ঠাকুরগাঁওয়ে ক্যাপসিকাম চাষে এমবিএ পড়ুয়া শিক্ষার্থীর সফলতা
ঠাকুরগাঁওয়ে ক্যাপসিকাম চাষে এমবিএ পড়ুয়া শিক্ষার্থীর সফলতা

ঠাকুরগাঁওয়ে ক্যাপসিকাম চাষে এমবিএ পড়ুয়া শিক্ষার্থীর সফলতা

Other

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নে পশ্চিম ফকদনপুর গ্রামে ক্যাপসিকাম চাষ করে এলাকার বেকার যুবকদের অবাক করে দিয়েছেন দিনাজপুর হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী রাহুল রায়।

জেলার মাটি ও আবাহাওয়া দুটোই ভালো থাকায় ফলনও হয়েছে ব্যাপক। বিদেশী এ ফসলের আবাদ স্বচক্ষে দেখতে দুর-দুরান্ত থেকে আসা মানুষ-জন ভীড় করছে তার ক্যাপসিকাম বাগানে।

এদিকে উচ্চমূল্যের এ ফসলটির আর্থিক সম্ভাবনার কথা জানিয়ে চাষিদের ক্রমাগত উৎসাহ দিয়ে চলেছে জেলা কৃষি বিভাগ।

news24bd.tv

জানা যায়, কভিড-১৯ এর কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এই সময়টি কাজে লাগিয়ে দিনাজপুর হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ শিক্ষার্থী রাহুল রায় তার গ্রামে দেড় বিঘা জমিতে গ্রীন হাউস বানিয়ে বাণিজ্যিকভাবে বিদেশি সবজি ক্যাপসিকাম (মিষ্টি মরিচ) আবাদ করেন। এতে তার খরচ হয়েছে প্রায় ৭ লক্ষ টাকা। মাটি ও আবহাওয়া অনূকুলে থাকায় কাঙ্খিত ফলনও হয়েছে। ইতিমধ্যে ক্যাপসিকাম বিক্রিও শুরু হয়েছে। প্রতি কেজি ক্যাপসিকাম বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ২০০ টাকা দরে।

স্থানীয়রা বলেন, পড়ালেখার পাশাপাশি কৃষি কাজ করে যে লাভবান হওয়া যায় তা দেখিয়ে দিয়েছে রাহুল। সে আমাদের এলাকার গর্ব। তার এ বিদেশি মরিচের আবাদ এলাকার বেকার যুবকদের অনুপ্রাণিত করবে।

আরও পড়ুন


নাটোরের লালপুরে খাস জায়গা দখল করে পুকুর খনন!

ইলিশ ধরতে জেলেদের অপেক্ষা, মধ্য রাতে শেষ হচ্ছে নিষেধাজ্ঞা (ভিডিও)

দুবাই থেকে আসা বিমানে মিললো ২ কোটি টাকার স্বর্ণ

তাসকিন-মিরাজ ঘূর্ণিতে বিপাকে লঙ্কানরা, টাইগার শিবিরে উচ্ছ্বাস


শিক্ষার্থী রাহুল রায় জানান, প্রথম দিকে একটু ভয় পাচ্ছিলাম এই ভেবে লোকসান হবে না তো। পরে ফলন আসার পর সে ভয় কেটে গেছে। আশা করি তিন থেকে চার মেট্রিক টন ক্যাপসিকাম পাবো। ক্যাপসিকাম বা মিষ্টি মরিচ সারা বিশ্বেই একটি জনপ্রিয় সবজি। দেশের বড় বড় অভিজাত হোটেল ও বিভিন্ন মার্কেটে এর চাহিদা রয়েছে। এছাড়া ক্যাপসিকাম বিদেশে রপ্তানীর সম্ভাবনাও প্রচুর।

news24bd.tv

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো: আবু হোসেন জানান, জেলায় প্রথমবারের মতো দেড় বিঘা জমিতে বিদেশি ফসল ক্যাপসিকাম চাষ করা হয়েছে। এছাড়াও অনেকে বিভিন্ন বাসা বাড়ির ছাদে ও আঙিনায় সৌখিনভাবে এ ফসল আবাদ করছে-আমরা তাদের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করে চলেছি। এটি বাণিজ্যিকভাবে কৃষকেরা আবাদ করলে ভালো লাভবান হবেন।

news24bd.tv আহমেদ