প্রতিবেশীর ঘরের মাটির নীচে মিলল শিশুকন্যার মরদেহ
প্রতিবেশীর ঘরের মাটির নীচে মিলল শিশুকন্যার মরদেহ

প্রতিবেশীর ঘরের মাটির নীচে মিলল শিশুকন্যার মরদেহ

Other

রংপুরের মিঠাপুকুরের বালুয়া মাসমপুর এলাকায় প্রতিবেশীর ঘরের মাটি খুঁড়ে রহিমা খাতুন (১০) নামের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় একই এলাকার রাজা মিয়ার বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় দোকানে চিপস কিনতে গিয়ে নিখোঁজ হয় রহিমা। নিহত রহিমা একই এলাকার রবিউল ইসলামের মেয়ে।

পুলিশ জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় রহিমা তার মায়ের কাছ থেকে ১০ টাকা নিয়ে পটেটো চিপস কেনার জন্য দোকানে যায়। এরপর আর বাড়ি ফেরেনি সে। সারারাত অনেক খোঁজাখুজির পরও তাকে পাওয়া যায়নি।

 


নাগরিকদের সিনোফার্ম টিকার তৃতীয় ডোজ দেয়ার ঘোষণা আমিরাত-বাহরাইনের

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ফিলিস্তিন সফরের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

স্ত্রীর পরকীয়ায় সাত টুকরা হওয়া সেই আজহারুলের দাফন সম্পন্ন

খালাসের আগেই আমদানি করা বিটুমিনের মান পরীক্ষা বাধ্যতামূলক


 

এদিকে পরদিন বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় একই এলাকার রাজা মিয়ার ছেলে শাহিন মিয়ার (২০) ঘরের মাটি খোঁড়া দেখতে পায় বাড়ির লোকজন। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়। একপর্যায়ে রহিমার বাড়ির লোকজনও ঘটনাটি জানতে পারেন। এরপর রহিমার পরিবারের লোকজন সেখানে গিয়ে মাটি সরাতেই একটি হাত দেখতে পায়। তারা নিশ্চিত করেন এ হাত রহিমার। পরে পুলিশকে খবর দিলে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

রংপুর জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-ডি) মো. কামরুজ্জামান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, প্রাথমিকভাবে মেয়েটিকে ধর্ষণ বা ধর্ষণের চেষ্টা করা হতে পারে। মেয়েটির চিৎকারে ধরা পড়ার ভয়ে হত্যার পর মরদেহ ঘরের খাটের নিচে পুঁতে রাখা হয়।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

news24bd.tv তৌহিদ

;