স্বামীকে আগেও হত্যার চেষ্টা করেছিলেন স্ত্রী আসমা

অনলাইন ডেস্ক

স্বামীকে আগেও হত্যার চেষ্টা করেছিলেন স্ত্রী আসমা

পরকীয়া জড়িয়ে তারা নিয়ে ফেলেন এক ভয়ঙ্কর খুনের পরিকল্পনা। নিজ স্বামী আজহারকে (৩৫) খুন করতে মসজিদের ইমামকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্ররোচিত করতেন স্ত্রী আসমা আক্তার (২৪)। তিনি আজহারকে হত্যা করার বিষয়ে মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুর রহমানকে বিভিন্নভাবে চাপ দিতেন। স্বামী আজহারুলকে হত্যা করতে পারলে ইমামকে বিয়ে করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন আসমা আক্তার। সেই পরিকল্পনা মাফিক মসজিদের নিজ শয়নকক্ষে আজহারকে হত্যা শেষে ৬ টুকরা করে সেফটিক ট্যাংকিতে ফেলে দেন ইমাম মাওলানা আব্দুর রহমান (৫৪)।

দক্ষিণখানের সরদার বাড়ি জামে মসজিদে সাত টুকরো করে হত্যা করা আজহারুলকে এর আগেও একবার হত্যার চেষ্টা করেছিলেন নিহতের স্ত্রী আসমা আক্তার (২৪) ও তার পরকীয়া প্রেমিক মাওলানা আব্দুর রহমান (৫৪)। এমনটাই দাবি করেছেন নিহত আজহারুলের পরিবারের লোকজন।

আজহারুলকে হত্যার জন্য আসমা তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর থেকে ইমামের সঙ্গে ৭১ বার কথা বলেন বলেও দাবি করেছেন নিহতের চাচাতো ভাই মো. হাফিজ উদ্দিন। সিমটি না পাওয়া গেলেও উদ্ধার হওয়া মোবাইল ও নম্বর থেকে এ তথ্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছ থেকে তারা জানেন।

শুক্রবার (২৮ মে) বিকেলে নিহতের বাড়ি টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা পৌরসভার রাজাবাড়ি গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, শোকে পাথর হয়ে গেছে আজহারুল ইসলামের বৃদ্ধা মা সালেহা বেগম। ছেলেকে হারিয়ে কথা বলার ভাষাও হারিয়ে ফেলেছেন তিনি। পাশেই বসে আছেন নিহতের বাবা জুলহাস উদ্দিন, চাচাতো ভাই হাফিজ উদ্দিন ও ভাতিজা লিসান উদ্দিন।

নিহতের বাবা জুলহাস উদ্দিন জানান, ৫ ছেলে ও দুই মেয়ের মধ্যে আজহারুলকে খুব আদর করতো সবাই। লেখাপড়ায়ও খুব ভালো ছিল। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে মেজো ছেলে সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে আসমার বিয়ে হয়। বিয়ের দু-তিন মাস পর তারা জানতে পারেন এর আগেও একই উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নে এক ছেলের সঙ্গে আসমার বিয়ে হয়েছিল। কিন্তু সেই বিয়ের দু’দিন পরই আসমা চলে আসে স্বামীর সংসার ছেড়ে।  

এরপর আসমা ওই স্বামীর ছোট বোনের স্বামীর সঙ্গে পরকীয়া করে পালিয়ে বিয়ে করেন। সেই বিয়েও মাত্র এক থেকে দেড় মাস টেকে। এসব কিছু গোপন রেখে আসমার বাবা আশরাফ আলী তার ছেলের সঙ্গে আসমার বিয়ে দেন। তবে বিয়ের পর এত কিছু জেনেও জুলহাস উদ্দিনের পরিবার আসমাকে ছেলের বউ হিসেবে মেনে নিয়েছিলেন।

তিনি জানান, কিন্তু ছয় মাস যেতে না যেতেই আসমা ও আজহারুল বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যান। পরে তিনি জানতে পারেন সাহাবুদ্দিনকে তালাক দিয়ে আসমা আজহারুলকে বিয়ে করেছেন। এরপর থেকে তাদের সঙ্গে আর যোগাযোগ রাখেননি জুলহাস উদ্দিন ও তার পরিবারের লোকজন।  

‘হঠাৎ করেই রোজার আগে খবর পান অসুস্থ হয়ে পড়ায় আজহারুলকে হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে তিনি ঢাকায় গিয়ে আজহারুল ও আসমাকে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসেন। বাড়িতে রেখেই আজহারুলকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। একটু সুস্থ হলে হঠাৎ করেই ১৭ মে আসমা আজহারুলকে ঢাকায় যেতে চাপ দিতে থাকে। এ কারণে আজহারুল পরদিন ১৮ মে ঢাকায় যেতে রাজি হন। এই অসুস্থার মধ্যে ঢাকা যাওয়া নিয়ে আজহারুলকে তার মা কয়েকবার বাধাও দেন। কিন্তু আসমার পীড়াপীড়িতে শেষ পর্যন্ত ঢাকায় রওয়ানা হন আহজারুল। এসময় আসমা তার স্বামী আজহারুলকে ৫শ টাকাও দেন গাড়িভাড়া হিসেবে।

আজহারুলের চাচাতো ভাই মো. হাফিজ উদ্দিন জানান, (মঙ্গলবার) ১৮ মে আজহারুর ঢাকা যাওয়ার পর আসমা তাদের বাড়িতেই ছিলেন। পরদিন বুধবার (১৯ মে) আজহারুলের মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এরপর আসমা তার বাবা আশরাফ আলীকে নিয়ে ঢাকায় চলে যান। দু’দিন পর তারা দু’জন ফিরে আসেন এবং আশরাফ আলী তার মেয়েকে শ্বশুর বাড়ি রেখে তড়িঘড়ি করে চলে যান। ২৫ মে তারা জানতে পারেন দক্ষিণখানের সরদার বাড়ি জামে মসজিদের সেপটিক ট্যাংক থেকে আজহারুলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।  

‘খবর পাওয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে পরিবারের লোকজন ঢাকায় রওয়ানা হলে রাস্তা থেকেই র্যা ব আসমাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। পরে তারা জানতে পারেন এই হত্যার সঙ্গে আসমা ও ইমাম জড়িত। ’

আজহারুলের ভাতিজা লিসান উদ্দিন জানান, র্যা বের মাধ্যমে জানতে পারেন আসমা মোবাইল ফোন ব্যবহার করতেন এবং মোবাইল ফোনটি আজহারুলের বাড়িতেই রয়েছে। একথা শুনে পরিবারের সবাই হত্যার পরিকল্পনা করার জন্য ব্যবহৃত মোবাইল ফোন খোঁজাখুজি করতে থাকেন। কিন্তু কোথাও না পেয়ে বাড়ির পাশের জঙ্গলে ব্যাটারি ও সিমবিহীন একটি মোবাইল ফোন পান। পরে সেটি র্যা বের কাছে জমা দেন তারা।

তিনি জানান, আসমা যে নম্বর দিয়ে ইমামের সঙ্গে কথা বলেছেন সেই সিমকার্ডটি এখনো উদ্ধার হয়নি। তাদের ধারণা আজহারুলকে হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পরপরই সিমকার্ডটি কোথাও ফেলে দিয়েছেন আসমা আক্তার।

আজহারুলের হত্যার সঙ্গে জড়িত আসমা ও মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুর রহমানের ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন নিহতের পরিবার।


মঙ্গলবার রাজধানীর দক্ষিণখান সরদারবাড়ি জামে মসজিদের সেপটিক ট্যাংক থেকে আজহারুল ইসলাম (৪০) নামে এক গার্মেন্টকর্মীর ৭ টুকরো লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় র‌্যাব মসজিদের ইমাম আব্দুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে। তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, বাসায় আসা-যাওয়ার সূত্র ধরে আজহারুলের স্ত্রীর সঙ্গে আব্দুর রহমানের ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়। এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করতে ২০ মে মসজিদে ইমামের কক্ষে গিয়ে খুন হন তিনি। পরে তার লাশ গুম করতে সাত টুকরা করে সেপটিক ট্যাংকে লুকিয়ে রাখা হয়।

news24bd.tv/আলী 

পরবর্তী খবর

নাটোরে বিয়ের প্রলোভনে ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর

নাটোরে বিয়ের প্রলোভনে ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

নাটোরের গুরুদাসপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মেহেদী হাসান (১৫) নামে এক কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ওই কিশোরকে আটক করে গুরুদাসপুর থানার পুলিশ। বুধবার রাত ১১টার দিকে মেয়েটির নানার বাড়িতে ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

মেহেদী হাসান পার্শ্ববর্তী বামনকোলা গ্রামের রবিউল করিমের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত এক বছর ধরে মেয়েটির সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল মেহেদী হাসানের। বুধবার রাতে মেয়েটিকে বিয়ে করবে বলে প্রলোভন দিয়ে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। মেয়েটি এসময় ডাক চিৎকার দিলে অভিযুক্ত মেহেদী হাসান দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে বৃহস্পতিবার সকালে মেয়েটি তার আত্মীয়স্বজনকে ঘটনা জানায়। মেয়ের আত্মীয় ছেলে পক্ষের কাছে বিয়ের প্রস্তাব দিলে তারা অস্বীকৃতি জানায়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মেয়েটির মা থানায় অভিযোগ দিলে অভিযুক্ত মেহেদী হাসানকে পুলিশ আটক করে।

গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরে মেয়েটির মা থানায় এসংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে অভিযুক্তকে আটক করা হয়।

আরও পড়ুন:


পঞ্চাশোর্ধ জেলায় করোনার উচ্চ সংক্রমণ, ১৪ দিনের ‘শাটডাউন’

পাহাড়ি এলাকায় ভারতীয় সেনাকে টেক্কা দিতে অক্ষম চীন: বিপিন রাওয়াত

নাজমুল হুদার স্ত্রী সিগমা হুদার সম্পদের হিসাব চেয়ে দুদকের চিঠি


news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে নারী শ্রমিককে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

অনলাইন ডেস্ক

কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে নারী শ্রমিককে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

ঢাকার সাভারে কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে এক নারী পোশাক শ্রমিক সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় ওই নারী পোশাক শ্রমিকের দুই সহকর্মীসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হলে অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে সাভারের বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থানার দেলুয়া মধ্যপাড়ার শামীম হোসেনের ছেলে তারেক রহমান (২১), নড়াইলের কালিয়া থানার ফিরোজ কাজীর ছেলে রাব্বি (২০) ও অমিত হাসান (২২)। তারা সাভারের জয়নাবাড়ি এলাকায় ভাড়ায় বসবাস করে পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। এদের মধ্যে তারেক ও রাব্বি ওই নারী পোশাক শ্রমিকের সহকর্মী।

এ জাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২২ জুন রাত ৮টার দিকে নিজ কর্মস্থল থেকে বাসায় ফেরার পথে সাভারের হেমায়েতপুর জয়নাবাড়ি এলাকায় ওই নারী পোশাক শ্রমিককে তার সহকর্মী তারেক ও রাব্বি মিয়া জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায় একটি বাসায়। 

পরে তাদের সাথে যোগ দেয় অমিত হাসান নামে তাদের আরো এক সহযোগী। পরবর্তীতে তারা ওই নারী পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য ভয়ভীতি দেখিয়ে ছেড়ে দেয়। ওই নারী শ্রমিক বাসায় ফিরে তার মায়ের কাছে ঘটনার বিস্তারিত জানালে রাতেই তার মা সাভার মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে।

সাভার চামড়া শিল্পনগরী পুলিশ ফাড়ি ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক জাহিদুল ইসলাম জানান, সাভারের বিভিন্ন এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়। পাশাপাশি ওই নারী পোশাক শ্রমিককে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করেছে। আসামিদের বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:


চলন্ত ট্রাকে তরুণীকে ধর্ষণ, অতঃপর যেভাবে উদ্ধার

দ্বিতীয় বিয়ের পর থেকেই অশান্তিতে ছিল আবু ত্ব-হা!

পরিবারের দাবি হত্যাকাণ্ড, দাফনের ১৫ দিন পর তরুণীর লাশ উত্তোল

পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ


news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

ট্যাংক-লরি থেকে বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

ট্যাংক-লরি থেকে বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার

এবার ঢাকায় একটি  জ্বালানি বহনকারী ট্যাংক-লরি থেকে ৩৬ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ। এই ঘটনায়  গাঁজা বহনকারী তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) ডিবি গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম সাকলায়েন বিষয়টি সংবাদ মাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মো. রিগান খাঁন(২৭), মো. জাকির হোসেন(২৪), মো. খোকন মৃধা।

গোলাম সাকলায়েন বলেন, ক্যান্টনমেন্ট থানার শেওড়া বাসস্ট্যান্ড বটতলা থেকে জ্বালানি তেল বহনকারী ট্যাংক-লরির মধ্যে ৩৬ কেজি গাঁজা বহনকালে রিগান, জাকির ও খোকনকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, তাদের গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আমরা জানতে পেরেছি তারা এই বিপুল পরিমাণ গাঁজা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে বিক্রির উদ্দেশ্যে ঢাকায় নিয়ে আসছিল। 

৩৬ কেজি গাঁজা উদ্ধারের ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সিংড়ায় নদীতে ঝাঁপ দেওয়ার ৫ ঘন্টা পর অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার

নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর

সিংড়ায় নদীতে ঝাঁপ দেওয়ার ৫ ঘন্টা পর অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার

নাটোরের সিংড়ায় গুরনই নদীতে ঝাঁপ দেয়ার ৫ ঘন্টা পর এক অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে সিংড়া উপজেলার পাঙ্গাশিয়া গ্রামে গুরনই নদী থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টার দিকে অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি হঠাৎ করে পাঙ্গাশিয়া গ্রামে আসে এবং গুরনই নদীতে ঝাঁপ দেয়।

এলাকাবাসী বাঁচাতে গেলে নদীতে ডুবে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে তারা এসে লাশ উদ্ধার করে।

চামারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রশিদুল মৃধা জানান, অপরিচিত ব্যক্তি নদীতে ঝাঁপ দিলে এলাকাবাসী বাঁচানোর চেষ্টা করেও পারেনি। পরে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

আরও পড়ুন:


পাহাড়ি এলাকায় ভারতীয় সেনাকে টেক্কা দিতে অক্ষম চীন: বিপিন রাওয়াত

নাজমুল হুদার স্ত্রী সিগমা হুদার সম্পদের হিসাব চেয়ে দুদকের চিঠি


সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-এ-আলম সিদ্দিকী জানান, লাশ উদ্ধারের বিষয়টি শুনেছি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও খোঁজ নিয়ে জানাতে পারব।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

সাভারে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি

অনলাইন ডেস্ক

সাভারে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি

ঢাকার সাভারের পল্লী বিদ্যুতের সাব-স্টেশন অফিসে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।সেসময় ডাকাতদের মারধরে আহত হয়েছে চারজন। তাদের মধ্যে দুজন স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার ভোরে পল্লী বিদ্যুত অফিসের কর্মীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ডাকাতি করে দুর্বৃত্তরা। তারা ছয়টি ট্রান্সফরমার, তার, কম্পিউটার, টাকা ও মোবাইল সেট কাপড়-চোপড়সহ প্রায় ১৫ লাখ টাকার মালামাল লুট করেছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়।

ঘটনার খবর পেয়ে ধামরাই থানাধীন কাওয়ামীপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ রাসেল মোল্লা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, ‘কয়েকটি ট্রান্সফরমারের ভেতরের তার নিয়ে গেছে ডাকাতদল।

আরও পড়ুন:

ফিলিপাইনের সাবেক প্রেসিডেন্ট বেনিগনো অ্যাকুইনো মারা গেছেন

তরুণীকে তুলে নিয়ে ভাড়া বাসায় ৩ যুবকের পালাক্রমে ধর্ষণ

টিকা উৎপাদনে আন্তর্জাতিক সহায়তা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বিশ্ববাজারে ২ বছরের মধ্যে অপরিশোধিত তেলের দাম সর্বোচ্চ

news24bd.tv/এমিজান্নাত 

পরবর্তী খবর