অচিরেই গণজোয়ারে অবৈধ ক্ষমতাসীনরা ভেসে যাবে : মান্না

অনলাইন ডেস্ক

অচিরেই গণজোয়ারে অবৈধ ক্ষমতাসীনরা ভেসে যাবে : মান্না

দেশের বিভিন্ন জায়গায় মানুষ প্রতিবাদী হয়ে উঠছে। অচিরেই গণ জোয়ার তৈরি হবে এবং সেই জোয়ারে অবৈধ ক্ষমতাসীনরা ভেসে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন উপলক্ষে দেশে যে অরাজকতা ও রক্তপাত হয়েছে তার দায় একান্তই সরকার, সরকারি দল এবং তাদের অঙ্গ সংগঠনের বলে মন্তব্য করেছেন  নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত আলেম ওলামাদের মুক্তি দাবিও জানান তিনি। 

আজ মঙ্গলবার দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাকিব আনোয়ার স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন তিনি।

ডাকসু'র সাবেক এই দুইবারের ভিপি দাবি করেন, ২৬ মার্চ বায়তুল মোকাররমে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে সরকারি দলের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের কর্মীরা হেফাজতের কর্মী সমর্থক এবং সাধারণ মুসুল্লিদের উপর হামলা করে প্রথমে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করে। বিভিন্ন ভিডিও ফুটেজে তা স্পষ্ট দেখা গেছে। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সারাদেশে যে অরাজকতা তৈরি হয়েছে এবং মানুষকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে, তার সম্পূর্ণ  দায় সরকারকে নিতে হবে। 

মান্না বলেন, এসব ঘটনার পর দায়ের করা মামলা এবং সেই ২০১৩ সালের মামলাসহ বছরের পর বছর ধরে পড়ে থাকা মামলায় হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দ তথা দেশের আলেম সমাজের নেতাদের গণহারে গ্রেফতার করা হচ্ছে, রিমান্ডে নেয়া হচ্ছে। একজন নেতার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে জাতীয় সংসদে যেভাবে রাষ্ট্রের শীর্ষ পর্যায় থেকে বিশোদগার করা হয়েছে, তাতে স্পষ্ট যে সরকারী দল হেফাজতে ইসলামকে রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলায় ব্যর্থ হয়ে তাদের বিরুদ্ধে হিংসাত্মক রাজনীতির আশ্রয় নিয়েছে এবং রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে তাদের পর্যুদস্ত করার কাজে লিপ্ত হয়েছে। আমি অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত আলেম ওলামাদের মুক্তি দাবি করছি। 

করোনা মোকাবেলায় সরকারের উদাসীনতার উল্লেখ করে মান্না বলেন, দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবেলা, চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, হাসপাতালে অক্সিজেন, আইসিইউ বেড নিশ্চিত করা  এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দুইবেলা খাবার নিশ্চিত করা এখন সরকারের প্রধান দায়িত্ব। সেদিকে ভ্রুক্ষেপ না করে মামলা, হামলা, রিমান্ড, অত্যাচার, নির্যাতনের মাধ্যমে অবৈধভাবে ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করছে তারা। দেশের সাধারণ জনগণ এবং ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা তা মেনে নেবে না। দেশের বিভিন্ন জায়গায় মানুষ প্রতিবাদী হয়ে উঠছে। অচিরেই গণ জোয়ার তৈরি হবে এবং সেই জোয়ারে অবৈধ ক্ষমতাসীনরা ভেসে যাবে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

প্রায় একমাস পর সুখবর পেলেন খালেদা জিয়া

অনলাইন ডেস্ক

প্রায় একমাস পর সুখবর পেলেন খালেদা জিয়া

প্রায় একমাস পর সুখবর পেলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন। তৃতীয়বার করোনা পরীক্ষা করে বৃহস্পতিবার সকালে রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। বিএনপি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিকে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণ করছে তার চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ড।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বোর্ড বৈঠকে বসে। বোর্ডের সঙ্গে কথা বলতে এভারকেয়ার হাসপাতালে গেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

গত ১০ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনা শনাক্ত হয়। এরপর থেকে গুলশানের বাসা ‘ফিরোজায়’ তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এফএম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে চিকিৎসা শুরু হয়। 

১৪ দিন অতিক্রান্ত হওয়ার পর দ্বিতীয়বারের মতো খালেদা জিয়ার করোনা টেস্ট হলেও ফল পজিটিভ আসে।

পরবর্তী খবর

বিএনপিকে দোষারোপের রাজনীতি পরিহার করার আহবান কাদেরের

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপিকে দোষারোপের রাজনীতি পরিহার করার আহবান কাদেরের

সরকারের বিরুদ্ধে অবান্তর অভিযোগ না এনে করোনা মোকাবেলায় বিএনপিকে সচেতন হওয়ার আহবান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, করোনা বেগম খালেদা জিয়াকেও ছাড় দেয়নি, তাই এই মূহুর্তে রাজনীতি হচ্ছে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের এই অদৃশ্য শক্তিকে মোকাবিলা করতে বিএনপিকে দোষারোপের রাজনীতি পরিহার করার আহবান জানান। 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আজ সকালে ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক উপকমিটি আয়োজিত করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। তিনি তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

'৭৫ পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তা স্মরণীয় হয়ে থাকবেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন শেখ হাসিনা সরকার জনগণের জীবন ও জীবিকার সুরক্ষায় যা করছে জনগণও তা ভালো করে জানে।তিনি দলের নেতাকর্মীদের স্মরণ করে দিয়ে বলেন ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করতে গিয়ে কোনভাবেই যেন বদনাম না হয় সেদিকে খেযাল রাখতে হবে।'

তিনি বলেন, করোনা মোকাবেলায় মাস্ককে সবচেয়ে বড় অস্ত্র। তাই সবাইকে শতভাগ মাস্ক পরিধান করা নিশ্চিত করতে হবে এবং দলের নেতাকর্মীদের সারাদেশে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ঘরে ঘরে সচেতনতার দুর্গ গড়ে তুলতে হবে। 

বিএনপি দীর্ঘদিন অপরিপক্ক ও অপরাজনীতির চর্চা করে এখন গোয়েবলসীয় কায়দায় সরকারের ইমেজ নষ্ট করার অপচেষ্টায় আছে বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক উপকমিটির চেয়ারম্যান আ ফ ম রুহুল হকের সভাপতিত্বে এসময় ধানমন্ডি প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার রোকেয়া। সুলতানা, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খানসহ স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

সরকার খালেদা জিয়াকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেবে, আশা মির্জা ফখরুলের

অনলাইন ডেস্ক

সরকার খালেদা জিয়াকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেবে, আশা মির্জা ফখরুলের

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আশা প্রকাশ করে জানিয়েছেন, সরকার খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেবেন। আজ বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সোমবার (৩ মে) সন্ধ্যায় খালেদা জিয়ার অবস্থা সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়েছি। তাকে বিদেশে নিতে পরিবারের ইচ্ছার কথা তুলে ধরেছি। খালেদা জিয়ার পরিবার চায় বিদেশে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করাতে। খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারের ইতিবাচক সাড়া পাওয়া যাবে বলে আশা করছি।’

আরও পড়ুন:


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


উল্লেখ্য, গত ১০ এপ্রিল করোনা পরীক্ষার পর খালেদা জিয়ার সংক্রমণ ধরা পড়ে। শুরুতে তিনি গুলশানে তার ভাড়া বাসা ফিরোজায় ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকীর অধীনে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। পরে ২৭ এপ্রিল আবার সিটি স্ক্যানসহ প্রয়োজনীয় কিছু পরীক্ষার জন্য খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

আবারও ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিল কাদের মির্জা

অনলাইন ডেস্ক

আবারও ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিল কাদের মির্জা

আবারও ২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। মেয়রপুত্র তাশিক মির্জাকে রক্তাক্তকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করতে এই আল্টিমেটাম দেন। বুধবার রাত ১২ টা ২৫ মিনিটে তার ফেসবুক আইডি থেকে স্ট্যাটাসের মাধ্যমে এ কথা জানান।

কাদের মির্জা লিখেন, আমার ছেলে তাশিক মির্জাকে তৎকালীন ওসি (তদন্ত) রবিউলের উপস্থিতে থানার সামনে সন্ত্রাসীরা পাইপগান দিয়ে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে চৌচির করে রক্তে রঞ্জিত করেছে। ওই সব সন্ত্রাসী হলো কিলার বাদল, কিলার রাহাত, কিলার আকরাম উদ্দিন সবুজ, কিলার রুমেল, কিলার রিমন, কিলার কচি ও কিলার মঞ্জু। এ সময় তাদের নেতৃত্বে শতাধিক সন্ত্রাসী উপস্থিত ছিল।

আরও পড়ুন:


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


ওই দিনের একটি ভিডিওতে দেখা যায়, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তারকে সন্ত্রাসীরা হুমকি দিয়ে বলছে, মির্জার ছেলেসহ তার কোনো লোককে চিকিৎসা দিবেন না। সন্ত্রাসীরা ডাক্তারদের অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে আমরা অন্য স্থান থেকে ডাক্তার এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করি। অন্যদিকে সে সময় ওসি রনি আমার অফিসে এসে আমার নেতাকর্মীদের অবরুদ্ধ করে রাখে, যেন কেউ বাহিরে না যেতে পারে।

আমার ছেলেকে আহত করার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন আসামি গ্রেপ্তার হয়নি। আমার ছেলেকে যারা রক্তাক্ত করেছে ওই সব সন্ত্রাসী আজ রাত ১০ টার সময় থানার সামনে এবং পুরো বাজারে অস্ত্র নিয়ে সু সজ্জিত হয়ে মহড়া দিয়েছে। 

সন্ত্রাসীরা আমার নেতা কর্মীদের মারার জন্য বাজারে অবস্থান নেয়। অথচ পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করছে না। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যারা আমার ছেলেকে রক্তাক্ত করছে তাদের গ্রেপ্তার করা না হয়, তাহলে যে কোন পরিস্থিতির জন্য আমি দায়ী থাকব না।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

ভালো নেই খালেদা জিয়া, ফুসফুস থেকে ৩ ব্যাগ লিকুইড অপসারণ

তৌহিদ শান্ত:

হাসপাতালে ভালো নেই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তিনি অত্যান্ত অসুস্থ্য। ব্যাক্তিগত চিকিৎসক সূত্রে জানা গেছে, তার ফুসফুস থেকে ৩ ব্যাগ তরলজাতীয় পদার্থ অপসারণ করা হয়েছে।

নিয়ন্ত্রণে নেই ডায়বেটিসও। খালেদা জিয়ার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

গেল সোমবার শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়ায় বেগম খালেদা জিয়াকে  করোনারি কেয়ার ইউনিট- সিসিইউতে স্থানান্তর করা। এভারকেয়ার হাসপাতালে তিনি ভর্তি হন ২৮ এপ্রিল।

গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্তও তারা চিকিৎসকের নিশ্চিত করেন যে তার অবস্থা অপরিবর্তিত আছে। কিন্তু অনানুষ্ঠানিক ভাবে হাসপাতালের একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে যে এরই মধ্যে তাঁর ফুসফুস থেকে ৩ ব্যাগ তরলজাতীয় পদার্থ অপসারণ করা হয়েছে।

জানা গেছে বেগম জিয়ার ব্লাডসুগার বেড়ে যাচ্ছে নিয়ন্ত্রণে থাকছে না ডায়াবেটিসও।

৭৬ বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া মূলত করোনা পরবর্তি জটিলতায় ভুগছেন বলে হাসাপাতাল সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর