বসুরহাটে ফের সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ৯

অনলাইন ডেস্ক

বসুরহাটে ফের সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ৯

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় প্রতিপক্ষের গুলিতে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার ৯ অনুসারী গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বসুরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। 

তাদের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর সবাইকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। 

হাসপাতালের ডাক্তার আবু নাছের জানান, গুলিতে আহত ৮ জনকে জরুরি বিভাগ থেকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি একজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

আহতরা হলেন- পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন (৪৭), ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল আহমেদ জিসান (২৩), সামছুল হকের ছেলে মো. সবুজ (৪০), আবদুল লতিফ দুলালের ছেলে রুহুল আমিন সানি (৩০), মোস্তফা মেস্তরীর ছেলে দেলোয়ার হোসেন (২৮), পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের এনামুল হকের ছেলে দেলোয়ার হোসেন সুমন (২৭), চরকাঁকড়ার মোশারেফ হোসেনের ছেলে দিদার (৩৫), মৃত মোস্তফার ছেলে মাঈন উদ্দিন কাঞ্চন (৪২), এমদাদুল হকের ছেলে সওশাদ (৩৫)। আহতরা সবাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার অনুসারী।

পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম বকুল জানান, ৯নং ওয়ার্ডের হাজীপাড়া, আদর্শাড়া ও শান্তিপাড়া থেকে কাদের মির্জার অনুসারীরা একত্রিত হয়ে পৌরসভায় যাওয়ার জন্য জড়ো হচ্ছিল। প্রতিপক্ষ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জুর সমর্থকরা বেপরোয়া গুলি করে তাদের লোকজনকে আহত করে।

অন্যদিকে সেতুমন্ত্রীর ভাগিনা মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার কোনো লোক বাসা থেকে বের হয়নি। কাদের মির্জার লোকজন মিছিল করতে গিয়ে নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে শুনেছি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি জানান, পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে কাদের মির্জার অনুসারীরা মিছিল করতে চাইলে প্রতিপক্ষরা গুলি চালিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বয়সের কারণে মনে হয় মির্জা ফখরুলের মতিভ্রম ঘটেছে : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বয়সের কারণে মনে হয় মির্জা ফখরুলের মতিভ্রম ঘটেছে : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম দেশের অর্জন নিয়ে যে কথা বলেছেন তাতে মনে হচ্ছে বয়সের কারণে উনার মতিভ্রম ঘটেছে।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সমস্ত অর্জন জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে হয়েছে। যেখানে সবাই প্রশংসা করছে, সেখানে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কি বলেন ? দেশের ৫০ বছরের অর্জন নিয়ে তিনি যে কথা বলেছেন তাতে মনে হচ্ছে বয়সের কারণে উনার মতিভ্রম ঘটেছে। বিএনপির ডাক্তারদের সংগঠন ‘ড্যাব’ কে অনুরোধ জানাবো তার মানসিক স্বাস্থ্যের পরীক্ষা করাতে।

তথ্যমন্ত্রী  বলেন, আগে অনেক মানুষের মানসম্মত গৃহ ছিল না, বঙ্গবন্ধু কন্যার ঘোষণা অনুযায়ী এখন গৃহের সমস্যারও সমাধান হয়েছে। এখন যারা ঘর পেয়েছে তারা কখনো স্বপ্নেও ভাবেনি এভাবে জমিসহ ঘর পাবেন, এবং প্রধানমন্ত্রীর সাথে সরাসরি কথা বলবেন। স্বপ্নকেও হার মানিয়েছে তাদের প্রাপ্তি। এই ধরণের ঘটনা আমাদের দেশে কখনো ঘটেনি, অন্য কোন দেশে ঘটেছে বলে আমার মনে হয় না।
তিনি বলেন, আমরা সাম্প্রতিক সময়ে দুই’শ বিলিয়ন ডলার শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দিয়েছি। আমরা অন্যান্য দেশকেও ঋণ দেওয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করছি। আজকে বাংলাদেশকে নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট, জাতিসংঘের মহাসচিব, জার্মান প্রেসিডেন্ট থেকে শুরু করে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ড. অর্মত্য সেন প্রশংসা করেন। কিন্তু বিএনপি ও তার মিত্ররা প্রশংসা করতে পারে না।’
বেগম জিয়ার সুস্বাস্থ্যের সাথে দীর্ঘায়ু কামনা করে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, তিনি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন, কিন্তু আপনারা দেখেছেন খালেদা জিয়া হাসপাতালে থাকাকালীন প্রতিদিনই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব এবং তাদের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ তাঁর চিকিৎসা নিয়ে কথা বলেছেন এবং দাবি করেছেন তাকে সুস্থ করার জন্য বিদেশ নিয়ে যেতে হবে। কিন্তু, বেগম খালেদা জিয়া বাড়ি ফিরে যাওয়ার মধ্য দিয়ে এটি প্রমাণিত হয়েছে যে, দেশে তিনি ভাল সুচিকিৎসা পেয়েছেন এবং ভাল চিকিৎসা পেয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। তারা যে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার দাবি করেছিলেন সেটি যে অমূলক তা প্রমাণ হয়েছে।

সূত্র: বাসস

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

১২ বছর ক্ষমতায়, তাই নেতা-কর্মীদের আয়েশি মনোভাব: হানিফ

অনলাইন ডেস্ক

১২ বছর ক্ষমতায়, তাই নেতা-কর্মীদের আয়েশি মনোভাব: হানিফ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, টানা ১২ বছর ক্ষমতায় থাকার কারণে অনেক নেতা-কর্মীদের মধ্যে আয়েশি মনোভাব চলে এসেছে। তাই সারা দেশে আওয়ামী লীগের কিছু সাংগঠনিক দুর্বলতা চোখে পড়েছে। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে প্রতি তিন বছর পর পর সম্মেলনের মাধ্যমে ঢেলে সাজানো হচ্ছে।

আরও পড়ুন:


ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের সংবাদ সম্মেলন কাল

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা স্থগিত

‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাব ফখরুলের মানসিক পরীক্ষা করাতে: তথ্যমন্ত্রী


রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাদের সাথে মতবিনিময় সভায় মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় থাকার কারণে সংগঠন দুর্বল বা সবল তা বুঝা যাচ্ছে না। যার কারণে সংগঠনের দিকে সবার নজর একটু কম। অনেক জেলায় ১৫ থেকে ২০ বছর একই কমিটি। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে জেলা পর্যায়ের সম্মেলনের উদ্দেশ্য নিয়ে মাঠে নেমেছি। প্রতিটি ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা সম্মেলন করবো। প্রতিটি ইউনিট, ওয়ার্ড ও থানার সম্মেলন আগামি ডিসেম্বরের মধ্যে করতে চাই। সেটা করলে আপনাদের মধ্যে অনেক নেতা আছেন। যারা যথাযথ মূল্যায়ন বা পদোন্নতি  পাননি, তারা মূল্যায়ন পাবেন।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ: জিএম কাদের

অনলাইন ডেস্ক

মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ: জিএম কাদের

মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। রোববার এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন তিনি।

জিএম কাদের বলেন, মাদক বিস্তারের পরিণাম জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ। মাদকের বিস্তার নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে আগামী প্রজন্ম ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই মাদক নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনে বিশেষায়িত ইউনিটি গঠন করতে হবে।

আরও পড়ুন:


এবারও হচ্ছে না প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা

আমাদের লক্ষ্য বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করা: প্রধানমন্ত্রী

ওসমানীনগরে শিক্ষিকাকে গলাকেটে হত্যার পর গৃহকর্মীর আত্মহত্যা

এবার মাহিয়া মাহির দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে গুঞ্জন


তিনি বলেন, গণমাধ্যমের সাম্প্রতিক সংবাদে ইতোমধ্যেই দেশবাসী জেনেছে এলএসডি, আইস, খাট-এর মত মরণনেশায় আসক্ত হয়ে পড়েছে আমাদের তরুণ সমাজ। এছাড়া ইয়াবা, ফেনসিডিল, মদ ও গাজা আরও সহজলভ্য হয়ে পড়েছে। জাতির জন্য এর মত দুঃসংবাদ আর হতে পারে না। মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে যুব সমাজকে বাঁচাতে না পারলে জাতি হয়ে পড়বে অকর্মণ্য, উগ্র এবং অসভ্য। ধ্বংস হয়ে যাবে তারুণ্যের অমিত সম্ভাবনা। তখন কোনোভাবেই দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে না।

বিবৃতিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান আরও বলেন, মাদক নির্মূলে সরকারকে এখনই কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাব ফখরুলের মানসিক পরীক্ষা করাতে: তথ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাব ফখরুলের মানসিক পরীক্ষা করাতে: তথ্যমন্ত্রী

আজকে বিশ্বের পত্রপত্রিকায় লেখা হচ্ছে একসময়ের ঋণ গ্রহিতার বাংলাদেশ এখন অন্য দেশকে ঋণ দেয় বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। সেই সঙ্গে দেশের ৫০ বছরের অর্জন আওয়ামী লীগ নষ্ট করে দিয়েছে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের প্রতিবাদও করেন তিনি।

আজ রোববার (২০ জুন) দুপুরে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বেতাগী বহলপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পে উপকারভোগীদের মাঝে মুজিবশতবর্ষ উপলক্ষে দুইশতক জমিসহ ঘরের কবুলিয়তনামা হস্তান্তর মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বাংলাদেশের সমস্ত অর্জন জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে হয়েছে। যেখানে সবাই প্রশংসা করছেন সেখানে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কি বলেন? দেশের ৫০ বছরের অর্জন নিয়ে তিনি যে কথা বলেছেন তাতে মনে হচ্ছে বয়সের কারণে ওনার মতিভ্রম ঘটেছে। বিএনপির ডাক্তারদের সংগঠন ‘ড্যাব’কে অনুরোধ জানাবো মির্জা ফখরুলের মানসিক স্বাস্থ্যের পরীক্ষা করাতে।

আরও পড়ুন:


ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের সংবাদ সম্মেলন কাল

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা স্থগিত


তিনি বলেন, দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা ৪১ শতাংশ ছিল সেখান থেকে ২০ শতাংশে নেমে এসেছে। খাদ্য ঘাটতির দেশ থেকে খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশে পরিণত হয়েছে। স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। আজকে বিশ্বের পত্রপত্রিকায় লেখা হচ্ছে একসময়ের ঋণ গ্রহিতার বাংলাদেশ এখন অন্য দেশকে ঋণ দেয়। বিএনপি এবং তাদের মিত্ররা এই সমস্ত উন্নয়ন দেখতে পায় না। প্রতিদিন মিথ্যা কথা অব্যাহত রেখেছে। তাদের রাজনীতির মূল বিষয় হচ্ছে বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য এবং তারেক রহমানের শাস্তি।

news24bd.tv / তৌহিদ

পরবর্তী খবর

সরকার লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করেছে: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকার লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করেছে: ফখরুল

সরকার পরিকল্পিতভাবে দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করার পাশাপাশি লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ‘সমাজ উন্নয়নে মৃত্যুঞ্জয়ী জিয়া’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি। 

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জিয়া পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি এ সভার আয়োজন করে।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকার পরিকল্পিতভাবে, পরিকল্পিত ওয়েতে বাংলাদেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করছে। লুট করছে, লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করেছে।

তিনি বলেন, মেগা প্রজেক্টের সবচেয়ে বড় সমস্যা যেটা, সেটা হলো- গণলুট। ১০ হাজার কোটি টাকার প্রজেক্ট হয়ে যাচ্ছে ৫০ হাজার কোটি টাকার প্রজেক্ট। এভাবে তারা মেগা প্রজেক্টগুলোকে টাকা বানানোর প্রজেক্ট হিসেবে নিয়েছে। অন্যদিকে দেখুন প্রত্যেকটি জায়গায় এমন এমন কাজ করা হচ্ছে, সেখানে ওই কাজের কোনো দরকারই নেই।

স্বাস্থ্যখাত করুণ অবস্থায় রয়েছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এখন পর্যন্ত করোনার টিকার কোনো নিশ্চয়তা নেই। টিকার নিশ্চয়তা হবেও না। এই জন্যে যে, যারা এই স্বাস্থ্যখাতের সঙ্গে জড়িত, টিকার সঙ্গে জড়িত, তারা সবাই দুর্নীতিতে জড়িত। 

আরও পড়ুন:


কাল থেকে সারাদেশে ইঞ্জিনচালিত রিক্সা-ভ্যান নিষিদ্ধ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

এবারও হচ্ছে না প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা

আমাদের লক্ষ্য বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করা: প্রধানমন্ত্রী


আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান ও বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুসের সভাপতিত্বে সভায় অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ, বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর