যাকসিন নিয়ে পাইলট-কেবিন ক্রুরা ৪৮ ঘণ্টা ফ্লাইটে যেতে পারবেন না

মাদরাসা ও মসজিদ লকডাউনের আওতামুক্ত রাখার দাবি


ও আচ্ছা, আপনাদের জানিয়ে রাখি- আজ মামুনুলের তৃতীয় স্ত্রী'র খোঁজ পাওয়া গিয়েছে! যদিও এই স্ত্রী'র ব্যাপারে এতো দিন কেউ কিছু জানত না!

ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া এক ছাত্রী'কে তার জামাইর কাছ থেকে ভাগিয়ে এরপর এক মাদ্রাসায় চাকরি দিয়ে এতো দিন এই বেগানা নারী'র সাথে মেলামেশা করছিলেন এই হুজুর!

যেই না অন্য আরেকটা টেলিফোন আলাপ ফাঁস হলো; যেখানে হেফাজতের আরেক হুজুর মামুনুল'কে জিজ্ঞেস করেছে- "কোন জন? খুলনার'টা না গাজীপুরের'টা?" তখন'ই এই হুজুর তৃতীয় বিয়ের তত্ত্ব নিয়ে হাজির হয়েছে!

আপনারাই হচ্ছেন এই দেশের সব চাইতে প্রগতিশীল মানুষ! এক সাথে তিন-চারটা মেয়ে নিয়ে ঘুরে বেড়ান! এরপরও আপনাদের দল হেফাজত এসে বলে- এই সব তার ব্যক্তিগত ব্যাপার! আবার এই আপনারাই অন্যদের ব্যাপারে নানান সব ফতয়া দিয়ে বেড়ান!

তো, হেফাজত নেতারা মামুনুল'কে বহিষ্কার করছে না কেন? আমার কি ধারণা জানেন? অন্য নেতারা ভয় পাচ্ছে তাকে বহিষ্কার করতে। বহিষ্কার করলে মামুনুল হুজুর যদি অন্য নেতাদের কাণ্ডগুলো ফাঁস করে দেয়!

দেশের প্রগতিশীল দলগুলোর কাছে একটা অনুরোধ- দয়া করে হেফাজত'কে আপনাদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করুন। আমি তো এই মুহূর্তে হেফাজতের চাইতে প্রগতিশীল দল দেশে দ্বিতীয়'টা দেখতে পাচ্ছি না!

আমিনুল ইসলাম, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, অস্ট্রিয়া।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর