গোলাগুলির পর দেড় লাখ ইয়াবা ফেলে পালালো পাচারকারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

গোলাগুলির পর দেড় লাখ ইয়াবা ফেলে পালালো পাচারকারীরা

কক্সবাজারের উখিয়া সীমান্তে বিজিবির সঙ্গে ইয়াবা পাচারকারীদের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। গোলাগুলির এক পর্যায়ে পাচারকারিরা পালালেও তাদের ফেলে যাওয়া দেড় লাখ ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি।

মঙ্গলবার (৪ মে) রাত ৮টার দিকে উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের ধামনখালী বেড়ীবাঁধ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কক্সবাজারস্থ ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ জানান, ধামনখালী বেড়ীবাঁধ নামক স্থান দিয়ে ইয়াবার বড় চালান আসবে এমন খবর পেয়ে বিজিবি সদস্যরা ওই এলাকায় ওৎ পেতে থাকে। রাত ৮টার দিকে তিন-চার জন লোককে বাংলাদেশ সীমান্তের দিকে আসতে দেখে বিজিবি সদস্যরা তাদের থামতে বলে। তারা না থেমে গুলিবর্ষণ শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে বিজিবি পাল্টা গুলি চালায়।

একপর্যায়ে তারা তাদের সাথে থাকা বস্তা দিয়ে মোড়ানো ব্যাগ ফেলে দ্রুত মিয়ানমারের দিকে পালিয়ে যায়। এসময় সরকারি ৭টি গুলি ছোঁড়া হয়। অনেক খুঁজেও তাদের পাওয়া যায়নি।  এরপর টহল দল ঘটনাস্থল থেকে চোরাকারবারিদের ফেলে যাওয়া ব্যাগ তল্লাশি করে দেড় লাখ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে।


আগামী মাসে পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাতের আগ্রহ প্রকাশ করলেন বাইডেন

বাবা-মা-বোনের পর এবার কোভিড পজিটিভ দীপিকা পাড়ুকোন

সাক্ষাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে যে ৪টি আবেদন জানালো হেফাজত নেতারা

দুধের ১০ উপকারিতা


তিনি বলেন, উদ্ধার করা ইয়াবাগুলোর আনুমানিক মূল্য ৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা। এ ব্যাপারে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে নতুন আতঙ্ক ব্ল্যাক ফাঙ্গাস

নয়ন বড়ুয়া জয়

চট্টগ্রামে নতুন আতঙ্ক ব্ল্যাক ফাঙ্গাস

চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমন ও মৃতের সংখ্যা বাড়ার সাথে এবার নতুন আতঙ্ক ব্ল্যাক ফাঙ্গাস।প্রথম ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হল ষাটোর্ধো পটিয়ার এক নারী। সন্তানের আকুতিতেও মিলছেনা এই রোগের ওষুধ। করোনার প্রভাব বেড়ে যাওয়ায় আইসিইউর জন্য বাড়ছে হাহাকার ।মিলছেনা কোন শয্যাও । ফিল্ড হাসপাতালসহ পর্যাপ্ত আইসোলেশন সেন্টার না থাকার কারনেই মেডিকেলের বারান্দায়ও  ঠাই হচ্ছেনা রোগীর।

চট্টগ্রামে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ।তীব্র সংকট আইসিইউ বেডের। একজনের মৃত্যু হলেই আরেকজন পাচ্ছেন একটি আইসিইউ বেড। হাসপাতালগুলোতে ধারণক্ষমতার কয়েকগুণ করোনা আক্রান্ত রোগী।খালি নেই  বেড, মেঝে এবং বারান্দাও।

চিকিৎসার এই সংকটে নতুন আতঙ্ক ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। চট্টগ্রাম মেডিকেলে ভর্তি আছেন ষাটোর্ধো এক নারী। তার প্রয়োজনীয় ওষুধ দেশে না পাওয়ায় হতাশ পরিবার।

ব্ল্যাক ফাঙ্গাস নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের।

হাসপাতালে রোগীর চাপ কমাতে আইসোলেশন সেন্টার বাড়ানোর কোন বিকল্প নেই বললেন এই জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ।
চট্টগ্রামে সরকারি বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে আইসিইউ আছে ১৬২টি । সাধারণ বেড ৩৮৭২ টি।আর হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা আছে ১৭১টি।

news24bd.tv/এমিজান্নাত 

পরবর্তী খবর

ভয়াবহ সময় পার করছে করোনা হটস্পট কুষ্টিয়া

জাহিদুজ্জামান

ভয়াবহ সময় পার করছে করোনা হটস্পট কুষ্টিয়া

দক্ষিণ-পশ্চিমের করোনা হটস্পট কুষ্টিয়া এখন ভয়াবহ সময় পার করছে। জুলাই মাসে করোনায় মারা গেছে ৩৩৫ জন। আর উপসর্গে মৃত্যু হয়েছে আরো ৯৪ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় রেকর্ড সংখ্যক ৪৮০ এবং গত মাসে ৬ হাজার ২শ ২৯ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। গ্রামাঞ্চল থেকে আসছে সংকটাপন্ন রোগী- তাই মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে- বলছেন চিকিৎসকরা। 

সীমান্তবর্তী জেলা কুষ্টিয়ার গ্রামেও করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিদিন যে হিসেব দিচ্ছে জেলা প্রশাসন তারও বেশি সংক্রমণ রয়েছে গ্রামে। উপসর্গ থাকলেও এখানকার বেশিরভাগই আসছে না পরীক্ষার আওতায়। প্রতিরোধে ঠিকমতো ভূমিকা রাখতে না পারায় সংক্রমণ উর্ধ্বমূখী- বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

আর এ পর্যন্ত জেলায় যে ৫৭৬ জনের মৃত্যু হয়েছে তার ৩৩৫ জনই মারা গেছেন জুলাই মাসে। এর বাইরেও করোনার উপসর্গে আরো ৯৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে সব আয়োজন থাকার পরও কেন এতো মৃত্যু?

ঈদের পরে বাড়তে থাকা করোনার নিয়ন্ত্রণে সবাইকে দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান জানান চিকিৎসকরা।

news24bd.tv/এমিজান্নাত 

পরবর্তী খবর

জয়পুরহাটে বজ্রপাতে ২ কৃষকের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

জয়পুরহাটে বজ্রপাতে ২ কৃষকের মৃত্যু

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে বজ্রপাতে দুলাল হোসেন (৫৯) ও মোফাজ্জল হোসেন (৫২) নামে দুই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আরও চার কৃষক আহত হন।

আজ সকালে উপজেলার ভারত সীমান্তবর্তী রতনপুর-সালুয়া মাঠে আমন ক্ষেতে কাজ করছিলেন তারা। এসময় বজ্রপাত হলে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত কৃষক দুলাল হোসেন উপজেলার রতনপুর গ্রামের মৃত রিয়াজ উদ্দীনের ছেলে ও মোফাজ্জল হোসেন ওই একই গ্রামের মৃত হোসেন আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সকাল ৯টার দিকে রতনপুর গ্রামের কয়েকজন কৃষক আমন ধান রোপণের কাজ করতে পার্শ্ববর্তী রতনপুর-সালুয়া মাঠে যান। হঠাৎ বৃষ্টিপাত ও বিদ্যুৎ চমকানো শুরু হলে তারা ধান ক্ষেত থেকে মাঠের মধ্যে থাকা একটি গভীর নলকূপের সেচ ঘরের ভেতরে ৪ জন আর বাইরে বারান্দায় গিয়ে দুইজন দাঁড়ায়।

আরও পড়ুন:


করোনায় আক্রান্ত কনডেম সেলের ফাঁসির আসামি

টিকা নিলে কমে মৃত্যু ঝুঁকি: আইইডিসিআর

করোনা: কুষ্টিয়ায় একদিনে ৯ জনের মৃত্যু

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রয়োগ শুরু


এমন সময় হঠাৎ সেখানে বজ্রপাত হলে ঘরের বারান্দায় দাঁড়িয়ে থাকা দুই কৃষকের মৃত্যু হয়। এতে ঘরের ভিতরে থাকা ৪ কৃষক গুরুতর আহত হন। খবর পেয়ে স্থানীয়রা দ্রুত আহতদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে যান।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

কালিয়াকৈরে বিষপানে নারীর আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক

কালিয়াকৈরে বিষপানে নারীর আত্মহত্যা

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে কোটবাড়ি এলাকায় ইঁদুর মারা বিষ খেয়ে পপি আক্তার (২৮) নামের এক নারী আত্মহত্যা করেছেন। আজ সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে মারা যান তিনি।

পপি আক্তার কালিয়াকৈর উপজেলার কোটবাড়ি এলাকার হাসেম আলীর মেয়ে।

স্থানীয় লোকজন জানান, উপজেলা কোটবাড়ি এলাকায় অসুস্থ মায়ের সাথে অভিমান করে পপি আক্তার শনিবার দিনের বেলা ইঁদুর মারার বিষপান করেন। পরে পরিবারের লোকজন পপির শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় চিকিৎসার জন্য প্রথমে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন:


করোনায় আক্রান্ত কনডেম সেলের ফাঁসির আসামি

টিকা নিলে কমে মৃত্যু ঝুঁকি: আইইডিসিআর

করোনা: কুষ্টিয়ায় একদিনে ৯ জনের মৃত্যু

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রয়োগ শুরু


সেখানে অবস্থার অবনিত হলে চিকিৎসক মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে রেফার্ড করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিষপানের দুইদিন পর মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে সোমবার সকালে কর্তব্যরত চিকিৎসক পপি আক্তারকে মৃত ঘোষণা করেন। 

চাপাইর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান সেতু নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত

ইমন চৌধুরী, পিরোজপুর

পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত

পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন সপরিবারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি জেলা প্রশাসকের সরকারি ভবনে হোম আইসোলেশনে আছেন। শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন তিনি।

আজ দুপুরে জেলা প্রশাসক নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি বলেন, তিনিসহ স্ত্রী, দুই সন্তান, মা ও গৃহকর্মীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। বর্তমানে সবাই হোম আইসোলেশনে আছে। সবাই শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন।

তিনি নিজের জন্য এবং তার পরিবারের সদস্যদের জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

আরও পড়ুন:


করোনায় আক্রান্ত কনডেম সেলের ফাঁসির আসামি

টিকা নিলে কমে মৃত্যু ঝুঁকি: আইইডিসিআর

করোনা: কুষ্টিয়ায় একদিনে ৯ জনের মৃত্যু

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রয়োগ শুরু


জানা যায়, করোনা মহামারি শুরুর পর থেকেই জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। জেলার সাধারণ মানুষের জন্য করোনাকালীন স্বাস্থ্যসেবা, ত্রাণ সহায়তা, ভবঘুরে মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ, অভুক্ত প্রাণীদের মাঝে খাবার বিতরণ, করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য অক্সিজেন সেবাসহ বিভিন্ন মানবিক কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর