সুন্দরবনে গোলপাতা নিয়ে ৪ কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য বন কর্মকর্তাদের

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট

সুন্দরবনে গোলপাতা নিয়ে ৪ কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য বন কর্মকর্তাদের

সুন্দরবনের পূর্ব বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের গোলপাতা কুপের দায়িত্বপ্রাপ্ত কুপ কর্মকর্তার (সিও) বিরদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ৫০০ মণ ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি গোলপাতার নৌকায় সর্বসাকুল্যে সরকারি রাজস্ব আসে পাঁচ হাজার ৬০০ টাকা। কিন্তু সেখানে প্রতিটি নৌকা থেকে বিভিন্ন অজুহাতে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে আদায় করা হয়েছে ৯০ হাজার থেকে ৯৫ হাজার টাকা। এভাবে ২০০টি নৌকা থেকে দুই গোনে (দুই ট্রিপে) প্রায় চার কোটি টাকা উৎকোচ নিয়েছেন ওই কুপ কর্মকর্তা।

মৌসুম শেষে ফিরে আসা বাগেরহাটের শরণখোলার ভুক্তভোগী গোলপাতা ব্যবসায়ীরা সম্প্রতি এসব অভিযোগ করেন সাংবাদিকদের কাছে।

এদিকে, মোটা অংকের উৎকোচ দিয়ে ক্ষতির মুখে পড়া কিছু ব্যবসায়ী তাদের ক্ষতি পোষাতে ঝাড় উজাড় করে পাতা আহরণ করারও অভিযোগ রয়েছে। একটি ঝাড় থেকে পাতা কাটার সময় মাঝ পাতার (মাঝের কচি পাতা) পাশে ঝাড় রক্ষায় একটি পূর্ণাঙ্গ পাতা (ঠ্যাকপাতা) রেখে গোলপাতা আহরণের নিয়ম রয়েছে। কিন্তু সেই ঠ্যাকপাতা না রেখেই ঝাড়ের সমস্ত পাতা কাটা হয়েছে। এমনকি ৫০০ মণ ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন একেকটি নৌকায় বর্ধিত অংশ জোড়া দিয়ে দুই হাজার থেকে আড়াই হাজার মণ পাতা বোঝাই করে এনেছে। এভাবে ঝাড় ধ্বংস করে পাতা কাটার ফলে হুমকির মুখে পড়েছে গোলবন। উজাড় করে পাতা আহরণ করায় ওই সমস্ত গোলবনে পরবর্তী বছরে আর নতুন পাতা গজানোর সম্ভাবনাও নেই বলে কয়েকজন ব্যবসায়ী মন্তব্য করেছেন।
 
পাশপাশি কোটি কোটি হাতিয়ে নিয়ে সরকারি রাজস্ব ফাঁকিসহ গোলপাতার বন ও ব্যবসায়ীদের ক্ষতির মুখে ফেলেছেন ওই অসাধু কর্মকর্তা। লোকসানে পড়ে আগামাীতে ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ারও ঘোষনা দিয়েছেন কয়েকজন ব্যবসায়ী।

শরণখোলার উপজেলার গোলপাতা ব্যবসায়ী তৌহিদুল ইসলাম তালুকদার, ফুল মিয়া আড়ৎদার, সেলিম বেপারী, মতিয়ার রহমান, জাকির হোসেন হাওলাদার জানান, শরণখোলা রেঞ্জে গোলপাতার পারমিট বন্ধ হওয়ার পর থেকে তারা চাঁদপাই রেঞ্জ থেকে পাতা আহরণ করে ব্যবসা করে আসছেন।

এবছর ২৮ জানুয়ারি ও ২৮ ফেব্রুয়ারি দুই কিস্তিতে তাদের মতো সাতক্ষীরা, খুলনা, মোংলাসহ বিভিন্ন এলাকা ব্যবসায়ীরা কমপক্ষে ২০০ নৌকার গোলপাতা আহরণের পারমিট (অনুমোতি) পান। এতে সব মিলিয়ে একেক কিস্তিতে নৌকা প্রতি সরকারি রাজস্ব আসে পাঁচ হাজার ৬০০ টাকা। অথচ তাদের কাছ থেকে পারমিট দেওয়ার সময় ২৮হাজার, কুপ চেকিংয়ের নামে ২৬হাজার, ভালো গোলবন (ঘের) দেওয়ার নামে ১৫হাজার, বিএলসি বাবদ পাঁচ হাজার, ঘাট চেকিংয়ের নামে পাঁচ হাজার, সিটি কাটা (পারমিট হস্তান্তর) বাবদ দুই হাজার, অন্যান্য খরচের নামে আরো ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা করে এই বিশাল অংকের টাকা নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন

  ভাসানচর থেকে পালানো দুই রোহিঙ্গা কিশোরী নোয়াখালীর সুবর্ণচরে আটক

  ৩৫ হাজার টাকা বেতনে চাকরি সুযোগ দিচ্ছে আরএফএল গ্রুপ

  গোপালগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল দুই ভাইয়ের

  মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ফিরিয়ে দিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার

 

ক্ষতিগ্রস্ত ওই ব্যবসায়ীরা জানান, কুপ কর্মকর্তা ওবায়দুল হক তার অফিসের বোটম্যান (বিএম) মিজানুর রহমানকে দিয়ে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে এই টাকা আদায় করেছেন। অতিরিক্ত টাকার ব্যাপারে কোনো ব্যবসায়ী প্রশ্ন তুললে তাকে নানাভাবে হয়রানীর শিকার হতে হয়েছে। তাই লাখ লাখ টাকা পুজি খাটিয়ে লোকসানের ভয়ে বাধ্য হয়ে তাদেরকে নিয়মের অতিরিক্ত টাকা ঘুষ দিতে হয়েছে কুপ কর্মকতাকে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, অনেক বাওয়ালী ক্ষতি পোষাতে ৫০০মণের পারমিট নিয়ে নৌকায় অতিরিক্ত তক্তা জুড়ে দুই থেকে আড়াই হাজার মণ পাতা কেটেছে। কেউ কেউ গোলঝাড়ের ঠ্যাকপাতাসহ জ্বালানি কাঠও কেটেছে। চাঁদপাই রেঞ্জের ২নম্বর কুপের যেসব এলাকার বন উজাড় করে গোলপাতা কাটা হয়েছে তার মধ্যে বেড়ির খাল, নন্দবালা, সিংড়াবুনিয়া, তাম্বলবুনিয়ার আগা, শান্তির খাল, কলামুলা, চাঁনমিয়ার খাল, আলকির খাল অন্যতম।

জানতে চাইলে চাঁদপাই রেঞ্জ কর্মকর্তা (এসিএফ) মো. এনামুল হক বলেন, কিছু অনিয়মের কথা  মৌখিকভাবে শুনেছি তবে লিখিতভাবে কেউ জানায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দেখা হবে।

বাগেরহাট পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, গোলপাতার কুপ চলমান থাকাকালে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া যেত। মৌসুমের এক মাসের অধিক সময় পর এসব অভিযোগ এখন প্রমান করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

কলাপাড়ায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিল প্রতিপক্ষ

সঞ্জয় কুমার দাস, পটুয়াখালী

কলাপাড়ায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিল প্রতিপক্ষ

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে পটুয়াখালীর কলাপাড়ার মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাকিবুলের (২২) হাতের কবজি কেটে নিয়েছে প্রতিপক্ষরা। গতকাল বুধবার রাত ৯টায় তেগাছিয়া বাজারের কাছে ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

হামলা-পাল্টা হামলায় ওই ইউনিয়নের ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ও তার ভাই রায়হান আহত হন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাকিবুলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিমে প্রেরণ করেন।  

গুরুতর আহত ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুল জানান, গতকাল রাত ৯টার দিকে তিনি তেগাছিয়া বাজার থেকে মোটরসাইকেলযোগে নিজ বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেন। এ সময় ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছলে সেখানে উপস্থিত ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ও তার ভাই রায়হানসহ বেশ কয়েকজন দুর্বৃত্ত তাকে এলোপাতাড়ি কোপাতে শুরু করে। কুপিয়ে তার ডান হাতের কবজি কেটে ফেলে। এ ছাড়া তার বাম হাত এবং মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখম করা হয়। পরে রাকিবুলের সমর্থকরাও তরিকুল ও রায়হানের ওপর হামলা চালায়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে যান।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওসি আরও জানান, এই ঘটনায় উভয় গ্রুপের তিন জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে দুজন গুরুত্বর আহত তাদেরকে রাতেই বরিশাল শেবাচিমে পাঠানো হয়েছে। দু’গ্রুপের মধ্যে এর আগে ২০১৯ সালেও মারামারি ও কোপাকুপির ঘটনায় উভয় পক্ষের মধ্যে মামলা চলমান রয়েছে। এ ঘটনায় এখনও কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

news24bd.tv এসএম

আরও পড়ুন


‘যুক্তরাষ্ট্র পরমাণু সমঝোতাকে পণবন্দি হিসেবে ব্যবহার করছে’

বগুড়ায় একদিনে ১৩০০ পরিবারকে ত্রাণ দিল বসুন্ধরা গ্রুপ

আফগানিস্তান পরিস্থিতিকে নাজুক করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র: ইমরান খান

করোনায় আক্রান্ত মরিয়ম নওয়াজ


 

পরবর্তী খবর

কুষ্টিয়ায় করোনা ও উপসর্গে আরও ১১ জনের মৃত্যু

জাহিদুজ্জামান, কুষ্টিয়া:

কুষ্টিয়ায় করোনা ও উপসর্গে আরও ১১ জনের মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে আরও ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৯ জন করোনা শনাক্ত ছিলেন আর ২ জনের করোনার উপসর্গ ছিল। 

২৮ জুলাই বুধবার সকাল ৮টা থেকে আজ ২৯ জুলাই বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত কুষ্টিয়া করোনা হাসপাতালে এদের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও ২৪ ঘন্টায় আরও ১৪৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার গতদিনের চেয়ে কমে ২৮.৫৪ শতাংশ হয়েছে। 

এই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ২৪৭ জন করোনা রোগী। কুষ্টিয়া করোনা ডেডিকেডেট জেনারেল হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. আবদুল মোমেন জানান, করোনার জন্য ২শ বেডের বিপরীতে এখন ভর্তি আছে ২০১ জন। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত রোগী ১৫১ জন। বাকিরা করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি আছেন। ৭০ শতাংশ রোগীর অক্সিজেন প্রয়োজন হচ্ছে।

গত ৭ দিনেই কুষ্টিয়ায় করোনা আক্রান্ত ৮৬ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ১২শ ৩৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত শুধুমাত্র করোনা আক্রান্ত ৫৪০ জনের মৃত্যু হলো। আজ সকালে কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন:


একসঙ্গে তিন ডোজ টিকা নেয়া সেই ব্যাক্তির পরিচয় মিলল

সম্পাদক পরিষদ থেকে পদত্যাগের কারণ জানালেন নঈম নিজাম

কভিড-১৯ টিকা উৎপাদনে বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেবে যুক্তরাষ্ট্র

করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে পাঁচজনের মৃত্যু


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

বগুড়ায় একদিনে ১৩০০ পরিবারকে ত্রাণ দিল বসুন্ধরা গ্রুপ

অনলাইন ডেস্ক

বগুড়ায় একদিনে ১৩০০ পরিবারকে ত্রাণ দিল বসুন্ধরা গ্রুপ

বগুড়ায় বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় শুভসংঘ একদিনে তিন উপজেলায় মোট ১ হাজার ৩০০ পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে।

বুধবার (২৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বগুড়া জিলা স্কুল মাঠে সদর উপজেলার ৭০০ অসহায় ও দুস্থ পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের মাধ্যমে রাজশাহী বিভাগে বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় শুভসংঘের ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু করা হয়।

একই দিন দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত বগুড়া সদর উপজেলার পর দুপচাঁচিয়া উপজেলায় ৩০০ পরিবার এবং আদমদীঘি উপজেলায় আরো ৩০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। এ নিয়ে বগুড়ায় একদিনে তিন উপজেলায় মোট ১ হাজার ৩০০ পরিবার খাদ্যসামগ্রী পেয়েছেন। এসময় সকলের মধ্যে মাস্ক বিতরণ ও করোনা সুরক্ষায় সচেতনতামূলক পরামর্শ দেওয়া হয়। খাদ্যসামগ্রী মধ্যে রয়েছে ১০ কেজি চাল, ৩ কেজি ডাল আর ৩ কেজি আটা।

এর মাধ্যমে রাজশাহী বিভাগে কালের কন্ঠ শুভসংঘের ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় পর্যায়ক্রমে বগুড়া জেলায় ৪ হাজার ও রাজশাহী বিভাগে ২৪ হাজার পরিবারকে এই খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হবে।

আদমদীঘি উপজেলায় খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে কালের কণ্ঠ শুভসংঘের পরিচালক জাকারিয়া জামান বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যানের নির্দেশনায় আমরা কালের কন্ঠ শুভসংঘ সারাদেশের অসহায় মানুষের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছি। আপনাদের যে খাবার দেওয়া হয়েছে তা দিয়ে একটা পরিবার ৭-১০ দিন খেতে পারবেন। এই সময়ে আপনারা কেউ ঘর থেকে বের হবেন না। সরকারের দেওয়া বিধিনিষেধ মেনে চলবেন। আর আপনারা সবাই বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যানের জন্য দোয়া করবেন। তিনি যেন সব সময় আপনাদের পাশে দাঁড়াতে পারেন।

আরও পড়ুন


আফগানিস্তান পরিস্থিতিকে নাজুক করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র: ইমরান খান

করোনায় আক্রান্ত মরিয়ম নওয়াজ

ইরান ও সিরিয়া সন্ত্রাসবাদের মূলোৎপাটন পর্যন্ত লড়বে: আসাদ

সম্পাদক পরিষদ থেকে পদত্যাগের কারণ জানালেন নঈম নিজাম


এসময় উপস্থিত ছিলেন কালের কন্ঠ'র ব্যুরো প্রধান লিমন বাসার, শুভসংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শরীফ মাহ্দী আশরাফ জীবন, ছাতিয়ানগগ্রাম ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, পৌরসভার কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, সান্তাহার শহর প্রেসক্লাবের সভাপতি জিল্লুর রহমান, শুভসংঘের বগুড়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শিশির মুস্তাফিজসহ অন্যান্যদের মধ্যে মশিউর রহমান জুয়েল, শুভসংঘের আদমদীঘি উপজেলা শাখার উপদেষ্টা ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম, নাহিদা সুলতানা তৃপ্তি, লায়ন ফরিদ আহমেদ, সভাপতি জিল্লুুর রহমান, সহ সভাপতি আহসান হাবীব তুহীন, জাহাঙ্গীর আলমসহ অন্যান্যদের মধ্যে শাহিনা জোয়াদ্দার, রুবেল, ছোটন, সুমন, মিনি, শাকিল, মুক্তার, তনু, মিশু, শামিম, সোহাগ, জিকু সাগর, হাবীব, উত্তরা ইউনিভার্সিটির সাবেক সভাপতি আলমগীর হোসেন রনি ও গণবিশ্ববিদ্যালয় শাখার অর্থ সম্পাদক মিম খান প্রমূখ।

এর আগে রংপুর বিভাগের ৮টি জেলায় ২৪ হাজার অসহায় ও অতিদরিদ্র পরিবারকে বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে কালের কন্ঠ শুভসংঘ।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

খুলনার করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

খুলনার করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

খুলনার ৪টি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত হয়ে আরও ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় তাদের মৃত্যু হয়।

এর মধ্যে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ৭ জন, জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১ জন, বেসরকারি গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৫ জন ও শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে ৩ জন রয়েছেন।

করোনা হাসপাতালের ফোকালপার্সন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। 

মৃতরা হলেন- বটিয়াঘাটার আইয়ুব আলী (৫৫), পিরোজপুরের মোশারফ হোসেন (৯৫), খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গার আব্দুল খালেক (৯০), খালিশপুরের ইরিন সুলতানা (৩৩), দৌলতপুরের মো. আলী আকবর (৫৫), খালিশপুরের আবুল হোসেন (৬৬) ও  নিরালার আবুল হাই (৭৫)।

মৃতরা হলেন- খুলনার ১৫৯ পূর্ব বানিয়াখামার এলাকার মো. মকবুল হোসেন খান (৬৫), দক্ষিণ টুটপাড়ার রেজিনা ফাতিমা (২৮), যশোর কারবালা বামনপাড়ার মর্জিনা রহমান (৫৮), ঝিকরগাছার গদখালী এলাকার মিসেস বারিছুন্নেসা (৬০) এবং চুয়াডাঙ্গার আলমনগরের গোকুলখালীর রহিমা খাতুন (৫৫)।

শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের ফোকালপার্সন ডা. প্রকাশ দেবনাথ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৩ রোগী মারা গেছেন। 

মৃতরা হলেন- খুলনার বটিয়াঘাটার বুজবুনিয়া গ্রামের আলেয়া বেগম (৫৫), রূপসা উপজেলার করিমনগর এলাকার আবদুল আজিজ (৮০) এবং নগরীর ডালমিল মোড় ময়লাপোতা এলাকার রোকেয়া বেগম (৬০)।

আরও পড়ুন:


একসঙ্গে তিন ডোজ টিকা নেয়া সেই ব্যাক্তির পরিচয় মিলল

সম্পাদক পরিষদ থেকে পদত্যাগের কারণ জানালেন নঈম নিজাম

কভিড-১৯ টিকা উৎপাদনে বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেবে যুক্তরাষ্ট্র

করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে পাঁচজনের মৃত্যু


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

ময়মনসিংহে করোনা ও উপসর্গে ১৬ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক

ময়মনসিংহে করোনা ও উপসর্গে ১৬ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিকেলের করোনা ইউনিটে করোনায় আক্রান্ত উপসর্গে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন:


একসঙ্গে তিন ডোজ টিকা নেয়া সেই ব্যাক্তির পরিচয় মিলল

সম্পাদক পরিষদ থেকে পদত্যাগের কারণ জানালেন নঈম নিজাম

কভিড-১৯ টিকা উৎপাদনে বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেবে যুক্তরাষ্ট্র

করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে পাঁচজনের মৃত্যু


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর