অ্যাঙ্গেলা মের্কেলের কুকুরভীতি ও প্রসঙ্গকথা
অ্যাঙ্গেলা মের্কেলের কুকুরভীতি ও প্রসঙ্গকথা

অ্যাঙ্গেলা মের্কেলের কুকুরভীতি ও প্রসঙ্গকথা

Other

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেলের কুকুর ভীতির কথা বেশ পরিচিত। ১৯৯৫ সালে একবার কুকুরের আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন জার্মান চ্যান্সেলর। মূলত এরপর থেকেই তিনি কুকুরকে বেশ ভয় পান। কথিত আছে, এটা জেনে তাকে ‘ভয় দেখানোর উদ্দেশে’ একটি অনুষ্ঠানে নিজের পোষা কুকুরকে সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন ভ্লাদিমির পুতিন।

২০০৭ সালের জানুয়ারিতে রুশ প্রেসিডেন্টের  কৃষ্ণ সাগরস্থ গ্রীষ্মকালীন বাসভবনে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেলের সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন রুশ প্রেসিডেন্ট। সে সময় কোনি নামের নিজের পোষা ল্যাব্রাডর প্রজাতির একটি কুকুরকে সেখানে নিয়ে যান রুশ নেতা। আর এতে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন জার্মান চ্যান্সেলর।

পুতিন মের্কেলকে ভয় দেখাতে চেয়েছেন বলে ঘটনাটি তখন গণমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি করেছিল। ওই বৈঠকের ছবিতে দেখা যায়, কুকুরটি যখন মের্কেলের কাছে বারবার ঘুরছিল তখন তিনি অস্বস্তিবোধ করছিলেন। তবে এমন দৃশ্যে পুতিনকে বরং মুচকি মুচকি হাসতে দেখা যায়।

ওই বৈঠকে পুতিনের কুকুর নিয়ে যাওয়া নিয়ে ২০১৪ সালে মুখ খোলেন মের্কেল। দ্য নিউ ইয়র্কার ম্যাগাজিনকে তিনি বলেন, তিনি এটা কেন করেছেন, ‘সেটা আমি বুঝতে পারি। তিনি নিজেকে পুরুষ প্রমাণ করতে চেয়েছেন। তিনি নিজের দুর্বলতা নিয়ে ভীত ছিলেন। ’

আরও পড়ুন:


এবারের বাজেটে সর্বাধিক গুরুত্ব স্বাস্থ্য খাতে

যেসব পণ্যের দাম বাড়তে পারে ও কমতে পারে

যেভাবে ৫০ কোটি টাকা প্রতারণা করে হাতিয়ে নেন মশিউর

ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে রাজধানীতেই


পরে ২০১৬ সালে জার্মান গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই বৈঠকে  কুকুর নিয়ে যাওয়ার ব্যাখ্যা দেন ভ্লাদিমির পুতিন। পুতিন বলেন, নয় বছর আগের ওই বৈঠকে তিনি মের্কেলকে কুকুরের ভয় দেখাতে চাননি। তিনি বলেন, ‘আমি তার জন্য মজার কিছু করতে চেয়েছিলাম। তবে যখন জেনেছি, তিনি কুকুর ভয় পান, তখন তার কাছে ক্ষমা চেয়েছি। ’

জানা যায়, এসময় পুতিনকে নিজের বাবার একটি ঘটনা স্মরণ করিয়ে দেন মের্কেল।  

পুতিনকে তিনি বলেন, একদিন রাতে তার বাবা পোষা কুকুর নিয়ে রাস্তায় হাঁটতে বের হন। কিছু দূর এগিয়ে গিয়ে দেখতে পান- এক বাবা তার বাচ্চাকে নিয়ে না খেয়ে রাস্তায় শুয়ে আছে।  

তিনি ভাবলেন, মানুষ না খেয়ে রাস্তায় শুয়ে আছে, আর আমি কুকুর পালি! এটি এক ধরনের বিলাসিতা ছাড়া আর কিছু নয়। পুতিনকে তিনি বলেন, এই বিষয়টি আমাকে খুব নাড়া দেয়। তাই আমারও কোনোদিন কুকুর পোষা হয়নি।

হারুন আল নাসিফ: কবি, ছড়াকার, সাংবাদিক

news24bd.tv / কামরুল 

;