নাকি বরাবরের মতই ঘুষকে ‘নিজের জন্য জায়েজ’ বলেই চালিয়ে যাবো?

তুহিন মালিক

নাকি বরাবরের মতই ঘুষকে ‘নিজের জন্য জায়েজ’ বলেই চালিয়ে যাবো?

রমজানের আত্মশুদ্ধির ট্রেনিং তো প্রায় শেষের দিকে। আমরা নিজেদের ভিতরে কতটুকু পরিবর্তন আনতে পেরেছি? একটু মিলিয়ে নেই:-
• রমজান শেষে নিজের অন্তরের মধ্যে সযত্নে লালন করা অপরের প্রতি বিদ্বেষ, ঘৃণা ও প্রতিহিংসার মাত্রা কতটুকু কমাতে পেরেছি?
•কারো ভালো কিছু দেখলেই আমার ভিতরটা জ্বলে পুঁড়ে একাকার হয়ে যায়। রমজান শেষে সেই হিংসার মাত্রা কতটুকু কমাতে পেরেছি?
•যাদের হক্ব মেরে খেয়েছি। সম্পদ আত্মসাৎ করেছি। মান সম্মান নষ্ট করেছি। জুলুম, নির্যাতন, অন্যায় অবিচার করেছি। তাদের হক্ব ফিরিয়ে দিয়ে ক্ষমা চেয়ে নেবার মানসিকতা কতটুকু অর্জন করতে পেরেছি?

•বিশ্বের বিখ্যাত সব বই-পুস্তক পড়ে শেষ। অথচ রমজানে আল্লাহর কিতাব কোরআন কতটুকু পড়তে পেরেছি?
•নামাজ রমজানেও যেমন ফরজ। তেমনি সারাবছর ও সারা জীবনের জন্যও ফরজ। মনেপ্রানে এই উপলব্ধি কতটুকু করতে পেরেছি?
•সারাবছর সুদ-ঘুষ-দুর্নীতিতে আকন্ঠ নিমজ্জিত। রমজানের পর এপথ থেকে কতটুকু সরে আসতে পারবো? নাকি বরাবরের মতই ঘুষকে স্পিডমানি, তদবির, সিস্টেম, পার্সেন্টিজ বা খরচাপাতি বলে নিশ্চিন্তে যথারীতি ‘নিজের জন্য জায়েজ’ বলেই চালিয়ে যাবো?

•সুদকে ইন্টারেস্ট নাম দিয়ে সুদের অর্থনীতি, সুদের ব্যাংকিং এবং সুদভিত্তিক ব্যাবসা আগের মতই দেদার্ছে চালিয়ে যাবো? নিত্যনতুন অযুহাত ও যুক্তি তুলে সুদের পক্ষেই আগের মতই সমানে লড়ে যাবো?

• যারা বিচারক। উপরের নির্দেশ, ফোনকল, তদবির। কিংবা ব্যক্তিগত, দলীয় বা আর্থিক লাভের আশায় মজলুমের হক্ব নষ্ট করা থেকে নিজেকে কতটুকু নিবৃত্ত রাখতে পারবো? 
• যারা রাজনৈতিক নেতা-কর্মী। রাষ্ট্রীয় সম্পদের ইচ্ছামত লুটপাট করা থেকে কতটুকু সরে আসতে পারবো?

• যারা রাষ্ট্রীয়, পেশাগত, দাপ্তরিক পদে দায়িত্বরত। কিংবা সাংবাদিক ও বুদ্ধিজীবীসহ দায়িত্বশীল কাজে নিয়োজিত। নিজ নিজ দায়িত্বশীলতার জন্য আল্লাহর কাছে জিজ্ঞাসিত হতে হবে- এই উপলব্ধিটুকু  আমাদের মনে কতটুকু জাগ্রত হবে?

• যারা যুবক। ইন্টারনেটে বাজে ভিডিও দেখা। বন্ধু-বান্ধবীর সাথে অশ্লীল চ্যাটিং করা থেকে নিজেকে কতটুকু সংযত রাখতে পারবো?
•জুলুম, হত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ, অশ্লীলতা, লুন্ঠনের বিরুদ্ধে। অন্যায়-অবিচার ও গরীবের হক্ব নষ্টকারীদের বিরুদ্ধে কতটুকু প্রতিবাদ জানানোর সাহস পাবো? হাদিসের এই কথার উপর কতটুকু আমল করতে পারবো? -— “তোমরা কোন অন্যায় দেখলে শক্তি দ্বারা তা প্রতিহত করবে। যদি সমর্থ না হও তাহলে কথার দ্বারা প্রতিবাদ করবে। এতেও সমর্থ না হলে মন থেকে তা ঘৃণা করবে। আর এটিই হচ্ছে সবচেয়ে দুর্বল ঈমান।" 
আসুন, নিজের পরীক্ষা নিজে নেই। নিজেকে নিজেই নাম্বার দেই।

রমজান মাসে আমরা যেভাবে আল্লাহকে ভয় করে চলেছি। বাকি ১১ মাসও যেন সেভাবেই আল্লাহকে ভয় করে চলতে পারি। আমি যেন শুধুই এক মাসের মুমিন না হই।

লেখক : আইনজ্ঞ ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণের নিরংকুশ ক্ষমতা পেলো কানাডা সরকার

শওগাত আলী সাগর

সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণের নিরংকুশ ক্ষমতা পেলো কানাডা সরকার

ফেসবুক, ইউটিউবসহ সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণের নিরংকুশ ক্ষমতা সরকারকে দিয়ে আনা প্রস্তাবিত বিলটি কানাডার হাউজ অব কমন্সে পাশ হয়েছে। এটি এখন সিনেটে যাবে।

সিনেটের অনুমোদন পেলে বিলটি আইনে পরিণত হবে। জাস্টিন ট্রুডোর লিবারেল পার্টি হাউজ অব কমন্সে এই বিল আনে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সরলতা আমারে মাঝে মধ্যে ভীত করে

ইশরাত জাহান উর্মি

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সরলতা আমারে মাঝে মধ্যে ভীত করে

মানবাধিকারের কথা বলা দেশগুলো রোহিঙ্গা ইস্যুতে মুখে বাংলাদেশকে খুব বাহবা দেন। বলেন, বাংলাদেশ খুব ভালো করেছে কিন্তু বাস্তব হিসাবে দেখা যাচ্ছে, এইসব দেশ মিয়ানমারের সাথে ব্যবসা বাণিজ্য বাড়িয়েছে গত চার বছরে তিন গুণ। 

সব বড়লোক দেশ নিজেদের লোকসংখ্যার চেয়েও বেশি টিকা নিয়ে বসে আছে। মুখে খালি বলে তোমাদেরে দেবো দেবো, দ্যায় না। মুলা ঝুলায়ে রাখে। আবার কোনও কোনও দেশ শর্ত জুড়ে দ্যায় যে টিকা দেবো তাইলে তোমরা ওই ওই ক্ষেত্রে আমাদের সাপোর্ট করবা? এইটা আমাদের মনে হয় যে নিউ টুল অব এক্সপ্লয়টেশন। 

আজকে সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এই লোকটার সরলতা আমারে মাঝেমধ্যে ভীত করে।

ইশরাত জাহান উর্মি, সাংবাদিক, কথাসাহিত্যিক।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আপু আপনি হেটারস ডিল করেন কিভাবে?

রাখী নাহিদ

আপু আপনি হেটারস ডিল করেন কিভাবে?

- আপু আপনি হেটারস ডিল করেন কিভাবে?

- হেটারস নানা পদের হয়। একেটার জন্য এক এক পদ্ধতি। সব অসুখ যেমন প্যারাসিটামল খেলে সারে না সব হেটারসকেও তেমন এক ট্রিটমেন্ট দিলে হয়না।অবস্থা বুঝে ব্যাবস্থা।

ধরেন কিছু হেটারস আছে যারা মুখে কিছু বলবেনা কিন্তু আপনার সমস্ত পোষ্টে এংরি রিয়েক্ট দিবে।

আপনি ধরে নিবেন এরা নিজের জীবন এবং এই জগত সংসার সবকিছুর উপর বিরক্ত। এরা কোন কিছুতেই ভাল দেখতে পায়না। আপনিও এদের দেখবেন না। জাস্ট ইগ্নোর।

একদল আছে সমস্ত আশাবাদী পোষ্টেও হতাশার কথা বলবে।

মনে রাখবেন An individual’s comment is the reflection of his or her personality. Not yours. সে দুনিয়াকে যেভাবে দেখে সেভাবেই তো বলবে। সেটা নিয়ে চিন্তিত হবার কিছু নেই। আপনার ধৈর্য থাকলে তার কমেন্টে একটা স্মাইলি দিয়ে দেন। ইচ্ছা না হলে তাও দিয়েন না।

তিন নম্বর প্রজাতী অর্থাৎ সবচেয়ে ভয়ংকর প্রজাতী, যারা বাজে কমেন্ট করে।they are the ultimate losers and sick people. তারা মানসিক রোগী। অন্যকে বাজে কথা বলার মধ্যে দিয়ে তারা বিকৃত আনন্দ লাভ করে।

তাদের নিজেদের life এ কোন life নাই, happiness নাই, achievement নাই। তাই তারা অন্যদের ভালো সহ্য করতে পারে না।এরা ফেসবুকের ইবলিশ শয়তান। এদের সাথে কখনো পাল্লা দিতে যাবেন না, বোঝাতে যাবেন না, কমেন্ট এর রিপ্লাই দিতে যাবেন না। শয়তান এর কুমন্ত্রণা থেকে যেমন দূরে থাকতে হয়, এদের তেমন দূরে রাখেন। Just block them.

সবচেয়ে বড় বিষয় কোন মানুষের পক্ষে সবাইকে সুখী করা সম্ভব না।

আপনি মহান আল্লাহর স্তুতি গাইলেও একদল হা হা দিবে, আল্লাহর existence নিয়ে তর্ক করবে। আপনি ধর্ম নিরপেক্ষ পোষ্ট দিলে একদল বলবে শিরক করতেসেন।

রাজনৈতিক পোষ্ট দিলে কেউ বলবে আওয়ামীলীগের দালাল কেউ বলবে বিএনপির।মেয়েদের পক্ষে দিলে বলবে নারীবাদী, পুরুষদের পক্ষে দিলে বলবে পুরুষদের তেল দিতেসেন।

সুখের স্ট্যাটাস দিলে বলবে, সব লোক দেখানো। দুঃখের স্ট্যাটাস দিলে বলবে ভণ্ডামি।

আপনি যাই বলেন না কেন একদল কুকুরের মত ঘেউ ঘেউ করবেই।

ধরেন এখনই একদল বলবে আপনি মানুষকে কুকুরের সাথে তুলনা করলেন কেন?

আমার উত্তর হলো, যারা ঘেউ ঘেউ করবে তাদের আমি এর থেকে ভালো উপমা দিতে পারছিনা।এতে কুকুরের সামান্য অপমান যদিও হয়েছে কিন্তু কিছু করার নাই।

আমি ইদানিং জিরো টলারেন্স নীতি হাতে নিয়েছি।শুধু আমার পোষ্টে না অন্যের পোষ্টেও কারো খারাপ কমেন্ট দেখলেও, স্বপ্রনোদিত হয়ে সেই খারাপ কমেন্টকারীর প্রোফাইলে ঢুকে তাকে ব্লক দিয়ে আসি।


আরও পড়ুনঃ

জম্মু-কাশ্মীরে সংঘর্ষ: লস্কর-ই-তাইয়্যেবার কমান্ডারসহ নিহত ৩

যদি নারী অল্প পোশাক পরে ঘোরে তার প্রভাব পুরুষের উপর পড়তে বাধ্য: ইমরান

পুলিশ বিনা ওয়ারেন্টে সাইফুলকে ধরে বন্দুক ঠেকিয়ে গুলি করে: ফখরুল

ফেসবুকে ‘হা-হা’ রিঅ্যাক্ট নিয়ে যা বললেন শায়খ আহমাদুল্লাহ


কারন, যাকে তার বাবা মা, শিক্ষক, স্কুল কলেজ এমনকি সমাজ কোন সুশিক্ষা দিতে পারে নাই, তাকে এই বয়সে আর কারো পক্ষেই মানুষ করা সম্ভব না।

যারা সমাজে নেগেটিভিটি ছড়ানো ছাড়া আর কোন অবদান রাখতে পারেনি তাদের জন্য জাতীয় স্লোগান হোক।

"বন্যেরা বনে সুন্দর, অসুস্থরা ব্লক লিস্টে"

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

৫ জুলাই থেকে এই নিয়ম কার্যকর

শওগাত আলী সাগর

৫ জুলাই থেকে এই নিয়ম কার্যকর

হেলথ কানাডা অনুমোদিত দুটি ভ্যাকসিনই নিয়েছেন এমন কানাডীয়ান নাগরিক, স্থায়ী বাসিন্দাদের (পিআর) কানাডায় ফিরে এসে বিমানবন্দরে বাধ্যতামূলক হোটেল কোয়ারিন্টিনে থাকতে হবে না।

আরও পড়ুন:


জম্মু-কাশ্মীরে সংঘর্ষ: লস্কর-ই-তাইয়্যেবার কমান্ডারসহ নিহত ৩

যদি নারী অল্প পোশাক পরে ঘোরে তার প্রভাব পুরুষের উপর পড়তে বাধ্য: ইমরান

পুলিশ বিনা ওয়ারেন্টে সাইফুলকে ধরে বন্দুক ঠেকিয়ে গুলি করে: ফখরুল

২ হাত ও টুকরো করা পা এক নারীর, ধারণা পুলিশের


তবে তাদের কানাডার উদ্দেশ্যে যাত্রার আগে এবং কানাডায় পৌঁছার পর কোভিড টেস্ট করতে হবে। ৫ জুলাই থেকে এই নিয়ম কার্যকর হবে।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

কাল থেকে মানিকগঞ্জসহ কয়েকটি জেলায় লকডাউন, কি তাজ্জবকাণ্ড!

সাইফউদ্দিন আহমেদ নান্নু

কাল থেকে মানিকগঞ্জসহ কয়েকটি জেলায় লকডাউন, কি তাজ্জবকাণ্ড!

সাইফউদ্দিন আহমেদ নান্নু

বিকেলে কর্মস্থল থেকে বাসায় ঢুকতেই গৃহপ্রধান বললেন,‘কাল থেকে মানিকগঞ্জে লকডাউন, সত্যি নাকি?’ আমি তাঁর কথা শুনে রীতিমত আকাশ থেকে পরলাম। বলে কি!  চিন্তায় পরে গেলাম, তাঁর মাথায় কোন গোলমাল হয়নিতো!

আমি অবিশ্বাসভরা বিস্ময় নিয়ে বললাম,‘বুঝলাম না’। এবার তিনি দৃঢ়তার সাথে বললেন, ‘কাল থেকে মানিকগঞ্জে লকডাউন, টিভিতে দেখাচ্ছে, দ্যাখো।’

এবার মনে হল ঘটনা বোধ হয় সত্য। টিভির টিকার দেখে নিশ্চিত হলাম, আগামীকাল থেকে মানিকগঞ্জসহ কয়েকটি জেলায় লকডাউন! কি তাজ্জবকাণ্ড!!! 

এবার বলি লকডাউন শুনে আকাশ থেকে কেন পড়লাম, আর বিস্মিতইবা হলাম কেন।

আজসহ গত দুমাসে পেশাগত কাজে আগের যেকোন সময়ের চেয়ে শহরে বেশী গেছি। বাজারে গেছি, কর্মস্থলে গেছি। শহর, শহরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, অফিসে, শপিংমলে, মানুষের চলাচল দেখে আমার একবারও মনে হয়নি দেশে করোনা নামের কোন মহামারীকাল চলছে। 

কেবল আমার মত শতকরা ৫ ভাগ উজবুক নাকমুখ ঢেকে মাস্ক পরে চলেছে। আরও ১০ ভাগের মুখে মাস্ক দেখেছি, তবে তা থুতনীর নীচে ছাগলের দাঁড়ির মত ঝুঁলছে। আর সামাজিক দূরত্ব বলতে যা বোঝায় তার চৌদ্দগুষ্ঠির বালাই ছিলনা কোথাও। সম্পূর্ণ স্বাভাবিক একটি শহর। করোনা নিয়ে কোন ভয়, দুশ্চিন্তা কোত্থাও কিচ্ছু ছিল না, সব স্বাভাবিক।

করোনার প্রথম ঢেউয়েরকালে স্থানীয় পত্রিকা, তাদের অনলাইন ভার্সনে প্রতিদিন জেলার করোনা পরিস্থিতির আপডেট দিতো। গত ৬ মাস ধরে তাও কেউ দেয় না। 

এমন শান্ত, উদ্বেগহীন নিস্তরঙ্গ শহরে হটাৎ করে লকডাউন নামবে বলে কেউ যখন বলে, তখন বিস্মিত হয়ে আকাশ থেকে পরাটাই স্বাভাবিক। 

‘বিধিনিষেধে’র কাল ডিঙিয়ে নামা লকডাউনের ড্রামাটা কেমন জমে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর