আলেম-ওলামাদের মিথ্যা মামলা ও হয়রানির অভিযোগে হেফাজতের বিবৃতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

আলেম-ওলামাদের মিথ্যা মামলা ও হয়রানির অভিযোগে হেফাজতের বিবৃতি

দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশ বরেণ্য ওলামা-মাশায়েখরা বিবৃতি প্রদান করেছেন। বিবৃতিতে তারা বলেছেন, গত ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ পরিস্থিতির পরবর্তী হালত দেশবাসীর সামনে স্পষ্ট। দেশের আলেম-ওলামাদের বিরুদ্ধে যেভাবে মিথ্যাচার ও মানহানিকর অবস্থা করা হচ্ছে। এতে মনে হচ্ছে আলেম-ওলামা কোন ভিনদেশী নাগরিক। এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে কেউই আল্লাহর পাকড়াও থেকে রেহাই পাবে না। 

নিরীহ মাদ্রাসার ছাত্র শিক্ষকদের উপর অন্যায় ভাবে গুলি চালিয়ে শহীদ করে দেওয়া এবং শত শত নিরাপরাধ মানুষকে জীবনের তরে পঙ্গু করে দেওয়া হচ্ছে, আবার তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে গ্রেফতার ও হয়রানি করা হচ্ছে। 

শুধু তাই নয় আমিরে হেফাজত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে নতুন করে মিথ্যা হত্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে। হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাজি, মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী, মাওলানা ইলিয়াস হামিদী, মুফতি শরীফ উল্লাহ ও মুফতি বশির উল্লাহসহ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ৪জন, ভোলায় ৭জন, সিলেটে ৭জন, গাজীপুরে ৪ জন, নরসিংদীতে ১ জনকে ডিবি অফিসে হয়রানি ও গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে।

আমরা তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি, এহেন পরিস্থিতিতে ওলামা-মাশায়েখসহ দেশবাসী গভীরভাবে উদ্বেগ্ন ও উৎকণ্ঠিত। আল্লাহপাক কোন জালেমকে ছেড়ে দেন না, আল্লাহর গজব থেকে রক্ষা পেতে হলে, এই ধরণের অমানবিক কর্মকাণ্ড বন্ধ করুন।

তারা বলেন, বর্তমান সরকার দলীয় প্রশাসন ভিন্ন মতাবলম্বীদের জন্য দেশটাকে একটি কারাগারে পরিণত করে রেখেছে। কোন সম্মানী ব্যক্তিদের ইজ্জতের কোন তোয়াক্কা নেই। দেশের সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা নেই। এভাবে একটি সভ্য জাতির মান-সম্মান নিয়ে টিকে থাকতে পারে না।

সুতরাং আমরা পরিষ্কার বলে দিতে চাই, এদেশের মানুষের আস্থার প্রতীক, আদর্শ ও শান্তিপ্রিয় সমাজ বিনির্মাণের চালিকাশক্তি ওলামায়ে কেরামদের উপর জেল জুলুম নির্যাতন বন্ধ করুন। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করুন। অন্যায় ভাবে গ্রেপ্তারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি দিন। শত শত আহত রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করুন। নিহত পরিবারের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করুন। তাহলে দেশ জাতি ও সরকারের জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে। অন্যথায় এই পবিত্র মাহে রমজানে মজলুমদের আহাজারিতে আল্লাহর আরশ কেঁপে উঠবে। আর আল্লাহর গজব থেকে কেউই রেহাই পাবে না।

আরও পড়ুন


কানাডায় করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট, স্বাস্থ্যবিধি মানার আহ্বান

যে কারণে বাজেয়াপ্ত করা হলো সুয়েজ খালে আটকে পড়া সেই জাহাজ

শত্রুতা করে রাতে কেটে দেয়া হলো ১৮০ আমগাছের চারা

সেমিতে ম্যানচেস্টার সিটি, প্রতিপক্ষ নেইমার-এমবাপ্পের পিএসজি


শীর্ষ আলেমগণ আরো বলেন, পবিত্র মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা ও এ মাসে অপরিসীম ফজিলত লাভের আশায় দেশে ও জনগণের কল্যাণ কামনায় মসজিদগুলো তারাবির সহ সকল এবাদত এর জন্য উন্মুক্ত করে দিন। কোরআনে কারিমের তেলাওয়াতের জন্য মক্তব্য ও হিফজখানা গুলো খুলে দিন। সারা দেশে করোনা নামক মহামারী থেকে দেশ ও জাতিকে রক্ষার জন্য উপরোল্লিখিত দাবিগুলো মেনে নেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি। আল্লাহপাক করোনা নামক মহামারী থেকে দেশবাসীকে হেফাজত করুন।

বিবৃতিতে যারা সম্মতি প্রকাশ করেছেন - আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী, আল্লামা সালাউদ্দিন নানুপুরী, আল্লামা ইয়াহিয়া হাটহাজারী, আল্লামা হাফেজ তাজুল ইসলাম, আল্লামা নুরুল ইসলাম জিহাদী, আল্লামা আতাউল্লাহ হাফিজ্জ্বি, আল্লামা আব্দুল হামিদ পীর সাহেব মধুপুর, আল্লামা আবুল কালাম, আল্লামা আব্দুল আউয়াল, আল্লামা ওবায়দুল্লাহ ফারুক বারিধারা, আল্লামা আব্দুর রব ইউসুফী, আল্লামা মুফতি মোবারক উল্লাহ, আল্লামা সাজিদুর রহমান, আল্লামা নুরুল ইসলাম খান দরগাহ মাদ্রাসা, আল্লামা মহিউল ইসলাম বোরহান মুহতামিম রেঙ্গা মাদ্রাসা, আল্লামা মাহফুজুল হক, ড. আহমদ আবদুল কাদের, এডভোকেট শাহীনুর পাশা চৌধুরী, খতীবে বাঙ্গাল আল্লামা জুনায়েদ আল হাবিব, মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী, মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী, মাওলানা নাসির উদ্দিন মুনির, মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী বারিধারা, মাওলানা মীর ইদ্রিস, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা জালাল উদ্দিন আহমেদ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস মানিকনগর, মাওলানা জসিম উদ্দিন, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা মুসা বিন আজহার, মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাজি, মাওলানা ইউনুস রংপুর, মাওলানা ইসমাইল নানুপুরী, মুফতি আব্দুর রহিম, মাওলানা মোহাম্মদ উল্লাহ জামী, মুফতি মাসউদুল করিম, মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী, মুফতি আজহারুল ইসলাম প্রমুখ।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

ভোটে যাওয়ার সাহস পাচ্ছে না বিএনপি : খালিদ মাহমুদ

অনলাইন ডেস্ক

ভোটে যাওয়ার সাহস পাচ্ছে না বিএনপি : খালিদ মাহমুদ

করোনায় মানুষের পাশে না দাঁড়ানোয় জনরোষের ভয়ে চলমান উপ-নির্বাচন ও স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

প্রতিমন্ত্রী আজ দুপুরে জেলার সার্কিট হাউজে দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের করোনা প্রতিরোধ সংক্রান্ত ত্রাণ পরিচালনা কমিটির সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, জনগণ থেকে এতো বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে তারা, ভোটে যাওয়ার সাহস পাচ্ছে না। ভোট এলেই বয়কট করছে। কারণ এ করোনার সময়ে গত এক বছরে দেশের মানুষ তাদের আরও বেশি চিনে ফেলেছে। এরা রাজনীতি করে শুধু ক্ষমতার জন্য।

তিনি বলেন,  দেখতে পাবেন, বিভিন্ন স্থানীয় নির্বাচন হচ্ছে, উপ-নির্বাচন হচ্ছে, তারা কিন্তু ভোটে অংশগ্রহণ করছে না। জনগণের কাছে গিয়ে ভোট চাওয়ার মতো অবস্থা তাদের নাই। জনগণ তো তাদের বলবে, করোনার সময় তো আপনাদের দেখি নাই। এই ভয়ে তারা ভোটে আসছে না।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, জনগণের পাশে থাকাই আমাদের রাজনীতি। জনগণের দল হচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ মানেই বাংলাদেশ। প্রতিমন্ত্রী মহামারি করোনায় সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান । জেলার লকডাউন সফল করতে দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

আরও পড়ুন:


ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের সংবাদ সম্মেলন কাল

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা স্থগিত

‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাব ফখরুলের মানসিক পরীক্ষা করাতে: তথ্যমন্ত্রী


 

এ সময়  উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলতাফুজ্জামান মিতা, বজলুল হক, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ রফিকুল ইসলাম, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম, জেলার পিপি অ্যাডভোকটে রবিউল ইসলাম প্রমুখ। এর আগে, সকালে সেতাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন প্রতিমন্ত্রী।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

দলীয় পদ পেলেন মাশরাফি ও তার বাবা

অনলাইন ডেস্ক

দলীয় পদ পেলেন মাশরাফি ও তার বাবা

বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রাণ মাশরাফি বিন মতুর্জা সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর দলীয় পদ অর্জন করলেন। তাকে নড়াইল জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটিতে সদস্য সদস্য নিযুক্ত করা হয়েছে।  

গতকাল রোববার জেলা আওয়ামী লীগের ৭৫ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আর এই কমিটিতে সদস্য করা হয়েছে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজাকে। এই কমিটির সদস্য মোশাররফের বাবা গোলাম মুর্তজা উপদেষ্টা বোর্ডের সদস্য হন।

মাশরাফি ওই কমিটিতে ৪ নম্বর সদস্য পদ পেয়েছেন।  ১, ২ ও ৩ নম্বর সদস্য হয়েছেন যথাক্রমে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোল্লা এমদাদুল হক, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন বিশ্বাস ও নড়াইল-১ আসনের সংসদ সদস্য বিএম কবিরুল হক।  

এই প্রথম নড়াইল আওয়ামী লীগে পদ পেলেন মাশরাফি।  যদিও এর আগে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগে বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটির সদস্য হয়েছিলেন মাশরাফি।  গত ৩১ ডিসেম্বর ওই উপকমিটি অনুমোদন পেয়েছিলো।  সেটিই ছিল আওয়ামী লীগে তার প্রথম পদ।


আরও পড়ুনঃ

রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞার পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের

হোটেলে নারী এনে জরিমানার মুখে চিলির ফুটবলাররা

বেবি বাম্পের ছবি দিয়ে নুসরাতের লুকোচুরির ইতি

বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক কুমির ‘মুজা’র জন্মদিন পালন


news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

বয়সের কারণে মনে হয় মির্জা ফখরুলের মতিভ্রম ঘটেছে : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বয়সের কারণে মনে হয় মির্জা ফখরুলের মতিভ্রম ঘটেছে : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম দেশের অর্জন নিয়ে যে কথা বলেছেন তাতে মনে হচ্ছে বয়সের কারণে উনার মতিভ্রম ঘটেছে।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সমস্ত অর্জন জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে হয়েছে। যেখানে সবাই প্রশংসা করছে, সেখানে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কি বলেন ? দেশের ৫০ বছরের অর্জন নিয়ে তিনি যে কথা বলেছেন তাতে মনে হচ্ছে বয়সের কারণে উনার মতিভ্রম ঘটেছে। বিএনপির ডাক্তারদের সংগঠন ‘ড্যাব’ কে অনুরোধ জানাবো তার মানসিক স্বাস্থ্যের পরীক্ষা করাতে।

তথ্যমন্ত্রী  বলেন, আগে অনেক মানুষের মানসম্মত গৃহ ছিল না, বঙ্গবন্ধু কন্যার ঘোষণা অনুযায়ী এখন গৃহের সমস্যারও সমাধান হয়েছে। এখন যারা ঘর পেয়েছে তারা কখনো স্বপ্নেও ভাবেনি এভাবে জমিসহ ঘর পাবেন, এবং প্রধানমন্ত্রীর সাথে সরাসরি কথা বলবেন। স্বপ্নকেও হার মানিয়েছে তাদের প্রাপ্তি। এই ধরণের ঘটনা আমাদের দেশে কখনো ঘটেনি, অন্য কোন দেশে ঘটেছে বলে আমার মনে হয় না।
তিনি বলেন, আমরা সাম্প্রতিক সময়ে দুই’শ বিলিয়ন ডলার শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দিয়েছি। আমরা অন্যান্য দেশকেও ঋণ দেওয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করছি। আজকে বাংলাদেশকে নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট, জাতিসংঘের মহাসচিব, জার্মান প্রেসিডেন্ট থেকে শুরু করে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ড. অর্মত্য সেন প্রশংসা করেন। কিন্তু বিএনপি ও তার মিত্ররা প্রশংসা করতে পারে না।’
বেগম জিয়ার সুস্বাস্থ্যের সাথে দীর্ঘায়ু কামনা করে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, তিনি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন, কিন্তু আপনারা দেখেছেন খালেদা জিয়া হাসপাতালে থাকাকালীন প্রতিদিনই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব এবং তাদের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ তাঁর চিকিৎসা নিয়ে কথা বলেছেন এবং দাবি করেছেন তাকে সুস্থ করার জন্য বিদেশ নিয়ে যেতে হবে। কিন্তু, বেগম খালেদা জিয়া বাড়ি ফিরে যাওয়ার মধ্য দিয়ে এটি প্রমাণিত হয়েছে যে, দেশে তিনি ভাল সুচিকিৎসা পেয়েছেন এবং ভাল চিকিৎসা পেয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। তারা যে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার দাবি করেছিলেন সেটি যে অমূলক তা প্রমাণ হয়েছে।

সূত্র: বাসস

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

১২ বছর ক্ষমতায়, তাই নেতা-কর্মীদের আয়েশি মনোভাব: হানিফ

অনলাইন ডেস্ক

১২ বছর ক্ষমতায়, তাই নেতা-কর্মীদের আয়েশি মনোভাব: হানিফ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, টানা ১২ বছর ক্ষমতায় থাকার কারণে অনেক নেতা-কর্মীদের মধ্যে আয়েশি মনোভাব চলে এসেছে। তাই সারা দেশে আওয়ামী লীগের কিছু সাংগঠনিক দুর্বলতা চোখে পড়েছে। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে প্রতি তিন বছর পর পর সম্মেলনের মাধ্যমে ঢেলে সাজানো হচ্ছে।

আরও পড়ুন:


ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের সংবাদ সম্মেলন কাল

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা স্থগিত

‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাব ফখরুলের মানসিক পরীক্ষা করাতে: তথ্যমন্ত্রী


রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাদের সাথে মতবিনিময় সভায় মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় থাকার কারণে সংগঠন দুর্বল বা সবল তা বুঝা যাচ্ছে না। যার কারণে সংগঠনের দিকে সবার নজর একটু কম। অনেক জেলায় ১৫ থেকে ২০ বছর একই কমিটি। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে জেলা পর্যায়ের সম্মেলনের উদ্দেশ্য নিয়ে মাঠে নেমেছি। প্রতিটি ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা সম্মেলন করবো। প্রতিটি ইউনিট, ওয়ার্ড ও থানার সম্মেলন আগামি ডিসেম্বরের মধ্যে করতে চাই। সেটা করলে আপনাদের মধ্যে অনেক নেতা আছেন। যারা যথাযথ মূল্যায়ন বা পদোন্নতি  পাননি, তারা মূল্যায়ন পাবেন।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ: জিএম কাদের

অনলাইন ডেস্ক

মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ: জিএম কাদের

মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। রোববার এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন তিনি।

জিএম কাদের বলেন, মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ। মাদকের বিস্তার নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে আগামী প্রজন্ম ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই মাদক নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনে বিশেষায়িত ইউনিটি গঠন করতে হবে।

আরও পড়ুন:


এবারও হচ্ছে না প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা

আমাদের লক্ষ্য বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করা: প্রধানমন্ত্রী

ওসমানীনগরে শিক্ষিকাকে গলাকেটে হত্যার পর গৃহকর্মীর আত্মহত্যা

এবার মাহিয়া মাহির দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে গুঞ্জন


তিনি বলেন, গণমাধ্যমের সাম্প্রতিক সংবাদে ইতোমধ্যেই দেশবাসী জেনেছে এলএসডি, আইস, খাট-এর মত মরণনেশায় আসক্ত হয়ে পড়েছে আমাদের তরুণ সমাজ। এছাড়া ইয়াবা, ফেনসিডিল, মদ ও গাজা আরও সহজলভ্য হয়ে পড়েছে। জাতির জন্য এর মত দুঃসংবাদ আর হতে পারে না। মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে যুব সমাজকে বাঁচাতে না পারলে জাতি হয়ে পড়বে অকর্মণ্য, উগ্র এবং অসভ্য। ধ্বংস হয়ে যাবে তারুণ্যের অমিত সম্ভাবনা। তখন কোনোভাবেই দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে না।

বিবৃতিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান আরও বলেন, মাদক নির্মূলে সরকারকে এখনই কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর