সহায়তায় বরাদ্দ ৫৮৪ কোটি টাকা, ৩৩৩ নম্বরে কল করলেই পৌঁছে যাবে খাদ্য
সহায়তায় বরাদ্দ ৫৮৪ কোটি টাকা, ৩৩৩ নম্বরে কল করলেই পৌঁছে যাবে খাদ্য

সহায়তায় বরাদ্দ ৫৮৪ কোটি টাকা, ৩৩৩ নম্বরে কল করলেই পৌঁছে যাবে খাদ্য

অনলাইন ডেস্ক

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান জানিয়েছেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে সরকারের দেয়া লকডাউনের কারণে কর্মহীন মানুষের মানবিক সহায়তায় সরকার এ পর্যন্ত ৫৭৪ কোটি ৯ লাখ ২৭ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। এতে প্রায় এক কোটি ২৪ লাখ পরিবার উপকৃত হবে।

রোববার (২৫ এপ্রিল) সচিবালয়ে সার্বিক ত্রাণ বরাদ্দ ও বিতরণ কার্যক্রম নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান তিনি।

এসময় প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা ৩৩৩ নম্বরটি প্রচার করছি।

কেউ খাদ্য কষ্টে থাকলে ফোন করলে তাকে তালিকাভুক্ত করে খাদ্য সহায়তা দেয়া হবে। কাউন্সিলদের বলেছি যে যে যেখানে থাকুন না কেন, খাদ্য কষ্টে থাকলে তাকে এনআইডির ভিত্তিতে খাদ্য সহায়তা দিতে হবে। ’

এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমদানি, লোকাল ক্রয় এবং বোরো উৎপাদন মিলিয়ে আমরা মজুতের ক্ষেত্রে স্বস্তিকর অবস্থায় আছি। আমাদের খাদ্য সংকট হবে না। আমাদের সরকারের সামর্থ্য আছে, যতদিন প্রয়োজন আমরা এই মানবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাব। ’

এনামুর রহমান বলেন, করোনার কারণে চলাচল সীমিতকরণের নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীসহ সারা দেশের কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের জন্য সরকার গত বছর বিপুল পরিমাণ খাদ্য সামগ্রীসহ বিভিন্ন ধরনের আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছিল। এবারও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী করোনায় কর্মহীন মানুষের মানবিক সহায়তায় এ পর্যন্ত ৫৭৪ কোটি ৯ লাখ ২৭ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন


ভারতের সাথে জরুরি পণ্য পরিবহন ছাড়া সকল যোগাযোগ বন্ধের প্রস্তাব

মামুনুলের ‘রাবেতাতুল ওয়ায়েজীন’ সম্পর্কে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিলো ‘শিশুবক্তা’

একজন অধ্যাপকের মৃত্যু ও আমাদের জন্য শিক্ষা

হেফাজতের তাণ্ডবকারীদের ছাড় দেয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


তিনি আরও বলেন, ‘দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক সম্প্রতি দেশের সকল সিটি করপোরেশনের অনুকূলে শিশুখাদ্য ক্রয়ের জন্য আরও টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বরাদ্দকৃত এসব অর্থের মাধ্যমে শিশুখাদ্য ক্রয় করে তা বিতরণ করা হবে। এর ফলে প্রায় এক কোটি ২৪ লাখ পরিবার উপকৃত হবে। ’

এনামুর রহমান বলেন, ‘জিআর ক্যাশ দিয়েছি ১২১ কোটি টাকা, ভিজিএফ দিয়েছি ৪৭২ কোটি টাকা। বড় সিটি করপোরেশনগুলোকে ৫৭ লাখ টাকা করে, ছোটগুলোকে ৩২ লাখ টাকা করে দিয়েছি। পৌরসভায় ও ইউনিয়ন পরিষদগুলোতেও টাকা দেয়া হয়েছে। ’

news24bd.tv আহমেদ

সম্পর্কিত খবর