কেবল পোশাকে পর্দা রক্ষা হয় না
কেবল পোশাকে পর্দা রক্ষা হয় না

কেবল পোশাকে পর্দা রক্ষা হয় না

Other

মানুষ যখন উদ্দেশ্যের চেয়ে কোনো রীতি-নীতি বা বাহ্যিক আচার-অনুষ্ঠানকে বেশি গুরুত্ব দেয় অথবা উদ্দেশ্য না বুঝে চোখ বুঁজে নিছক আচার-অনুষ্ঠান পালন করে তখন অনিবার্যভাবেই উদ্বিষ্ট লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হয়। একটু খেয়াল করলেই চারপাশে একথার সত্যতা ও প্রমাণ মিলবে।

এরকম একটি বিষয় হলো মুসলমানদের পর্দাপ্রথা। এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে এর মূল উদ্দেশ্য মানুষের যৌন সততা ও পবিত্রতা বজায় রাখা।

এটি নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য প্রযোজ্য হলেও আমাদের এমনকী অন্যান্য সমাজেও নারীদের ক্ষেত্রে এর প্রয়োগ বা চল বেশি দেখা যায়।

আমাদের সমাজে ইদানীং পোশাকি পর্দাপ্রথা বেশ মানা হচ্ছে। পেছনের কারণ যা-ই হোক, এটি এখন চোখে পড়ার মতো। কিন্তু এর আসল উদ্দেশ্য কতোটা রক্ষিত হচ্ছে? এ প্রশ্নটা আজ এলো কিশোরগঞ্জের একটি আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে আটজন তরুণ-তরুণীকে আটক করার খবর পড়ে।
সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, অভিযানে হোটেলের বিভিন্ন কক্ষ থেকে চারজন তরুণ ও চারজন তরুণীকে আটক করা হয়। এ সময় তারা হোটেলটিতে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত ছিলেন বলে স্বীকার করেন।   এদের মধ্যে বিভিন্ন মাদ্রাসা-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীও রয়েছে বলে জানা যায়।

এ ধরনের খবর নতুন নয়। প্রায়ই এ ধরনের খবর সংবাদ মাধ্যমে আসে। আমাদের দেশের আইন অনুযায়ী এটি অসামাজিক কাজ। শাস্তিযোগ্য অপরাধ। কিন্তু অনেকে আছেন এতে তারা অপরাধ দেখেন না। কিন্তু যারা এসব কাজে জড়িত হয়ে গ্রেপ্তার হন, তাদের দেখে মনে হয় না তারা সেই চিন্তা-চেতনা লালন করেন।

কিশোরগঞ্জে গ্রেপ্তারকৃতদের মতো অন্যদেরও প্রায় সবক্ষেত্রে বোরকা-হিজাব-নেকাব পরা দেখা যায়। ছেলেদের বেলায়ও আপত্তিকর পোশাক দেখা যায় না। মানে তারা পোশাকে ধর্মনিষ্ঠ বলেই প্রতীয়মান হয়। কিন্তু বাস্তবে এই পোশাকের সম্মান রক্ষার বালাই তাদের নেই। এসব দৃশ্য আমাদের চোখে অঙুল দিয়ে পোশাকি ধর্মাচারের অসারতা দেখিয়ে দেয় বৈকি!

মানুষের নৈতিক চরিত্র উন্নত না হলে পোশাক দিয়ে কোনো ফল হয় না। পোশাকি ধর্মাচারের ওপর যতো বজ্র আঁটুনি দেয়া হয়, প্রকৃত ধর্মাচারে ততোই ফসকা গেরো হয়ে যায় বলেই বারবার প্রমাণিত হয়েছে। না হলে ৩০ দিন সিয়াম সাধনার পরপরই আমাদের এমন খবর শুনতে বা দেখতে হতো না।

তবে এসব ঘটনার একটা দিক হলো, এগুলো আমাদের স্মরণ করিয়ে দেয় যে কেবল পোশাকে পর্দা বা ধর্ম রক্ষা হয় না। প্রকৃত পর্দাশীল বা ধার্মিক পোশাক দিয়ে চেনা যায় না।

লেখক : হারুন আল নাসিফ : কবি, ছড়াকার, সাংবাদিক।

(মত ভিন্ন মত বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়। )

news24bd.tv/আলী

;