দক্ষিণ সাগরে চীনের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান ফিলিপাইনের

অনলাইন ডেস্ক

দক্ষিণ সাগরে চীনের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান ফিলিপাইনের

দক্ষিণ চীন সাগরে মাছ ধরার ওপর চীন সরকার যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে ফিলিপাইন। বরং নিজেদের দেশের জেলেদেরকে দক্ষিণ চীন সাগরের বিতর্কিত এলাকায় মাছ ধরার জন্য উৎসাহিত করছে ফিলিপাইন সরকার।

ফলে এ নিয়ে ফিলিপাইন এবং চীনের মধ্যে নতুন করে সামরিক উত্তেজনা বেড়েছে।

২০ বছরের বেশি সময় আগে দক্ষিণ চীন সাগরে বেইজিং সরকার গ্রীষ্মকালীন মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে যা ১ মে থেকে ১৬ আগস্ট পর্যন্ত বহাল থাকে। ফলে দক্ষিণ চীন সাগরের বেশ কিছু এলাকা এবং পুরো চীনা উপকূল জুড়ে মাছ ধরা নিষিদ্ধ।

ফিলিপাইনের দক্ষিণ চীন সাগর বিষয়ক টাস্কফোর্স মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বলেছে দক্ষিণ চীন সাগরে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা ফিলিপাইনের জেলেদের জন্য প্রযোজ্য নয় বরং তারা দক্ষিণ চীন সাগরে নিজেদের পানিসীমায় মাছ ধরবে। ফিলিপাইন তার জাতীয় স্বার্থ রক্ষায় মোটেই পিছপা হবে না বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।


আরও পড়ুনঃ


ট্রিও মান্ডিলি: এক আধুনিক রূপকথার গল্প

রোজার সৌন্দর্যে ​মুগ্ধ হয়ে ভারতীয় তরুণীর ইসলাম গ্রহণ

আইপিএল নেই, বাড়ি ফিরে যা করতে চান কোহলি

এক সপ্তাহে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই ভারতে, মৃত্যু এক-চতুর্থাংশ


দক্ষিণ চীন সাগরের পানিসীমার বেশিরভাগই চীন তার নিজের ভূখণ্ড বলে দাবি করছে। অন্যদিকে সাগরের উপকূলবর্তী অন্য দেশগুলো তা মানতে রাজি নয়। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চীনের সঙ্গে আঞ্চলিক দেশগুলোর দ্বন্দ্ব চলে আসছে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে সৌদি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত

অনলাইন ডেস্ক

ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে সৌদি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত

ইয়েমেনের উত্তরাঞ্চলীয় মা’রিব প্রদেশের আকাশ থেকে সৌদি আরবের একটি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করেছে হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলন সমর্থিত সেনাবাহিনী।

রোববার ইয়েমেনে সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়ার সারিয়ি এক টুইটার বার্তায় এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ইয়েমেনের বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিটি মার্কিন নির্মিত একটি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করেছে। ইয়েমেনের সামরিক বাহিনী এজন্য ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে।

আরও পড়ুন:


জম্মু-কাশ্মীরে সংঘর্ষ: লস্কর-ই-তাইয়্যেবার কমান্ডারসহ নিহত ৩

যদি নারী অল্প পোশাক পরে ঘোরে তার প্রভাব পুরুষের উপর পড়তে বাধ্য: ইমরান

পুলিশ বিনা ওয়ারেন্টে সাইফুলকে ধরে বন্দুক ঠেকিয়ে গুলি করে: ফখরুল

২ হাত ও টুকরো করা পা এক নারীর, ধারণা পুলিশের


সৌদি ড্রোনটি ইয়েমেনের আকাশে শত্রুতাপূর্ণ তৎপরতা চালাচ্ছিল বলে যেন জেনারেল সারিয়ি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, দেশের সামরিক বাহিনী এবং জনপ্রিয় আনসারুল্লাহ আন্দোলনের যোদ্ধারা নিজেদের আকাশসীমা রক্ষা এবং সব ধরনের শত্রুতা মোকাবেলা করার জন্য এমন কোনো প্রচেষ্টা নেই যা চলাবে না।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

সোলাইমানির আদর্শ অনুসরনের কথা বললেন ইব্রাহিম রাইসি

অনলাইন ডেস্ক

সোলাইমানির আদর্শ অনুসরনের কথা বললেন ইব্রাহিম রাইসি

করোনা মহামারির ভেতর শত্রুদের বিচিত্র শত্রুতা, মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ, অর্থনৈতিক অনুযোগ ইত্যাদি প্রতিকূলতা সত্ত্বেও নির্বাচনে জনগণের ওই আন্তরিক উপস্থিতি যথেষ্ট অর্থবহ বলে জানিয়েছেন ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি।

সোমবার রাষ্ট্রপতি হিসাবে প্রথম সংবাদ সম্মেলনে সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনকে জনগণের ইচ্ছা ও আকাঙ্ক্ষার বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।  

রাইসি আরও বলেন, জনগণ সর্বোচ্চ নেতার আহ্বানে সাড়া দিয়ে নির্বাচনে তাদের উপস্থিতির সাক্ষর রেখেছে। ত্রয়োদশ সরকারের উচিত দেশ ও জাতির দেওয়া ওই বার্তা গভীর মনোযোগ ও আন্তরিকতার সঙ্গে শোনা। জনগণকে আমরা যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছি সেগুলো বাস্তবায়নের ব্যাপারে বিশ্বস্ত থাকতে হবে। 

সব শক্তি ও আন্তরিকতা দিয়ে জনগণের সেবা করা এবং তাদের সমস্যাগুলো দূর করার ব্যাপারে কার্যকর ভূমিকা পালন করার ওপর জোর দেন ইরানের নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট। 

বৈষম্য, দারিদ্র্য, দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করাসহ অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে পরিবর্তন প্রয়োজন মন্তব্য করে তিনি বলেন, ইসলামী বিপ্লবের গৌরবময় মূল্যবোধের ভিত্তিতে মরহুম ইমাম ও শহীদদের পথ বিশেষ করে প্রিয় শহীদ ও জনগণের হৃদয়ের নেতা কাসেম সোলাইমানির আদর্শ অনুসরনের মাধ্যমে ওই প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

ইব্রাহিম রাইসির জন্ম ইরানের মাশহাদে ১৯৬০ সালে। রাইসির বাবা ছিলেন একজন ধর্মীয় নেতা। পাঁচ বছর বয়সে রাইসির বাবা মারা যান। এর পর ১৯৭৯ সালে ইরানে ইসলামি বিপ্লবের চার বছর আগে ১৫ বছর বয়সি রাইসি তার নিজের শহর মাশহাদ ছেড়ে কুমে যান।

আরও পড়ুন:


ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের সংবাদ সম্মেলন কাল

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা স্থগিত

‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাব ফখরুলের মানসিক পরীক্ষা করাতে: তথ্যমন্ত্রী

১৯৮১ সালে রাইসি তেহরানের নিকটবর্তী ইরানের শহর কারাজের বিচার বিভাগে যোগ দেন। ১০ বছরেরও কম সময়ে তিনি বিচার বিভাগে উল্লেখযোগ্য পদোন্নতি পান। এরপর কনিষ্ঠ সদস্য হিসেবে একটি ট্রাইবুন্যালের সদস্য হন যাকে বিরোধীরা ‘ঘাতক কমিটি’ হিসেবে অভিহিত করে।

১৯৮৮ সালে এই কমিটি দুই থেকে চার হাজারের মতো রাজনৈতিক বন্দিকে ফাঁসির আদেশ দেয়। এদের মধ্যে মার্কসবাদী, বামপন্থি রাজনীতিবিদ এবং পিপলস মুজাহিদিন অরগানাইজেশন অব ইরানের (এমইকে) বহু সদস্য ছিলেন। এ সংগঠনকে ইরান ও ইরাক উভয়েই সন্ত্রাসবাদী হিসেবে দেখে। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

যদি নারী অল্প পোশাক পরে ঘোরে তার প্রভাব পুরুষের উপর পড়তে বাধ্য: ইমরান

অনলাইন ডেস্ক

যদি নারী অল্প পোশাক পরে ঘোরে তার প্রভাব পুরুষের উপর পড়তে বাধ্য: ইমরান

পাকিস্তানে বেড়ে চলা ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনার জন্য নারীদের পোশাককেই দায়ী করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এরপরই তার এই মন্তব্য ঘিরে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠে।

এক্সিওয়স অন এইচবিও’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ইমরান বলেন, যদি একজন নারী খুবই অল্প পোশাক পরে ঘুরে বেড়ান, তবে তার প্রভাব একজন পুরুষের উপর পড়তে বাধ্য। তিনি রোবট না হলে এর ফলে তার মন চঞ্চল হতে পারে। এটা কমন সেন্স।

আরও পড়ুন:


জম্মু-কাশ্মীরে সংঘর্ষ: লস্কর-ই-তাইয়্যেবার কমান্ডারসহ নিহত ৩


পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, কামনা বা বাসনা সংবরণ করার জন্যই পর্দার প্রচলন হয়েছে। তবে এই সংবরণের জন্য প্রয়োজনীয় ইচ্ছাশক্তি সবার নেই। ইমরানের এই মন্তব্যের পর শুধু পাকিস্তানই নয়, পুরো দুনিয়ায় নিন্দার ঝড় বয়ে গেছে। তার বিরুদ্ধে সরব হয়েছে নেটিজেনদের একাংশ।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল মিডিয়া প্রতিনিধি ড. আরসালান খালিদ টুইট করে দাবি করেছেন, পুরো বিষয়টির ভুল ব্যাখ্যা করা হচ্ছে। ইমরান খানের বক্তব্যের নির্দিষ্ট কিছু অংশ তুলে ধরে ব্যাপারটা নিয়ে বিতর্ক তৈরি করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, দুই মাস আগেও পাকিস্তানে বাড়তে থাকা ধর্ষণের ঘটনার কারণ হিসেবে অশালীনতাকে দায়ী করেছিলেন ইমরান। এপ্রিলে পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীর সেই মন্তব্যের প্রতিবাদে লিখিতভাবে তার ক্ষমা প্রার্থনা করেছিল দেশটির নাগরিকরদের একটি অংশ।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

এরদোগানের দলীয় কার্যালয়ে বোমা হামলা

অনলাইন ডেস্ক

এরদোগানের দলীয় কার্যালয়ে বোমা হামলা

সিসিটিভি ফুটেজে বোমা হামলা চালিয়ে পালাতে দেখা যায় এক দুর্বৃত্তকে

তুরস্কের বর্তমানে ক্ষমতাসীন এরদোগানের দল জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির (একে পার্টি) প্রধান কার্যালয়ে দুর্বৃত্তরা ককটেল বোমা হামলা চালিয়েছে। তুরস্কের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় দিয়ারবাকির প্রদেশের হানি জেলায় কার্যালয়টি অবস্থিত।

স্থানীয় সময় শুক্রবার রাত ৯টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে। একে পার্টির প্রাদেশিক প্রধান মেহমেত সেরিফ আয়ডিনের শেয়ার করা একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, এক দুর্বৃত্ত দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের রাজনৈতিক দলের ওই কার্যালয়ে বোমা মেরে পালিয়ে যাচ্ছে।

তবে এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। 

আরও পড়ুন:


ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের সংবাদ সম্মেলন কাল

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা স্থগিত

‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাব ফখরুলের মানসিক পরীক্ষা করাতে: তথ্যমন্ত্রী

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে একে পার্টি। এ ঘটনার একদিন আগে ইজমির প্রদেশে পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (এইচডিপি) প্রধান কার্যালয়ে বোমা হামলায় দলটির এক তরুণ নেত্রী নিহত হন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

জম্মু-কাশ্মীরে সংঘর্ষ: লস্কর-ই-তাইয়্যেবার কমান্ডারসহ নিহত ৩

অনলাইন ডেস্ক

জম্মু-কাশ্মীরে সংঘর্ষ: লস্কর-ই-তাইয়্যেবার কমান্ডারসহ নিহত ৩

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে তিন গেরিলা নিহত হয়েছে। উত্তর কাশ্মীরের বারামুল্লা জেলার সোপোর এলাকায় গতকাল (রোববার) দিবাগত রাতে কথিত বন্দুকযুদ্ধে লস্কর-ই-তাইয়্যেবার এক শীর্ষ কমান্ডারসহ ওই তিনজন নিহত হন।

আজ (সোমবার) কাশ্মীর পুলিশের আইজি বিজয় কুমার বলেন, ‘সম্প্রতি ৩ পুলিশ সদস্য, ২ কাউন্সিলর ও ২ বেসামরিক নাগরিকের হত্যার সঙ্গে যুক্ত থাকা লস্কর-ই-তাইয়্যেবার শীর্ষ কমান্ডার মুদাচ্ছির পণ্ডিত সংঘর্ষে নিহত হয়েছে। এছাড়া আসরার ওরফে আব্দুল্লাহ নামে এক বিদেশি সন্ত্রাসীর পরিচয় জানা গেছে। পাকিস্তানের বাসিন্দা আব্দুল্লাহ ২০১৮ সাল থেকে উত্তর কাশ্মীরে সক্রিয় ছিল।’ বন্দুকযুদ্ধে নিহত অন্য একজনের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।  

গণমাধ্যম সূত্রে প্রকাশ, সোপোরের গান্ড বার্থে গেরিলাদের তৎপরতার কথা জানতে পেরে পুলিশ, সেনাবাহিনী ও আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ জওয়ান সমন্বিত যৌথবাহিনী সংশ্লিষ্ট এলাকা ঘিরে ফেলে তল্লাশি অভিযান চালায়। এসময় গেরিলারা নিরাপত্তা বাহিনীর উপরে গুলিবর্ষণ শুরু করে। নিরাপত্তা বাহিনী পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে তিনজন নিহত হন।

এর আগে গত ১৬ জুন শ্রীনগরে একটি সংঘর্ষে একজন গেরিলা নিহত হয়েছিলেন। সোপিয়ানের বাসিন্দা নিহত ওই ওই গেরিলার নাম উজায়ের আশরাফ দার। নিরাপত্তা বাহিনী সেসময়ে একটি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, ছয় রাউন্ড গুলি এবং দুটি গ্রেনেড উদ্ধার করেছিল। উপত্যকায় গেরিলাদের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযান অব্যাহত রয়েছে।   

এছাড়া, গত ১০ এপ্রিল সোপোরে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ৩ গেরিলা নিহত হয়েছিল। এর একদিনে আগে সোপিয়ানের হাদিপোরায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ৩ গেরিলা নিহত হন।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর