দাঁত ও মাড়ির রোগের সমাধান আপনার হাতেই
দাঁত ও মাড়ির রোগের সমাধান আপনার হাতেই

দাঁত ও মাড়ির রোগের সমাধান আপনার হাতেই

অনলাইন ডেস্ক

দাতের বা মাড়ির  রোগে আজকাল অনেক মানুষই আক্রান্ত হচ্ছেন। দন্ত চিকিৎসকদের কাছে সবচেয়ে বেশি রোগী আসেন দাঁত ও মাড়ির রোগ নিয়ে। অথচ নিয়মিত দাঁত ব্রাশের মতো প্রাত্যহিক কিছু নিয়ম মানলে এই সমস্যা থেকে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মুক্ত থাকা যায়।

দন্ত চিকিৎসকদের বর্তমানে সবচেয়ে বেশি রোগী আসেন দাঁত ও মাড়ির রোগ নিয়ে।

এর মধ্যে দাঁতের ক্ষয় রোগ নিয়ে বেশি আসেন। আরেক ধরনের রোগী আসেন মাড়ির রোগ নিয়ে।

এর বাইরে দাঁতের ভঙ্গুরতা নিয়েও আসেন। দুই ধরনের ভঙ্গুরতা নিয়ে আসেন। এটি বড় ধরনেরও হতে পারে আবার ছোটোও হতে পারে।

এছাড়া দাঁতের শিরশির অনুভূতি হয় এমন রোগীও আসেন। এই শিরশির অনুভূতি গরম পানি বা ঠান্ডা পানি মুখে দিলে হতে পারে।

পান, জর্দ্দা বা ধূমপানের কারণে ওরাল ক্যান্সারের রোগীও অনেক সময় আসেন। বর্তমানে এই রোগীর সংখ্যা অনেকটাই বেড়েছে।

এসব সমস্যা থেকে বেঁচে থাকতে প্রথমত নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করা অত্যন্ত জরুরি।  

এর কারণ হচ্ছে- আমরা যে খাবার খাই তার একটি অংশ দাঁতের আশপাশে লেগে থাকে। এই খাদ্যের আঁশ থেকে বিভিন্ন ধরনের ব্যাকটেরিয়া জন্ম নিয়ে থাকে। ফলে এগুলো দাঁতের বড় ধরনের ক্ষতি করে থাকে। এর কারণে দাঁতের মাড়ির বিভিন্ন ধরনের ক্ষত হতে পারে। এসব ক্ষত থেকে বিভিন্ন সময় বড় ধরনের রোগও হতে পারে।

এছাড়া দাঁতের ওপরের অবরণ বা অ্যানামেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যায়। অ্যানামেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে গেলে দাঁতের ভেতর ইফেক্ট ফেলে এবং দাঁতের নিচে গর্ত হয়ে যায়। দাঁত শিরশির করে যাকে সেনসিটিভিটি বলে। এটা এক সময় পুরো মুখ তথা নাক-কান এবং চোয়ালে শুরু হয়ে থাকে।

এজন্য দিনে অন্তত দুইবার দাঁত ব্রাশ করতে হবে। সকালে নাস্তার পরে এবং রাতে ঘুমানোর আগে। দুই থেকে পাঁচ মিনিট সময় ধরে এই ব্রাশ করতে হবে। এছাড়া মাঝে মাঝে হালকা গরম পানি দিয়ে কুলি করা যেতে পারে।

news24bd.tv/আলী

;