ধর্ষণের শিকার নারীর চিৎকার, কে কোথায় আছত আমারে বাঁচা

অনলাইন ডেস্ক

ধর্ষণের শিকার নারীর চিৎকার, কে কোথায় আছত আমারে বাঁচা

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় ঘুমিয়ে থাকা ৮৩ বছরের বয়সী ও অসুস্থ নারীকে ঘরে ঢুকে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দুই যুবকের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে ডামুড্যা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন অশীতিপর ওই নারী। মঙ্গলবার রাতে এই ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্তরা হলেন শিধলকুড়া ইউনিয়নের আরমান বেপারীর ছেলে সামিম বেপারী (২৭) ও একই এলাকার তার বন্ধু শহীদ মাদবরের ছেলে হাসান মাদবর (২৬)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে সাড়ে ৩টার দিকে ওই বৃদ্ধা নারীর ঘর থেকে চিৎকার শুনে পাশের ঘরের লোকজন ছুটে আসে। ঘরে ঢোকার চেষ্টা করলে ভিতর থেকে আটকানোর কারণে ঢুকতে পারেনি স্থানীয়রা। এ সময় সামিম ও হাসান পেছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়। ধরার চেষ্টা করলে তাদের ধরা যায়নি।

ধর্ষণের শিকার ওই নারী বলেন, জীবনে বড় পাপ করেছি। না হলে আজ এই দিনটা দেখা লাগতো না।

তিনি বলেন, স্বামী মারা যায় অনেক বছর আগে। ঘরে একাই থাকি। ৩ মেয়েই থাকে শ্বশুর বাড়ি। প্রতিদিনের মতো রাতে শুয়ে পড়ি। অসুস্থ ছিলাম। রাতে মাঝেমধ্যেই সামিম এসে ঘুমাত। কালও পুলিশ আসছে ওকে ধরে নিতে-এই কথা বলায় সরল মনে ঘরের দরজা খুলে দেই। তারা ঘরে ঢুকে দরজা আটকিয়ে পাশের খাটে গিয়ে শোয়। আমি ঘুমিয়ে পড়ি। হঠাৎ তারা আমার ওপর আক্রমণ করে। মুখ চেপে রাখায় আমি চিৎকার করলেও শব্দ বের হয়নি। হঠাৎ মুখ ছুটে যাওয়ায় জোরে চিৎকার করি। পাশের ঘরের দুজনসহ আরো অনেকে ছুটে আসে।

প্রত্যক্ষদর্শী রিনা বেগম বলেন, রাতে প্রায় ৩টার দিকে হঠাৎ ঘুম ভেঙে যায়। তখন আমি শুনতে পাই পাশের ঘরের নারী আস্তে আস্তে চিৎকার করছে। আমি মনে করেছিলাম অসুস্থ হয়ে এমনটা করছে। অনেক সময় করার পর তাকে সাহায্য করার জন্য এগিয়ে গেলে হঠাৎ বলে ওঠে, তোরা কে কোথায় আছত, আমারে বাঁচা, সামিম আর হাসান আমাকে মেরে ফেলতাছে। আমি দরজা ধাক্কা দিলে বন্ধ থাকায় খোলে না।

পরে তিনি জানান, ওরা পেছনের দরজা দিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছে। দৌড়ে পেছন গেলে দেখি দুজন দৌড়ে যাচ্ছে। কিন্তু অন্ধকারে চিনতে পারিনি। ঘরে ঢুকে তাকে অজ্ঞান ও বিবস্ত্র অবস্থায় খাটে পড়ে থাকতে দেখি।

সামিমের দাদা সামসুল ইসলাম (৭৮) বলেন, আমার নাতি নেশা পানি করে, কিন্তু কোনো মেয়েলী সমস্যা নেই। এলাকার মানুষ আমাদের ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।

ডামুড্যা থানা অফিসার্স ইন চার্জ (তদন্ত) প্রবিন চক্রবর্তী বলেন, ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ওই নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শরীয়তপুর হাসপাতালে পাঠানো হবে। রিপোর্ট আসার পর তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পথরোধ করে চাঁদা দাবি : ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

পথরোধ করে চাঁদা দাবি : ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের এক কর্মচারীর কাছে চাঁদা দাবি এবং তাকে মারধরের ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের এক নেতাকে গ্রেফতার করেছে শাহবাগ থানা পুলিশ।

গ্রেফতার আকতারুল করিম রুবেল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক।সে বাংলা বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী। মাদক বিক্রির পাশাপাশি রুবেলের বিরুদ্ধে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে ছিনতাইের অভিযোগ রয়েছে।

রুবেলের বিরুদ্ধে মাদক বিক্রির অভিযোগ রয়েছে। ক্যাম্পাসের আশেপাশের এলাকায় তিনি ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের রাজা’ হিসেবে পরিচিত। 

সোমবার (২৬ জুলাই) ইনস্টিটিউটের কর্মচারী মনির হোসেনর করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ।

শাহবাগ থানা ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মনির ও তার দুই সহকর্মী নাস্তা করার উদ্দেশ্যে হাসপাতাল থেকে হোটেলে যাওয়ার পথে ইনস্টিটিউটের জরুরি বিভাগের সামনে আকতারুল করিম রুবেল ও তার সহযোগীরা পথরোধ করে পাঁচ হাজার টাকা দাবি করেন। এসময় দাবি করা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাদের ব্যাপক মারধর করা হয়। তাদের চিৎকারে অন্য কর্মচারীরা ছুটে এসে আকতারুলকে আটক করে। পরে শাহবাগ থানা পুলিশ তাকে হাজতে নিয়ে নেয়।

আরও পড়ুন:

চীনে গুদামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪

এনএসও'র দাবি পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহারে বিশ্বের লাখো মানুষ ঘুমাতে পারছে

পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ল পচেত্তিনোর


 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, আমি জানতে পেরেছি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থী অন্য একটা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে চাঁদাবাজি ও মারধরের ঘটনায় আটক হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আগেও বিভিন্ন অভিযোগ এসেছে। এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বলা হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

নারী ও ইয়াবাসহ আটক : পদ গেল আ.লীগ নেতার

অনলাইন ডেস্ক

নারী ও ইয়াবাসহ আটক :  পদ গেল আ.লীগ নেতার

বৃহস্পতিবার রাতে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটায় একটি আবাসিক হোটেল থেকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জাফর জোমাদ্দার ও মেহেদী হাসান মুন্না নামের দুজনকে আটক করে পুলিশ।সেসময় তাদের ব্যাগ তল্লাশি করে ২৫ পিস ইয়াবা ও একজন পতিতাসহ আটক করে মহিপুর থানায় দায়েরকৃত মাদক মামলায় তাদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

এই ঘটনায় পটুয়াখালীর দুমকিতে অনৈতিক কার্যকলাপ ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতিকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

বহিষ্কার করা নেতা হলেন দুমকি উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জাফর জোমাদ্দার। 

রোববার বিকালে উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক গোলাম রাজ্জাক খান, যুগ্ম আহবায়ক কবির হোসেন রিপন মোল্লা ও যুগ্ম আহবায়ক নজরুল ইসলাম হাওলাদার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আঙ্গারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক কবির হোসেন রিপন মোল্লা জানান, মাদকসহ অসামাজিক কার্যকলাপে যুক্ত থাকায় দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার দায়ে তাকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন:


করোনায় জাবি অধ্যাপকের মৃত্যু

মর্মান্তিক মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে ছবি তোলেন তিনি

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত


 

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, মাদকসহ গ্রেফতার এবং জেলহাজতে থাকায় তাকে (জাফর জোমাদ্দার) সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িতদের আওয়ামী লীগে স্থান নেই।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এডিস মশার লার্ভা নিয়ন্ত্রণে লক্ষাধিক টাকা জরিমানা

অনলাইন ডেস্ক

এডিস মশার লার্ভা নিয়ন্ত্রণে লক্ষাধিক টাকা জরিমানা

এডিস মশার লার্ভা নিয়ন্ত্রণে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১০ ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযানে মশার লার্ভা পাওয়ায় ৭ নির্মাণাধীন ভবন ও বাসা-বাড়িকে ১ লাখ ৯ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করেছে।

বিস্তারিত আসছে...

পরবর্তী খবর

গাছের সঙ্গে শত্রুতা!

নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর

গাছের সঙ্গে শত্রুতা!

নাটোরের বড়াইগ্রামে শত্রুতা করে আনোয়ার হোসেন (৪০) নামে এক কৃষকের প্রায় ২ বিঘা জমির ৮০টি আমের গাছ কেটে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন করে দুর্বৃত্তরা।

শুক্রবার দিবাগত রাতে উপজেলার জোয়াড়ী ইউনিয়নের কুমরুল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক উপজেলার মৃত রিয়াজ উদ্দিন মন্ডলের ছেলে আনোয়ার হোসেন।

আনোয়ার হোসেন জানান, আমার ২ বিঘা জমিতে ৮০ টি আম্রপালি জাতের আম গাছ রোপন করে ছয় বছর যাবত পরিচর্যা করার পরে ফল ধরার উপযোগী হয়েছে।

শনিবার বিকেলে জমিতে গিয়ে গাছকাটা অবস্থায় দেখতে পাই। আমার প্রায় লক্ষাধীক টাকা খরচ হয়ে গেছে। আগামী আমের মৌসুমে আম বিক্রিয় করতে পারলে খরচের টাকা পূরণ করার সম্ভব হতো।

তিনি আরো জানান, রাতের আধারে কে বা কারা গাছগুলো কেটে ফেলেছে আমার তা জানা নেই।

বড়াইগ্রাম থানার পরিদর্শক আব্দুর রহিম বলেন, লিখিত কেউ অভিযোগ করে নাই। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন:


বিভিন্ন জেলায় করোনা ও উপসর্গে মৃত্যুর তথ্য

গার্মেন্টস খোলার ব্যাপারে যা জানালেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

কখন লকডাউন বাড়ানো লাগবে না জানালেন তথ্যমন্ত্রী

ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনায় ‍মৃত্যুর রেকর্ড


 news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মেয়াদোত্তীর্ণ ও ‘সৌজন্য ওষুধ’ প্রদর্শন ও বিক্রি করায় জরিমানা

রাহাত খান, বরিশাল

মেয়াদোত্তীর্ণ ও ‘সৌজন্য ওষুধ’ প্রদর্শন ও বিক্রি করায় জরিমানা

মেয়াদোত্তীর্ণ ও সৌজন্য ওষুধ প্রদর্শন ও বিক্রির দায়ে বরিশাল নগরীর বান্দ রোডের শের-ই বাংলা মেডিকেলের সামনের ৫ টি ফার্মেসী থেকে ১ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সেই সঙ্গে বিপুল পরিমাণ ওষুধও জব্দ করা হয়।

বিস্তারিত আসছে...

পরবর্তী খবর