যেভাবে ৫০ কোটি টাকা প্রতারণা করে হাতিয়ে নেন মশিউর
যেভাবে ৫০ কোটি টাকা প্রতারণা করে হাতিয়ে নেন মশিউর
অবশেষে সিআইডির হাতে ধরা

যেভাবে ৫০ কোটি টাকা প্রতারণা করে হাতিয়ে নেন মশিউর

অনলাইন ডেস্ক

মশিউর রহমান খান ওরফে বাবু (৪২) প্রতারণা করে প্রায় ৫০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি। রাজধানীর কাফরুল এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মশিউর রহমানের বাড়ি গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায়। তিনি মহাখালীর ডিওএইচএসের একটি বাড়িতে আবরার গ্রুপ নামে একটি কোম্পানির অফিস খুলে নিজেকে ওই কোম্পানির ক্রয় কর্মকর্তা বলে পরিচয় দিতেন।

গতকাল বুধবার মালিবাগের সিআইডি দপ্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, মশিউর নিজেকে আবরার গ্রুপের ক্রয় কর্মকর্তা (বায়ার) হিসেবে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পণ্য কেনার চুক্তি করতেন।  

চুক্তি অনুযায়ী পণ্যের মূল্য বাবদ ১০ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ পরিশোধ করে বাকি টাকার চেক দিতেন। কিন্তু ব্যাংকে গিয়ে ব্যবসায়ীরা সেই টাকা আর তুলতে পারতেন না। এভাবে প্রতারণা করে প্রায় ৫০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি। পরে ভুক্তভোগীরা থানায় গিয়ে মামলা করেন। তাঁর নামে ৯২টিরও বেশি মামলা হয়েছে।

আরও পড়ুন:


এবারের বাজেটে সর্বাধিক গুরুত্ব স্বাস্থ্য খাতে

যেসব পণ্যের দাম বাড়তে পারে ও কমতে পারে

ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে রাজধানীতেই


মশিউরের গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে গতকাল রাজধানীসহ বিভিন্ন এলাকার শতাধিক প্রতারণার শিকার ব্যবসায়ী সিআইডি কার্যালয়ে আসেন। তাঁরা জানান, ব্যবসায়ীরা টাকা চাইলে মশিউর তাঁদের প্রাণনাশের হুমকি দিতেন। দেশের প্রভাবশালী লোকদের সঙ্গে পরিচয়ের কথা বলেও তিনি ভয় দেখাতেন।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের দেলোয়ার ফ্লাওয়ার্স মিলের মালিক দেলোয়ার হোসেনের অভিযোগের ভিত্তিতে মশিউরের বিরুদ্ধে তদন্তে নামে সিআইডি। সিআইডির ঢাকা মেট্রো উত্তর বিভাগের অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার জাকির হোসাইন ও সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জহিরুল হকের নেতৃত্বে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

news24bd.tv / কামরুল