বান্দরবানে মুক্তিপণ না পেয়ে মামাতো ভাইকে খুন

বান্দরবান প্রতিনিধি

বান্দরবানে মুক্তিপণ না পেয়ে মামাতো ভাইকে খুন

বান্দরবানের লামায় মামাতো ভাইকে জিম্মি করে মুক্তিপণ না পাওয়ায় হত্যা করেছে আপন ফুপাতো ভাই। হত্যার ২৫ দিন পর বুধবার ভোর রাতে পুলিশ মাটি চাপা দেওয়া কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে। 

একইসাথে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ফুপাতো ভাইসহ দুজনকে আটক করেছে। নৃশংস এ  ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের শিং ঝিরি এলাকায়।

নিহত কিশোরের নাম হাফেজ মো. অলি উল্লাহ স্বাধীন (১৭)। সে কুমিল্লার দেবিদ্বার থানার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের বিষুপুর গ্রামের মো. মোবারক হোসেনের ছেলে। তার অভিযুক্ত কিশোরের নাম মো. আরিফুল ইসলাম (১৭)। সে একই গ্রামের মৃত মো. আব্দুল গণি খাঁ’র ছেলে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, স্বাধীন গত ২২ মার্চ তার ফুফাতো ভাই আরিফুল ইসলামের সাথে বেড়ানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়।

নিহতের বড় ভাই রিয়াজ উদ্দিন সোহেল সাংবাদিকদের জানান, কয়েকদিন যাবৎ ছোট ভাইয়ের কোনো খোঁজ খবর না পেয়ে গত ২৪ মার্চ কুমিল্লার বুড়িচং থানায় হারানোর একটি জিডি করা হয়। এরপরই নিখোঁজ ছোট ভাইয়ের হাত-পা বাঁধা ছবি পাঠিয়ে ঘাতকরা ১ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সন্দেভাজন হিসেবে আরিফুল ইসলাম ও কুমিল্লার বুড়িচং থানার খারাতাইয়া গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে মো. ফয়েজ আহমদকে (৩৮) আটক করে। 

তাদের জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ স্বাধীনকে নৃশংসভাবে হত্যা করে মাটি চাপা দেওয়ার চাঞ্চল্যকর তথ্য পায়। পরে আটকদের দেওয়া তথ্যমতে ঘাতকদের সাথে উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকা শিং ঝিরিস্থ পাহাড়ের উপরে মাটি খুঁড়ে স্বাধীনের লাশ উদ্ধার পুলিশ।

লামা থানার ওসি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, আটক দুজনের দেওয়া তথ্য মতে ও তাদের দেখানো স্থানে মাটি খুঁড়ে আমরা নিহত হাফেজ স্বাধীনের লাশ উদ্ধার করতে সক্ষম হই। নিহতের দুই ভাই তাদের ছোট ভাইয়ের লাশ শনাক্ত করেছে। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ নিহতের পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

উপকূলের মানুষের জন্য খাবার পানির ব্যবস্থা করলেন ভিবিডি

শাকিলা ইসলাম জুঁই, সাতক্ষীরা :

উপকূলের মানুষের জন্য খাবার পানির ব্যবস্থা করলেন ভিবিডি

গ্রীস্মের শুরুতে সাতক্ষীরার উপকূলীয় এলাকায় দেখা দিয়েছে সুপেয় পানির তীব্র সংকট। পকুরের পানির ওপর নির্ভরশীল এসব অঞ্চলের মানুষ। তবে এ বছর খরায় শুকিয়ে গেছে পুকুরের পানিও। এ পরিস্থিতিতে সৃষ্টি হয়েছে পানির জন্য হাহাকার। এ অবস্থায় নিজেদের ইফতার পার্টি বন্ধ করে ওই টাকায় পানির ব্যবস্থা করলেন জেলার একঝাঁক তরুণ ভলেন্টিয়ার।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুরে উপকূলীয় শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় খাবার পানি সরবরাহ করা হয়। ইঞ্জিনভ্যানযোগে দুটি পানির ট্যাংকে পানি নিয়ে সরবরাহ করেন জাগো ফাউন্ডেশনের ইয়ুথ উইং দেশের সর্ববৃহৎ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ভলেন্টিয়ার ফর বাংলাদেশ (ভিবিডি) সাতক্ষীরার ভলেন্টিয়াররা।

পানি পাওয়ার পর আমেনা বেগম (৬৫) বলেন, আমাদের খাবারের অভাব নেই। অভাব শুধু পানির। টিউবওয়েলের পানি লবণাক্ত, খাওয়া যায় না। পুকুরের পানিও শেষ হয়ে গেছে প্রায়। তোমাদের পানি পেয়ে আমরা অনেক খুশি।

ভলেন্টিয়ার ফর বাংলাদেশ (ভিবিডি) সাতক্ষীরার সভাপতি সুব্রত হালদার বলেন, উপকূলীয় এলাকায় খাবার পানির তীব্র সংকট, মানুষ খাবার পানি পাচ্ছে না। বৃষ্টি না থাকায় পুকুরের পানি ফুরিয়ে গেছে, টিউবওয়েলে পানি ও উঠছে না। ভিবিডির ভলেন্টিয়াররা এটি জানার পর তাদের পক্ষ থেকে প্রথম দিনে দুটি ট্যাংকে ২ হাজার লিটার পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। রমজানের এ সময় মানুষ পানির জন্য কষ্টে থাকে বিষয়টি খুব কষ্টের।

তিনি আরও বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে পানি দেওয়া এটি সাময়িক সমাধান। তবে পানির সংকট স্থায়ীভাবে সমাধান করা খুবি জরুরি। গভীর নলকূপ স্থাপন করলে যদি এ সমস্যার সমাধান হয় তবে সেটিও ভিবিডির পক্ষ থেকে করা হবে। আমরা চাই, পানি সমস্যার স্থায়ী সমাধান হোক।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

নাটোর জেলার অভ্যন্তরে গণপরিবহন চলাচল শুরু

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোর জেলার অভ্যন্তরে গণপরিবহন চলাচল শুরু

নাটোর জেলার অভ্যন্তরে গণপরিবহন চলাচল শুরু হয়েছে। আজ বৃহস্পপতিবার সকাল থেকে জেলার অভ্যন্তরে সকল রুটে বাস চলাচল শুরু হয়েছে। তবে টার্মিনালগুলোতে খুবই কম বাস লক্ষ্য করা গেছে। গণপরিবহন গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে অর্ধেক যাত্রী বহন করতে দেখা গেছে। তবে যাত্রীদের কাছ থেকে অনেক বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিভিন্ন জেলার সীমান্তের চেক পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে যাতে কোনো গণপরিবহন এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যেতে না পারে।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

রাঙামাটিতে দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে খাদ্য সহায়তা বিতরণ

ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি:

রাঙামাটিতে দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে খাদ্য সহায়তা বিতরণ

করোনাকালীন অসহায় ও হতদরিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন রাঙামাটি চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি। বৃহষ্পতিবার বেলা ১১টার দিকে রাঙামাটি চেম্বার অব কমার্স ভবনে খাদ্র সহায়তা বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও রাঙামাটি সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার।

এ সময় রাঙামটি চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র চেয়ারম্যানের মা. আব্দুল ওয়াদুদের সভাপতিত্বে এতে চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি উসাং মং, সহ-সভাপতি মো. আলী বাবর, পরিচালক হাজী কামাল উদ্দিন, হারুন অর রশিদ মাতব্বর, মো. নিজাম উদ্দিন, নেছার আহমেদ, ইউসুফ হারুন, জাহিদ আক্তার, মেহেদী আল মাহবুব, আবুল মনসুর ওবাইদুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।  

এ সময় তিনি প্রায় ৫০০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিলো- চাউল-৫ কেজি, আলু-২ কেজি, মশুর ডাল-১ কেজি, পিয়াজ-২ কেজি, সয়াবিন তেল-১লিটার। এছাড়া যারা নিতে আসেনি তাদের জন্য রাঙামটি চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সদস্যরা ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রি পৌঁছে দেন। 

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

মাথাপিছু জমির পরিমাণ কমছে অন্যদিকে জনসংখ্যা বাড়ছে: কৃষিমন্ত্রী

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :

মাথাপিছু জমির পরিমাণ কমছে অন্যদিকে জনসংখ্যা বাড়ছে: কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বাংলাদেশে মাথাপিছু জমির পরিমাণ কমছে অন্যদিকে জনসংখ্যা বাড়ছে। প্রতিবছর প্রায় ২২ লাখ মানুষ বাড়ছে, এই বিপুল পরিমাণ মানুষের খাদ্য চাহিদা যোগান দেয়া আমাদের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ইতিমধ্যে ধানের অনেক নতুন জাত উদ্ভাবিত হয়েছে। ক্রমশ জনসংখ্যা বাড়লেও খাদ্য নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব হচ্ছে।

তিনি বলেন, আগে বরেন্দ্র অঞ্চলে একবার ধান হতো। এখন কয়েকবার ধানের আবাদ হচ্ছে, আগের চেয়ে উন্নত জাতের ধান আবাদ করা হচ্ছে। 

ইতিমধ্যে আমাদের গবেষকরা ব্রি-৮১, ৮৮, ৮৯, ৯২, ৯৬ জাতের ধান উদ্ভাবন করেছেন। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আরেকটি নতুন জাতের ধান ব্রি-১০০ উন্মুক্ত করা হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, ব্রি- ৮১ জাতের ধান চাঁপাইনবাবগঞ্জে এক বিঘা জমিতে ৩১মণ ফলন হয়েছে, এরচেয়ে বেশি কি হতে পারে। এই ধান সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে। আগে কৃষকরা ২৮ ধান উৎপাদন করতো, এখন ব্রি-৮১ জাতের উচ্চ ফলনশীল জাতটি চাষের ব্যাপারে আগ্রহ দেখাচ্ছে।

কৃষিমন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চিনিয়াতলা এলাকায় ব্রি- ৮১ জাতের ধান কর্তন ও কৃষক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনষ্টিটিউট ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। এধারাকে অব্যাহত রাখতে আরও পরিশ্রম করতে হবে। সরকার কৃষি যান্ত্রিকরণের জন্য ৩হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। 

তিনি বলেন, বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকার কৃষিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে যুগোপযোগি পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। ফলে বাংলাদেশ হবে আধুনিক কৃষ্রি দেশ, বাণিজ্যিক কৃষির দেশ।

জেলার আম রপ্তানী প্রসঙ্গে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সুস্বাদু আম রপ্তানির মাধ্যমে সারাবিশ্বের মানুষকে খাওয়ানো হবে। এছাড়া হেফাজত ইসলাম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রাজাকার-আলবদরদের মতো বাংলার মটি থেকে হেফাজতকের মূল উৎপাটন করা হবে। বাংলাদেশ কোনদিন তালেবান-আল কায়েদার দেশ হবে না।

জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল আফিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ- ১ আসনের সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি ফেরদৌসী ইসলাম জেসীসহ কৃষি বিভাগের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

শেরপুরে কর্মহীন শিল্পী, কবি ও সাহিত্যিকদের নগদ অর্থ সহায়তা

শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুরে কর্মহীন শিল্পী, কবি ও সাহিত্যিকদের নগদ অর্থ সহায়তা

শেরপুরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণজনিত কারণে জেলায় কর্মহীন হয়ে পড়া শিল্পী, কলাকৌশলী, কবি ও সাহিত্যিকদের অনুকূলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল হতে বরাদ্দকৃত নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। 

৬ মে বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষ রজনীগন্ধায় ওই নগদ অর্থ বিতরণ করেন জাতীয় সংসদের হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আতিউর রহমান আতিক এমপি। 

ওইসময় তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার করোনা পরিস্থিতিতে সকল সম্প্রদায়ের মানুষের পাশে রয়েছেন। তিনি করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার আহবান জানান।

জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুবের সভাপতিত্বে অর্থ সহায়তা প্রদানকালে অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ওয়ালীউল হাসান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফিরোজ আল মামুন, প্রেসক্লাব সভাপতি শরিফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিন, জেলা ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মানিক দত্ত, সাধারণ সম্পাদক হাকিম বাবুলসহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এদিন ৫০ জন শিল্পী কলাকৌশলী ও কবি ও সাহিত্যিকের মাঝে নগদ ১০ হাজার টাকা করে মোট ৫ লাখ টাকা প্রদান করা হয়।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর