জ্যৈষ্ঠের আগেই সাতক্ষীরার বাজারে পাকা আম
জ্যৈষ্ঠের আগেই সাতক্ষীরার বাজারে পাকা আম

জ্যৈষ্ঠের আগেই সাতক্ষীরার বাজারে পাকা আম

Other

সাতক্ষীরায় বাজারে উঠতে শুরু করেছে সুস্বাদু বিষমুক্ত পাকা আম। শহরের সুলতানপুর বড় বাজারে আম চাষিদের পদচারনায় পা রাখার ঠাই নেই। আম কেনা-বেচায় গ্রামীণ আর্থনীতি যেন চাঙ্গা হয়ে উঠেছে।

এদিকে সাতক্ষীরা শহরের বড়বাজারে জেলার বিভিন্ন গ্রাম-গঞ্জ থেকে ভ্যানসহ বিভিন্ন পরিবহন যোগে আসতে শুরু করেছে গোবিন্দভোগ, গোপালভোগ, বোম্বাই, গোলাপখাস, ক্ষিরসরাইসহ নানা জাতের আম।

মন প্রতি ৫’ শ থেকে ১ হাজার টাকা দরে আমের বাজার মূল্য কম হওয়ায় লোকসানের মূখে পড়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও আম চাষিরা। সরেজমিনে বড়বাজার আমের আড়তে গিয়ে দেখা গেছে, প্রতি মন গোবিন্দভোগ আম বিক্রি হচ্ছে ১৮০০ থেকে ২২০০ টাকা দরে। গোপালভোগ আম বিক্রি হচ্ছে ১৪০০ থেকে ১৬০০ টাকা মন দরে। আর দেশি আম বিক্রি হচ্ছে ১২০০ থেকে ১৪০০ টাকা মন দরে।

সাতক্ষীরা কাঁচা ও পাকামাল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ আব্দুর রহিম বাবু জানান, সাতক্ষীরায় এ বছর আমের বাম্পার ফলন হলেও নায্য দাম পাচ্ছে না কৃষকরা। অতি ক্ষরায় ও বৈশাখের তীব্র তাপদাহে আম আকৃতিতে ছোট হওয়ার কারনে মালের দাম কমে গেছে। এ ছাড়া করোনা ভাইরাস ও লকডাউনের কারনে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আম ব্যবসায়ীরা সাতক্ষীরায় না পৌছানোর কারনে আমের বাজার মূল্য অনেকটা কম আছে। মূলত এসব কারনে আমের প্রকৃত বাজার মূল্য পাচ্ছেনা আম চাষীরা।


আরও পড়ুনঃ


সিংহের প্রজনন বন্ধ করছে দক্ষিণ আফ্রিকা

শপিংয়ে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে পরদিন কিনলেন নতুন গাড়ি

সভায় সংলাপ দিয়ে শুধু হাততালিই পেলেন মিঠুন?

উত্তর কোরিয়ায় সস্তায় চিকিৎসা সরঞ্জাম ক্রয়: কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ডসহ তিন প্রজন্মের শাস্তি


আবহাওয়া ও গ্রীষ্মের তীব্র ক্ষরায় এবং দীর্ঘ দিনের অনাবৃষ্টির কারনে আমের আকৃতি এবার ছোট হওয়ায় দামও পাচ্ছে না কৃষকরা। তবে ঢাকা, চট্রগ্রাম সহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে বড় বড় আম ব্যবসায়ী ও আড়তদাররা না আসার কারনে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবি করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

news24bd.tv / নকিব