আজ দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা মোংলায়

অনলাইন ডেস্ক

আজ দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা মোংলায়

বাগেরহাটের মোংলা উপজেলায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এছাড়া যশোরে তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

প্রচণ্ড তাপপ্রবাহে মোংলার রাস্তায় মানুষের সংখ্যা কম। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না লোকজন। তাই বন্দর ও পৌর শহরের দোকানপাট ও রাস্তাঘাট অনেকটা ফাঁকা।

এই তাপমাত্রায় চরম ঝুঁকিতে রয়েছে এখানকার বেশির ভাগ মানুষের আয়ের উৎস সাদা সোনাখ্যাত বাগদা চিংড়ি শিল্প।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বলেন, তাপদাহ চিড়িং ঘেরের জন্য অত্যন্ত। এ গরমে ঘেরের মাছ মারা যাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। ক্ষতি এড়াতে তিনি ঘেরের পানি নিয়মিত উঠানামা ও পানি বৃদ্ধির পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।


আরও পড়ুনঃ


গ্রহাণু ঠেকাতে অন্তত পাঁচ বছর সময় লাগবে: নাসা

কিছুতেই কান্না থামছিলো না বুবলির

ইসরায়েলের হামলা নিয়ে নোয়াম চমস্কির টুইট

হামলায় ইসরাইলের একক আধিপত্যের যুগ শেষ: হামাস


 এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা) ডা. জীবিতেষ বিশ্বাস বলেন, এ গরমে পানি স্বল্পতাসহ হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি রয়েছে। তাই তাপপ্রবাহে বাইরে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

যশোরে বেড়েইে চলেছে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা

যশোর প্রতিনিধি:

যশোরে বেড়েইে চলেছে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা

যশোরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে মারা গেছেন আরও ৪ জন। বর্তমানে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি আছে ১৩৭ জন। এ জেলায় মোট আক্রান্ত ৯৫৫১ জন। এর মধ্যে সুস্থ্য হয়েছে ৬ হাজার ৭শ’ ৪৭ জন। আর মারা গেছে ১০৯ জন।

এদিকে উচ্চঝুঁকির কারণে যশোরের পাঁচ পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মানুষের চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে সে স্বাস্থ্যবিধি কার্যকরভাবে মানছে না সাধারণ মানুষ। তবে প্রশাসন বলছে, বিধিনিষেধ কার্যকর করতে আরও কঠোরতা আরোপ করা হবে। সেই সঙ্গে জনগণকেও সচেতন হওয়ার পরামর্শ তাদের।

আরও পড়ুন:


শেষ ষোলোর আশা বাঁচিয়ে রাখলো সুইজারল্যান্ড

পদ্মা সেতুতে রেলপথের স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন

যেসব এলাকায় আজ ২৪ ঘন্টায় গ্যাস থাকবে না

প্রথম ধাপের ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ চলছে


news24bd.tv / কামরুল

পরবর্তী খবর

শিবচরের ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদে শা‌ন্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণ চল‌ছে

মাদারীপুর প্র‌তি‌নি‌ধি

শিবচরের ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদে শা‌ন্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণ চল‌ছে

মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে শা‌ন্তিপূর্ণ ভাবে ভোট গ্রহণ চল‌ছে। কাদিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হবে ইভিএম পদ্ধতিতে বাকি ১২টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন ব্যালট হ‌চ্ছে।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, এখানে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৭৩ জন , মেম্বার প্রার্থী ৪ শত ১০ জন , সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী ১ শত ১৫ জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

দেশের সকল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হলেও শিবচরের ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীতা উন্মুক্ত করা হয়েছে।

এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ১ লক্ষ ৭১ হাজার ২ শত ৫৫ জন, পুরুষ ভোটার ৮৯ হাজার ৪০০ জন, মহিলা ভোটার ৮১ হাজার ৮শত ৫৫ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ১১৭ টি, ভোট কক্ষ ৪৮৭টি।

নির্বাচন সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে ২০ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ও ৬ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোতায়েন থাকবে। এছাড়া পুলিশ, আনসার, বিজিবি, স্ট্রাইকিং ফোর্স আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

আরও পড়ুন:


শেষ ষোলোর আশা বাঁচিয়ে রাখলো সুইজারল্যান্ড

পদ্মা সেতুতে রেলপথের স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন

যেসব এলাকায় আজ ২৪ ঘন্টায় গ্যাস থাকবে না

প্রথম ধাপের ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ চলছে


news24bd.tv / কামরুল

পরবর্তী খবর

চুয়াডাঙ্গায় চলছে কঠোর বিধি-নিষেধ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গায় চলছে কঠোর বিধি-নিষেধ

চুয়াডাঙ্গার একটি উপজেলা, একটি পৌরসভা ও একটি ইউনিয়নে কঠোর বিধি-নিষেধ চলমান রয়েছে। তবে এসব এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে বিধি-নিষেধ পালনে অনিহা দেখা যাচ্ছে। নানা অজুহাতে অনেকেই বাইরে বেরিয়ে আসছেন। স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রেও উদাসীনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। 

গত ২০ জুন থেকে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকা ও আলুকদিয়া ইউনিয়ন এবং ১৫ জুন থেকে দামুড়হুদা উপজেলায় কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়।

গত এক সপ্তাহ ধরে চুয়াডাঙ্গায় করোনা শনাক্তের হার ৪৩-৬৭ শতাংশ রয়েছে। এ অবস্থায় জেলা প্রশাসন অধিক সংক্রমণের জন্য প্রথমে দামুড়হুদা উপজেলা এবং পরে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকা ও আলুকদিয়া ইউনিয়নে কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করে।

আরও পড়ুন:


শেষ ষোলোর আশা বাঁচিয়ে রাখলো সুইজারল্যান্ড

পদ্মা সেতুতে রেলপথের স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন

যেসব এলাকায় আজ ২৪ ঘন্টায় গ্যাস থাকবে না

প্রথম ধাপের ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ চলছে


news24bd.tv / কামরুল

পরবর্তী খবর

চরফ্যাশনে মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের গুলিতে একজনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

চরফ্যাশনে মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের গুলিতে একজনের মৃত্যু

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নং ওয়ার্ডে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে মনির (২৩) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। 

এ সময় আহত হয়েছে শিশুসহ আরও ২ জন। আজ সোমবার (২১ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শশীভূষণ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন:


শেষ ষোলোর আশা বাঁচিয়ে রাখলো সুইজারল্যান্ড

পদ্মা সেতুতে রেলপথের স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন

যেসব এলাকায় আজ ২৪ ঘন্টায় গ্যাস থাকবে না

প্রথম ধাপের ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ চলছে


news24bd.tv / কামরুল

পরবর্তী খবর

চার পা বিশিষ্ট সেই নবজাতককে নিয়ে হতাশ বাবা-মা

রেজাউল করিম মানিক, রংপুর:

চার পা বিশিষ্ট সেই নবজাতককে নিয়ে হতাশ বাবা-মা

আশায় বুক বেঁধে ১৭ দিন হাসপাতালে থাকার পরও শিশুটির অস্ত্রোপচারের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। শেষ পর্যন্ত গতকাল রোববার নবজাতকের বাবা-মা হাসপাতাল ছেড়ে নিজ দায়িত্বে সন্তানকে নিয়ে তাঁদের বাড়ি দিনাজপুরের কাহারোলে চলে যান। 

নবজতকের দিনমজুর বাবা গোলাম রব্বানী সন্তানের চিকিৎসা ব্যয় মেটানোর জন্য সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করেছেন। সহায়তা পাঠানোর জন্য বিকাশ ০১৩১৮-৯০৬৭২৮ নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

গত ৪ জুন দিনাজপুরের বীরগঞ্জ পৌরশহরের খানসমা রোডে অবস্থিত বীরগঞ্জ ক্লিনিকে চার হাত ও চার পা বিশিষ্ট এক পুত্র সন্তানের জন্ম দেন গোলাম রব্বানীর স্ত্রী রুনা লায়লা। স্বাভাবিকভাবেই সন্তান প্রসব করলেও অদ্ভুত নবজাতকটিকে ওইদিনই রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পঞ্চম তলার শিশু সার্জরি ওয়ার্ডে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসাধীন থাকাকালে বেশকিছু পরীক্ষা দেওয়া হয়। কিন্তু ১৭ দিনেও কোনো অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেননি সেখানকার চিকিৎসকরা। তার কোনো উন্নতিও হয়নি।

নবজাতকের বাবা দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার মুকুন্দপুর ইউনিয়নের মুকন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা দিনমজুর গোলাম রব্বানী। গতকাল ছেলেকে নিয়ে বাড়ি ফেরার সময় তিনি বলেন, 'ছেলের চিকিৎসা করাতে গিয়ে বাড়ির তিনটি ছাগল বিক্রি করেছি। 

এছাড়া একজনের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছি। সন্তানকে নিয়ে যখন রংপুর মেডিক্যালে আসি তখন শ্বশুরের কাছ থেকে এবং নিজের জমানো ২৫ হাজার টাকা নিয়ে আসি। সব টাকা চিকিৎসায় শেষ হয়েছে। তবে ডাক্তাররা সঠিকভাবে ছেলেকে দেখেন নাই। চিকিৎসাও ঠিকমতো হয় নাই।

হাসপাতালের চিকিৎসক দুই মাস পর যোগাযোগ করতে বলেছেন উল্লেখ করে গোলাম রব্বানী বলেন, দুই মাস পরে কি হবে জানি না। যদি অপারেশন করাতে হয় তাহলে টাকা পাব কোথায়! অদ্ভুত এই ছেলেকে নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় আছি।

নবজাতকের বাবার অভিযোগ, হাসপাতালে কোনো চিকিৎসা নেই। তাই ছেলেকে বাড়িতে নিয়ে গেলাম।' তবে যাওয়ার সময় ঋণের বোঝা আর দীর্ঘশ্বাস নিয়েই ফিরে গেছেন তাঁরা।

এ ব্যাপারে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শিশু সার্জারি ওয়ার্ডের প্রধান ডা. বাবলু কুমার সাহা বলেন, ওই নবজাতকের এই অঙ্গগুলোকে পরগাছা জাতীয় অঙ্গ বলে। অপারেশনের মাধ্যমে এগুলো অপসারণ করা সম্ভব। তবে এই ক্ষেত্রে অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন। 

আরও পড়ুন:


শেষ ষোলোর আশা বাঁচিয়ে রাখলো সুইজারল্যান্ড

পদ্মা সেতুতে রেলপথের স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন

যেসব এলাকায় আজ ২৪ ঘন্টায় গ্যাস থাকবে না

প্রথম ধাপের ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ চলছে


news24bd.tv / কামরুল

পরবর্তী খবর