চিকিৎসকের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা: দলনেতা হিসেবে ম্যাজিস্ট্রেটকেই দায় নিতে হলো

অনলাইন ডেস্ক

চিকিৎসকের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা: দলনেতা হিসেবে ম্যাজিস্ট্রেটকেই দায় নিতে হলো

ঢাকা জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মো. মামুনুর রশীদকে বদলি করা হয়েছে। ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে তাকে বরিশালের বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে ন্যস্ত করা হয়েছে।এর আগে, লকডাউন চলাকালে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে চিকিৎসকের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার জেরে আলোচনায় আসেন তিনি।

বদলির বিষয়ে বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) রাতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, সেদিনের চেকপোস্টে দলনেতা হিসেবে সেই ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্বে ছিলেন। বিধায় দলনেতা হিসেবে তাকে দায় নিতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, চিকিৎসক তাকে একাধিক প্রমাণপত্র দেখানোর পর আলাপ এতদূর এগুলোর দায় তাকে নিতে হবে। বিশেষত করোনাকালে কোনও চিকিৎসককে জেরা করার ক্ষেত্রে আরও সাবধান হওয়া উচিত ছিল। যখন তিনি একাধিক প্রমাণ দেখিয়েছেন তখন তার সঙ্গে এতে কথা হওয়া ঠিক হয়নি।

গত রোববার এলিফ্যান্ট রোডে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় নিরাপত্তাচৌকিতে দায়িত্ব পালনরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নারী চিকিৎসকের পরিচয়পত্র দেখতে চান। ওই চিকিৎসক নিজের ব্যক্তিগত গাড়িতে করে যাচ্ছিলেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এক ভিডিওতে দেখা যায় ওই নারী চিকিৎসকের পরিচয়পত্র দেখতে চান পুলিশ সদস্যরা। ঘটনার সময় উত্তেজিত হয়ে পুলিশ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডা করতে দেখা যায় ওই চিকিৎসককে। তাকে উত্তেজিত ভঙ্গিতে কথা বলতে শোনা যায়। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা হয়।

এই ঘটনার পর চিকিৎসকদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) ও বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন পাল্টাপাল্টি বিবৃতি দেয়।

চিকিৎসকের দাবি, চিকিৎসককে ইচ্ছা করে হয়রানি করা হয়েছে। তার গাড়িতে লকডাউনের সময় হাসপাতালে কাজ করার আদেশনামা ছিল, পরনে অ্যাপ্রোন ছিল এবং গাড়িতে হাসপাতালের স্টিকার লাগানো ছিল। 

আর পুলিশের পক্ষের দাবি, চিকিৎসক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশকে ‘তুই’ বলে সম্বোধন করেছেন এবং গালি দিয়েছেন। তিনি নিজ মন্ত্রণালয়ের বৈধ আদেশ লঙ্ঘন এবং ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের সঙ্গে অসদাচরণের অভিযোগে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানানো হয় পুলিশের বিবৃতিতে।

এর আগে বিএমএ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে লেখা এক চিঠিতে এলিফ্যান্ট রোডে চিকিৎসককে হেনস্তায় জড়িতদের দ্রুত চিহ্নিত করে বিভাগীয় শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানিয়েছিল।

ওই দিনের ঘটনার পর স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সংবাদ ব্রিফিংয়ে চিকিৎসকদের পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখার জন্য আহ্বান জানিয়েছে। চেকপোস্টে ‘চাহিবামাত্র তা প্রদর্শনেরও’ অনুরোধ করেছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ভারত থেকে ফেরা ১৪০ জনকে রাখা হলো সাতক্ষীরায় তিন আবাসিক হোটেলে

অনলাইন ডেস্ক

ভারত থেকে ফেরা ১৪০ জনকে রাখা হলো সাতক্ষীরায় তিন আবাসিক হোটেলে

বুধবার সন্ধ্যায়  বেনাপোল দিয়ে ভারত থেকে দেশে ফেরা ১৪০ যাত্রীকে সাতক্ষীরা শহরের তিনটি আবাসিক হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এসব যাত্রীদের মধ্যে ৫০ জনের একটি দলকে আবাসিক হোটেল উত্তরা ও বাকীদের টাইগার প্লাস এবং হোটেল আল কাশেম এ রাখা  হয়েছে।

দেশে ফেরা প্রত্যেকেরই পাসপোর্ট সাতক্ষীরা সদর থানায় জমা আছে। তাদের বাড়ি সাতক্ষীরাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায়।

অর্থের অভাবে না খেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন বলে জানিয়েছেন ভারতে চিকিৎসা নিতে যাওয়া এই পাসপোর্ট যাত্রীরা।

সাতক্ষীরা টাইগার প্লাস হোটেলের ম্যানেজার আতীক বলেন,  সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন ভারতফেরত ৪১ জন পাসপোর্ট যাত্রীকে আমাদের হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে। আমারদেরকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিলো হোটেল ভাড়া ওইসব পাসপোর্ট যাত্রীরাই বহন করবে। কিন্তু প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকা এসব যাত্রীরা এখন বলছে তারা হোটেল খরচ বহন করতে পারবে না।

তিনি বলেন, সাতক্ষীরার বিভিন্ন ব্যক্তি তাদের খাবারের ব্যবস্থা করছে। এক একজন একেক দিন খাদ্য সরবরাহ করছে। তাদের খাবারের ব্যবস্থা করছে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান।

গাছ উপড়ে পড়ল ঘরের ওপর, গেল স্বামী-স্ত্রীর প্রাণ

ঢাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ কর্মস্থলেই

এরা মানুষ না, অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল জানান, ভারত থেকে বেনাপোল কাস্টমস অফিস দিয়ে দেশে ফেরা ১৪০ জন বাংলাদেশীকে সাতক্ষীরায় অবস্থান করছেন। জেলা শহরের তিনটি আবাসিক হোটেলে তাদেরকে রাখা হয়েছে। তারা সরকারের কাছ থেকে বিশেষ পাশ নিয়ে ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশি হাইকমিশনে  বন্ড দিয়ে শর্তসাপেক্ষে দেশে ফিরে এসেছে।

তিনি জানান, শর্ত অনুযায়ী স্থানীয় প্রশাসন যেখানে তাদেরকে থাকার ব্যবস্থা করবে সেখাইে তাদের ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে এবং তারা নিজ খরচে থাকবে। দেশে ফেরার আগে তারা  এসব শর্তে রাজি হয়ে দেশে ফিরেছে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ঢাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ কর্মস্থলেই

অনলাইন ডেস্ক

ঢাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ কর্মস্থলেই

করোনা ভাইরাসের কারণে উদ্ভুত পরিস্থিতির কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আসন্ন ঈদ কর্মস্থলেই কাটাতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শুক্রবার বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাসের কারণে উদ্ভুত পরিস্থিতি ও লকডাউন বিবেচনা করে আসন্ন ঈদুল ফিতরের ছুটিকালীন সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ অতি জরুরি প্রয়োজন এবং কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতীত কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবেন না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ঈদুলফিতরের অনুমোদিত ছুটি প্রয়োজনে কমিয়ে আনা হতে পারে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ১৬৮২

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ১৬৮২

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৬৮২। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৭০ হাজার ৮৪২ জনে।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় প্রাণ হারালেন মোট ১১ হাজার ৮৩৩ জন। 

আজ শুক্রবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও ২ হাজার ১৭৮ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৪ হাজার ৩৪১ জন।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

দেশে করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।  যা গত ৫ সপ্তাহের সর্বনিম্ন। এ নিয়ে দেশে করোনায় প্রাণ হারালেন মোট ১১ হাজার ৮৩৩ জন। 

এসময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৬৮২ জন। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৭০ হাজার ৮৪২ জনে।

আজ শুক্রবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও ২ হাজার ১৭৮ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৪ হাজার ৩৪১ জন।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

এরা মানুষ না, অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

এরা মানুষ না, অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

যারা হেফাজতের নামে দুস্কর্ম করে, নিষ্ঠুরতা করে, অত্যাচার করে এরা মানুষ না এরা অমানুষ। শুক্রবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখানে হেফাজতের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমি নিজে এসে দেখে গেলাম, আমি আপনাদের সাথে ওয়াদা করছি যারা এই সহিংসতার সাথে জড়িত তাদের সবাইকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসব।’

‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছেন। তিনি নিজেও একজন মুসলমান, তিনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন, সময় মতো তাহাজ্জুদ পড়েন, কোরআন পড়েন, তার হাতে বাংলাদেশ, তিনি কোরআন সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না।’

পরবর্তী খবর