রাশিয়ায় নাভালনির সমর্থনে বিক্ষোভ, আটক প্রায় ২ হাজার

অনলাইন ডেস্ক

রাশিয়ায় নাভালনির সমর্থনে বিক্ষোভ, আটক প্রায় ২ হাজার

রাশিয়ায় অ্যালেক্সেই নাভালনির সমর্থনে বুধবার রাশিয়ার কয়েক ডজন শহরে বিক্ষোভ হয়েছে। এই বিক্ষোভে আটক করা হয়েছে ১ হাজার ৭০০ জনেরও বেশি বিক্ষোভকারীকে।

বার্তা সংস্থা এএফপির জানায়, বুধবার রাতে রাশিয়ার বিভিন্ন শহরে রাস্তায় নেমে আসেন হাজার হাজার মানুষ। এসময় তারা নাভালনির মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে বিক্ষোভ করেন। সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ হয়েছে দেশটির রাজধানী মস্কোতে।

একটি পর্যবেক্ষক সংগঠনের দাবি, বিক্ষোভে অংশ নেয়ায় রাশিয়ার ৯৭টি শহর থেকে অন্তত ১ হাজার ৭৮৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সবচেয়ে বেশি ৮০৫ জন আটক হয়েছেন সেইন্ট পিটার্সবার্গ থেকে। শহরটিতে শক স্টিক (বৈদ্যুতিক শক দেয়া লাঠি) নিয়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর চড়াও হয়েছিল নিরাপত্তা বাহিনী।

আটক ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন নাভালনির প্রেস সচিব কিরা ইয়ারমিশ। অননুমোদিত বিক্ষোভে অংশগ্রহণের আহ্বান জানানোয় তাকে ১০ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।


আরও পড়ুনঃ


বাঙ্গি: বিনা দোষে রোষের শিকার যে ফল

৫৩ জন নাবিকসহ নিখোঁজ ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিন

ভিক্ষা করে হলেও অক্সিজেন সরবরাহের নির্দেশ ভারতে

১৫ বছর ধরে কাজে যান না, বেতন তুললেন সাড়ে ৫ কোটি টাকা!


পুরোনো একটি মামলায় গত ফেব্রুয়ারিতে কারাগারে পাঠানো হয় অ্যালেক্সেই নাভালনিকে। বর্তমানে মস্কোর বাইরে একটি পেনাল কলোনিতে বন্দি রয়েছেন রুশ বিরোধী নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনি।

সেখানে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে গত ৩১ মার্চ থেকে অনশন করছেন তিনি। এর ফলে তার শারীরিক অবস্থার গুরুতর অবনতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

এই গ্রীষ্মেই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

এই গ্রীষ্মেই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

এই গ্রীষ্মেই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডেন। নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় কিছু সংবাদ মাধ্যমে এমন তথ্যই পাওয়া যাচ্ছে।

গতকাল বুধবার (৫ মে) রয়টার্সের এক খবরে বলা হয়, স্থানীয় কোস্ট রেডিও নামক এক চ্যানেলে জেসিন্ডা আর্ডেন জানিয়েছেন, তিনি এবং তার প্রেমিক ক্লার্ক গেইফোর্ড অবশেষে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং বিয়ের জন্য একটি তারিখ ঠিক করেছেন।

বিয়ের জন্য এখনও কাউকে দাওয়াত দেননি বলেও জানান তিনি।

৪০ বছর বয়েসি জেসিন্ডা আর্ডেন ২০১৯ সালের ইস্টার হলিডেতে ৪৪ বছর বয়েসি ক্লার্ক গেইফোর্ডের সঙ্গে বাগদান করেছিলেন। তাদের দুই বছরের এক কন্যা সন্তান রয়েছে।


আরও পড়ুনঃ


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


এ সংক্রান্ত খবরের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যোগাযোগ করা হলে এক কর্মকর্তা বলেছেন, ‘আজ সকালে যা খবরে এসেছে, এর চেয়ে বেশি কিছু আর বলার মতো নেই’।

২০১৭ সালে জেসিন্ডা আর্ডেন নিউজিল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন। ২০২০ সালে নির্বাচনে আবারও প্রধানমন্ত্রী হন জেসিন্ডা আর্ডেন।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

২৪ ঘণ্টার মধ্যে সিরিয়ার ওপর ইসরাইলের দ্বিতীয় দফা হামলা

অনলাইন ডেস্ক

২৪ ঘণ্টার মধ্যে সিরিয়ার ওপর ইসরাইলের দ্বিতীয় দফা হামলা

সিরিয়ার সর্ব-দক্ষিণের কুনেইত্রা প্রদেশে হেলিকপ্টার থেকে হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। গত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এটি সিরিয়ার ওপর ইসরাইলের দ্বিতীয় দফা হামলা।

একজন পদস্থ নিরাপত্তা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে স্পুৎনিক বার্তা সংস্থা এ খবর দিয়েছে। অধিকৃত গোলান মালভূমির আকাশ থেকে হেলিকপ্টারটি আজ (বৃহস্পতিবার) দিনের প্রথম দিকে হামলা চালায়।

ওই কর্মকর্তা জানান, ইসরাইলি হামলায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটে নি তবে কিছু সম্পদের ক্ষতি হয়েছে। সিরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ইসরাইলের বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিহত করে।

মঙ্গলবার সিরিয়ার পশ্চিমাঞ্চলীয় লাতাকিয়া শহর জুড়ে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইসরাইল। একইদিন সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় হামা প্রদেশেও হামলা চালায় তারা।


আরও পড়ুনঃ


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


উল্লেখ্য, ২০১১ সাল থেকে সিরিয়ায় উগ্র সন্ত্রাসীদের চরম সহিংসতা চলছে। তবে সিরিয়ার বাহিনীর প্রতিরোধের মুখে এখন সন্ত্রাসীরা একেবারে কোণঠাসা হয়ে পড়েছে।

এ অবস্থায় তাদের মনোবল চাঙ্গা রাখার জন্য মাঝে মাঝে ইসরাইলি বাহিনী সিরিয়ার ওপর হামলা চালায়।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

অবশেষে পঞ্চমবারের চেষ্টায় স্পেসএক্স রকেটের সফল উৎক্ষেপণ

অনলাইন ডেস্ক

অবশেষে পঞ্চমবারের চেষ্টায় স্পেসএক্স রকেটের সফল উৎক্ষেপণ

পরপর চারবার ব্যর্থতার পর এবার সাফল্যের দেখা পেল ইলন মাস্কের স্পেসএক্স। টেক্সাসের বেস থেকে স্টারশিপের প্রটোটাইপের পরীক্ষা সফল হয়। এর আগে চারবারই রকেটে আগুন লেগে যায়।

স্টারশিপের স্টেইনলেস স্টিলের রকেট এসএন১৫ গালফ অব মেক্সিকোর ১০ কিলোমিটার উপরে উঠে তারপর ফিরে এসে ল্যান্ড করে। ছয় মিনিটের এই উড্ডয়ন সফল হয়েছে। তবে ল্যান্ডিংয়ের পর বেস ক্যাম্পে ছোট আগুন লেগে যায়।

তবে জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলে জানায়, স্পেসএক্সের এটাকে স্বাভাবিক বিষয় বলেই ব্যাখ্যা করেছে। মিথেন ফুয়েলকে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে, সেখানে এটা হতে পারে বলে জানিয়েছে তারা। তবে আগুন সঙ্গে সঙ্গে নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। ইঞ্জিনিয়াররাও বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন।

স্পেসএক্সের প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্ক টুইট করে বলেছেন, স্টারশিপের ল্যান্ডিং স্বাভাবিক ছিল।

গত মাসে নাসা স্পেসএক্সের সঙ্গে ৩০০ কোটি ডলারের চুক্তি করেছে। তারা স্পেসএক্সের স্টারশিপ করে চাঁদে মহাকাশচারীদের পাঠাবে।


আরও পড়ুনঃ


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


মাস্ক চাইছেন, সৌরমণ্ডলের বিভিন্ন গ্রহে যাওয়ার জন্য সুপার হেভি রকেটে করে স্টারশিপকে পাঠাতে। সেই রকেট আবার ব্যবহার করা যাবে।

তিনি চাঁদে ও মঙ্গলে মানুষও পাঠাতে চান। মঙ্গলে কলোনি তৈরি করতে চান। চাঁদে একটি লুনার স্টেশনও তৈরি করবেন তিনি।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

টিকার মেধাস্বত্ত্ব ছাড়তে রাজি যুক্তরাষ্ট্র, ক্ষুব্ধ ওষুধ কোম্পানিগুলো

অনলাইন ডেস্ক

টিকার মেধাস্বত্ত্ব ছাড়তে রাজি যুক্তরাষ্ট্র, ক্ষুব্ধ ওষুধ কোম্পানিগুলো

করোনাভাইরাস টিকার মেধাস্বত্ত্ব ছাড়ে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) উদ্যোগের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। নিজ দলের সংসদ সদস্য ও শতাধিক দেশের চাপের মুখে বুধবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ সিদ্ধান্ত নেন।

এই সিদ্ধান্তের ফলে ক্ষুব্ধ হয়েছে ওষুধ কোম্পানিগুলো। তবে এই সিদ্ধান্ত নিজের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির মধ্যে অন্যতম ছিলো।

বিশ্বজুড়ে টিকার উৎপাদন বাড়াতে মেধাস্বত্ত্ব ছাড়ের এই উদ্যোগের প্রস্তাব দেয় ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু এতে কাঙ্ক্ষিত ফল নাও আসতে পারে উল্লেখ করে বিরোধিতা করে ওষুধ কোম্পানিগুলো।

যদিও এখনই কার্যকর হচ্ছে না এই উদ্যোগ। যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য প্রতিনিধি ক্যাথরিন এ বিষয়ে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এ বিষয়ে সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে ডব্লিওটিও সদস্য দেশগুলোর সময়ের প্রয়োজন হবে।


আরও পড়ুনঃ


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


অন্যদিকে মার্কিন এই সিদ্ধান্তের পর মার্কেটে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়েছে। ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজার ও মডার্নাসহ করোনা টিকার প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলোর শেয়ারে দরপতন হয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনা টিকার উপর থেকে মেধাস্বত্ত্ব ছাড় দেয়ার দাবিতে গত ছয় মাস ধরে সোচ্চার বহু দেশ। তবে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা এই দাবি তোলার পর তা জোরালো আকার ধারণ করে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

আইসিইউর ভিতরে ৬ রোগীর লাশ, পালিয়েছেন ডাক্তার-নার্স (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

আইসিইউর ভিতরে ৬ রোগীর লাশ, পালিয়েছেন ডাক্তার-নার্স (ভিডিও)

ভারতের গুরগাঁওয়ের একটি হাসপাতালের আইসিইউ। বাইরে থেকে তালা দেয়া। ভিতরে করোনায় আক্রান্ত আশঙ্কাজনক রোগী। তাদের স্বজনরা সেখানে গিয়ে দেখলেন বাইরে থেকে তালা দেয়া। হাসপাতালে কোনো স্টাফ, কর্মকর্তা, কর্মচারি কিছুই নেই। চারদিক সুনশান নীরবতা। এ অবস্থায় তারা একটি আইসিইউতে প্রবেশ করেন। দেখেন বেডে বেডে মরে পড়ে আছেন রোগী।

গা শিউরে উঠা এমন দৃশ্য দেখে আকাশ বিদীর্ণ করে চিৎকার করলেন তারা। কেউ এগিয়ে এলো না। তারা দেখলেন আইসিইউ বেডে রোগীদের ওপর ফোকাস করে রাখা ক্যামেরা। একজন রোগীর মৃতদেহ পড়ে আছে মেঝেতে। এই দৃশ্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে বলা হয়েছে, গুরগাঁওয়ে অবস্থিত কৃতী হাসপাতালে এ ঘটনার সূত্রপাত। সেখানে শুক্রবার রাতে করোনায় মারা যান কমপক্ষে ৬ রোগী। এদিনই ওই ভিডিও ধারণ করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, অক্সিজেন সঙ্কটের কারণে মারা গিয়েছেন এসব রোগী। 

এর মধ্যে তিনজন মারা গেছেন আইসিইউতে। ভিডিওতে দেখা যায়, রোগীদের আত্মীয়রা হাসপাতালে প্রবেশ করে দেখেন ভিতরে ফাঁকা। কোথাও কোন ডাক্তার নেই। স্টাফ নেই। টেবিলগুলো পড়ে আছে শূন্য। এ অবস্থায় তারা এক ওয়ার্ড থেকে আরেক ওয়ার্ডে দৌড়াতে থাকেন উন্মাদের মতো। কিন্তু না, কোনো সাহায্য পেলেন না। কে সাহায্য করবে? পুরো হাসপাতালের ডাক্তার, স্টাফ, নার্সরা তো এ অবস্থায় হাসপাতাল ছেড়ে পালিয়েছেন! ভিডিওতে একজনকে বলতে শোনা যায়, কোনো ডাক্তার নেই হাসপাতালে। কোনো কেমিস্ট নেই। রিসেপশনে কেউ নেই। 

আরও পড়ুন:


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


ভিডিওতে দেখা যায়, এসব রোগীর পরিবারের সদস্যরা নার্স স্টেশনের ভিতর দিয়ে, ওয়ার্ডে এবং কেবিনে ডাক্তার, নার্স, স্টাফদের খুঁজে হন্যে হচ্ছেন। খবর যায় পুলিশে। তারা পুলিশের সঙ্গে যুক্তিতর্কে লিপ্ত হন। জানতে চান কিভাবে রোগীদের এভাবে ফেলে রেখে, তাদেরকে মৃত্যুমুখে ঠেলে দিয়ে চিকিৎসকরা পালিয়ে যেতে পারেন।

তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ভিন্ন সুর। তারা বলছে, চিকিৎসকরা হাসপাতাল ভবনেই অবস্থান করছিলেন। আত্মীয়দের হামলার শিকার হতে পারেন এই আশঙ্কায় তারা হাসপাতালের ক্যান্টিনে আত্মগোপন করেছিলেন। হাসপাতলের পরিচালক স্বাতী রাঠোর বলেছেন, ঘটনার দিন স্থানীয় সময় বিকাল ২টা থেকে প্রতিজন সরকারি কর্মকর্তাকে অক্সিজেন সঙ্কটের কথা জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ড. রাঠোর বলেন, অক্সিজেন সঙ্কটের কারণে স্থানীয় সময় বিকাল ৪টা থেকে আমরা সব রোগীর অভিভাবককে অক্সিজেন সঙ্কটের কথা জানিয়েছি। কিন্তু কোনদিক থেকে কোন সাহায্য আসেনি। রাত ১১টা নাগাদ এর ফলে ৬ জন রোগী মারা যান।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর