গণমাধ্যমের সাথে সরকারের দূরত্ব কোনো পক্ষের জন্যই ভালো না

আশরাফুল আলম খোকন

গণমাধ্যমের সাথে সরকারের দূরত্ব কোনো পক্ষের জন্যই ভালো না

সত্য কথা যায় না বলা সহজে। সব সত্যের পিছনে কিছু চরম সত্য থাকে। সেই সত্যকে মেনে নেয়ার সততা-সাহস খুব কম মানুষেরই আছে। আবার সেই সত্যগুলো সবসময় বলাও যায়না। আমার কাছে সত্য হচ্ছে তাই, যা আমি বিশ্বাস করি। যা আমি দেখি। আমার সত্য’টা দুই পক্ষেরই বিপক্ষে যাবে। কিন্তু বলতে ভয় পাচ্ছি।

কারণ,  সবাই উত্তেজিত। এই সত্যগুলো কোনো পক্ষই এখন নিতে পারবেন না। সবাই এতোটাই উত্তেজিত যে, কোনো পক্ষই নিজের দোষ ও ভূলগুলো দেখতে পাচ্ছেন না। সবাই নিজেকে পুত পবিত্র ভেবে একে অপরকে দায়ী করেই যাচ্ছেন। আয়নাতে কেউই নিজের চেহারাটা দেখছেন না। কিন্তু যে যার অবস্থানে থেকে নিজেদের ভুলগুলো স্বীকার করে নিয়ে সামনের দিকে এগুলেই সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। 
কিন্তু বিড়ালের গলায় ঘন্টা’টা বাধবে কে ... হেরেও অনেক সময় জয়ী হওয়া যায়। হার সবসময় লজ্জার নয়।  

গণ মাধ্যমের সাথে সরকারের দূরত্ব কোনো পক্ষের জন্যই ভালো না।

আশরাফুল আলম খোকন, প্রধানমন্ত্রীর সাবে ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি (ফেসবুক থেকে)

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশে ফকির আলমগীর একজনই

কাজী শরীফ

বাংলাদেশে ফকির আলমগীর একজনই

বাংলাদেশে ফকির আলমগীর একজনই। তাঁর আগে কেউ ছিলেন না, তাঁর সময়ে তিনি ছাড়া কেউ ছিলেন না, ভবিষ্যতেও কেউ হতে পারবেন না।

পপ ধারার গান দিয়ে জীবন শুরু করে গণমানুষের গান গাওয়ার দুঃসাহস কেবল তিনিই দেখিয়েছিলেন। গণসঙ্গীতে ফকির আলমগীর এক ও অদ্বিতীয়। 

কানে বাজছে "ও সখিনা গেছস কি না ভুইলা আমারে ..."

সখিনা আপনাকে ভুলে যায়নি। ফকির আলমগীরকে চাইলেই ভোলা যায় না!  
আল্লাহ আপনাকে জান্নাত দান করুক।

লেখাটি কাজী শরীফ (সহকারী জজ ,নোয়াখালী)-এর ফেসবুক থেকে নেওয়া। (মত-ভিন্নমত বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

​ফকির আলমগীরও চলে গেলেন

অনলাইন ডেস্ক

​ফকির আলমগীরও চলে গেলেন

​ফকির আলমগীরও চলে গেলেন। 

তার প্রাণশক্তি, উচ্ছ্বাস, উন্মাদনার কথা খুব মনে পড়ছে। তিনি ছিলেন অপ্রতিদ্বন্দ্বী, ঈর্ষনীয়। তিনি ছিলেন একমাত্র। 

আমাদের দেশে মহান মে দিবসের সঙ্গে জুড়ে গিয়েছিল ফকির আলমগীরের নাম। নেলসন ম্যাণ্ডেলার জন্ম মৃত্যূবার্ষিকীতে ফকির আলমগীর ছিলেন অপরিহার্য একজন। 

ফকির আলমগীরের জীবনাচার ও চালচলনে মহনতি ও সংগ্রামী মানুষের প্রতিনিধিত্ব প্রকাশ পেত। 
বাংলাদেশ তাকে মনে রাখবে। 

লেখাটি আদিত্য শাহীন-এর ফেসবুক থেকে নেওয়া। (সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ঈদের পরে লকডাউন এই স্যাডিস্ট প্ল্যানটা আসলে কোন হতচ্ছাড়ার?

গুলজার হোসেন উজ্জল

ঈদের পরে লকডাউন এই স্যাডিস্ট প্ল্যানটা আসলে কোন হতচ্ছাড়ার?

ঈদের সাতদিন আগে লকডাউন শিথিল করে ঈদের একদিন পরই কঠোর লক ডাউন। 

এই স্যাডিস্ট প্ল্যানটা আসলে কোন হতচ্ছাড়ার?

রাস্তায়, ফেরিঘাটে এত মানুষ অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। 


নাসির প্রেমিক না আমার বন্ধু : মডেল মিম

আমার বয়ফ্রেন্ড নিয়ে আমিও মজায় আছি : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা

বউ যেন এদিক-ওদিক ভাইগা না যায় : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা (ভিডিও)


 

করোনা ঠেকানোর নাম করে এরা করছে করোনা ছড়ানোর ব্যবস্থা।

লেখাটি  গুলজার হোসেন উজ্জলের ফেসবুক থেকে নেয়া হয়েছে। (সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সেপ্টেম্বরে স্কুল- কলেজ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক

সেপ্টেম্বরে স্কুল- কলেজ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে

চারদিকে ভ্যাকসিনের ছড়াছড়ি, সেই অনুপাতে মানুষ নেই। অথচ ভ্যাকসিনের উপর নির্ভর করেই অর্থনীতির চাকা ঘুরতে শুরু করেছে, সেপ্টেম্বরে স্কুল- কলেজ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখন যারা করোনায় সংক্রমিত হচ্ছেন- তারা ভ্যাকসিন না নেয়া লোক। ভবিষ্যতে যারা সংক্রমিত হবেন- তারা আসলে ভ্যাকসিন না নেয়া লোক। 

‘প্যানডেমিক অব আনভ্যাকসিনেটেডস’ কথাটা খুবই উচ্চারিত হচ্ছে। কানাডা এবং আমেরিকা- দুদেশেই। 

কানাডায় বাংলাদেশিদের সবাই কী ভ্যাকসিন নিয়েছেন! আলাদাভাবে তার কোনো তথ্য নাই।তবু আমাদের দায়িত্ব থাকে খোঁজ করার, কেউ ভ্যাকসিন না নিয়ে থাকলে, ভাকসিন নিতে না পারলে তাদের সহায়তা করার, উদ্বুদ্ধ করার।কানাডায় বসবাসরত বাংলাদেশিদের সবাই ভ্যাকসিনের আওতায় আসুক- সেটা নিশ্চিত করতে আমরা প্রত্যেকেই কিছুটা হলেও ভূমিকা রাখতে পারি।

কানাডায় নানা রকম সংগঠন আছে, জেলা সংগঠনগুলোর সদস্য সংখ্যা অনেক। তারা উদ্যোগ নিয়ে খোঁজ করতে পারেন- তাদের সদস্যদের সবাই ভ্যাকসিন নিয়েছেন কী না। অন্যান্য সংগঠনগুলোও এই কাজ করতে পারে। কয়েকটি অনলাইন ফোরামের সদস্য সংখ্যা অনেক। তারা এই ক্সেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। প্রত্যেকেই তৎপর হলে কানাডায় বাংলাদেশিদের কেউ ভ্যাকসিনের বাইরে থাকবেন না। 


নাসির প্রেমিক না আমার বন্ধু : মডেল মিম

আমার বয়ফ্রেন্ড নিয়ে আমিও মজায় আছি : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা

বউ যেন এদিক-ওদিক ভাইগা না যায় : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা (ভিডিও)


 

কেউ ভ্যাকসিন না নিলে সমস্যা কী হয় জানেন?  আপনি ভ্যাকসিন না নিলে - ‘প্যানডেমিক অব আনভ্যাকসিনেটেডে’ এর দায় আপনার উপরও  বর্তায়। আরেকটা কথা। বাংলাদেশসহ বিশ্বের অনেক দেশ করোনার ভ্যাকসিনের জন্য হাহাকার করছে। তারা ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে হিমসিম খাচ্ছে। কানাডায়, টরন্টোয়- প্রচুর পরিমান ভ্যাকসিন, আপনি ভ্যাকসিন না নিলে সেগুলো নষ্ট হবে। মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেলে কানাডা সেগুলো ফেলে দেবে। ভ্যাকসিনের এই অপচয়ের দায়ও আপনার উপর বর্তাবে।

কানাডায় বাংলাদেশিদের সবাই যাতে ভ্যাকসিন নেয়- তার জন্য আসুন আমরা প্রত্যেকেই সচেষ্ট হই।

লেখাটি নতুন দেশের প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী সাগর-এর ফেসবুক থেকে নেওয়া।(সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়।)

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

প্রবীণ সাংবাদিক রুহুল কুদ্দুস মনি আর নেই

কাদের গণি চৌধুরী

প্রবীণ সাংবাদিক রুহুল কুদ্দুস মনি আর নেই

প্রবীণ সাংবাদিক রুহুল কুদ্দুস মনি মারা গেছেন।। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। গতকাল সন্ধ্যায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিনি ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি স্ত্রী,দুই সন্তান ও অসংখ্য আত্নীয়-স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

মনি ভাই অত্যন্ত প্রতিবান একজন সাংবাদিক। তিনি সর্বশেষ বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থায় কর্মরত ছিলেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রীধারী মনি ভাই ১৯৮০ সালে সাপ্তাহিক পাবনা বার্তায় সাংবাদিক হিসেবে যোগদান করেন। ঢাকায় এসে দৈনিক দিনকাল, বিএসএসসহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে কাজ করেন। 

এক সময় বাংলাদেশ টেলিভিশনে নদী ও পানি বিষয়ক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান "সুখ দুঃখের নদী" এবং "দৈনন্দিন খাবার ও পুষ্টি " অনুষ্ঠান পরিকল্পনা, উপস্থাপনা ও পরিচালনা করতেন তিনি। বাংলাদেশ -দক্ষিণ আফ্রিকা  মৈত্রী সমিতির প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব ছিলেন তিনি।

রুহুল কুদ্দুস মনি ভাইয়ের সাথে দৈনিক দিনকালে চাকরি করার সৌভাগ্য হয়েছিল আমার। আমি ছিলাম রিপোর্টার আর উনি ছিলেন সাবএডিটর (শিফট ইনচার্জ)। তাঁর এডিটিং ছিল নিখুঁত। জানতেনও প্রচুর। আমার রিপোর্ট তাঁর হাতে গেলেই কখনো উনার ডেস্কে ডাকতেন। আবার অনেক সময় আমার টেবিলেই চলে আসতেন। রিপোর্ট নিয়ে আলোচনা করতেন। অপ্রয়োজনীয় শব্দ এড়িয়ে চলার কথা বলতেন। আরো কত কি! 

মনি ভাইয়ের মৃত্যুতে গভীর শোকাহত। আল্লাহ উনাকে জান্নাতবাসী করুন। আমিন।

আরও পড়ুন:


পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে ঢাকায় আসছে অস্ট্রেলিয়া

আগের চেয়েও কঠোর হবে কাল থেকে শুরু হওয়া লকডাউন!

দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে কর্মমুখি-ঘরমুখি উভয় দিকে যাত্রীদের চাপ

কুষ্টিয়ায় করোনা ও উপসর্গে ১৬ জনের মৃত্য


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর