১০ উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসীকে আটক করল ইরানি গোয়েন্দারা

অনলাইন ডেস্ক

১০ উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসীকে আটক করল ইরানি গোয়েন্দারা

ইরানের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় কেরমান প্রদেশ থেকে বিদেশি মদদপুষ্ট ১০ জন উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসীকে আটক করেছে দেশটির গোয়েন্দা বাহিনী।

কেরমান প্রদেশের সরকারি কৌঁসুলি দাদাখোদা সালারি বুধবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

এসব সন্ত্রাসী হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছিল এবং সহিংস ঘটনার মধ্য দিয়ে প্রদেশ নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি করাই ছিল লক্ষ্য কিন্তু ইরানের গোয়েন্দা সংস্থা  তাদেরকে চিহ্নিত করে ফেলে বলে জানান ওই সরকারি কর্মকর্তা।


গাজীপুরে শিশু ধর্ষণ, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

সরকারের শেকড় মাটির গভীরে, বিএনপির অন্য কোথাও: কাদের

হেফাজত নেতা মুফতি ফয়সাল ও কাশেমী রিমান্ডে

যৌন উত্তেজক সিরাপের কারখানার সন্ধান, যুবলীগের ২ নেতা আটক


দাদাখোদা আরো জানান, ইরানের গোয়েন্দা বাহিনী সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে অস্ত্রও উদ্ধার করেছে। 

এর আগে চলতি মাসের প্রথম দিকে ইরানের গোয়েন্দা বাহিনী একজন ইসরাইলি গুপ্তচর ও অন্য কয়েকটি দেশের নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত কয়েক ব্যক্তিকে পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশ থেকে আটক করেছিল।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

জাতিসংঘকে যেখানে হামলা চালানোর কথা জানালো ইসরায়েল

অনলাইন ডেস্ক

জাতিসংঘকে যেখানে হামলা চালানোর কথা জানালো ইসরায়েল

ফিলিস্তিনের নিরীহ জনগণের ওপর নির্বিচার হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। এ নিয়ে টানা ৮দিনের মতো দখলদার বাহিনীর হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০০ ছাড়িয়েছে। এদিকে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী গাজা উপত্যকায় দুটি স্কুল উড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়েছে, যেখানে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত ব্যক্তিদের রাখার প্রস্তুতি চলছিল। জাতিসংঘকে ইসরায়েল তাদের পরিকল্পনার বিষয়ে অবহিত করেছে বলে সোমবার (১৭ মে) সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

আরাবি২১নিউজের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়, ঘনবসতিপূর্ণ পশ্চিম গাজায় অবস্থিত আল আকসা ও আল বোরাক স্কুলে হামলা চালানোর হুমকি দিয়েছে ইসরায়েল।

ফিলিস্তিনের সংবাদমাধ্যম বলছে, হামলার হুমকিটি খুবই মারাত্মক, কেননা সেখানে ইসরায়েলি বর্বরতায় বাস্তুচ্যুতদের রাখার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

গাজায় ইসরাইলের সর্বাত্মক সন্ত্রাসী হামলার মধ্যেই দেশটিকে আরও অস্ত্র দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এরই মধ্যে প্রায় ৭৩.৫ কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রির প্রস্তাব অনুমোদন করেছে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন। 

অন্যদিকে  ইসরায়েলে রকেট নিক্ষেপ বন্ধে গাজা উপত্যকার ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল হামাসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন। 

অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেন, ফিলিস্তিনের হামলা থেকে বাঁচতে ‌ইসরায়েলের আত্মরক্ষার অধিকার আছে।

চলমান এ সহিংসতা থামাতে রোববার (১৬ মে) জাতিসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিল বৈঠকে বসেছিল। ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যকার সংঘাত বন্ধের আহ্বান সংবলিত ঘোষণা দেওয়ার লক্ষ্যে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের তৃতীয় বৈঠকটিও ব্যর্থ হয়েছে। এর আগে রুদ্ধদ্বার দুটি বৈঠকও ব্যর্থ হয়। সর্বশেষ বৈঠকে ইসরায়েলি বিমান হামলায় গাজায় বিভিন্ন ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে মানুষকে জীবিত ও মৃত উদ্ধারে ইসরায়েলের সঙ্গে সাময়িক অনুমতির চুক্তিতেও পৌঁছাতে পারেনি নিরাপত্তা পরিষদ।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

প্রশ্নের মুখে সিবিআই

সকালে গ্রেপ্তার, সন্ধ্যায় জামিন তৃণমূলের চার নেতার

অনলাইন ডেস্ক

সকালে গ্রেপ্তার, সন্ধ্যায় জামিন তৃণমূলের চার নেতার

নারদ মামলায় গ্রেফতার হওয়া রাজ্যের সাবেক ও বর্তমান ৪ মন্ত্রীকে জামিন দিয়েছে ভারতের কলকাতা নগর দায়রা আদালতের বিশেষ আদালত। 

সোমবার সকালে তাদের গ্রেফতারের পর দুপুরে ভার্চুয়াল মাধ্যমে চারজনকে আদালতে পেশ করেন তদন্তকারীরা। এরপর গ্রেফতারদের জেল হেফাজতে পাঠানোর আবেদন জানান তারা। তখনই আদালত সিবিআইকে কঠিন প্রশ্নের মুখোমুখি করে। আদালতের প্রশ্ন- তদন্ত শেষ হয়ে গেলে কেন অভিযুক্তদের জেল হেফাজতে পাঠানোর দরকার?

এর সদুত্তর দিতে পারেনি সিবিআই। যার ফলে বিকালে বর্তমান দুই মন্ত্রী ও সাবেক দুই মন্ত্রীর জামিন মঞ্জুর করে আদালত। 
প্রাথমিকভাবে সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের আইনজীবী জানিয়েছেন, সম্ভবত ৫০ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পেয়েছেন চারজন। পুরো রায়ের কপি পুরো বিষয়টা বলা যাবে।

সোমবার ব্যাঙ্কশাল আদালতের বিশেষ সিবিআই আদালতে গ্রেফতার ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে হাজির করে সিবিআই। গ্রেফতারদের জেল হেফাজত চেয়ে আবেদন জানান সিবিআইয়ের আইনজীবী।

পালটা গ্রেফতারকৃতদের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করা হয়, তদন্ত শেষ হলেই পেশ করা হয় চার্জশিট। তাহলে এখন অভিযুক্তদের কী কারণে জেল হেফাজত দরকার? সিবিআইয়ের আইনজীবীকে একই প্রশ্ন করেন বিচারকও। 

সিবিআইয়ের তরফে জানানো হয়, গ্রেফতারকৃতরা প্রত্যেকেই প্রভাবশালী। তাদের জেল হেফাজতে না রাখলে তথ্যপ্রমাণ নষ্ট করতে পারে। তাই জেল হেফাজত চেয়েছে তারা। 

গ্রেফতারদের পক্ষের আইনজীবী শুনানিতে বলেন, কলকাতায় করোনা মোকাবিলার কাণ্ডারি ফিরহাদ হাকিম। তিনি করোনা থেকে সদ্য সেরে উঠেছেন। গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তার বয়স ৭৫ ছুঁই ছুঁই। এই পরিস্থিতিতে তাদের হেফাজতে রাখার প্রয়োজন নেই। 

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

মুহূর্তেই ফিলিস্তিনিদের জন্য ৭ মিলিয়ন ডলার সংগ্রহ

অনলাইন ডেস্ক

মুহূর্তেই ফিলিস্তিনিদের জন্য ৭ মিলিয়ন ডলার সংগ্রহ

ইসরাইলি হামলায় ফিলিস্তিনি হতাহতদের জন্য অর্থ সংগ্রহ করেছে তুরস্কের রেড ক্রিসেন্ট। যার পরিমাণ প্রায় ৭ দশমিক ২ মিলিয়ন ডলার।

রোববার (১৬ মে) গভীর রাতে ‘ফিলিস্তিনিরা আহত হয়েছে, আপনার সমর্থন জানান’ শিরোনামে সরাসরি সম্প্রচারিত একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে এই তহবিল সংগ্রহীত হয়।

সহায়তা সংস্থা আল-কুদস হাসপাতাল ও গাজার আটটি স্বাস্থ্যসেবা, ১০ টি ভ্রাম্যমাণ অ্যাম্বুলেন্স এবং এই অঞ্চলের পাঁচটি পরিপূর্ণ অ্যাম্বুলেন্সকে ওষুধ ও চিকিত্সা সরবরাহ করবে।

প্রয়োজন অনুসারে ২২ হাজার ৫০০ খাবার প্যাকেট এবং সমপরিমাণ স্বাস্থ্যকর প্যাকেজ সরবরাহ করা হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ইসরাইলি তেল ও গ্যাস উত্তোলন কেন্দ্রে সাবমেরিন ড্রোন হামলা করতে পারে হামাস

অনলাইন ডেস্ক

ইসরাইলি তেল ও গ্যাস উত্তোলন কেন্দ্রে সাবমেরিন ড্রোন হামলা করতে পারে হামাস

ইসরাইলের একটি যুদ্ধজাহাজে আজ (সোমবার) হামলা চালিয়েছে ফিলিস্তিনিরা। ফিলিস্তিনের সামরিক শাখা ইয্যাদ্দিন কাস্সাম ব্রিগেডের সেনারা সাগরে ইসরাইলি যুদ্ধজাহাজ লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে বলে গাজা থেকে আল-আলম টিভি চ্যানেল জানিয়েছে।

তবে এ হামলায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।

এছাড়া, ইয্যাদ্দিন কাস্সাম ব্রিগেড আজ ইহুদি উপশহর 'হার্টসলিয়া'-তে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে।

এর আগে হামাসের যোদ্ধারা ইসরাইলের আশকেলান উপকূলে তেল ও গ্যাস উত্তোলন কেন্দ্রে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে।

এদিকে, ইসরাইলের টিভি চ্যানেল 'নাইন' জানিয়েছে, হামাসের কাছে চালক বিহীন সাবমেরিন রয়েছে এবং এসব সাবমেরিন ড্রোন ব্যবহার করে ভূমধ্যসাগরে ইসরাইলি তেল ও গ্যাস উত্তোলন কেন্দ্রে হামলার আশঙ্কা রয়েছে।

ইসরাইলি সূত্রগুলো বলছে, হামাসের কাছে যেসব সাবমেরিন ড্রোন রয়েছে সেগুলো ৫০ কেজি ওজনের বিস্ফোরক বহন করতে পারে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ইসরাইলকে আরও ৭৩ কোটি ডলারের অস্ত্র দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক

ইসরাইলকে আরও ৭৩ কোটি ডলারের অস্ত্র দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

ফিলিস্তিনের নিরীহ জনগণের ওপর নির্বিচার হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। এ নিয়ে টানা ৮দিনের মতো দখলদার বাহিনীর হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০০ ছাড়িয়েছে। গাজায় ইসরাইলের সর্বাত্মক সন্ত্রাসী হামলার মধ্যেই দেশটিকে আরও অস্ত্র দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এরই মধ্যে প্রায় ৭৩.৫ কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রির প্রস্তাব অনুমোদন করেছে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন। 

অন্যদিকে  ইসরায়েলে রকেট নিক্ষেপ বন্ধে গাজা উপত্যকার ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল হামাসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন। 

অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেন, ফিলিস্তিনের হামলা থেকে বাঁচতে ‌ইসরায়েলের আত্মরক্ষার অধিকার আছে।

ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলের ভয়াবহ হামলার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা নিয়ে ডেমোক্র্যাটদের মধ্যে মতবিরোধ তৈরি হয়েছে। বাইডেন মানবাধিকার রক্ষার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন সেটি নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন ডেমোক্র্যাটরা। 

সমালোচনা শুরু হয়েছে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে অব্যাহতভাবে সমর্থন নিয়েও। এর মধ্যেই আবার ইসরাইলকে ব্যাপক অস্ত্র-সরঞ্জাম সরবরাহ করতে যাচ্ছে ওয়াশিংটন। এ নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসের বেশকিছু আইনপ্রণেতা। 

ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, ইসরাইলের কাছে নতুন করে অস্ত্র বিক্রির বিষয়টি মার্কিন কংগ্রেসকে জানানো হয় চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে (৫ মে)। 

গত সপ্তাহ থেকে ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরাইলের তীব্র বিমান হামলা শুরু হওয়ার প্রায় এক সপ্তাহের মাথায় রোববার ওই অস্ত্রবিক্রির প্রস্তাবে অনুমোদন দেয় বাইডেন প্রশাসন। 

এদিনই গাজায় হামলার বিষয়ে ইসরাইলকে সমর্থন জানিয়ে বাইডেন বলেন, ‘ইসরাইলের নিজেকে সুরক্ষার অধিকার রয়েছে।’ 

ওয়াশিংটনের এই অবস্থানকে এর আগেও মার্কিন কংগ্রেসের বেশির ভাগ আইনপ্রণেতাই সমর্থন করেছে। কিন্তু এই অব্যাহত সমর্থন নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভসের নতুন প্রজন্মের আইনপ্রণেতারা। এমনকি বেশ কয়েকজন আইনপ্রণেতা প্রস্তাবিত অস্ত্র বিক্রয় প্রস্তাব ও সময়ের ব্যাপারে আরও জানতে চাইছেন। 

টানা আট দিন ধরে ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় বিমান ও কামান হামলা চালাচ্ছে দখলদার ইসরাইলি বাহিনী।  এসব হামলায় ৫৮ শিশুসহ ২০০ মানুষ নিহত হয়েছেন। 

চলমান এ সহিংসতা থামাতে রোববার (১৬ মে) জাতিসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিল বৈঠকে বসেছিল। ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যকার সংঘাত বন্ধের আহ্বান সংবলিত ঘোষণা দেওয়ার লক্ষ্যে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের তৃতীয় বৈঠকটিও ব্যর্থ হয়েছে। এর আগে রুদ্ধদ্বার দুটি বৈঠকও ব্যর্থ হয়। সর্বশেষ বৈঠকে ইসরায়েলি বিমান হামলায় গাজায় বিভিন্ন ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে মানুষকে জীবিত ও মৃত উদ্ধারে ইসরায়েলের সঙ্গে সাময়িক অনুমতির চুক্তিতেও পৌঁছাতে পারেনি নিরাপত্তা পরিষদ।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর