সংখ্যালঘুদের বাড়ি-ঘরে হামলা: ভিডিও ফুটেজে ধরা আ.লীগ নেতা

মো.বুরহান উদ্দিন, সুনামগঞ্জ

সংখ্যালঘুদের বাড়ি-ঘরে হামলা: ভিডিও ফুটেজে ধরা আ.লীগ নেতা

সুনামগঞ্জের শাল্লার উপজেলার সংখ্যালঘু নোয়াগাঁও গ্রামে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা মামুনুল হক সমর্থকদের হামলা লুটপাট ও ভাংচুরের ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে আরও ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

গ্রেপ্তাররা হলো- দিরাই উপজেলার সরমঙ্গল ইউনিয়নের ধনপুর গ্রামের আব্দুল রশিদের ছেলে হান্নান মিয়া (৫০) ও পার্শ্ববর্তী চন্ডিপুর গ্রামের সোয়েব মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম (২২)।

সোমবার (১০ মে) বিকালে জেলা ডিবি পুলিশের একটি দল তাদের নিজ গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে। গত ২ মে থেকে নোয়াগাঁও গ্রামের ঘটনায় তিনটি মামলা তদন্ত করছে ডিবি পুলিশ।

সুনামগঞ্জ পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)’র অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইকবাল বাহার জানান, নোয়াগাঁও গ্রামের ঘটনার ভিডিও ফুটেজ দেখে দুইজনকে শনাক্ত করে আজ সোমবার বিকালে তাদেরকে নিজ গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আগামীকাল মঙ্গলবার আদালতে সোপর্দ করা হবে।’

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পরীমনির বিষয়ে মুখ খুললেন নাসির

অনলাইন ডেস্ক

পরীমনির বিষয়ে মুখ খুললেন নাসির

রাজধানীর বনানীর বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ আটক ঢাকাই ছবির আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনিকে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদরদফতরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ রয়েছে সে ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে সেখানে।

বুধবার (৪ আগস্ট) রাত ৮টা ১০ মিনিটে পরীমনিকে তার বাসা থেকে বের করে একটি সাদা মাইক্রোবাসে র‌্যাব সদরদফতরের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়। এদিকে পরীমনির বিরুদ্ধে মামলা করার কথা জানিয়েছেন ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ। তিনি পরীমনির মামলায় গ্রেফতার হয়ে জেল খেটেছেন।

বুধবার নাসির উদ্দিন গণমাধ্যমকে জানান, মিথ্যা অপবাদ, সম্মানহানি করা, পারিবারিকভাবে অপদস্থ করাসহ বেশ কিছু বিষয়ে যে কোনো সময় তিনি রাজধানীর বিমানবন্দর থানায় পরীমনির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবেন।

নাসির বলেন, আমি মামলা করার জন্য প্রস্তুত। আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করে মামলা দায়ের করব। আমার বিরুদ্ধে যে ধরনের অভিযোগ করা হয়েছে তার সবই মিথ্যা। আমাকে পারিবারিকভাবে হয়রানি করা হয়েছে, সমাজে অপদস্থ করা হয়েছে।মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগের কারণে আমার দীর্ঘদিনের অর্জিত মান-সম্মান সবকিছুই শেষ হয়ে গেছে।

এদিকে আজ (বুধবার) বিকালে পরীমনির বাসায় অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে আটক করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৯ জুন মধ্যরাতে সাভারে অবস্থিত ঢাকা বোট ক্লাবে চিত্রনায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা করা হয় বলে তিনি অভিযোগ করেন।

ঘটনার চার দিন পর ১৩ জুন রাত ৮টার দিকে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে এবং রাত ১১টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘটনা প্রকাশ করেন নায়িকা পরীমনি।

পর দিন ১৪ জুন সকালে ব্যবসায়ী নাসিরউদ্দিন মাহমুদ ও অমিসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে সাভার থানায় মামলা করেন তিনি।ওই দিন বিকালে উত্তরা থেকে নাসির ও অমিসহ পাঁচজনকে আটক করা হয়। এর পর ডিবির গুলশান জোনাল টিমের উপপরিদর্শক (এসআই) মানিক কুমার সিকদার বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন। 

ওই মামলায় গত ১৫ জুন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নিভানা খায়ের জেসি নাসির ও অমির সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। পরে ওই মামলায় রিমান্ড শেষে পরীমনির মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয় তাদের।

২৯ জুন পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার মামলায় প্রধান আসামি নাসিরউদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমি জামিন পান।পরে ৩০ জুন দিবাগত রাত ৮টার দিকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নাসির মুক্তি পান।

আরও পড়ুন:

যতক্ষণ না পুলিশ আসবে, মিডিয়া আসবে লাইভ চলবে: পরীমনি

আবারও মুখোমুখি ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা

একসঙ্গে দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জন্ম


 

কারামুক্ত হয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন নাসির উদ্দিন। সত্যিকারে অন্যায় করলে আফসোস ছিল না- এমন আক্ষেপ করে এই ব্যবসায়ী বলেন, বড় রকমের ভিকটিম হলাম। কোনো দিন হাজত দেখিনি। রিমান্ডে ১২ দিনসহ ১৮ দিন জেলহাজতে কাটিয়েছি। আমাকে আটক করার পরও কেউ আমার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করেননি। একজন সেলিব্রিটির (পরীমনি) অভিনয়ে আমি সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে গেলাম।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

হেলেনা জাহাঙ্গীরের অন্যতম দুই সহযোগী রিমান্ডে

অনলাইন ডেস্ক

হেলেনা জাহাঙ্গীরের অন্যতম দুই সহযোগী রিমান্ডে

রাজধানীর পল্লবী থানায় প্রতারণার অভিযোগে করা মামলায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের অন্যতম দুই সহযোগী হাজেরা খাতুন ও সানাউল্ল্যাহ নূরীকে তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারীর আদালত এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদালতের সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিন তাদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদের সাত দিন করে রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক মো.আল হেলাল। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তাদের তিন দিন করে এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর গাবতলী এলাকা থেকে হাজেরা খাতুন এবং সানাউল্ল্যাহ নূরীকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

আরও পড়ুন:


পরিমনির সরাসরি লাইভ দেখুন

চিত্রনায়িকা পরীমণি আটক হচ্ছেন!

পরীমণির বাসায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের হামলার দাবি, আতঙ্কে নায়িকা

পরীমণির বাসায় র‍্যাবের অভিযান, লাইভ শেষ


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

৪ দিনের রিমান্ডে দর্জি মনির

অনলাইন ডেস্ক

৪ দিনের রিমান্ডে দর্জি মনির

মনির খান ওরফে দর্জি মনিরকে গ্রেপ্তারের পর ৪ দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে তাকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়।

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর থানার মামলায় তাকে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

একই সঙ্গে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের প্রয়োজনে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। এ সময় আসামিপক্ষের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে আবেদন করেন।

অপরদিকে, রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রিমান্ডের জোর দাবি জানান।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মণ্ডলের আদালত ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বুধবার বিকেল সোয়া ৩টায় আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে মঙ্গলবার চাঁদাবাজি ও প্রতারণার অভিযোগে ইসমাইল হোসেন নামে এক ব্যক্তি মামলাটি করেন।

এজাহারে বাদী ইসমাইল হোসেন বলেন, আসামি মনিরকে আমি ১৫ বছর ধরে চিনি। তিনি একটি ছোট দর্জির দোকানে কাটিং মাস্টারের চাকরি করতেন। হঠাৎ তিনি নিজেকে রাজনৈতিক বড় নেতা পরিচয় দেওয়া শুরু করেন। তিনি একেক সময় একেক রাজনৈতিক পরিচয়সহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের এমডি হিসেবে পরিচয় দিতেন। এছাড়া বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি-প্রধানমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক ও স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ছাড়াও আরও অনেক মন্ত্রী-এমপিদের সঙ্গে নিজের ছবি কম্পিউটার সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে এডিট করে বসিয়ে নিজেকে ‘বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনা পরিষদ’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি দাবি করতেন।

আরও পড়ুন:

আবারও মুখোমুখি ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা

একসঙ্গে দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জন্ম

news24bd.tv তৌহিদ

 

পরবর্তী খবর

হেলেনা জাহাঙ্গীরের সম্পদের তদন্ত চলছে

আলী তালুকদার

হেলেনা জাহাঙ্গীরের সম্পদের তদন্ত চলছে

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে তথ্য উপাত্ত পেলেই ব্যবস্থা নেবে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক। আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর হাতে আটক হেলেনার ৫টি গার্মেন্ট প্রতিষ্ঠান, ১৫টি ফ্লাটসহ অঢেল সম্পদের বিষয়ে সংস্থাটি অনুসন্ধান করবে বলে জানিয়েছেন দুদক কমিশনার।

এছাড়া মডেল পিয়াসা, মৌ সম্রাজ্যের অবৈধ সম্পদ অর্জনকারীদের সন্ধানে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে অনুসন্ধান। সময়ের আলোচিত নাম হেলেনা জাহাঙ্গীর। রাজনীতির মাঠে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি, সাংবাদিকতা পেশাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে আইপি টিভির আড়ালে নিয়োগ বাণিজ্য, কখনো মডেল হয়ে মিউজিক ভিডিওতে অভিনয়। বহু প্রতিভায় বেড়ে উঠা হেলেনাকে ৩০ জুলাই তার নিজ বাসা থেকে মাদক, বিদেশী মুদ্রাসহ আটক করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

আটকের পর হেলেনা বেড়িয়ে আসেন হা্স্যজ্জল চেহারায়। এরই মধ্যে হেলেনা সম্রাজ্যের অঢেল সম্পদের তথ্য জমা পড়েছে বিভিন্ন সংস্থার হাতে। মিরপুরে নিউ কনসার্ন প্রিন্টিং ইউনিট, নারায়নগঞ্জে জেসি এমব্রয়ডারি, হুমায়ারা স্টিকার, জয় অটো গার্মেন্টস, যৌথ মালিকানায় প্যাক কনসার্নসহ মোট ৫টি গামের্ন্টস প্রতিষ্ঠান। রাজধানীতে ফ্ল্যাট রয়েছে মোট ১৫ টি। (উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরে ৫টি ফ্ল্যাট, গুলশানের ৩৬ নম্বর রোডে ৫টি, গুলশান ২ নম্বরে ৮হাজার ঘনফুটের একটি ফ্ল্যাট, গুলশান এভিনিউতে ১টি, গুলশানের নিকেতনে ১টি, মিরপুর ১১ নম্বর  ১টি, কাজীপাড়ায় ১টি ফ্ল্যাটসহ মোট ১৫টি ফ্ল্যাট।)

১২টি ক্লাবের মেম্বার হেলেনা ৭টি সামাজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতেন জয়যাত্রা আইপি টিভি। দুদক কমিশনার বলছেন, হেলেনার বিষয়ে তথ্য উপাত্ত হাতে পেলেই নেয়া হবে ব্যবস্থা। সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত মডেল পিয়াসা, মৌ হেলনাদের সম্রাজ্যে কাদের বিচরণ ছিল তাদের বিষয়েও নজরদারি করছে দুদকসহ বিভিন্ন সংস্থা।

news24bd.tv/এমিজান্নাত 

পরবর্তী খবর

রোহিঙ্গা নাগরিককে অবৈধভাবে চলাফেরায় সহযোগিতা, গ্রেপ্তার ২

আকবর হোসেন সোহাগ, নোয়াখালী

রোহিঙ্গা নাগরিককে অবৈধভাবে চলাফেরায় সহযোগিতা, গ্রেপ্তার ২

নোয়াখালীর হাতিয়ার ভাসানচরের রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের অবৈধ ভাবে চলাচলে সহযোগিতা করায় দুই দালালকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তারা হলো- চর আলাউদ্দিন গ্রামের আকবর হোসেন সাইফুল্লাহ (৩৬) ও নুর ইসলাম (৪৪)।

মঙ্গলবার ( ৩ আগস্ট) আটক দুই আসামিকে বিদেশি নাগরিক আইনের মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এর আগে, একই দিন সকালে সুবর্ণচরের মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চর আলাউদ্দিন গ্রাম থেকে দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

সুবর্ণচরের চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল হক বলেন, গত কিছু দিন আগে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে করলে তারা জানায়, সুবর্ণচর উপজেলার বাসিন্দা সাইফুল্লাহ ও নুর ইসলাম ভাসানচরের আশ্রয়কেন্দ্র থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের মেঘনা নদী পারাপারে দীর্ঘদিন থেকে সহযোগিতা করে আসছে। এ ঘটনায় আটক রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে বিদেশি নাগরিক আইনের মামলা হয়। রোহিঙ্গাদের ভাষ্যমতে ওই মামলায় সাইফুল্লাহ ও নুর ইসলামকে সহযোগী হিসেবে আসামি করা হয়েছে।

ওসি জিয়াউল হক বলেন, সোমবার দিবাগত রাতে তাঁরা নিজ বাড়িতে আসলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন:


১১ তারিখ থেকে যানবাহন চলবে যে নিয়মে

৭, ৮, ৯ আগস্ট ভ্যাকসিন নেওয়ার সুযোগ দিচ্ছি: মোজাম্মেল হক

১১ আগস্টের পর ভ্যাকসিন ছাড়া ঘোরাফেরা করলে শাস্তি


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর