মুন্সিগঞ্জে পৌর মেয়রের বাসায় বিস্ফোরণে আহত ১২, দাবি পরিকল্পিত বিস্ফোরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মুন্সিগঞ্জে পৌর মেয়রের বাসায় বিস্ফোরণে আহত ১২, দাবি পরিকল্পিত বিস্ফোরণ

মুন্সিগঞ্জ মীরকাদিম পৌরসভার মেয়র হাজী আব্দুস সালামের বাসায় বিস্ফোরণে দগ্ধ ১২ জনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে মেয়রের স্ত্রী কাননের (৩৭) অবস্থায় আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়েছে। মেয়র ও তার বড় ছেলে আল হাসেম পাপ্পু (৩০) হালকা আহত হয়েছেন। তবে তারা বাসাতেই আছেন।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। আহতরা অভিযোগ করেছেন পরিকল্পিত ভাবে এ বিস্ফোরণ ঘটনানো হয়েছে।
এ ঘটনায় সাত নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার সোহেল, প্যানেল মেয়র ১ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রহিম বাদশা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. সাইফুল আযম খান বলেন, আমাদের এখানে ১২ জন দগ্ধকে নিয়ে আসা হয়েছে। এদের মধ্যে কানন নামে এক নারীকে আইসিইউতে নেওয়া হয়েছে। তার শরীরের ৬০ শতাংশ পুড়ে গেছে। এক জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বাকি ১০ জনের শরীরে ২০ শতাংশের কম করে দগ্ধ। তাদেরকে অবজারভেশনে রাখা হয়েছে। 

জানা গেছে, চিকিৎসাধীন দগ্ধ অন্যরা হলেন - ২ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার ও প্যানেল মেয়র আওলাদ হোসেন (৪০), ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার হাজী দ্বীন ইসলাম (৬০), পৌরসভার সচিব সিদ্দিকুর রহমান (৩৮), মেয়রের পিএস যুবলীগ কর্মী মো. তাজুল ইসলাম (২৬), মো. হোসেন কালু (৫০), আমিন আহ মাইনুদ্দিন (৪৫), পৌরসভা অফিসের নিরিপত্তা কর্মী মো. মনির হোসেন (৪৮), নৈশ্য প্রহরী শ্যামল চন্দ্র দাস (৪৫), মেয়রের কর্মী মোশারফ হোসেন (৪০) (বারডেম হাসপাতালের অফিস সহকারী)।

বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি দুই নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার আওলাদ হোনের গতকাল মঙ্গলবার রাত পৌনে ১২ টার দিকে বলেন, মীরকাদিম পৌরসভার সাবেক মেয়র শরিফুল ইসলাম সাহিন। রাতের অন্ধকারে পৌরসভার কেয়ারটেকার (তত্বাবধায়ক) মনির হোসন একটি খাতা নিয়ে এই সাবেক মেয়রের কাছে যাচ্ছিল। এসময় আমাদের বর্তমান কমিশনার দ্বীন ইসলাম সাহেব খাতা আটকায়। 

তিনি বলেন, রাতের অন্ধকারে কেনো খাতা নিয়ে যাচ্ছো। পরে পৌরসভাতে খাতা রাখে সে। এরপর বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের খবর দেয় দ্বীন ইসলাম। আমি প্যানেল মেয়োর এক আব্দুর রহিম বাসারকে নিয়ে পৌরসভাতে আসি। সেখানে গিয়ে বলি এই খাতা পৌরভাতে রাখলে চুরি হতে পারে, আমরা বর্তমান মেয়র সাহেবের বাসায় নিয়ে যাবো। পরে মেয়রের বাসায় এই খাতা নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন


ইথিওপিয়া সীমান্তে সংঘর্ষে নিহত কমপক্ষে ১০০

দু’দিন বন্ধের পর আবারও শুরু হল গণপরিবহন চলাচল

যাকাত আদায় করে না তাদের প্রতি আল্লাহর কঠোর বার্তা

ইসলামের দৃষ্টিতে শুধু ‘কবুল’ বললেই কি বিয়ে হয়ে যাবে?


তিনি আরও বলেন, বাসায় গিয়ে মেয়রের সাথে (হাজী আব্দুস সালাম) কথা বলি। বুধবার আমাদের পৌরসভার স্টাফ নির্বাচন। মেয়র সাহেব বলেন খাতাগুলো কালকে দেখব না। কাল নির্বাচন শেষে পরশুদিন খাতা দেখব। খাতার ভেতরে কি আছে তখন দেখব। এসময় কেয়ারটেকারের সাথে রাতে খাতা নিয়ে যাওয়ার কারণ জানতে চাওয়ায় আমাদের কথা কাটাকাটি হয়। পরে আমরা বলি, মেয়র সাহেব যা করার করবেন। সবায় চুপ হয়ে যায়। মেয়র সাহেব আমাদের আপ্পায়ন করছিলেন, ফল খেতে দিছিলেন।  এই মুহুর্তে বিকট শব্দ হয়। ঘরের ভেতরে আগুন চলে আসে। আমরা যে যেভাবে পারি পলায়ছি। সেকেন্ডের মধ্যে সমস্ত ফ্লোর আগুনে ঝলসে যায়। সবার পা গুলো পুড়েছে এ কারণে। এটি পরিকল্পিত ভাবে করা হয়েছে।

চিকিৎসাধীন দগ্ধ পান্না হালদার (৫০) জানান, তিনি পৌরসভার ইঞ্জিনিয়ার সেকশনে কাজ করেন। তার বাসা সদরেই। অফিসিয়াল কাজে তিনি সন্ধ্যায় মেয়রের বাসায় গিয়েছিলেন। এসময় আরো ৪-৫ জন ওয়ার্ড কাউন্সিলর, অফিস স্টাফ ও কর্মীরাও ছিলেন। তখনই ৪ তলা বাসাটির ৪ তলাতে হঠাৎ বিকট আওয়াজে বিস্ফোরণ ঘটে। সঙ্গে সঙ্গে চারদিকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে রুমের ভিতরে থাকা তারা সবাই কম বেশি দগ্ধ হন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ব্যাংকার মোর্শেদ আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারীরা এখনো অধরা

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বাবা হত্যার বিচার দাবি করেছে চট্টগ্রামে আত্মহত্যাকারী ব্যাংক কর্মকর্তা মোর্শেদ চৌধুরীর কন্যা মোবাশ্বিরা জাহান চৌধুরী জুম। সে বাবার ছবি একেও আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারীদের কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

এদিকে গেল ১৩ দিনেও মোর্শেদ মামলার একজন আসামীও গ্রেপ্তার না হওয়ায় ভেঙ্গে পড়েছেন মোর্শেদের স্ত্রী ইসরাত জাহান চৌধুরী। বিচার দাবি করেছেন মোর্শেদের বৃদ্ধা মাও। 

 

 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মামুনুলের পক্ষে স্ট্যাটাস দিয়ে চাকরি-বাসা দুটোই হারালেন তিনি

অনলাইন ডেস্ক

মামুনুলের পক্ষে স্ট্যাটাস দিয়ে চাকরি-বাসা দুটোই হারালেন তিনি

হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে চাকরি হারালেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জামে মসজিদের ইমাম মুর্শিদুল ইসলাম। ঘটনাটি ঘটে বগুড়ার ধুনটে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও মসজিদ কমিটির সভাপতি হাসানুল হাছিব স্বাক্ষরিত পত্রে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়ার বিষয়টি আজ মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ওই ইমামকে জানানো হয়।

ইমাম মুর্শিদুল ইসলাম উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের গোলাম রহমানের ছেলে।

মুর্শিদুল ইসলাম প্রায় ১২ বছর ধরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জামে মসজিদে ইমামতি করছেন।

এই সূত্রে তিনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সরকারি কোয়ার্টারে পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রয়্যাল রিসোর্টে ৩ এপ্রিল হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। ওই দিনই ইমাম মুর্শিদুল ইসলাম তাঁর নিজের ফেসবুক আইডিতে মামুনুল হকের পক্ষে পোস্ট দেন। বিষয়টি মসজিদ পরিচালনা কমিটির লোকজন ও সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের নজরে আসে। পরে বিষয়টি নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেওয়ায় পরিস্থিতি মোকাবিলায় ওই দিনই মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে ইমামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

পরে এ নিয়ে গত রোববার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), মসজিদ কমিটির সব সদস্য, স্থানীয় মুসল্লি ও সরকারি দলের স্থানীয় নেতা-কর্মীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বৈঠকে বসেন। ওই বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে ইমাম মুর্শিদুল ইসলামকে চাকরিচ্যুত করা হয়।


মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনির ১মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ভাইরাল

ডাক্তার-পুলিশের এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত: হাইকোর্ট

একদিনে করোনা শনাক্ত ৪৫৫৯

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯১ জন


মুর্শিদুল ইসলাম বলেন, ‘হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে হেনস্তা করার দৃশ্য দেখে সইতে পারছিলাম না। তাই মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম। সেই স্ট্যাটাসে সরকারবিরোধী কোনো কথা ছিল না।

পরবর্তী সময়ে ভুল বুঝতে পেরে ফেসবুক থেকে সেই স্ট্যাটাস মুছে ফেলে মসজিদ কমিটির সদস্যদের কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন বলে জানান তিনি। 

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাসানুল হাছিব বলেন, মসজিদ কমিটির সদস্য, উপজেলা প্রশাসন ও সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মুর্শিদুল ইসলামকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাঁকে সরকারি বাসা ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভাড়া না দিতে পারায় সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের করে দিল মালিক, রাতে গণধর্ষণের শিকার নারী

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর

ভাড়া না দিতে পারায় সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের করে দিল মালিক, রাতে গণধর্ষণের শিকার নারী

গাজীপুরের শ্রীপুরে নারী পোশাক শ্রমিককে গণধর্ষণের অভিযোগে সুলতান উদ্দিন নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গেল গভীর রাতে তাকে উপজেলার তেলিহাটির মুলাইদ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়াও ধর্ষণের শিকার ওই নারী পোশাক শ্রমিক আরো তিনজনের নাম উল্লেখ থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, ওই নারী পোশাক শ্রমিক মুলাইদ এলাকায় একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। পরে ভাড়া না দিতে পারায়, ওই বাড়িওয়ালা তাকে ১৮ এপ্রিল সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে রাতে থাকার সন্ধানে সড়কে একা ঘুরতে থাকলে স্থানীয় মিজান উদ্দিনসহ চারজন তাকে তুলে নিয়ে যায়।


মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনির ১মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ভাইরাল

ডাক্তার-পুলিশের এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত: হাইকোর্ট

একদিনে করোনা শনাক্ত ৪৫৫৯

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯১ জন


পরে মিজান উদ্দিনের বাড়িতে ওই নারী পোশাক শ্রমিককে পালাক্রমে গণধর্ষণ করেন তারা। এ ঘটনায় মামলা হওয়ার পর অভিযান চালিয়ে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বাকী আসামিদের গ্রেপ্তারেও অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ময়মনসিংহে ব্যবসায়ী-পুলিশ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

ইউএনও ও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে ব্যবসায়ী-পুলিশ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের সাথে ব্যবসায়ীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে লকডাউনে কড়াকড়ি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে গেলে ব্যবসায়ীদের সাথে এই সংঘর্ষ হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা শহরের বড় মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মনসুর লকডাউনে স্থানীয় বড় মসজিদ মার্কেটে গিয়ে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করতে নির্দেশ দেন। এ সময় তার সঙ্গে দোকানদারদের বাক-বিতণ্ডার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তখন দোকান ফেলে ব্যবসায়ীরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় পুলিশ চড়াও হলে ব্যবসায়ীদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে বিক্ষোব্ধ ব্যবসায়ীরা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এক পর্যায়ে ব্যবসায়ীদের ইট-পাটকেল নিক্ষেপে পিছু হটে পুলিশ। পরে ব্যবসায়ীরা বড় মসজিদের সামনে অবস্থান নেয়।


মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনির ১মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ভাইরাল

ডাক্তার-পুলিশের এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত: হাইকোর্ট

একদিনে করোনা শনাক্ত ৪৫৫৯

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯১ জন


তবে ঘটনার বিষয় অস্বীকার করে মুক্তাগাছা থানার ওসি মোহাম্মদ দুলাল আকন্দ বলেন, ‘সরকারের নির্দেশনা পালনে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। বড় মসজিদের সামনে ব্যবাসয়ীদের লকডাউন সম্পর্কে বুঝানো হয়েছে। এর পর তারা ব্যবসায়ীদের বুঝিয়ে থানায় চলে যান। কোনো ধরনের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেনি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মনসুর বলেন, ‘সরকারের নিয়মিত ডিউটি পালন করতে বড় মসজিদ মার্কেটে যাওয়া হয়। এ সময় লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে ব্যবসায়ীদের বোঝানো হয়। এরপর কী ঘটনা ঘটেছে এটা তার জানা নেই।’

তবে একাধিক ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, চলতি লকডাউনে প্রশাসনের পক্ষ থেকে যখন যার যেভাবে যেমন ইচ্ছা তথন সেভাবেই তারা নানা কথা বলছেন। সে জন্য ছোট ছোট দোকানদার ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মাঝে বিভিন্ন ধরনের ক্ষোভ রয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খোলা রেখে বেঁচে থাকার জন্যই ব্যবসা বাণিজ্য চালু রাখতে চান বলে তারা জানান।

news24bd.tv তৌহিদ 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

তরুণীকে ধর্ষণ এবং অন্তঃসত্ত্বা হলে গর্ভপাতের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

অনলাইন ডেস্ক

তরুণীকে ধর্ষণ এবং অন্তঃসত্ত্বা হলে গর্ভপাতের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

বিয়ের আশ্বাস দিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে।

ওই তরুণী গতকাল সোমবার রাতে জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন বরিশাল নগর পুলিশের বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ হালদার।

তিনি আজ মঙ্গলবার দুপুরে বলেন, ওই তরুণী ছাত্রলীগের নেতা জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি প্রাথমিকভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। সত্যতা পেলে মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হবে।

তবে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন অভিযোগটিকে মিথ্যা দাবি করেন।


মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটুনির ১মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও ভাইরাল

ডাক্তার-পুলিশের এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত: হাইকোর্ট

একদিনে করোনা শনাক্ত ৪৫৫৯

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯১ জন


তিনি বলেন, ওই তরুণী তাঁর আত্মীয়। তিনি গত রোববার বিয়ে করেছেন। এরপরই অজ্ঞাত কারণে ওই তরুণী তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ তুলেছেন। জসিমের দাবি, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তাঁকে ফাঁসাতে ওই তরুণীকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করিয়েছে।

লিখিত অভিযোগে তরুণী উল্লেখ করেছেন, ২০১৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর জসিম উদ্দিন তাঁর বাসায় ঢুকে তাঁকে ধর্ষণ করেন। এরপর বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে গিয়ে জসিম তাঁকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হলে তাঁকে গর্ভপাতের ওষুধ খাওয়ানো হয় এবং নগরের সদর হাসপাতালে নিয়ে গর্ভপাত করানো হয়।

এরপর তিনি জসিম উদ্দিনকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে গত ৫ মার্চ জসিম দুদিনের মধ্যে তাঁকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তবে পরে জসিম তরুণীকে জানিয়ে দেন, তিনি বিবাহিত। তাঁকে (তরুণী) বিয়ে করা সম্ভব নয়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর