কিশোরগঞ্জে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৬ খুন, গ্রামগুলো মানুষ শূন্য

নিজস্ব প্রতিবেদক

হঠাৎই আতঙ্কের জনপদে পরিণত হয়েছে হাওর পারের জেলা কিশোরগঞ্জ। ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ে পৃথক ঘটনায় এই জেলা খুন হয়েছেন ৬ জন। ভৈরবে ৪, কুলিয়ারচরে ১ ও তাড়াইলে ১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। 

এর মধ্যে আগানগর ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর সংঘর্ষে ২ জন নিহত হওয়ার পর মানুষ শূন্য হয়ে পড়েছে গ্রামগুলো। 

লুটপাট আর ফের হামলার ভয়ে আসবাবপত্র নিয়ে এলাকা ছাড়াও হিড়িক পড়েছে স্থানীয়দের মধ্যে। পুলিশ সুপার বলছেন, এসব হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শনিবার ভৈরবের আগানগররে খলাপাড়া এলাকায় দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে নিহত হয় দুইজন। দফায় দফায় চলা সংঘর্ষ পরে পুলিশ গিয়ে নিয়ন্ত্রনে আনে।

বিকেলে লুন্দিয়া গ্রামে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ভিন্ন এক ‍দৃশ্য। গ্রাম ছাড়ার যেন হিড়িক পড়েছে। খাট-পালং, টেবিল, চেয়ার, ফ্রিজ- আসবাবপত্র বলতে যার যা আছে তাই নিয়েই ছুটছেন অন্য গ্রামে। হাঁস-মুরগি, চাল-ডাল সবকিছু নিয়ে কেউ যাচ্ছেন আত্মীয় বাড়ি, কারো আবার গন্তব্য জানা নেই। অনেকেই ভয়ে নিজে না গিয়ে বাড়ি থেকে আসবাবপত্র আনতে পাঠিয়েছেন অন্য লোক।

স্থানীয়রা বলছেন, রাতে লুটপাট আর পুনরায় হামলার ভয়ে সন্ধ্যার আগেই  তারা বেরিয়ে পড়ছেন অন্য কোনো ঠিকানার উদ্দেশ্যে।

এছাড়া ২৪ ঘন্টারও কম সময়ে ভৈরবে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে এক ব্যবসায়ী খুন, বস্তাবন্দি অটোরিকশা চালকের লাশ উদ্ধার, কুলিয়ারচরে দু'পক্ষের সংঘর্ঘে একজন নিহত ও তাড়াইলে এক শিশুর জবাই করা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।  

হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান, পুলিশ সুপার।  

একদিনে ৬টি খুনের ঘটনায় নরেচরে বসেছে প্রশাসনও। আর স্থানীয়দের দাবি আর যেন এমন ঘটনা না ঘটে সেজন্য এখই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

ইফতারিতে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে এতিম শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

ইফতারিতে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে এতিম শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

এতিম দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে ইফতারির সঙ্গে নেশাজাতীয় ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। 

শুক্রবার (৮ মে) দিবাগত-রাতে সুনামগঞ্জে দোয়ারাবাজার উপজেলার বোগলাবাজার ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত রিপন মিয়াসহ আরও দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার বোগলাবাজার ইউনিয়নে সুরুজ মিয়ার ছেলে রিপন মিয়া একই ইউনিয়নের দশম শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীর ফুফাতো ভাই ফয়সালের (১২) মাধ্যমে নেশার ওষুধ মেশানো ইফতারি তাদের বাড়িতে পাঠায়। নেশা মেশানো ইফতারি খাওয়ার পর মেয়ে এবং দাদা অজ্ঞান হয়ে গেলে মধ্যরাতে এসে রিপন তাকে ধর্ষণ করেন। ভোরে ঘুম ভাঙলে ওই শিক্ষার্থীর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে। এ সময় ওই শিক্ষার্থী সব খুলে বলে।

ভিকটিমকে উদ্ধার করে দোয়ারাবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

দশম শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীর মা-বাবা কেউ বেঁচে নেই। এতিম মেয়েটি একমাত্র বৃদ্ধ দাদার আশ্রয়ে থাকে। বাড়িতে তার বৃদ্ধ দাদা ছাড়া পরিবারে আর কেউ নেই।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত রিপনসহ তার ফুফাতো ভাই এবং নেশা বিক্রেতা জসিম উদ্দিনকে আটক করে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ধর্ষণের আলামত জামা কাপড়সহ ইফতার সামগ্রী একটি ছুরি উদ্ধার করে।

দোয়ারাবাজার থানার ওসি (তদন্ত) মনিরুজ্জামান বলেন, রিপনসহ আরও দুজনকে আটক করা হয়েছে। নেশা বিক্রেতা জসিম দীর্ঘদিন ধরে অজ্ঞান পার্টির সঙ্গে জড়িত। সে অজ্ঞান পার্টির বড়ো ধরনের হোতা। এলাকায় শিশুদের দিয়ে নেশার ওষুধ বিক্রি করে এবং চোরাকারবারের সঙ্গে জড়িত সে।  রিপনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা প্রক্রিয়াধীন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সুনামগঞ্জে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন

সুনামগঞ্জ পৌর শহরের পৌরসভার সামনে পূর্ব শত্রুতার জেরে রিক্সা চালক শুকুর আলীকে (২০) খুন করেছে তার বন্ধু শাকিল মিয়া। আজ শনিবার (০৮ মে) দুপুরে সুনামগঞ্জ পৌরসভার সামনে ঐ ঘটনা ঘটে।

নিহত শুকুর আলী সুনামগঞ্জ পৌর শহরের মল্লিকপুরের এলাকার ৮ নং ওয়ার্ডের মৃত সেজলু মিয়ার ছেলে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এক সময় নিহত শুকুর ও শাকিল খুব ভালো বন্ধু ছিল কিন্তু গত ছয়মাস আগে শুকুরের সাথে শাকিলের দ্বন্দ দেখা দেয়, পরে শুকুর আর শাকিলের ঐ বন্ধুত্ব ভয়ংকর রুপে শত্রুায় পরিণিত হয়। 

প্রতিদিনের মত নিহত শুকুর আলী রিক্সা নিয়ে বাসা থেকে বের হয়। পৌরসভার সামনে গেলে পিছন থেকে ঘাতক শাকিল তাকে চুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে আঘাত করে। এতে শুকুর গুরুত্ব আহত হয়ে রিক্সা থেকে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সুনামগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সহিদুর রহমান বলেন, চুরিকাঘাত করে রিক্সা চালকে খুন করা হয়েছে। আমরা ঘটনাস্থলে পুলিশ পাটিয়েছি। ঘাতক শাকিল কে গ্রেপ্তারের জন্য আমরা অভিযান চালাচ্ছি।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

বাগেরহাটে খাবার পানি সংগ্রহ করতে গিয়ে সড়কে গৃহবধূ নিহত

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট

বাগেরহাটে খাবার পানি সংগ্রহ করতে গিয়ে সড়কে গৃহবধূ নিহত

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে খাবার পানি সংগ্রহ করতে গিয়ে ইজিবাইকের ধাক্কায় রাবেয়া বেগম (৫০) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সকালে সাইনবোর্ড-বগি আঞ্চলিক মহাসড়কের মোরেলগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস অফিসের সামনে রাবেয়া বেগম ইজিবাইকের ধাক্কা দিলে তিনি ঘটনাস্থলে নিহত হন। তিন সন্তানের মা রাবেয়া বেগম পূর্ব শরালীয়া গ্রামের মন্টু তালুকদারের স্ত্রী।

এ বিষয়ে নিহতের মেয়ে ইতি আক্তার ও সুখী বেগম বলেন, খাবার পানি সংগ্রহের জন্য কলসি নিয়ে ব্র্যাক অফিসের দিকে যাবার সময় একটি যাত্রীবাহী ইজিবাইক তার মাকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার ওপর ফেলে দেয়। ফায়ার সার্ভিসের লোকজন তাকে তুলে হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক রাবেয়া বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন।

মোরেলগঞ্জ থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, খাবার পানি সংগ্রহ করতে গিয়ে ইজিবাইকের ধাক্কায় রাবেয়া বেগম নামে এক গৃহবধূ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হবার খবর শুনেছি।

গাছ উপড়ে পড়ল ঘরের ওপর, গেল স্বামী-স্ত্রীর প্রাণ

ঢাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ কর্মস্থলেই

এরা মানুষ না, অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ময়মনসিংহে আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক

ময়মনসিংহে আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার কামারগাঁও ইউনিয়নের বাহিরকান্দা গ্রামের নুরুল ইসলাম ওরফে ইসলাম বেপারীর বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

তিনি চংনাপাড়া বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী ও ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। 

আওয়ামী লীগ নেতা হওয়ার সুবাদে ইসলাম বিভিন্ন সময় ভিজিএফ কার্ড, বিধবা ভাতার কার্ড, বয়স্ক ভাতার কার্ড, প্রসূতি কার্ড ইত্যাদি বিতরণের সুযোগ পেয়ে থাকেন। চেয়ারম্যান, মেম্বার ও নেতারা ওইসব কার্ড ভাগাভাগির সময় তাকেও দিয়ে থাকেন। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে এলাকার সরলমনা লোকদেরকে কার্ড করে দিবে বলে, কোনো কোনো সময় বিদ্যুৎলাইন নামিয়ে দিবে বলে প্রচুর টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে ইসলামের বিরুদ্ধে। এছাড়াও বিভিন্ন সরকারি সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে গ্রামের সরল মানুষকে ভুল বুঝিয়ে প্রতারিত করার অভিযোগ রয়েছে।

একই ওয়ার্ডের রাইজান গ্রামের ভুক্তভোগী ইনজর আলীর ছেলে ইলিয়াস আলী বলেন, আমার বৃদ্ধ বাবার নিকট থেকে মোটরের লাইন নামিয়ে দেওয়ার কথা বলে ২০ হাজার টাকা নেয়। আর ঘরের লাইন নামিয়ে দিতে নেয় ৫ হাজার টাকা। পরবর্তীতে ঘরের লাইন পেলেও আজ দুই-আড়াই বছরেও মোটরের লাইন পাইনি। একটি এনজিও থেকে লোন তুলে তাকে ওই টাকাটা দেওয়া হয়েছিল। এখন আমার বাবা অসুস্থ। ঘরে পড়া।

প্রায়ই তিনি বলেন, ইসলাম টাকাটা নিল মোটরের লাইন নামিয়ে দিল না, টাকাটাও দিল না।

অভিনন্দনের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

গাছ উপড়ে পড়ল ঘরের ওপর, গেল স্বামী-স্ত্রীর প্রাণ

ঢাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ কর্মস্থলেই

এরা মানুষ না, অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ইসলাম শুধু ইনজর আলীর নিকট থেকে নয় মোতলেব ও হেলালসহ বিভিন্নজনের নিকট থেকে প্রচুর টাকা তিনি হাতিয়ে নিয়েছেন। তিনি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা বলে প্রভাব খাটিয়ে চলেন। তার বিরুদ্ধে ভয়ে কেউ কথা বলতে পারে না। তার প্রভাবকে কাজে লাগিয়ে তার ছেলেও কাপড়ের ব্যবসার আড়ালে মাদক ব্যবসা করে যাচ্ছেন বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কেউ কেউ বলেছেন। এসব দুর্নীতি ও অবৈধ ব্যবসার মাধ্যমে তিনি প্রচুর সম্পদের মালিক বনেছেন। উপজেলা শহরে জমি কিনে বাড়ি করেছেন বলেও জানা যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযোগ অস্বীকার করে নুরুল ইসলাম বলেন, প্রায় ৫ বছর পূর্বে প্রাথমিক অবস্থায় বিদ্যুৎ একশ ভাগের আওতাধীনের আগে কিছু দালাল ফালাল আয়া বিদ্যুৎ নামিয়ে দেওয়ার কথা বলে টাকা পয়সা নিয়েছিল। টাকা কেউ দিছিন, কেউ দেয় নাই। কথাবার্তায় আমি তাদের সাথে জড়িত। তবে আমি কোন টাকা নেই নাই। এগুলো আমার সাথে বলে লাভ নাই।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, সে আমাদের দল করে, আওয়ামী লীগ করে। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা যখন বিতরণ করা হয় তখন সেও দুয়েকটা কার্ড পায়। এগুলো বিতরণ করে।

এছাড়া সে বিদ্যুতের কামকাজও করছে। তবে তার নামে এ পর্যন্ত আমার নিকট কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেব।

পরবর্তী খবর

‘গলায় ডিশ লাইনের তার পেঁচিয়ে’ যুবককে ‘খুন’

শাকিলা ইসলাম জুই, সাতক্ষীরা

‘গলায় ডিশ লাইনের তার পেঁচিয়ে’ যুবককে ‘খুন’

শুক্রবার (৭ মে) সকাল ৮ টার দিকে সাতক্ষীরা সদরের বকচরা গ্রামের আফছার আলীর পুকুর থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতের নাম আলমগীর হোসেন (২২)। তিনি সাতক্ষীরা সদরের বকচরা পশ্চিমপাড়ার নজরুল ইসলামের ছেলে।

নিহতের বড় ভাই পরিবহন শ্রমিক মহিবুল্লাহ  জানান, তার ছোট  ভাইয়ের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী বালিয়াডাঙা গ্রামের জনৈক আব্দুল জলিলের স্ত্রীর পরকীয়া ছিল। এ নিয়ে বিরোধও হয়েছে কয়েক বার। ধারণা করা হচ্ছে পরকীয়ার জেরে তার ভাইকে গলায় তার পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

গাছ উপড়ে পড়ল ঘরের ওপর, গেল স্বামী-স্ত্রীর প্রাণ

ঢাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ কর্মস্থলেই

এরা মানুষ না, অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিহতের মা সুফিয়া খাতুনের বরাত দিয়ে সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি দেলওয়ার হুসেন জানান, আলমগীর বৃহস্পতিবার রাত ৯ টায় চা খাবার কথা বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। এর পর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। ভোরে তার মরদেহ দেখতে পেয়ে গ্রামবাসী পুলিশে খবর দেয়।

তিনি আরো জানান, একটি পরকীয়ার জেরে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান ওসি।’

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর