‘শিশুবক্তা’ রফিকুল দুই বছর আগেই গোপনে বিয়ে করেছেন

অনলাইন ডেস্ক

‘শিশুবক্তা’ রফিকুল দুই বছর আগেই গোপনে বিয়ে করেছেন

রাষ্ট্রবিরোধী ও  উসকানিমূলক কথাবার্তা এবং রাষ্ট্রের শীর্ষ ব্যক্তিদের নিয়ে কটাক্ষ করার অভিযোগে ‍‘শিশুবক্তা’  হিসেবে পরিচিত রফিকুল ইসলাম মাদানীকে আটক করে র‌্যাব। এদিকে মাদানীকে গ্রেফতারের পর বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। তার থেকে জব্দ করা মোবাইল ফোন তল্লাশি করে মিলেছে বেশকিছু পর্ন ভিডিও। l দুই বছর আগে গোপনে বিয়েও করেছেন এই বক্তা র‌্যাবের একটি সূত্র এই তথ্য সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে। 

জানা গেছে, মাওলানা রফিকুল গত ২০১৯ সালের শেষের দিকে হালুয়াঘাটের সেই পাত্রী আসমা আক্তারকেই গোপনে বিয়ে করেন। আসমা আক্তার তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী পারভীন আক্তারের চাচাতো বোন। ওই গোপন বিয়ের অন্যতম একজন স্বাক্ষী ছিলেন পারভীন। রফিকুল এবং আসমার ওই বিয়েরও কোন রেজিষ্ট্রি হয়নি।

মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ের জন্য আসমাকে দেখতে গিয়ে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসার পর ফেসবুক মেসেঞ্জারে আসমাকে তিনি লিখেছেন, ‘প্রয়োজনে ১০ বছর অপেক্ষা করবেন। তবুও তিনি তাকেই আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে করবেন।’ 

র‌্যাব সদরদফতরের গোয়েন্দা শাখার এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন ,মাওলানা রফিকুল ২০১৯ সালের শেষের দিকে নিজের ভাবির এক চাচাতো বোনকে (নাম আসমা বেগম) দুইপক্ষের পরিবারের অজান্তে বিয়ে করেছেন। সে বিয়ের কাবিন বা সাক্ষী সম্পর্কে স্পষ্ট তথ্য দিতে পারেননি রফিকুল ইসলাম মাদানী।

আমরা জিজ্ঞাসাবাদকালে তার মোবাইলফোনে বেশকিছু আপত্তিকর ভিডিও পেয়েছি। এছাড়া রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ দেশের শীর্ষ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের বিরুদ্ধে কুৎসা, কটূক্তিমূলক, বক্তব্য ভিডিও ও ফেসবুক কনটেন্ট পেয়েছি। তার বিরুদ্ধে আরও মামলা হবে।

জানা গেছে, রফিকুল ইসলাম মাদানীরা পাঁচ ভাই। রফিকুল সবার ছোট। তার বাবা মৃত শাহাবুদ্দিন। মাদানী নেত্রকোনার মালনী এলাকায় জামিয়া ইসলামিয়া হুসাইনিয়া মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ে ঢাকায় চলে আসেন। সেখানে লেখাপড়া করার সময় ‘শিশু বক্তা’ হিসেবে আলোচিত হন।

এদিকে রফিকুল ইসলামের বয়স নিয়ে বিতর্ক শুরু হলে এক ওয়াজ মাহফিলে তিনি বলেন, ‘আমি ১৯৯৫ সালে জন্মগ্রহণ করেছি। এখনো আমাকে শিশুবক্তা বানিয়ে রাখবেন কেন? আল্লাহ তাআলা আমাকে বানাইছে। দেখতে এমন লাগে। আমার করার কিছু আছে? এজন্য আমি শুকরিয়া আদায় করি।’

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন আজ

রাজধানীর মহাখালীতে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল উদ্বোধন করা হবে আজ।  তবে রোগী ভর্তি শুরু হবে আগামীকাল সোমবার (১৯ এপ্রিল) সকাল থেকে। 

মহাখালীতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পাইকারি কাঁচাবাজারের ভবনে স্থাপন করা হাসপাতালটির নাম দেয়া হয়েছে ‘ডিএনসিসি ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতাল’। 

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক হাসপাতালটির উদ্বোধন করবেন।

হাসপাতালটি প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এই হাসপাতাল হতে যাচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল।হাসপাতালটিতে এক হাজার শয্যার সুবিধা থাকবে। এখানে থাকছে ২১২টি আইসিইউ বেড, ২৫০টি এইচডিইউ বেড, ৫০টি ইমার্জেন্সি অবজারভেশন বেড এবং ৫৪০টি আইসোলেশন রুম।


যে সিনেমা নায়ক ওয়াসিমকে সুপারস্টারের খ্যাতি এনে দেয়

বিলবাওকে উড়িয়ে দিয়ে শিরোপা খরা ঘুচালো বার্সা

একের পর নক্ষত্রের পতনে শূন্য হয়ে যাচ্ছে চলচ্চিত্র মাধ্যমটি: শাকিব খান

রমজান মানুষের পাপমোচনের অবারিত সুযোগ নিয়ে আসে


হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, 'এটি দেশের সবচেয়ে বড় করোনা চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলছি। এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করে আনা হয়েছে। এখানে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সর্বোচ্চ সেবার সুযোগ রাখা হচ্ছে। যারা উপসর্গ নিয়ে আসবে তাদেরও রাখা হবে, যাদের আইসিইউ প্রয়োজন তাদেরও রাখা হবে। সবার জন্য আলাদা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।'

নাসির উদ্দিন জানান, এরই মধ্যে এই হাসপাতালে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফসহ প্রয়োজনীয় ওষুধ ও যন্ত্রপাতি প্রস্তুত রাখা হয়েছে। করোনা রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় প্রায় সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষাও এখানে করা যাবে। ​হাসপাতালটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল ডিভিশন

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

২৬৫ যাত্রী নিয়ে জেদ্দার উদ্দেশে উড়াল দিল বিমানের বিশেষ ফ্লাইট

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৬৫ যাত্রী নিয়ে জেদ্দার উদ্দেশে উড়াল দিল বিমানের বিশেষ ফ্লাইট

চারটি ফ্লাইট বাতিল হওয়ার পর ২৬৫ যাত্রী নিয়ে শনিবার জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইট। শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে জেদ্দার উদ্দেশে উড়াল দেয় বিমানের ফ্লাইটটি।

যাত্রী স্বল্পতা ও সময়মত ল্যান্ডিংয়ের অনুমতি না মেলায় শনিবার বিমানের বিদেশগামী চারটি ফ্লাইট বাতিল করা হয়।

এর মধ্যে শনিবার সকাল সোয়া ৬টায় রিয়াদগামী বিশেষ একটি ফ্লাইট বাতিল করা হয়। ওই ফ্লাইটের ২০১ জন যাত্রী ছিল। কিন্তু সময় মতো ল্যান্ডিংয়ের অনুমতি না পাওয়ায় ওই ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এ ঘটনায় বিমানবন্দরে বিক্ষোভ করে ভাঙচুরের চেষ্টা চালায় ক্ষুব্ধ যাত্রীরা। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে আইন-শৃংখলা বাহিনী।


আজাদ মসজিদে নায়ক ওয়াসিমের জানাজা, বনানীতে দাফন

বিলবাওকে উড়িয়ে দিয়ে শিরোপা খরা ঘুচালো বার্সা

খালেদা জিয়ার জ্বর ১০২ ডিগ্রি : চিকিৎসক

‘মিনা পাল’ থেকে যেভাবে ‘কবরী’ হয়ে ওঠা


বাংলাদেশ বিমানের জনসংযোগ শাখার উপ-মহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার বলেন, যাত্রী স্বল্পতা ও ল্যান্ডিংয়ের জন্য সময়মত অনুমতি না মেলায় চারটি বিশেষ ফ্লাইট বাতিল হয়েছে। তবে সন্ধ্যা ৬টায় ২৬৫ জন যাত্রী নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইট জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে গেছে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশের মহীসোপান দাবিতে ভারতের আপত্তি

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের মহীসোপান দাবিতে ভারতের আপত্তি

বঙ্গোপসাগরের মহীসোপানে বাংলাদেশের দাবির বিষয়ে জাতিসংঘে আপত্তি জানিয়েছে ভারত। আর এ দাবির ওপর মিয়ানমার দিয়েছে পর্যবেক্ষণ।

সংশ্লিষ্ট কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) জাতিসংঘের মহীসোপান নির্ধারণ সংক্রান্ত কমিশনে (সিএলসিএস) ভারত এই আপত্তি জানায়।বাংলাদেশ মহীসোপানের যতটুকু অংশ নায্য প্রাপ্য হিসেবে দাবি করছে, সেখানে ভারতের অংশও রয়েছে বলে দাবি করেছে নয়াদিল্লি।

সূত্র জানায়, ২০১১ সালে মহীসোপানে ন্যায্য প্রাপ্য দাবি করে জাতিসংঘে আবেদন করে বাংলাদেশ। ২০২০ সালের অক্টোবরে এই দাবির বিষয়ে সংশোধনী দেয় ঢাকা। ভারতের আপত্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ভূখণ্ডের যে বেসলাইনের ওপর ভিত্তি করে মহীসোপান নির্ধারণ করেছে, সেখানে ভারতের একটি অংশও রয়েছে। এছাড়া বঙ্গোপসাগরের 'গ্রে এরিয়া' সম্পর্কেও আবেদনে কোনও তথ্য দেয়নি বাংলাদেশ।'

গ্রে এরিয়া প্রায় ৯০০ বর্গকিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত এমন একটি জটিল এলাকা যেখানে পানির উপরিভাগের সম্পদের মালিক ভারত, কিন্তু ওই অংশে সমুদ্র গর্ভস্থ মাটির নীচের খনিজ সম্পদের মালিক বাংলাদেশ।

অন্যদিকে মিয়ানমার বাংলাদেশের দাবির বিষয়ে একটি পর্যবেক্ষণ দিলেও এ নিয়ে কোন আপত্তি দেয়নি। দুই প্রতিবেশীর আপত্তি আর পর্যবেক্ষণে মহীসোপানে বাংলাদেশের নায্য প্রাপ্য দাবির নিষ্পত্তিতে জটিলতা কাটছে না।

ভারতের আগে এ বছরের জানুয়ারিতে বাংলাদেশের দাবির বিষয়ে পর্যবেক্ষণ দিয়েছে মিয়ানমার। কিন্তু বাংলাদেশের দাবির প্রতি আপত্তি জানায়নি দেশটি। বাংলাদেশ আইনগতভাবে মহীসোপানের যতটা প্রাপ্য, তা থেকে নিজেদের অংশ বলে দাবি করছে দুই প্রতিবেশী দেশ।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে জাতিসংঘের কাছে মহীসোপানের দাবির বিষয়ে বাংলাদেশ আবেদন জানায়। গত বছরের অক্টোবরে ওই দাবির বিষয়ে সংশোধনী জমা দেয় বাংলাদেশ।

শুক্রবার জাতিসংঘের সিএলসিএস ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ভারতের আপত্তিপত্রে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ভূখণ্ডের যে বেসলাইনের ওপর ভিত্তি করে মহীসোপান নির্ধারণ করেছে, সেটির মাধ্যমে ভারতের মহীসোপানের একটি অংশ দাবি করছে বাংলাদেশ। এ ছাড়া বঙ্গোপসাগরে যে ‘গ্রে এরিয়া’ রয়েছে, সেটির বিষয়ে বাংলাদেশ কোনো তথ্য দেয়নি। ‘গ্রে এরিয়া’ হচ্ছে বঙ্গোপসাগরে একটি ছোট অংশ, যেখানে পানির মধ্যে যে সম্পদ রয়েছে, যেমন মাছ, সেটির মালিক ভারত; কিন্তু মাটির নিচে যে খনিজ পদার্থ আছে, সেটির মালিক বাংলাদেশ। এই অংশের পরিমাণ প্রায় ৯০০ বর্গকিলোমিটার।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রাতে কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে যে যে বিভাগে

অনলাইন ডেস্ক

রাতে কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে যে যে বিভাগে

শনিবার রাতে দেশের আট বিভাগের অধিকাংশ স্থানে  ঝড়ো হাওয়াসহ বজ্রবৃষ্টির শঙ্কা রয়েছে। কোথাও কোথাও ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার গতিতে এ ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) রাতে আগামী ১২ ঘণ্টায় দেশের আবহাওয়ার পূর্বাভাসের বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। 

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের দুই এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমক অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। ঝড়ো এ হাওয়া সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার গতিতে পরিণত হয়ে কালবৈশাখী ঝড়ে রূপ নিতে পারে।

সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

খালেদা জিয়ার জ্বর ১০২ ডিগ্রি : চিকিৎসক

নিজস্ব প্রতিবেদক

খালেদা জিয়ার জ্বর ১০২ ডিগ্রি : চিকিৎসক

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী  খালেদা জিয়ার জ্বর ১০২ ডিগ্রি বলে জানিয়েছেন  খালেদা জিয়ার চিকিৎসক অধ্যাপক ডাক্তার এফএম সিদ্দিকী।

অধ্যাপক ডাক্তার এফএম সিদ্দিকী জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল আছে। আপাতত খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেয়ার প্রয়োজন নেই।

শনিবার রাতে তিনি গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান।

খালেদা জিয়ার বর্তমান শারীরিক অবস্থা বিষয়ে তিনি আরও বলেন, তার পালস ও ব্লাড প্রেসার ভাল। স্যাচুরেশন ৯৬ বা তার বেশি। ড্রপ করেনি স্যাচুরেশন। তার করোনার হবার পর নবমতম দিন। জটিল সময় পার করছে। সবকিছু ঠিকঠাক আছে। পুরো সপ্তাহ না যাওয়া পর্যন্ত  চিকিৎসায় কোন শিথিলতা থাকবে না বলেও জানান তিনি।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে সিটিস্ক্যান শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন বাসভবনে ফেরার পর তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দলের সদস্য ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন জানান, বিএনপি চেয়ারপারসনের সিটি স্ক্যান রিপোর্ট অনেক ভালো অবস্থানে। তার রিপোর্টে যেটা পাওয়া গেছে তা অত্যন্ত মার্জিন পর্যায়ে আছে, যেটাকে মাইনর হিসেবে ধরা যায়। তার করোনার উপসর্গ খুবই কম।

গত  শনিবার খালেদা জিয়ার নমুনা পরীক্ষা শেষে রোববার তার করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। চিকিৎসক এফএম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক টিম বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসা শুরু করে।  লন্ডন থেকে চিকিৎসক পূত্রবধূ জোবাইদা রহমানও চিকিৎসার বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন।

লন্ডনে থেকেই পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমান দেশে-বিদেশে বিভিন্ন চিকিৎসকদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে বেগম জিয়ার সুচিকিৎসার তদারকি করছেন। এছাড়া তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সমন্বয়ও করছেন ডা. জোবায়দা রহমান।

৭৫ বছল বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত। দণ্ড নিয়ে তিন বছর আগে তাকে কারাগারে যেতে হয়। 

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর পরিবারের আবেদনে সরকার গত বছরের ২৫ মার্চ ‘মানবিক বিবেচনায়; শর্তসাপেক্ষে তাকে সাময়িক মুক্তি দেয়। তখন থেকে তিনি গুলশানে নিজের ভাড়া বাসা ফিরোজায় থেকে ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধায়নে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তার সঙ্গে বাইরের কারও যোগাযোগ সীমিত।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর