ব্ল্যাক ফাঙ্গাস সংক্রান্ত কিছু জরুরি বিষয়
ব্ল্যাক ফাঙ্গাস সংক্রান্ত কিছু জরুরি বিষয়

ব্ল্যাক ফাঙ্গাস সংক্রান্ত কিছু জরুরি বিষয়

Other

বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সংক্রমিত রোগী চিহ্নিত হয়েছে। এই খবর অনেকের মাঝে বেশ উদ্বেগ তৈরি করেছে। আসুন এ সংক্রান্ত কিছু জরুরি বিষয় জেনে নিই।

ব্ল্যাক ফাঙ্গাস কী?
এটি ছত্রাক-জনিত রোগ।

মূলত মিউকোরমাইকোসিস নামের একটি অতি বিরল সংক্রমণ। মিউকোর নামে একটি ছত্রাকের সংস্পর্শে এলে এই সংক্রমণ হয়। সাধারণত এই ছত্রাক মাটি, গাছপালা, সার, পচন ধরা ফল ও শাকসবজিতে থাকতে পারে।

চিকিৎসকরা বলছেন, এই ছত্রাক সাইনাস, মস্তিষ্ক এবং ফুসফুস আক্রান্ত করে। কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ব্যক্তিদের ফুসফুস দুর্বল থাকে, সেজন্য তাদের ক্ষেত্রে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস মারাত্মক ঝুঁকি তৈরি করতে পারে। তবে. ব্ল্যাক ফাঙ্গাস সংক্রামক নয়, তাই এ নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই।

উপসর্গ
ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সংক্রমিত রোগীদের সাধারণত যেসব উপসর্গ দেখা দেয় তার মধ্যে রয়েছে: •নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং নাক থেকে রক্ত পড়া •চোখে ব্যথা এবং চোখ ফুলে যাওয়া •চোখের পাতা ঝুলে পড়া •চোখে ঝাপসা দেখা, যার থেকে পরে দৃষ্টিশক্তি চলে যায় •নাকের চামড়ার চারপাশে কালো ছোপ ছোপ দাগ দেখা দেয়া

সুরক্ষার উপায়
১. বেশি ধুলোবালিপূর্ণ জায়গা এড়িয়ে চলা। সম্ভব না হলে এন৯৫ মাস্ক ব্যবহার করা।
২. প্রাকৃতিক দুর্যোগে পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত স্থাপনাগুলোর সরাসরি সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা।
৩. কোথাও কেটে গেলে কিংবা চামড়া উঠে গেলে সেটি যাতে ধুলো-ময়লার সংস্পর্শে না আসে সেদিকে লক্ষ্য রাখা।
৪. কোভিড-১৯ রোগীদের ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা।
৫. স্টেরয়েড ব্যবহারের ক্ষেত্রে সাবধানী হওয়া। স্টেরয়েডের ব্যবহার ডায়াবেটিসকে অনিয়ন্ত্রিত করে তুলতে পারে। ফলে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সংক্রমতি হবার ঝুঁকি বেড়ে যায়।
৬. রোগীকে অক্সিজেন দেবার সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা।
৭. মাস্ক ব্যবহারের ক্ষেত্রে পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা।

লেখক : হারুন আল নাসিফ : কবি, ছড়াকার, সাংবাদিক।

(ফেসবুক থেকে নেয়া)

news24bd.tv/আলী

;