‘শিশু বক্তা’ মাদানী এখন কাশিমপুর কারাগারে

অনলাইন ডেস্ক

‘শিশু বক্তা’ মাদানী এখন কাশিমপুর কারাগারে

‘শিশু বক্তা’ হিসেবে খ্যাত রফিকুল ইসলাম মাদানীকে গাজীপুর জেলা কারাগার থেকে কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগার-২ এ স্থানান্তর করা হয়েছে।

শনিবার পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে তাকে জেলা কারাগার থেকে কাশিমপুর কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার নজরদারি ছিল।

জেলার মো. আবু সায়েম জানান, শনিবার বেলা ১১টার দিকে রফিকুল ইসলাম মাদানীকে কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়েছে এবং দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগার-২-এ পৌঁছেছেন।

আরও পড়ুন


নারী চিকিৎসকের ফেসবুকে নগ্ন ও অশ্লীল ছবি পাঠাতো যুবক

আক্রান্ত তপন চৌধুরী, চিকিৎসা নিচ্ছেন বাসায়

মৃত্যুই যখন একমাত্র খবর

কবরীর পরিস্থিতি কোন দিকে যাচ্ছে বুঝতে আরও দু’দিন লাগবে বলছেন চিকিৎসকরা


উল্লেখ্য, রাষ্ট্রবিরোধী, উস্কানিমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগে রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার র‌্যাব বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গাজীপুরের গাছা থানায় পরে ঢাকায় অপর একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

এর আগের দিন বুধবার ভোরে রফিকুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার লেটিরকান্দা থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

আদালত প্রাঙ্গনে সাংবাদিকদের যা বললেন রোজিনা

অনলাইন ডেস্ক

আদালত প্রাঙ্গনে সাংবাদিকদের যা বললেন রোজিনা

আজ মঙ্গলবার (১৮ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আদালত প্রাঙ্গনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তার সাথে অন্যায় করা হচ্ছে বলে জানান।

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে রোজিনা ইসলাম বলেন, ‘আমার সঙ্গে অন্যায় হচ্ছে, আমার সাথে অন্যায় আচরণ করা হচ্ছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের রিপোর্ট করায় আমার সাথে অন্যায় করা হচ্ছে।’

এদিন রোজিনা ইসলামের রিমান্ড আবেদন খারিজ করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। আগামী বৃহস্পতিবার (২০ মে) তার জামিন শুনানি হবে।


আরও পড়ুনঃ


ধ্বংসস্তূপে ওপর দাঁড়িয়ে র‍্যাপ গাইল ফিলিস্তিনি শিশু (ভিডিও)

হাঙ্গর পৃথিবীর চৌম্বক ক্ষেত্রকে জিপিএস হিসেবে ব্যবহার করে

যুদ্ধবিরতির জন্য ফিলিস্তিনিদের শর্ত মেনে নিতে বাধ্য হবে ইসরাইল: হামাস

রোজিনার মুক্তির দাবিতে শাহবাগ থানার সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ


উল্লেখ্য, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার (১৭ মে) রাতে শাহবাগ থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। মামলাটি করেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিব ডা. মো. শিব্বির আহমেদ উসমানী।

অনুমতি ছাড়া করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের সরকারি নথির ছবি তোলার অভিযোগে দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রাখার পর শাহবাগ থানা পুলিশে সোপর্দ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ সম্মেলন বর্জন

অনলাইন ডেস্ক

সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ সম্মেলন বর্জন

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং বয়কট করছে বাংলাদেশ হেলথ্ রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএইচআরএফ)।

 

বিস্তারিত আসছে…

পরবর্তী খবর

খিলক্ষেত ফ্লাইওভারের নিচ থেকে দুইজনের মরদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক


খিলক্ষেত ফ্লাইওভারের নিচ থেকে দুইজনের মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীর খিলক্ষেত ফ্লাইওভারের নিচ থেকে এনামুল ও রাসেল নামে দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ মে) সকালে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়।

মৃত্যুর কারণ এখনো জানা যায়নি। লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

রোজিনার মুক্তির দাবিতে শাহবাগ থানার সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক

রোজিনার মুক্তির দাবিতে শাহবাগ থানার সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকেরা।

সোমবার (১৭ মে) রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মামুন অর রশীদের কক্ষের সামনে অবস্থান নেন তারা।

এসময় তারা রোজিনা ইসলামকে ছেড়ে দেওয়াসহ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য সচিবের পদত্যাগ দাবি করেন।

উল্লেখ্য, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যান। সেখানে বিকেল তিনটার দিকে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাঁকে একটি কক্ষে আটক করেন। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রোজিনা ইসলামকে শাহবাগ থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রোজিনা ইসলামকে ৯টার দিকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তার বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার রাতে শাহবাগ থানায় মামলাটি করা হয়েছে। মামলার বাদী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী।

পুলিশের রমনা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, এই মামলায় রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৩৮৯ ও ৪১১ ধারায় এবং অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টের ৩ ও ৫ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

# সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা

সাংবাদিক রোজিনাকে সচিবালয়ে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হয়েছে

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার রাতে শাহবাগ থানায় মামলাটি করা হয়েছে। মামলার বাদী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী।

পুলিশের রমনা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, এই মামলায় রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৩৮৯ ও ৪১১ ধারায় এবং অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টের ৩ ও ৫ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম সচিবালয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যান। সেখানে বিকেল তিনটার দিকে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাকে একটি কক্ষে আটক করেন। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রোজিনা ইসলামকে শাহবাগ থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রোজিনা ইসলামকে ৯টার দিকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

পরে রাত পৌনে ১২টার দিকে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

রোজিনা ইসলামকে হেনস্তার প্রতিবাদ, মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবিতে থানার সামনে বিক্ষোভ করছেন বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকেরা। তারা স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সচিবের পদত্যাগও দাবি করেন।

এ প্রসঙ্গে জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার জন্য রোজিনা ইসলামের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি আছে। এমন একজন সাংবাদিককে হেনস্তা করা অন্যায়, অনভিপ্রেত। কী কারণে তাকে আটকে রাখা হয়েছে বিষয়টির তদন্ত হওয়া প্রয়োজন।’ 

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর