এখনও যে উপায়ে বিদেশ যেতে পারেন খালেদা জিয়া

অনলাইন ডেস্ক

এখনও যে উপায়ে বিদেশ যেতে পারেন খালেদা জিয়া

করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। বর্তমানে বেগম জিয়া করোনা নেগেটিভ হলেও করোনা পরবর্তী শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন তিনি। আর এই জন্যই উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ নিতে পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছিল।

কিন্তু গত রোববার আইন মন্ত্রণালয় জানায় বিএনপি চেয়ারপারসন সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় বিদেশ যাওয়ার মুযোগ নেই। তাই তাকে দেশেই চিকিৎসা নিতে হবে।

তবে গতকাল সোমবার রাতে এক গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানায় এখনো সুযোগ আছে বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে যাওয়ার।

সাক্ষাৎকারে আইনমন্ত্রী জানিয়েছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ স্বীকার করে প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতি বরাবর ক্ষমা প্রার্থনা করলে তিনি মুক্তি পেতে পারেন। সরকার যদি কোনো পদক্ষেপ নেয় তবে তা আইনের মাধ্যমে নিতে হয়।

আরও পড়ুন


করোনার ভারতীয় ধরন ‘উদ্বেগজনক’: ডব্লিউএইচও

পূর্ব জেরুজালেমের পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় আমি উদ্বিগ্ন: রুশনার আলী

বিশ্বে করোনায় একদিনে ১১ হাজার মানুষের মৃত্যু

গাজায় ইসরায়েলি বিমান হামলায় শিশুসহ নিহত ২০


তিনি আরও জানান, আইনে বলা আছে, প্রধানমন্ত্রী চাইলে যে কোনো দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে শর্তসাপেক্ষে অথবা নিঃশর্তভাবে ৪০১ ধারা বলে মুক্তি দিতে পারেন। ৪০২ ধারার মাধ্যমে রাষ্ট্রপতিও এই ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারেন। এছাড়া রাষ্ট্রপতি সংবিধানের ৪৯ নম্বর আর্টিকেলের মাধ্যমে নিজ ক্ষমতাবলে যে কোনো দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করতে পারেন।

আইনমন্ত্রী বলেন,  খালেদা জিয়া যদি তার বিরুদ্ধে আনিত সমস্ত অপরাধ স্বীকার করে আবারও প্রধানমন্ত্রী অথবা রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন এবং তারা যদি খালেদা জিয়াকে ক্ষমার বিষয়টি বিবেচনা করে তাকে মুক্তি দেন তাহলে তিনি বিদেশ অথবা যে কোনো জায়গায় যেতে পারেন।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু-শনাক্ত দুটোই বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু-শনাক্ত দুটোই বেড়েছে

মহামারি করোনা ভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৮২ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬৪১ জন।

এর আগে, গতকাল করোনায় মৃত্যু হয় ৬৭ জনের। আর শনাক্ত ছিলো ৩ হাজার ৫৭ জন।

আজ বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫০৯ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৮২ হাজার ৬৫৫ জন। 

২৪ ঘণ্টায় ২২ হাজার ২৬২ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষা করা হয়েছে ২২ হাজার ২৩১টি। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৩৮ শতাংশ। দেশে এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৬৩ লাখ ২৭ হাজার ৭৩৪টি। মোট পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৪৬ শতাংশ। 

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৮২ জনের মধ্যে খুলনা বিভাগেরই ৩২ জন। এছাড়া, ঢাকায় ২১, চট্টগ্রামে ৯, রাজশাহীতে ১২, সিলেটে ২, রংপুরে ১, বরিশালে ১ জন এবং ময়মনসিংহে ৪ জন মারা গেছেন।

আরও পড়ুন:


এবারও হচ্ছে না প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা

আমাদের লক্ষ্য বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করা: প্রধানমন্ত্রী

ওসমানীনগরে শিক্ষিকাকে গলাকেটে হত্যার পর গৃহকর্মীর আত্মহত্যা

এবার মাহিয়া মাহির দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে গুঞ্জন


২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ৫৫ জন পুরুষ এবং ২৭ জন নারী। এদের মধ্যে ৩ জন বাসায় মারা গেছেন। বাকিরা হাসপাতালে মারা গেছেন। এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে মোট মারা যাওয়া ১৩ হাজার ৫৪৮ জনের মধ্যে পুরুষ ৯ হাজার ৭১২ জন এবং নারী ৩ হাজার ৮৩৬ জন।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ৩৮ জনেরই বয়স ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের ২১, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ১১, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ৯ এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের ২, ১১ থেকে ২০ বছরের ১ জন রয়েছেন।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি কোথায়?

অনলাইন ডেস্ক

গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি কোথায়?

স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে গণপরিবহন চালু হলেও তার কোন প্রতিফলন নেই। শুধু ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি ছাড়া অর্ধেক আসন শূন্য রাখা মাস্ক পরা বা দূরত্ব বজায় রাখার শর্তগুলো মানা হচ্ছে না। এতে করোনা সংক্রমণ আরও ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা বাড়ছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহনের শর্তে গত ২৪ মে থেকে গণপরিবহন চালু করে পরিবহণ মালিকরা। এক মাস না পেরোতেই গণপরিবহনে শারীরিক দূরত্ব না মেনে পূর্ণ আসনে যাত্রী পরিবহন শুরু হয়েছে। অনেকেই মাস্ক না পড়লেও ৬০ ভাগ বা তারও বেশি ভাড়া ঠিকই আদায় করা হচ্ছে।


আরও পড়ুন

নরসিংদীতে মাইক্রোবাস-ট্রাক সংর্ঘষে নিহত ৫

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বার বার ধর্ষণ, আসামি গ্রেপ্তার

বিগো লাইভ-ফ্রি ফায়ার-পাবজি-টিকটক বন্ধে লিগ্যাল নোটিশ

আবারও জিততে ব্যর্থ স্পেন


শিল্প কারখানা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আর অফিস খুলে দেয়ায় যাত্রী চাপ বেড়েছে। আর গাদাগাদি করে সংক্রমণ ঝুঁকির সাথে অতিরিক্ত ভাড়া তাদেরই গুনতে হচ্ছে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

মেহজাবিনের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

অনলাইন ডেস্ক

মেহজাবিনের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

রাজধানীর কদমতলীতে বাবা-মা-বোনকে হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার মেহজাবিন ইসলাম মুনের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রবিবার (২০ জুন) রাজধানীর সিএমএম আদালত তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রবিবার সকালে মেহজাবিন ইসলাম মুনের নামে মামলা করা হয় এবং তাকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখায় রাজধানীর কদমতলী থানা পুলিশ। পরে তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়।

এরপর হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাকে সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কদমতলী থানার পরিদর্শক জাকির হোসেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস তার চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ বিষয়ে কদমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জামাল উদ্দিন মীর সংবাদমাধ্যমকে জানান, মা, বাবা ও বোনকে হত্যার ঘটনায় নিহত মাসুদ রানার বড় ভাই এবং আটক মেহজাবিন ইসলাম মুনের বড় চাচা সাখাওয়াত হোসেন বাদী হয়ে মেহজাবিন ইসলাম মুন ও তার স্বামী শফরকুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে গতকালই মেহজাবিন ইসলাম মুনকে আটক করে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তার স্বামী শফরকুল ইসলাম আহত অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাকে পুলিশি পাহারায় রাখা হয়েছে। সুস্থ হলে তাকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হবে।


আরও পড়ুনঃ

ভাল থাকুক বিশ্বের সকল বাবা, যেভাবে দিবসটির শুরু

বিএনপি থেকে শফি আহমেদ চৌধুরীকে বহিষ্কার

ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট রায়িসিকে অভিনন্দন জানাল হামাস

বিশেষ ট্রেন চালু, মাত্র এক ঘণ্টাতেই ঢাকা-গাজীপুর


এর আগে শনিবার (১৯ জুন) পুলিশ জানায়, পূর্বপরিকল্পিতভাবে পরিবারে এ হত্যাকাণ্ড চালিয়েছেন মেহজাবিন মুন। এ ঘটনায় নিহতরা হলেন- মাসুদ রানা (৫০), তার স্ত্রী মৌসুমী আক্তার (৪৫) এবং তাদের মেয়ে জান্নাতুল (২০)।

মা-বাবাসহ ছোট বোনকে হত্যা করে ৯৯৯-এ ফোন দেন মুন নিজেই। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কদমতলীর মুরাদপুর হাজী লাল মিয়া সরকার রোড এলাকা থেকে স্বামী, স্ত্রী ও মেয়ের হাত-পা বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করে। আটক মেহজাবিন থাকেন আলাদা বাসায়। মায়ের বাসায় বেড়াতে এসেছিলেন তিনি।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

বাবা-মা-বোনকে হত্যা: মেহজাবিন ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

বাবা-মা-বোনকে হত্যা: মেহজাবিন ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

রাজধানীর কদমতলী থানার ৫২ ওয়ার্ডের মুরাদপুর এলাকায় বাবা, মা ও বোনকে হত্যার অভিযোগে গ্রেপ্তার পরিবারটির বড় মেয়ে মেহজাবিন ইসলাম ও তার স্বামী শফিকুল ইসলামকে আসামি করে মামলা হয়েছে। 

কদমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জামাল উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, শনিবার (১৯ জুন) রাতে নিহত মাসুদ রানার ভাই সাখাওয়াত হোসেন থানায় মামলাটি করেছেন।

ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইতিমধ্যে আটক নিহত মাসুদ রানার মেয়ে মেহজাবিনকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। মামলার অপর আসামি মেহজাবিনের স্বামী শফিকুলকে রাজধানীর মিটফোর্ড হাসপাতালে পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। শফিকুল অসুস্থ থাকায় তাকে এখনো জিজ্ঞাসাবাদ করা যায়নি।  

গতকাল সকালে মুরাদপুর  হাইস্কুল রোডের একটি ভবনের দ্বিতীয় তলা থেকে মাসুদ রানা (৫০), তার স্ত্রী মৌসুমী ইসলাম (৪০) ও মেয়ে জান্নাতুলের (২০) মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 

আরও পড়ুন:


এবারও হচ্ছে না প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা

আমাদের লক্ষ্য বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করা: প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরীর জামিন আপিল বিভাগে স্থগিত

‘মিঠুন ছিলেন গরীবের অমিতাভ বচ্চন’


অচেতন অবস্থায় মেয়ের জামাই শফিকুল ইসলাম ও নাতনি তৃপ্তিকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় দুপুরের দিকে পরিবারের বড় মেয়ে মেহজাবিন ইসলামকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

কাল থেকে সারাদেশে ইঞ্জিনচালিত রিক্সা-ভ্যান নিষিদ্ধ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

কাল থেকে সারাদেশে ইঞ্জিনচালিত রিক্সা-ভ্যান নিষিদ্ধ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আগামীকাল সোমবার (২১ জুন) থেকে সারা দেশে ইঞ্জিনচালিত রিক্সা ও ভ্যান চলতে পারবেনা বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। 

আজ সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা জোরদারকরণ এবং দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে গঠিত কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়নের জন্য টাস্কফোর্সের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পর্যায়ক্রমে আলোচনা করে ইজিবাইক, নসিমন, করিমন ও ভটভটিও বন্ধ করে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, সড়ক পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা জোরদারকরণ এবং দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল। যেই কমিটির ১১১টি সুপারিশ ছিল। পরে এ বিষয়ে টাস্কফোর্স গঠন করা হয়। বেশকিছু সুপারিশ বাস্তবায়নে পথে, অল্প কিছু বাস্তবায়িত হয়েছে। বাকিগুলো কীভাবে বাস্তবায়ন করবো, আমরা সেই বিষয়ে কর্মপন্থা নির্ধারণ করেছি।

আজ সভার সিদ্ধান্ত তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, আমরা লক্ষ্য করেছি সারাদেশে রিক্সা-ভ্যানের মধ্যে মোটর লাগিয়ে রাস্তায় চলছে। শুধু সামনের চাকায় ব্রেক, পিছনের চাকায় কোনো ব্রেক নেই বা ব্যবস্থা থাকলেও তা অপ্রতুল। সেগুলো যখন ব্রেক করে যাত্রীসহ গাড়ি উল্টে যায়। এ ধরনের দৃশ্য আমরা দেখেছি।

তিনি বলেন,প্যাডেলচালিত রিক্সাকে যারা ইঞ্জিন দিয়ে রূপান্তর করেছেন, সেই সব রিক্সা-ভ্যান বন্ধ করার সিদ্ধান্ত আজকের সভায় নেয়া হয়েছে।

ইজিবাইক, নছিমন, করিমনের বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত- জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘নছিমন, করিমন, ভটভটি বিভিন্ন শহরে অটোরিক্সা চলছে। আমরা সব জায়গায় যানবাহনের ব্যবস্থা করতে পারিনি। গ্রাম-গ্রামান্তরে সুন্দর রাস্তা হয়েছে। হাঁটা কিংবা সাইকেল, মোটরসাইকেল, রিক্সা ছাড়া পর্যাপ্ত যানবাহন নেই। সেজন্য নছিমন, করিমন পণ্য পরিবহন কিংবা যানবাহনের বিকল্প হিসেবে কাজ করছে। এটা নিয়েও আলোচনা হবে। শিগগিরই এটাকে পরিমিত করা এবং ফাইনালি বন্ধ করা যায় কি-না সেটা নিয়ে আলোচনা হবে। আমরা সেখানেও কাজ করবো।

সভায় সংসদ সদস্য এবং বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি শাজাহান খান, সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি মো. মসিউর রহমান রাঙা, পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ, টাস্কফোর্সের অন্য সদস্যরা সশরীরে ও ভার্চুয়ালি উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর