কাল থেকে ফায়ার সার্ভিসে যোগাযোগের নতুন নম্বর

অনলাইন ডেস্ক

কাল থেকে ফায়ার সার্ভিসে যোগাযোগের নতুন নম্বর

আগামীকাল রোববার থেকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের ঢাকা কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের পুরাতন নাম্বারের পরিবর্তে নতুন নাম্বারে যোগাযোগ করতে হবে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর বর্তমান ফোন নম্বর ৯৫৫৫৫৫৫ পরিবর্তন করে নতুন নম্বর ০২২২৩৩-৫৫৫৫৫ চূড়ান্ত করা হয়েছে।যার ফলে আর পুরাতন নাম্বারে যোগাযোগ করার সুযোগ থাকবে না।

আগামীকাল রবিবার (১১ এপ্রিল) সকাল ১১টায় চালু হচ্ছে ১১ ডিজিটের এই নতুন নম্বর। আজ শনিবার (১০ এপ্রিল) সকালে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (মিডিয়া সেল) মো. শাহজাহান শিকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।


লকডাউনের মধ্যেই নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে চট্রলা মেয়রের ভ্রমণ!

করোনা আক্রান্ত আকরাম খান আইসোলেশনে আছেন

করোনায় পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালকের মৃত্যু

পুরুষশূন্য সালথার কয়েক গ্রাম


 

শাহজাহান শিকদার জানান, ১১ ডিজিটের নতুন এই ফোন নম্বরে যেকোনো ল্যান্ড ফোন এবং মোবাইল ফোন থেকে সহজেই কল করা যাবে। এর জন্য অতিরিক্ত আর কোনো নম্বর চাপতে হবে না। ১১ ডিজিটের এই ফোন নম্বরের সাহায্যে একসঙ্গে ১০ জন সেবাগ্রহীতা কল করার সুযোগ পাবেন।

১১ এপ্রিল বেলা ১১টা থেকে ফায়ার সার্ভিসের ঢাকা কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগের জন্য পরিবর্তিত নম্বর (০২২২৩৩-৫৫৫৫৫) ব্যবহার করতে সবার প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।  

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

দোকানপাট-শপিংমল বন্ধ না খোলা থাকবে, সিদ্ধান্ত কাল

অনলাইন ডেস্ক

দোকানপাট-শপিংমল বন্ধ না খোলা থাকবে, সিদ্ধান্ত কাল

লকডাউনের সময় বাড়ানোর কারণে দোকানপাট, শপিংমল বন্ধ রাখা হবে কিনা সে বিষয়ে আগামীকাল সোমবার সিদ্ধান্ত জানাবে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

সংগঠনটির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘ঈদের আগে সরকার ১৬ মে পর্যন্ত লকডাউন বা বিধি-নিষেধের সময় নির্ধারণ করেছিল। তবে আজ চলমান লকডাউনের (বিধিনিষেধ) মেয়াদ আরও সাতদিন অর্থাৎ ১৭ থেকে ২৩ মে পর্যন্ত আরেক দফা বাড়ানো হয়েছে। এখন সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী আমরাও সিদ্ধান্ত জানাবো আগামীকাল।’

এদিকে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ এবং ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের কারণে চলমান লকডাউন বা বিধি-নিষেধ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনও জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না আগামীকাল

অনলাইন ডেস্ক

যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না আগামীকাল

নারায়ণগঞ্জ, ফতুল্লা, মুন্সিগঞ্জসহ আশপাশের এলাকায় আগামীকাল গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। রোববার (১৬ মে) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সিদ্ধিরগঞ্জ সিজিএসের জরুরি রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য সোমবার (১৭ মে) সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার (১৮ মে) সকাল ৮টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ শহর এলাকা, সিদ্ধিরগঞ্জ, আদমজী ইপিজেড, গোদনাইল, নারায়ণগঞ্জ বিসিক, পাগলা, ফতুল্লা, পঞ্চবটি থেকে মুক্তারপুর পর্যন্ত এলাকা , মুন্সিগঞ্জ সদর, মুন্সিগঞ্জ বিসিক, রেকাবী বাজার এবং এর আশপাশের এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। এছাড়া কোথাও কোথাও গ্যাসের চাপ কম থাকবে বলে তিতাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

এসব এলাকার আবাসিক, বাণিজ্যিক, শিল্প ও সিএনজিসহ সব শ্রেণির গ্রাহকদের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

বাড়ছে প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ছুটি

অনলাইন ডেস্ক

বাড়ছে প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ছুটি

করোনা পরিস্থিতির কারণে সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ছুটিও আগামী ২৯ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। রবিবার (১৬ মে) বিকেলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা রবীন্দ্রনাথ রায় এ তথ্য জানান।

গতকাল (১৫ মে) মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটিও ওইদিন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার লক্ষ্যে আগামী ২৯ মে পর্যন্ত সব ধরনের সরকারি, বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেন বন্ধ থাকবে। এ সময়ে নিজেদের এবং অন্যদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করবে। এ সময়ে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এছাড়া আরো বলা হয়, ‘শিক্ষার্থীদের বাসস্থানে অবস্থানের বিষয়টি অভিভাবকরা নিশ্চিত করবেন এবং স্থানীয় প্রশাসন তা নিবিড়ভাবে পরিবীক্ষণ করবেন। এ সময়ে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগণ তাদের নিজ নিজ শিক্ষার্থীরা যাতে বাসস্থানে অবস্থান করে নিজ নিজ পাঠ্যবই অধ্যয়ন করে সে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট অভিভাবকদের মাধ্যমে নিশ্চিত করবেন।’

বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত নির্দেশনা ও অনুশাসনগুলো মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে করোনা সংক্রমণ শনাক্তের পর ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বেশ কয়েক ধাপে ছুটি বাড়ানোর পর ২৩ মে খুলে দেওয়ার কথা থাকলেও সেই ছুটি বাড়িয়ে ২৯ মে করা হয়।

পরবর্তী খবর

সরকারের নতুন প্রজ্ঞাপনে হোটেল-রেস্তোরাঁয় বসে খেতে মানা

অনলাইন ডেস্ক

সরকারের নতুন প্রজ্ঞাপনে হোটেল-রেস্তোরাঁয় বসে খেতে মানা

বিশ্বব্যাপী তাণ্ডব চালানো করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

এ ব্যাপারে রোববার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বর্তমান করোনা ভাইরাসজনিত পরিস্থিতি বিবেচনায় আগের সব বিধিনিষেধ ও কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় নতুন কিছু শর্তে ১৬ মে মধ্যরাত থেকে ২৩ মে মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ বাড়ানো হলো।

এ সময়ের মধ্যে সরকারের রাজস্ব আদায়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত সব দপ্তর, জরুরি পরিসেবা আওতাভূক্ত থাকবে।

এসময় খাবার হোটেল ও হোটেল-রেস্তোরাঁ কেবল খাবার বিক্রয় ও সরবরাহ করতে পারবে, অর্থাৎ হোটেল-রেস্তোরাঁয় বসে খাওয়া যাবে না। 

এছাড়া এ বিধিনিষেধ চলাকালে লঞ্চ, ট্রেন ও দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জেলার ভেতরে বাস চলবে। দোকানপাট সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

লকডাউনে বন্ধ থাকছে দূরপাল্লার বাস-ট্রেন-লঞ্চ চলাচল

অনলাইন ডেস্ক

লকডাউনে বন্ধ থাকছে দূরপাল্লার বাস-ট্রেন-লঞ্চ চলাচল

করোনা সংক্রমণ রোধে চলমান বিধিনিষেধ বেড়েছে ২৩ মে মধ্যরাত পর্যন্ত বেড়েছে। আজ রবিবার (১৬ মে) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

তবে ঈদের পর দূরপাল্লার বাস ছাড়ার অনুমোদন দেয়নি সরকার। ফলে আগের মতোই বন্ধ থাকছে দূরপাল্লার গণপরিবহন চলাচল। তবে জেলার মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চলাচল করবে।

জানা গেছে, আন্তঃজেলা বাস, ১৭ থেকে ২৩ মে পর্যন্ত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের পর সরকার সিদ্ধান্ত নেবে যাত্রীবাহী ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল করবে কি না।

এর আগে করোনা সংক্রমণ আর মৃত্যুর ঊর্ধ্বগতি রুখতে সারা দেশে গত ৫ এপ্রিল থেকে শুরু হয় সাত দিনের লকডাউন। পরে তিন দফায় লকডাউন বেড়ে ১৬ মে পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানো হয়।

পরবর্তী খবর