ইসরায়েলে রকেট হামলায় জাতিসংঘে ভারতের নিন্দা
ইসরায়েলে রকেট হামলায় জাতিসংঘে ভারতের নিন্দা

ইসরায়েলে রকেট হামলায় জাতিসংঘে ভারতের নিন্দা

অনলাইন ডেস্ক

ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের চলমান হামলার সংঘাতের পঞ্চম দিনে এসে গাজায় হামলা জোরদার করেছে ইসরায়েল। শুক্রবার গাজায় হামলায় স্থল ও বিমান বাহিনী অংশ নিয়েছে বলে জানিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। গত সোমবার থেকে ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরায়েলের অব্যাহত বোমা হামলায় ১১৯ জন মারা গেছে। আহত হয়েছে ৮০০ এর অধিক মানুষ।

সহিংসতায় ৬ ইসরায়েলি ও এক ভারতীয় নাগরিকও মারা গেছে। ফিলিস্তিনে হামলার প্রতিবাদে হামাসের পাল্টা দেড় সহস্রাধিক রকেট হামলায় দিশেহারা ইসরায়েল। এ অবস্থায় ফিলিস্তিনের গাজা সীমান্তে বিপুল পরিমাণ সেনা ও ট্যাঙ্ক মোতায়েন করেছে ইসরায়েল। সেখানে স্থল অভিযান চালানো হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে অনেক দেশই ইসরায়েলের বিরুদ্ধে নিন্দা জানিয়েছে। তবে জাতিসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি ফিলিস্তিন থেকে ইজরায়েলের উদ্দেশে ছোড়া রকেট হামলার 'বিশেষ' নিন্দা জানিয়েছেন।

ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টিএস তিরুমূর্তি টুইট করে জানিয়েছেন, পূর্ব জেরুজালেমের ঘটনা নিয়ে আজ জাতিসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলের বৈঠকে আমি উল্লেখ করেছি, সব ধরনের হিংসা, বিশেষ করে গাজা থেকে রকেট হামলার নিন্দা করছি। শোকজ্ঞাপন করা হয়েছে ইসরায়েলে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যুতে। এখনই সবপক্ষকে থামতে হবে। স্থিতাবস্থার বদল থেকে বিরত থাকা উচিত। '          
             
উল্লেখ্য, ফিলিস্তিন থেকে ছোঁড়া রকেট হামলায় মৃত্যু হয়েছে ভারতীয় নাগরিক সৌম্যা সন্তোষের। কেরালার ইডুক্কির জেলার বাসিন্দা তিনি। দক্ষিণ ইসরায়েলের উপকূলীয় শহর আশকেলনে এক বৃদ্ধার বাড়িতে নার্স হিসেবে করতেন তিনি।

এদিকে সহিংসতা বন্ধে মধ্যস্থতার সব উদ্যোগ প্রত্যাখান করেছে ইসরায়েল। এমনকি সাময়িক সময়ের জন্যও তারা যুদ্ধবিরতিতে যেতে রাজি নয়। ইসরায়েল ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের সব সামরিক ক্ষমতা ধ্বংস করতে চায়। যুদ্ধবিরতির আগে হামাসের জ্যেষ্ঠ নেতাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপও নিতে চায় তারা।  

ইসরায়েল বাহিনীর পবিত্র আল আকসা মসজিদকে অবরুদ্ধ করে রাখাকে কেন্দ্র করে ইসরায়েলে রকেট নিক্ষেপ করেছিল ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাস। তারই জের ধরে গত সোমবার থেকে ফিলিস্তিনের গাজার বোমা হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল।  

জেরুসালেমের একটি এলাকায় ইসরায়েলি পুলিশ এবং ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সহিংস সংঘর্ষের জেরে কয়েক সপ্তাহ ধরে উত্তেজনা বিরাজ করার পর এই লড়াইয়ের সূত্রপাত হয়েছে।  

আল-আকসা মসজিদ মুসলমানদের জন্য বিশ্বের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান। তবে ইহুদিরা জায়গাটিকে তাদের নিজেদের উপাসনালয় হিসেবে দাবি করে।   ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েলের যুদ্ধের সময় পূর্ব জেরুজালেম দখল করে ইসরায়েল। এরপর ১৯৮০ সালে পুরো জেরুজালেম তাদের নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। যা এখনও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় থেকে স্বীকৃতি পায়নি।

news24bd.tv/আলী