‘মামুনুলকে গ্রেপ্তারে সরকারের লকডাউন’ যারা বলছেন, তাদের বলছি
‘মামুনুলকে গ্রেপ্তারে সরকারের লকডাউন’ যারা বলছেন, তাদের বলছি

‘মামুনুলকে গ্রেপ্তারে সরকারের লকডাউন’ যারা বলছেন, তাদের বলছি

Other

‘মামুনুল গ্রেপ্তার করার জন্য সরকার ৭ দিনের কঠোর লকডাউন’ দিয়েছে এই কথা যারা বলছেন বা বিশ্বাস করেন সেই সব মানুষদের জন্য করুনা হয়। কী ফালতু চিন্তা মানুষের।

মামুনুল কে ধরতে সারাদেশে লকডাউন দিতে হয়?? কী হাস্যকর বিষয়। এসব চিন্তা করে কেমনে কী যুক্তি তাদের! অবশ্য একদিক দিয়ে ঠিক আছে, এইসব পাবলিকই তো সাঈদীকে চাঁন্দে দেখে।

যারা মনে করছে ৯০/ ১০০ জন করোনায় মারা যাচ্ছে এটা এমনি এমনি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর করছে।


সুরা আরাফ ও সুরা আনফালের বাংলা অনুবাদ

নারী ফুটবল দলে করোনার হানা

নিখোঁজের ১১২ দিন পর সেপটিক ট্যাঙ্কে মিলল নারীর লাশ


সরকারের নাটক এগুলা। তাদের বলব হসপিটালগুলোতে একবার সশরীরে যান দেখেন করোনার কী পরিমাণ মানুষ আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে বেডে কাতরাচ্ছে। অক্সিজেনের জন্য মানুষের কী আকুতি!!
আইসিউতে যান। দেখেন কী অবস্থা।

প্রতিদিন যাদের স্বজন মারা যাচ্ছে করোনায় তাদের সামনে গিয়ে দেখুন। বাস্তবতা কী।

যারা ভাবছেন করোনা কিছু না সবই হেফাজত ইস্যু। সেইসব চিন্তাবিদদের ফ্যামিলির ২/৪ জনের করোনা হওয়া উচিত তাহলে ফ্যামিলি মেম্বারদের নিয়ে হসপিটালে দৌড়াতে দৌড়াতে তখন বুঝবে জীবন কি জিনিস।

এইসব ফালতু উদ্ভট চিন্তা করা অসচেতন মানুষের কেয়ারলেস আচরণের কারণেই করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। কারণ কিছু মানুষের কাছে করোনা কিছুই না, এটা একটা গুজব।

এজন্যই এরা স্বাস্থ্যবিধি মানে না। অসচেতনভাবে গা ছাড়া ভাব করে ঘুরে বেড়ায়।

এদের বেশি করে করোনায় আক্রান্ত হওয়া উচিত।

করোনাকে যত হালকাভাবে দেখবেন। তত বিপদ বাড়বে।

আতিকা রহমান, সাংবাদিক

news24bd.tv তৌহিদ

;