‘স্যার’ না বলায় ক্ষেপে গেলেন কৃষি কর্মকর্তা, বললেন এই চেয়ারে বসতে কষ্ট করতে হয়েছে
‘স্যার’ না বলায় ক্ষেপে গেলেন কৃষি কর্মকর্তা, বললেন এই চেয়ারে বসতে কষ্ট করতে হয়েছে

‘স্যার’ না বলায় ক্ষেপে গেলেন কৃষি কর্মকর্তা, বললেন এই চেয়ারে বসতে কষ্ট করতে হয়েছে

Other

সংবাদ সংগ্রহের জন্য কৃষি অফিসে গিয়ে কৃষি কর্মকর্তাকে ‘স্যার’ না ডেকে ‘ভাই’ বলে সম্বোধন করায় স্থানীয় এক সাংবাদিকের উপর মনকষ্ট ঝাড়লেন মাদারীপুরের শিবচর উপজেলায় দ্বায়িত্বরত কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা অনিরুদ্ধ দাশ।

রোববার (৩০ মে) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বাংলাদেশ টুডের সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম রাজা শিবচরে বোরো ধান চাষের আবাদ সম্পর্কে তথ্য জানতে গিয়ে তার ভিজিটিং কার্ড হাতে দিয়ে ‘ভাই’ বলে সম্বোধন করে তাকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতে অনুরোধ করেন। এসময় তাকে ভাই বলায় উপজেলা কৃষি অফিসার ক্ষেপে যান। তখন তিনি ওই সাংবাদিককে বলেন, আপনাদের ভাই বলে ডাকার রেওয়াজ আর গেল না, আমাদের এই চেয়ারে বসতে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে'।

স্থানীয় সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম জানান, আমিতো কোন ব্যাক্তিগত কাজে যাইনি, আমি দেশের জনগনের জন্য গেছি। তাকে ভাই বলায় তার মুভমেন্ট পরিবর্তন হয়ে গেছে। এবং সে এটাও বলেছে আপনাদের ভাই বলে ডাকার রেওয়াজ আর গেলোনা, আমাদের এই চেয়ারে বসতে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে'।

আরও পড়ুন

  পরকীয়া প্রেমিককে নিয়ে স্বামীকে হত্যা করে লাশ ৬ টুকরো করে আরিফা

  যশোরে আইনজীবীর কাছ থেকে হত্যা মামলার আসামি ‘ছিনতাই’

  আবারও বাড়লো লকডাউন, প্রজ্ঞাপন জারি

  ফোন ও ফেসবুকে প্রেম করে সর্বস্ব লুটে নেয় ৩ ছাত্রলীগকর্মী

 

শিবচর উপজেলায় কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা অনিরুদ্ধ দাস এর সাথে এ বিষয় ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, স্যার বলা একটি ভদ্রতা।

স‍্যার মানে মহোদয়। এটা নিয়ে এতো জলঘোলা করার কি আছে? তিনি আরও বলেন, এটাও তো সত‍্য বিসিএস ক‍্যাডার হতে হলে অনেক কষ্ট করতে হয়।

মাদারীপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, এটা বলার কথা না। যাইহোক কিছু মনে করেন না, আমি বলে দেবো। ভবিষ্যতে যেন এটা করে। আমি বিষয়টি আমি দেখছি। ’ অল্প বয়স হলে যা হয়।

news24bd.tv আহমেদ

সম্পর্কিত খবর