মরিয়া হয়ে গ্রামের পথে ছুটছে মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মরিয়া হয়ে গ্রামের পথে ছুটছে মানুষ

সরকারের বিধিনিষেধের কারণে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ। চলছে না ট্রেন, লঞ্চও। তবুও ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখী মানুষের ঢল থামানো যাচ্ছে না। ঝুঁকি নিয়ে যে যেভাবে পারছে, ছুটছে বাড়ির পথে। ট্রাক-পিকআপ-মাইক্রোবাসে দ্বিগুণ, তিন গুণ ভাড়া দিয়ে ছুটছে মানুষ।

রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সংযোগ পয়েন্টগুলোতে চেকপোস্ট বসিয়ে ঘরমুখো মানুষের স্রোত ঠেকাতে পারছে না আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। 

পুলিশ চেকপোস্টের অংশটুকু পায়ে হেঁটে অতিক্রম করে কখনো বা মূল সড়ক এড়িয়ে সরু গলি, কাদামাখা পথ মাড়িয়ে ঝুঁকিপূর্ণ যাত্রায় গ্রামের পথ ধরেছেন অসংখ্য মানুষ। এর মধ্যে নারী ও শিশুদের দুর্ভোগ সীমা ছাড়িয়েছে।  কেউ কাভার্ডভ্যান, কেউবা ট্রাকে করেই ধরেছেন গন্তব্যের পথ। অনেকে আবার জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মোটরসাইকেলে করে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে, সামর্থ্যবান মানুষজনের ব্যক্তিগত যানবাহনে গ্রামের বাড়ি ফেরার পাল্লায় মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয়েছে যানজটের।

গাবতলী, হেমায়েতপুর ও সায়েদাবাদ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কয়েক হাজার মানুষ বাড়িতে যাওয়ার জন্য যানবাহন খুঁজছেন হন্যে হয়ে। অধিকাংশ মানুষই স্বাস্থ্যবিধি মানছিলেন না। গাবতলিতে গণপরিবহন না পেয়ে অনেককেই পায়ে হেঁটে বা অটোরিকশায় সেখান থেকে আমিনবাজারের দিকে রওনা হয়েছেন। আমিনবাজার এলাকায় ঘরমুখী মানুষের প্রচুর ভিড় দেখা গেছে।

লেগুনা, ট্রাক কিংবা মোটরসাইকেলে চড়ে অনেকেই দুই বা তিনগুণ বেশি ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে পৌঁছাচ্ছেন। এমনকি অনেকে পায়ে হেঁটেও লম্বা পথ পাড়ি দিচ্ছেন।

এদিকে লঞ্চ ও ফেরি বন্ধ থাকায় সবচেয়ে ভোগান্তি নিয়ে বাড়ি ফিরছেন দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ। ভোর থেকেই মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে ভিড় করছেন ঘরমুখো হাজারো মানুষ। মাঝে-মধ্যে এম্বুলেন্স পারাপারের জন্য ফেরি ঘাটে ভিড়লেই হুড়মুড়িয়ে উঠে পড়ছেন তারা। 


রক্তের গ্রুপ ‘এবি’ ও ‘বি’ হলে করোনা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি: গবেষণা

ঈদের আগে মানুষ সোনা কেনার চেয়ে বিক্রি করছে বেশি

বিশ্বে করোনায় একদিনে ১১ হাজার মানুষের মৃত্যু

বাংলাদেশি নাগরিকদের থাইল্যান্ড ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা


ছয় মাসের শিশুসন্তানকে কোলে নিয়ে গ্রামের পথ ধরেছেন আমিনা বেগম। কথা হলে তিনি জানান, সকালে ঝোড়ো হাওয়ার মধ্যেই রাজধানীর শেখেরটেক থেকে গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের উদ্দেশে বেড়িয়েছেন তাঁরা। পাটুরিয়া পর্যন্ত পৌঁছাতে পারলেই আর চিন্তা নাই বলে জানান তিনি।

সাভারের ট্রাফিক ইনচার্জ (টিআই) আব্দুস সালাম বলেন, ‘গ্রামের পথে ছুটে চলা বেপরোয়া মানুষ কোনো বাধাই তোয়াক্কা করছেন না। মানছেন না ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধি।

মানুষকে সচেতন করতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট বসিয়েও কার্যকর কোনো ফল মিলছে না।’

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা বিষয়ে যা জানালো শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা বিষয়ে যা জানালো শিক্ষামন্ত্রী

করোনার এই সময়ে ভীষণ উদ্বেগের মধ্যে আছে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা । আমরা এটা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা করছি বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি । পরীক্ষার বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা খুব শিগগিরই সিদ্ধান্তটি জানিয়ে দেবো। আর বেশি দিন উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে থাকতে হবে না।

আজ মঙ্গলবার ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি ও টিউশন ফি প্রদান সংক্রান্ত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

ডা. দীপু মনি বলেন, গেল বছরে এসএসসি পরীক্ষা হয়েছিল, সেটার ফলাফল আমরা প্রকাশ করেছি। এইচএসসি বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়ন করেছি। এবার কী হবে শিগগিরই সেটাও জানিয়ে দেব।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও টিউশন ফি বাবদ মোট ১ হাজার ৭৮ কোটি ৯২ লাখ ৭৮ হাজার ১০ টাকা প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে উপবৃত্তি বাবদ ২৯ হাজার ৩০১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪২ লাখ ৮৪ হাজার ৯২৮ জন শিক্ষার্থীকে মোট ৮৮২ কোটি ৯৩ লাখ৫০ হাজার ৬০০ টাকা প্রদান করা হয়। এছাড়া শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি বাবদ দেওয়া হয় ১৯৫ কোটি ৯৯ লাখ ২২ হাজার ৪১০ টাকা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আমরা এত নিচু মানসিকতার নই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

আমরা এত নিচু মানসিকতার নই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

‘দিল্লি টিকা দিচ্ছে না বলে বাংলাদেশ ইলিশ পাঠাচ্ছে না’- ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার এমন শিরোনাম করে খবরের পরিপ্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‌আমরা এত নিচু মানসিকতার নই।  

আজ মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকরা এই বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ কথা বলেন। এ প্রসঙ্গে এর বেশি কিছু বলেননি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

বাসের পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক

বাসের পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল বন্ধ

করোনা সংক্রমণ রোধে একে একে বন্ধ হচ্ছে বাস-লঞ্চ ও ট্রেন। মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে প্রথমে দুরপাল্লার বাস ঢাকায় প্রবেশ ও বের হওয়া বন্ধ হয় আজ মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে। এবার রেলপথ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্তের কথা।

মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে ঢাকা থেকে সারা দেশে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্তের কথা মঙ্গলবার রাতে এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করে রেলপথ মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হয়েছে, মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী এবং গোপালগঞ্জে সার্বিক কার্যাবলী/চলাচল (জনসাধারণের চলাচলসহ) ২২ জুন সকাল ৬টা থেকে ৩০ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার সাথে অন্যান্য জেলা শহরের জনসাধারণের চলাচল নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে ২৩ জুন থেকে ৩০ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। 

গতকাল (সোমবার) ঢাকার আশপাশের ৪ জেলাসহ ৭ জেলায় লকডাউন ঘোষণার পর প্রথমে বলা হয়েছিল শুধু লকডাউনঘোষিত জেলাগুলোতে ট্রেন থামবে না, অন্য গন্তব্যে যথারীতি ট্রেন চলবে। আজ মঙ্গলবার সকালেও বলা হয়েছিল স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা থেকে ট্রেন চলবে। তবে এখন সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করল সরকার। 

ট্রেন বন্ধের বিষয়ে সন্ধ্যায় রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম বলেন, আজ (২২ জুন) রাত ১২টা থেকে ঢাকার সাথে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হবে। রেলের পশ্চিমাঞ্চল অর্থাৎ দেশের উত্তরাঞ্চলে কোনো ট্রেনই চলবে না। তবে সিলেট ও চট্টগ্রামের মধ্যে ট্রেন চলাচল থাকবে।  পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী।

এদিকে গাবতলীসহ ঢাকার সব টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। বাসের পর এখন রেল মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তে এখন ট্রেনও বন্ধ হচ্ছে। 

সোমবার বিকেলে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এ ঘোষণা দিয়ে বলেন, যে ৭ জেলায় লকডাউন দেওয়া হয়েছে সেখানে ৩০ জুন পর্যন্ত সাধারণ মানুষের চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে। গণপরিবহন চলাচল করবে না। বাজার-শপিংমল বন্ধ থাকবে। সরকারি-বেসরকারি অফিসও বন্ধ থাকবে (জরুরি সরকারি অফিস ছাড়া)। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

হোটেল-মোটেল খুললেও যাওয়া যাবে না সমুদ্রে

অনলাইন ডেস্ক

হোটেল-মোটেল খুললেও যাওয়া যাবে না সমুদ্রে

প্রায় তিন মাস পর আগামী ২৪ জুন স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তসাপেক্ষে কক্সবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেস্টহাউসগুলো খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে ভ্রমণের জন্য আসা কোনো পর্যটককে হোটেল-মোটেলে অবস্থান করতে দেওয়া হবে না। এমনকি সমুদ্রসৈকতেও না।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি হোটেল মালিক, ব্যবসায়ী সংগঠন ও কর্মজীবী সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে গতকাল সোমবার এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানায়।  গত বছর ১ এপ্রিল থেকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে পর্যটকসহ জনসমাগম নিষিদ্ধ করে জেলা প্রশাসন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান জানান, পর্যটনসংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও কর্মজীবীদের জীবন-জীবিকা নির্বাহসহ বিভিন্ন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শর্তসাপেক্ষে হোটেল, মোটেল ও গেস্টহাউসগুলো ২৪ জুন থেকে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সব ধরণের স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এগুলো খোলা রাখা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি তদারকির জন্য মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। এই টিম হোটেল-মোটেল কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা সুনির্দিষ্ট করে দিয়েছে। নির্দেশনা না মানলে করলে হোটেল-মোটেল বন্ধ করে দেওয়া হবে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

রাত ১২টার পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক

রাত ১২টার পর ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ

করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আজ রাত ১২টা থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ মজুমদার এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, আজ রাত ১২টার পর ঢাকায় কোনো ট্রেন ঢুকবে না, বেরও হবে না। তবে চট্টগ্রাম থেকে সিলেট, চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুরের পথের ট্রেন চলাচল করবে।

এদিকে, আজ সন্ধ্যায় রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম দেশের একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ঢাকায় সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিশেষ করে দেশের পশ্চিমাঞ্চলে যেভাবে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, তাতে এই সিদ্ধান্ত ছাড়া বিকল্প ছিল না।

তিনি বলেন, আজ (২২ জুন) রাত ১২টা থেকে ঢাকার সাথে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হবে। রেলের পশ্চিমাঞ্চল অর্থাৎ দেশের উত্তরাঞ্চলে কোনো ট্রেনই চলবে না। তবে সিলেট ও চট্টগ্রামের মধ্যে ট্রেন চলাচল থাকবে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে।

এর আগে মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, মাদারীপুর, গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ, রাজবাড়ী ও গোপালগঞ্জ জেলায় বিধিনিষেধ (লকডাউন) ঘোষণা করা হয়। মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ওই সাত জেলায় এই বিধিনিষেধ (লকডাউন) কার্যকর হয়েছে।

আরও পড়ুন:


পরমাণু ইস্যুতে বাইডেনের সঙ্গে কোনও বৈঠক নয়: রাইসি

তদন্তের প্রয়োজনেই হুইপ সামশুলসহ ৬ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা: দুদক

নির্বাচন ব্যবস্থাকে আরও কলঙ্কিত করল আওয়ামী লীগ: চরমোনাই পীর

বিশেষ বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা স্থগিত


এদিকে করোনা পরিস্থিতি বিস্তাররোধে দেশে চলমান বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও এক মাস বাড়িয়ে আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত করা হয়েছে। গত ১৬ জুন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এক প্রজ্ঞাপন জারি করে এ বিধিনিষেধ কার্যকর করা হয়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর