নাটকের সিন্ডিকেট নিয়ে মুখ ‍খুললেন ফারিয়া শাহরিন

অনলাইন ডেস্ক

নাটকের সিন্ডিকেট নিয়ে মুখ ‍খুললেন  ফারিয়া শাহরিন

গ্ল্যামার কন্য ফারিয়া শাহরিনের শোবিজে পদার্পণ ২০০৭ সালে লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে। এর পর কিছু দিন  কাজ করে পড়াশোনার জন্য চলে যান দেশের বাইরে। ২০১৯ সালে দেশে ফিরে আবার ব্যস্ত হয়ে পড়েন ফারিয়া। ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটকে অভিনয় করে নতুন করে আবার আলোচনায় ফারিয়া শাহরিন। ঠোটকাটা স্বভাবের ফারিয়া সব সময় মিডিয়ার হাল চাল নিয়ে কথা বলেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হলো না।  এবার এই অভিনেত্রী বোমা ফাটালেন দেশীয় নাটকের সিন্ডিকেট নিয়ে।

দেশীয় নাটকে গড়ে উঠেছে সিন্ডিকেট, এ কথা চলে আসছে দেশীয় শোবিজে বেশ কিছুদিন ধরেই। দু-তিনজন নায়ক তাদের নির্দিষ্ট নায়িকাদের বাইরে কারো সঙ্গে কাজ করবেন না, আবার ওই নায়িকা অন্য নায়কদের সঙ্গে কাজ করতে পারবেন না। তুমুল জনপ্রিয় নায়ক, তার নামেই নাটক হিট। তাই তিনিই ঠিক করে দেবেন নায়িকা কে হবেন। এর বাইরে কাউকে নায়িকা হিসেবে নেওয়ার চেষ্টা করলে সে কাজটা হবে না বা ওই নায়ক সে নাটক করবেন না। একইভাবে নায়িকার ক্ষেত্রেও, তিনি জনপ্রিয় নায়িকা, ঠিক করে দেবেন নায়িকা কে। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকজন নির্মাতা একই কথা বলেন। বিষয়টি এখন ওপেন সিক্রেট।

তবে এই  ওপেন সিক্রেট বিষয়ে কেও ভয়ে মুখ না খুললেও এবার মুখ খুললেন ঠোটকাটা স্বভাবের ফারিয়া শাহরিন।  শুক্রবার সকালে এক পোস্টের মাধ্যমে নাটকের সিন্ডিকেট নিয়ে নিজের ফেসবুকে লিখেন । 

ফারিয়া ক্ষোভ থেকেই বললেন, 'বড় নায়করা আমার সঙ্গে কাজ করে না, বড় নায়িকাদের সঙ্গে করে।'

নিজের ফেসবুকে ফারিয়া শাহরিন পুরো বিষয়টি নিয়ে লিখেছেন, ঠিক করছি নতুন, একেবারেই পরিচিত নন এ রকম নায়কদের সঙ্গে কাজ করব। ওদের প্রমোট করব। যদি আমাকে চারজনও চেনে, ওদের হয়তো একজন চিনবে আমার মাধ্যমে। ওরা এভাবেই করে এক-দুজন করে পরিচিত হয়ে উঠবে। আমার ভালো লাগবে। 

ক্ষোভ প্রকাশ করে এই অভিনেত্রী বলেন, 'আমি অনেক ছোট নায়িকা, বড় নায়করা আমাদের সাথে কাজ করে না, বড় নায়িকাদের সাথে করে। কী কী জানি এখন শুনি সিন্ডিকেট না কি যেন। তাই নগণ্য নায়িকা আমি, নতুন ছেলেদের সাথে কাজ করবো। এটাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। ’

গত বছর চঞ্চল চৌধুরী এই সিন্ডিকেট নিয়ে কথা বলেছেন। তিনিই বলেন, টেলিভিশন নাটক এক ধরনের বাজে সিন্ডিকেটে চলছে। 

২০১৮ সালের শুরুর দিকে একটি জাতীয় দৈনিকের সাক্ষাৎকারে হাজির হয়ে দেশের এক নামকরা চিত্রনায়ক ও প্রযোজকের নামে কাস্টিং কাউচের অভিযোগ তুলে ঝড় বইয়ে দিয়েছিলেন ফারিয়া। বলেছিলেন, ওই নায়ক ও প্রযোজক নাকি তাকে চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সুযোগ দেওয়ার টোপ ফেলে বিছানায় নিতে চেয়েছিলেন। যদিও কারো নাম প্রকাশ করেননি তিনি।

ফারিয়া শাহরিনই দেশের প্রথম অভিনেত্রী, যিনি এভাবে প্রকাশ্যে নিজের সঙ্গে ঘটা বাজে অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেছিলেন। কিন্তু এই সাহসিকতার জন্য তাকে তোপের মুখেও পড়তে হয়েছিল। ফেসবুক লাইভে একাধিক অভিনেত্রী তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ ঝেড়েছিলেন। কয়েকটি টকশো’তেও হয়েছিল তুমুল সমালোচনা। আলোচনায় থাকতেই নাকি এমন অভিযোগ করেছিলেন শাহরিন।

মুঠোফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংকের ‘কথা দিলাম’ প্যাকেজের বিজ্ঞাপনচিত্র তার পরিচিতি বাড়িয়ে দেয় অনেক গুণ। সর্বশেষ কাজল আরেফিন অমির ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটকে অন্তরা চরিত্রে অভিনয় করে আলোচিত হয়েছেন ফারিয়া শাহরিন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এবার বলিউডের ৪০ হাজার কর্মীকে অর্থ সাহায্য সালমানের

অনলাইন ডেস্ক

এবার বলিউডের ৪০ হাজার কর্মীকে অর্থ সাহায্য সালমানের

বলিউড ভাইজান সালমান খান সবসময়ই সমাজের অবহেলিত ও বিপদগ্রস্থ মানুষের পাশে দাড়ান।  এবার করোনায় ভারতের অবস্থা লণ্ডভণ্ড। যার থেকে রক্ষা পায়নি দেশটির সবচেয়ে বড় ইন্ডাস্ট্রি বলিউডও । শূটিং বন্ধ থাকায় কর্মহীন হয়ে আছেন অনেক টেকনিশিয়ান, স্টান্টম্যান, মেকআপ আর্টিস্ট, স্পটবয়। এবার এদের পাশে দাড়ালেন বলিউড ভাইজান।

চলমান করোনা সংকটের শুরু থেকেও তিনি এই ধারা অব্যাহত রেখেছেন। এবার বলিউডের টেকনিশিয়ান, স্টান্টম্যান, মেকআপ আর্টিস্ট, স্পটবয় মিলিয়ে ২৫ হাজার কর্মীকে ১৫০০ রুপি করে অর্থ সাহায্য করলেন এই তারকা। বাকি ১৫ হাজার নারীকর্মী কাজ করছেন ফিল্মসিটির নানা স্টুডিওতে। শুধু অর্থই নয়, এক মাসের রেশনও তাদের ঘরে পৌঁছে দিচ্ছেন সালমান।

এর আগেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন সালমান। করোনা যুদ্ধে একেবারে সামনে থেকে যারা লড়াই করছেন, এমন পাঁচ হাজার কর্মীকে খাবারের প্যাকেট বিলি করেছেন। তার মধ্যে পুলিশ কর্মী বা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা ছিলেন। 

গত বছর লকডাউনের সময় ইন্ডাস্ট্রিতে যারা দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে কাজ করেন, তেমন শিল্পীদের প্রত্যেককে ৩০০০ রুপি করে অনুদান দিয়েছিলেন অভিনেতা। এছাড়া ঈদে মুক্তি পেতে যাওয়া রাধে ছবির লভ্যাংশও চ্যারিটি করতে চেয়েছেন সালমান। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

কনডম টেস্টার হচ্ছেন রাকুল প্রীত

অনলাইন ডেস্ক

কনডম টেস্টার হচ্ছেন রাকুল প্রীত

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বলিউডের সিনেমায় গল্পের ক্ষেত্রে পরিবর্তন এসেছে। সমাজের কুসংসস্কার বা অন্ধবিশ্বাস নিয়ে বিগত কয়েক বছরে সেখানে অনেক সিনেমা নির্মাণ হয়েছে। যা বক্স অফিস ও বাজিমাত করেছে।  বিগত কয়েক বছরে বলিউডে নির্মাণ হয়েছে প্যাডম্যান, টয়লেট, সুই ধাগার মতো সিনেমা। এগুলোতে সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি ভেঙেছে সামাজিক অনেক সংস্কার।

একই উদ্দেশ্যে কনডম নিয়ে সিনেমা নির্মাণ হতে যাচ্ছে বলিউডে। যেখানে দেখা যাবে ভারতের দক্ষিণী সিনেমার অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিংকে। বলিউডের এই সিনেমায় রাকুলকে দেখা যাবে কনডম টেস্টারের ভূমিকায়। বলিউডের বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রীরা চিন্তাধারায় অনেকটা আধুনিক। কিন্তু কনডম টেস্টারের ভূমিকায় অভিনয় করতে তাদের অনেকেরই রয়েছে ঘোর আপত্তি। এদিক থেকে নিজের সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছেন রাকুল প্রীত সিং। এবার পর্দায় কনডম টেস্টারের চরিত্রে নিজেকে তুলে ধরবেন এই অভিনেত্রী। 

স্যানিটারি ন্যাপকিন বা প্যাড, টয়লেটের মতো কনডম নিয়েও নানা কুসংস্কার ও লজ্জা রয়েছে ভারতীয়দের মধ্যে। সেটিই তুলে ধরা হয়েছে সিনেমায়।

কনডম টেস্টারদের নিয়ে কমেডি-ড্রামা ঘরানার সিনেমাটি নির্মাণ করছেন বলিউডের স্বানমধন্য প্রযোজক রনি স্ক্রুওয়ালা। তবে সিনেমাটির শিরোনাম সম্পর্কে তেমন কিছু জানা যায়নি। শোনা যাচ্ছে, সিনেমাটির নাম ‘ছত্রীওয়ালি’ হতে পারে। কারণ সাধারণ স্থানীয় ভাষায় কনডমকে ছত্রী বলা হয়। রাকুল যেহেতু কনডম পরীক্ষকের ভূমিকায় অভিনয় করবেন, তাই এমন নাম হতেই পারে।

সিনেমটি সাহসী তবে হাস্যকর হবে, অনেকটা ড্রিম গার্লের মতো। এই সিনেমার জন্য সারা ও অনন্যাকে প্রস্তাব দেওয়া হলেও তারা এতে রাজি হননি। তাদের না পেয়ে রাকুল প্রীত সিংকে চরিত্রটির জন্য বেছে নেন নির্মাতা।

প্রসঙ্গত, কনডম কেনার সময় বা শব্দটি উচ্চারণ করতে গিয়েও ভারতীয়রা লজ্জা পান। কনডম টেস্টারের ব্যাপারটি অনেকের কাছেই অজানা। মূলত বড় বড় কনডম প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রাপ্তবয়স্কদের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন। কনডম তৈরির পর তা তাদের দেওয়া হয়। এরপর এগুলোর কার্যক্ষমতা পরখ করেন কনডম টেস্টাররা। তাদের প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করেই বাজারে নতুন কনডম নিয়ে আসে প্রতিষ্ঠানগুলো।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

দীর্ঘ বিরতির পর আবারও অপূর্ব-তিশা

অনলাইন ডেস্ক

দীর্ঘ বিরতির পর আবারও অপূর্ব-তিশা

দীর্ঘ ১৩ বছর পর আবারও জুটি বাঁধলেন জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ও নুসরাত ইমরোজ তিশা। একসময় টিভি পর্দার অন্যতম প্রভাবশালী এ জুটি উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় নাটক। অথচ এই জুটিকে ২০০৮ সালের পর আর দেখা যায়নি।

সেই না পাওয়ার জাল ভেদ করে আবার তারা ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালেন একসঙ্গে। দীর্ঘ ১৩ বছর পর বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুরে উত্তরার একটি শুটিং বাড়িতে এক হলেন দু’জনে।

অপূর্ব ও তিশাকে নিয়ে ‘রক রবীন্দ্র’ নামের বিশেষ নাটক নির্মাণ করছেন মহিদুল মহিম।

শুটিং চলছে খুব নীরবে আর নিরাপদ আয়োজনে। করা হয়েছে ইউনিটের সবার কোভিড টেস্ট, মানা হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি।

নির্মাতা মহিদুল মহিম বলেন, ‘এই করোনাকালীন সময়ে অনেক সীমাবদ্ধতার মধ্য দিয়ে আমাদের কাজ করতে হচ্ছে। তারপরও দর্শকদের জন্য যতটুকু সম্ভব চেষ্টা করেছি ভালো কিছু করার। বাকিটুকু দর্শকদের ওপর। ’


গাছ উপড়ে পড়ল ঘরের ওপর, গেল স্বামী-স্ত্রীর প্রাণ

ঢাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ কর্মস্থলেই

এরা মানুষ না, অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘রক রবীন্দ্র’তে আরও অভিনয় করছেন ডা. এজাজ, শামীমা নাজনীন প্রমুখ।

অন্যদিকে, এই ঈদে আরও একটি নাটকে যুক্ত হচ্ছেন অপূর্ব-তিশা। শিহাব শাহীন পরিচালিত এই কাজের সম্ভাব্য নাম ‘সে বউয়ের কথায় চলে’। নাটকটির শুটিং হবে ৮ মে থেকে।

দুটো নাটকই উন্মুক্ত হবে আসছে ঈদ উৎসবে সিএমভি’র ইউটিউব চ্যানেলে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

যে কারণে বিজেপির মিঠুন চক্রবর্তীকে গ্রেফতারের দাবি

অনলাইন ডেস্ক

যে কারণে বিজেপির মিঠুন চক্রবর্তীকে গ্রেফতারের দাবি

পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে বিজেপিতে যোগ দেন মিঠুন চক্রবর্তী। দলের হয়ে অনেক সভা সমাবেশ করেছেন। কিন্তু জেতাতে পারেননি।এদিকে বিধানসভা ভোটে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী ও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে মামলা করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।পাশাপাশি মিঠুন চক্রবর্তীসহ বিজেপি নেতাদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে তৃণমূল।
 
বৃহস্পতিবার কলকাতার মানিকতলা থানায় এই দু’জনের বিরুদ্ধে মামলা করে তৃণমূল কংগ্রেসের অঙ্গসংগঠন যুব তৃণমূল।

বিজেপি-র ব্রিগেড সমাবেশে, আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। সেখানেই বক্তৃতা করতে গিয়ে নিজের ছবির জনপ্রিয় সংলাপ আউড়েছিলেন মিঠুন।“আমি জলঢোড়াও নই, বেলেবোড়াও নই। আমি জাত গোখরো, এক ছোবলে ছবি।” এমন ডায়লগ বিভিন্ন সভায় বলেছেন মিঠুন। এফআইআরে বলা হয়েছে, মিঠুনের ওই সব সংলাপেই উত্তেজনা ছড়িয়েছে রাজ্যে।

একজন তারকা হিসাবে প্রকাশ্য মঞ্চে এই ধরনের সংলাপের ব্যবহার করে মিঠুন দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করেছেন বলেও অভিযোগ করা হয়েছে ওই এফআইআরে।

এদিকে নির্বাচনী প্রচারের ময়দানে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও “জায়গায় জায়গায় শীতলখুচি’’ হবে বলে মন্তব্য করেছিলেন। তার বিরুদ্ধেও উস্কানিমূলক মন্তব্য করার অভিযোগ আনা হয়েছে তৃণমূলের পক্ষ থেকে।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

শিল্পার পুরো পরিবারে করোনার থাবা

অনলাইন ডেস্ক

শিল্পার পুরো পরিবারে করোনার থাবা

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ‘সুনামি’তে ভারতের চিকিৎসা ব্যবস্থা প্রায় ভেঙে পড়তে বসেছে। দেশটিতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘সার্স-কভ-২’ ভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যু। প্রতিদিনই ভাঙছে মৃত্যু ও শনাক্তের রেকর্ড। করোনার থাবা থেকে রক্ষা পাচ্ছে না কেও। বলিউডও এর বাইরে নেই। প্রতিদিনই কোনো না কোনো তারকার করোনা সংক্রমণের খবর মিলছে। এবার জানা গেল করোনা আক্রান্ত অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির গোটা পরিবার।  

দিন দশেক আগে করোনা থাবা বসিয়েছিল শিল্পা শেঠি এবং রাজ কুন্দ্রার পরিবারে। এ দশদিন ভীষণ আতঙ্কে কাটিয়েছেন বলিউড তারকা। অভিনেত্রী বাদে প্রত্যেক সদস্যের শরীরেই বাসা বেঁধেছিল এই ভাইরাস। এমনকি ছাড় পায়নি শিল্পা এবং রাজের মেয়ে সমিশাও। গত ফেব্রুয়ারি মাসে ১ বছর বয়স হলো তার।

শুক্রবার (৭ মে) ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্টের মাধ্যমে জানিয়েছেন, প্রথমে আক্রান্ত হয়েছিলেন তার শ্বশুর এবং শাশুড়ি। এর পর অভিনেত্রীর ছেলে, মেয়ে, মা এবং স্বামী রাজ কুন্দ্রার করোনা পরীক্ষার ফল পজেটিভ আসে। তবে দুঃসময় কেটে গেছে। ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছে শিল্পার পরিবার। তার বাড়ির দু’জন কর্মচারীও আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। বর্তমানে তাদের চিকিৎসা চলছে ।

এই পোস্টের মাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন, আক্রান্ত থাকাকালীন তার পরিবারের প্রত্যেক সদস্য নিজের ঘরে আবদ্ধ ছিলেন এবং সব ধরনের সতর্কতা মেনে চলেছেন তারা। দ্রুত সাহায্যের জন্য মুম্বাই পৌরসভাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

পাশাপাশি তিনি সকলকে অনুরোধ করেছেন, করোনা পজিটিভ হোন বা নেগেটিভ, মানসিকভাবে পজিটিভ থাকাটা ভীষণ জরুরি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর