যে যেখানে আছে, সেখানে থেকেই ঈদ উদযাপনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক

যে যেখানে আছে, সেখানে থেকেই ঈদ উদযাপনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সরকারি বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে গ্রামের বাড়িতে গিয়ে ভাইরাস বহন না করে, যে যেখানে আছে, সেখানে থেকেই ঈদ উদযাপনের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বঙ্গবন্ধুর আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে যোগ দিয়ে পূর্বাঞ্চল নতুন শহর প্রকল্পে মূল অধিবাসী এবং ক্ষতিগ্রস্ত এক হাজার ৪৪০ জনের মধ্যে প্লট বরাদ্দ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তার পক্ষ থেকে প্লটপ্রাপ্ত তিনজনের হাতে বরাদ্দের কাগজ তুলে দেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘একটা ঈদে বাড়ি না গেলে কী হয়!’ এ সময় জীবন ও জীবিকা বাঁচাতে সবাইকে সরকারী বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যসুরক্ষাবিধি মেনে চলারও আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্লট বরাদ্দ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শহরের মতো গ্রামেও পরিকল্পিত আবাসন ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। ধনীদের দৌরাত্ম মোকাবিলা করেই সরকার প্রকৃত দাবিদারদের অধিকার নিশ্চিত করবে।’

আরও পড়ুন


এবার নার্সের ‘নিমুরা নিমুরা’ গানের নাচের ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

করোনার ভারতীয় ধরণ, বিপদজনক ভবিষ্যতেরই পূর্বাভাস: কাদের

৪৪ সন্তানের জন্ম দেয়ার পর বদমাশ ব্যাটা পালিয়ে যায়

সেই স্পিডবোট মালিক চান মিয়া র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার


প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, ‘শহর অথবা গ্রাম, বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের জন্য আবাসন নিশ্চিত করা ও জনগণের মৌলিক চাহিদা পূরণ করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, শহরের সব আধুনিক সুবিধা গ্রামে পৌঁছে দেয়ার অঙ্গীকার বাস্তবায়ন করবে সরকার।

এ সময় প্লটের চাহিদা নিয়ে তিনি বলেন, যাদের এত বিশাল বিশাল অট্টালিকা, বাড়িঘর ফ্ল্যাট সবই আছে, তাদের আরো লাগবে কেন? মরলে তো সবাইকে যেতে হবে সেই কবরে, মাত্র সাড়ে তিন হাত জায়গায়। এই ধনসম্পদ কেউ সাথে নিয়ে যেতে পারবে না। এই কথাটা মানুষ কেন ভুলে যায়, আমি জানি না।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্র প্রান্তে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমদ, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোশাররফ হোসেন, মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) চেয়ারম্যান এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

হোটেল-মোটেল খুললেও যাওয়া যাবে না সমুদ্রে

অনলাইন ডেস্ক

হোটেল-মোটেল খুললেও যাওয়া যাবে না সমুদ্রে

প্রায় তিন মাস পর আগামী ২৪ জুন স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তসাপেক্ষে কক্সবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেস্টহাউসগুলো খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে ভ্রমণের জন্য আসা কোনো পর্যটককে হোটেল-মোটেলে অবস্থান করতে দেওয়া হবে না। এমনকি সমুদ্রসৈকতেও না।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি হোটেল মালিক, ব্যবসায়ী সংগঠন ও কর্মজীবী সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে গতকাল সোমবার এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানায়।  গত বছর ১ এপ্রিল থেকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে পর্যটকসহ জনসমাগম নিষিদ্ধ করে জেলা প্রশাসন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান জানান, পর্যটনসংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও কর্মজীবীদের জীবন-জীবিকা নির্বাহসহ বিভিন্ন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শর্তসাপেক্ষে হোটেল, মোটেল ও গেস্টহাউসগুলো ২৪ জুন থেকে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সব ধরণের স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এগুলো খোলা রাখা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি তদারকির জন্য মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। এই টিম হোটেল-মোটেল কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা সুনির্দিষ্ট করে দিয়েছে। নির্দেশনা না মানলে করলে হোটেল-মোটেল বন্ধ করে দেওয়া হবে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

রাত ১২টার পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক

রাত ১২টার পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ

করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আজ রাত ১২টা থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ মজুমদার এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, আজ রাত ১২টার পর ঢাকায় কোনো ট্রেন ঢুকবে না, বেরও হবে না। তবে চট্টগ্রাম থেকে সিলেট, চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুরের পথের ট্রেন চলাচল করবে।

এদিকে, আজ সন্ধ্যায় রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম দেশের একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ঢাকায় সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিশেষ করে দেশের পশ্চিমাঞ্চলে যেভাবে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, তাতে এই সিদ্ধান্ত ছাড়া বিকল্প ছিল না।

তিনি বলেন, আজ (২২ জুন) রাত ১২টা থেকে ঢাকার সাথে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হবে। রেলের পশ্চিমাঞ্চল অর্থাৎ দেশের উত্তরাঞ্চলে কোনো ট্রেনই চলবে না। তবে সিলেট ও চট্টগ্রামের মধ্যে ট্রেন চলাচল থাকবে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে।

এর আগে মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, মাদারীপুর, গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ, রাজবাড়ী ও গোপালগঞ্জ জেলায় বিধিনিষেধ (লকডাউন) ঘোষণা করা হয়। মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ওই সাত জেলায় এই বিধিনিষেধ (লকডাউন) কার্যকর হয়েছে।

আরও পড়ুন:


পরমাণু ইস্যুতে বাইডেনের সঙ্গে কোনও বৈঠক নয়: রাইসি

তদন্তের প্রয়োজনেই হুইপ সামশুলসহ ৬ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা: দুদক

নির্বাচন ব্যবস্থাকে আরও কলঙ্কিত করল আওয়ামী লীগ: চরমোনাই পীর

বিশেষ বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা স্থগিত


এদিকে করোনা পরিস্থিতি বিস্তাররোধে দেশে চলমান বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও এক মাস বাড়িয়ে আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত করা হয়েছে। গত ১৬ জুন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এক প্রজ্ঞাপন জারি করে এ বিধিনিষেধ কার্যকর করা হয়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ফোন করলে ১০ মিনিটেই বিনামূল্যে অক্সিজেন দেবে পুলিশ

নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর

ফোন করলে ১০ মিনিটেই বিনামূল্যে অক্সিজেন দেবে পুলিশ

ফোন করলেই ১০ মিনিটে মধ্যে বিনামূল্যে অক্সিজেন পৌঁছে দেবে পুলিশ।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

তদন্তের প্রয়োজনেই হুইপ সামশুলসহ ৬ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা: দুদক

অনলাইন ডেস্ক

তদন্তের প্রয়োজনেই হুইপ সামশুলসহ ৬ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা: দুদক

দুর্নীতির অভিযোগের তদন্তের প্রয়োজনে চট্টগ্রামের পটিয়া থেকে নির্বাচিত এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, ভোলার এমপি নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন ও সুনামগঞ্জের এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতনসহ ছয়জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সচিব মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার।

তিনি বলেন, নিষেধাজ্ঞা আগেই ছিল, গতকাল আদালত অনুমোদন দিয়েছেন।

মঙ্গলবার (২২ জুন) সেগুনবাগিচায় দুদক কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন দুদক সচিব।

মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার জানান, একটি রিটের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত একটি আদেশ দিয়েছিলেন। দুদক বিদেশযাত্রায় কোনো লোককে রহিত করতে পারবেন না কোর্টের অনুমোদন ছাড়া। পরবর্তীতে আমরা আরেকটি আবেদনের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত সিদ্ধান্ত দিয়েছেন, যেকোনো তদন্ত বা যেকোনো পর্যায়ে যদি প্রয়োজন হয় কাউকে বিদেশযাত্রায় রহিতকরণ করতে দুদক কার্যক্রমের স্বার্থে দুদক সেটা করতে পারবে।

তবে সেটা করার পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে আদালত থেকে অনুমোদন করতে হবে। কী কারণে বিদেশ যাত্রায় রহিতকরণ, কেন করা হলো, কেন পাসপোর্ট জব্দ করা হলো-এই তিন কারণ উল্লেখ করে আদালতকে জানালে আদালত অনুমোদন দেবেন বলে তিনি জানান।

দুর্নীতির এবং অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ তদন্তের প্রয়োজনে চট্টগ্রামের পটিয়া থেকে নির্বাচিত এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, ভোলার এমপি নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন ও সুনামগঞ্জের এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতনসহ ছয়জনের বিদেশযাত্রায় সোমবার (২১ জুন) নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয় বলে জানান দুদক সচিব।

বিদেশযাত্রা নিষেধাজ্ঞা দেওয়া অন্য তিনজন হলেন-গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম প্রধান সাজ্জাদুল ইসলাম, গণপূর্ত অধিদপ্তরের সাবেক অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত) মো. আব্দুল হাই এবং ঢাকার ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের কর্মচারী আবুল কালাম আজাদ।

দুদকের আগের বিদেশ গমনের নিষেধাজ্ঞার চিঠিতে হুইপ সামশুল হকসহ ২২ জনের নাম ছিল। সেখানেও ছিল সংসদ সদস্য শাওন, প্রকৌশলী আব্দুল হাই ও ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের আজাদের নাম। অনুসন্ধান চলাকালে এই ব্যক্তিরা বিদেশে পালিয়ে যেতে পারেন বলে গত ৭ জুন নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য আদালতে আবেদন করেন দুদকের অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা। এর পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ও মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের হাকিম কে এম ইমরুল কায়েশ এই ছয়জনের বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন।

হুইপসহ ৬ জনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

এবার নগরবাসীকে জলজট সমস্যায় ভুগতে হচ্ছেনা : মেয়র আতিকুল

অনলাইন ডেস্ক

এবার নগরবাসীকে জলজট সমস্যায় ভুগতে হচ্ছেনা : মেয়র আতিকুল

সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলেই প্রবল বৃষ্টিপাতেও জলজটের ভোগান্তি থেকে নগরবাসীকে মুক্ত রাখা সম্ভব হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন(ডিএনসিসি) মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম।

মঙ্গলবার ২২শে জুন দিনভর প্রবল বৃষ্টিপাতে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন এলাকার সার্বিক অবস্থা সম্পর্কে খোঁজখবর নিতে গিয়ে ডিএনসিসি মেয়র একথা বলেন।

তিনি বলেন, অন্যান্য বছর সামান্য বৃষ্টিতেই ডিএনসিসির বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা-ঘাট ডুবে যেতো, জলজটে নগরবাসীকে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হতো। কিন্তু এবার রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিতেও নগরবাসীকে জলজট সমস্যায় ভুগতে হচ্ছেনা।

মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, আজ ২৫ মিলিমিটার পরিমাণ বৃষ্টিপাত হলেও নৌবাহিনী সদর দপ্তর প্রধান সড়ক, গলফ হাইট প্রধান সড়ক, সেতু ভবন প্রধান সড়ক, নাখাল পাড়া, কালা চাঁদপুর, বারিধারা, বেগম রোকেয়া সরণি, কচুক্ষেত, আনসার ক্যাম্প-দারুস সালাম রোড, মগবাজার, বেপারি পাড়া, উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরসহ ডিএনসিসির প্রায় সকল এলাকাই জলজট মুক্ত ছিল।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, তিনি কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী বলেই পহেলা জুন ঢাকায় দীর্ঘ সময় ধরে রেকর্ড ৮৫ মিলিমিটার পরিমাণ বৃষ্টিপাত হলেও দ্রুততম সময়ের মধ্যেই নগরবাসীকে জলজট থেকে মুক্ত করা সম্ভব হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গত ১৬ই জুন মিরপুর কাজীপাড়া ও শেওড়াপাড়া এলাকায় সড়কসমূহ পরিদর্শনকালে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষকে মেট্রোরেল সংলগ্ন রাস্তা ও ড্রেন নিয়মিত পরিষ্কার করার পাশাপাশি সঠিকভাবে কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছিল বলেই আজ দিনভর বৃষ্টিপাতের পরও সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসীকে জলজটের ভোগান্তি পোহাতে হয়নি।

আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন জায়গায় খাল উদ্ধার ও পরিস্কার কার্যক্রম শুরু হয়েছে, জনগণের সহায়তায় তা অব্যাহত থাকবে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, একটি সুস্থ, সুন্দর নগরী গড়ে তোলার জন্য সকলকে দায়িত্ববান হতে হবে, নিজ নিজ অবস্থানে থেকে জনকল্যাণে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ঢাকাকে দখল, দূষণ ও দুষ্ট লোকের কবল থেকে মুক্ত করে সবার বাসযোগ্য একটি সুস্থ, সচল ও আধুনিক ঢাকায় রুপান্তরিত করতে হবে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর