সীমান্ত জেলাগুলোয় মাস্কের সরবরাহ বাড়ানো হোক
সীমান্ত জেলাগুলোয় মাস্কের সরবরাহ বাড়ানো হোক

সীমান্ত জেলাগুলোয় মাস্কের সরবরাহ বাড়ানো হোক

Other

১. দেশের সীমান্ত জেলাগুলোয় অস্বাভাবিক দ্রততায় করোনায় সংক্রমণ বাড়ছে। চাপাইনবাবগঞ্জে বিশেষ লকডাউনের কথা পত্রিকার খবরে জেনেছিলাম। অন্যান্য জেলায় কি হচ্ছে সেই ব্যাপারে তেমন কিছু জানা নেই। মিডিয়াগুলো বিষয়টিকে তেমন গুরুত্ব দিচ্ছেন কীনা সেটা অনলাইনের তথ্য থেকে বোঝা যাচ্ছে না।

আমি মনে করি, মিডিয়ার এখনি সীমান্ত জেলাগুলোর দিকে নজর দেয়া দরকার।

২, সীমান্ত জেলাগুলোর সংক্রমণ সেখানেই সীমিত রাখতে না পারলে বিপদের আশঙ্কা আছে। যে কোনো ভাবেই হোক এই সংক্রমণ যাতে বিস্তৃত হতে না  হতে পারে তার ব্যবস্থা নিতে হবে। সেটি করতে হবে সরকার এবং সরকারের বাইরের সামাজিক শক্তিকে সম্মিলিতভাবে। প্রত্যেকের যার যার অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখা দরকার। বিজ্ঞান প্রমাণ দিয়েছে মাস্ক- কোভিড সংক্রমণকে আটকে দিতে পারে। সীমান্ত জেলাগুলোয় আর কিছু করা না গেলেও মাস্কের সরবরাহ বাড়ানোর ব্যবস্থা নেওয়া হোক। মানুষ যাতে মাস্ক যথাযথভাবে পরে তার ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

৩. লকডাউনে আম-কাঠল বা তরিতরকারির ব্যবসায়ীদের কি দুর্ভোগ হচ্ছে- এইটা এই মুহূর্তের সীমান্ত এলাকার গুরুত্বপূর্ণ খবর নয়। লকডাউনে মানুষের দুর্ভোগ হয়ই, কিন্তু সীমান্ত জেলার জন্য এই ধরনের খবর এখন পরিবেশন করা হবে অপসাংবাদিকতা। তার চেয়ে কেন মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মানা দরকার, কেন মাস্ক পরা দরকার- সেই বিষয়ে মানুষকে উৎসাহ দেওয়া বেশি জরুরি।

৪. যশ কিংবা ইয়াসকে সব মিডিয়া যেভাবে গুরুত্ব দিয়েছে, সীমান্ত এলাকায় কোভিডের সংক্রমণকে একই রকমের গুরুত্ব দেওয়া দরকার। সীমান্ত জেলাগুলো যেনো দেশের জন্য যশ কিংবা ইয়াস না হয়ে ওঠে।

শওগাত আলী সাগর, প্রধান সম্পাদক, নতুনদেশ

(মত ভিন্ন মত বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়। )

news24bd.tv তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর

;