সুন্দর মেয়েদের উপর জ্বিনের নজর থাকে, একা পেলেই তুলে নিয়ে যায়
সুন্দর মেয়েদের উপর জ্বিনের নজর থাকে, একা পেলেই তুলে নিয়ে যায়

সুন্দর মেয়েদের উপর জ্বিনের নজর থাকে, একা পেলেই তুলে নিয়ে যায়

Other

পাগলামোকে একসময় বলা হতো জ্বিনে ধরা। কেউ অসংলগ্ন আচরণ করলে ধরে নেয়া হতো তাকে জ্বিন আছর করেছে। মানুষ এর একটি চিকিৎসাও আবিষ্কার করেছিলো, এবং এ আবিষ্কারের ভিত্তি ছিলো বিশ্বাস। এলাকাভেদে চিকিৎসাটি নানা রকম হলেও মোটামুটি ছিলো এরকম—

যাকে জ্বিনে ধরেছে তাকে পেটাতে হবে।

এই আঘাত রোগীর শরীরে লাগবে না, লাগবে জ্বিনের শরীরে, এবং মার খেয়ে জ্বিন পালিয়ে যাবে।

তবে আমি দেখেছি উল্টো। মারের আঘাত রোগীর শরীরেই লাগে, এবং প্রাণ যাওয়ার সময় রোগীর প্রাণই যায়। মার খেয়ে রোগীর বদলে জ্বিনের মৃত্যু হয়েছে, এরকমটি কখনও শুনি নি।

পাগল চিকিৎসার এ পদ্ধতি এখনো চালু আছে। কিছুদিন আগে, ফেনীর ফুলগাজীতে এক জ্বিন হুজুর, নাম শহিদুল্লা, এ চিকিৎসা দিয়ে একজনকে বেহেশতে পাঠিয়ে দিয়েছেন।

রাজা তৃতীয় জর্জ যখন পাগল হয়েছিলেন তখন তাঁর উপরও এ পদ্ধতি প্রয়োগ করা হয়েছিলো, এবং ফলাফল ছিলো ফুলগাজীর মতোই। তবে রোগীটি একজন রাজা হওয়ায় প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন। তাঁর গায়ে, আমার ধারণা, খুব সাবধানে হাত উঠানো হয়েছিলো।

জ্বিন ধর্ষণও করে। আমি একটি মেয়েকে চিনি, যে একরাতে উঠোনে প্রস্রাব করতে গিয়ে আর ফেরত আসে নি। তার বদনাটি ঘরের কাছে পাওয়া গেলেও, শরীর পাওয়া গিয়েছিলো অনেক দূরে, এক ধান ক্ষেতের আইলে। বিবস্ত্র; সারা গায়ে থুথু, লালা, ও ঘাসের ভাঙা ডগা।

মেয়েটির বাবা-মার দাবি ছিলো—

জ্বিন মেয়েটিকে তুলে নিয়ে গেছে। সুন্দর মেয়েদের উপর জ্বিনের নজর থাকে, এবং একা পেলেই তুলে নিয়ে যায়।

মেয়েটির মা যখন মেয়েটিকে নিয়ে কবিরাজের কাছে গেলো, তখন কবিরাজের বক্তব্য ছিলো—

মেয়েটি অপবিত্র হয়ে গেছে। তাকে পবিত্র করতে হবে। এজন্য সাত দিন সাত রাত সে এখানে থাকবে। আপনি বাড়ি চলে যান, সাতদিন পর এসে মেয়েকে নিয়ে যাবেন।


আরও পড়ুন


বরফ গলে আয়তন কমছে আইসল্যান্ডের!

টিকা নিলেই পাওয়া যাবে এক বোতল বিয়ার!

ইরানে জাহাজডুবি, কয়েক ঘন্টা পরেই তেল শোধনাগারে আগুন

সীমান্ত পেরিয়ে আসা বিড়াল-কবুতর মেরে ফেলার নির্দেশ কিমের


আমি জানি না, এ সাত দিন সাত রাতে মেয়েটি আরও জ্বিনের দেখা পেয়েছিলো কি না।

সম্প্রতি সিলেটের মুরারিচাঁদ কলেজে, জ্বিনেরা একটি মেয়েকে তুলে নিয়ে গিয়েছিলো। তবে দিনের বেলা হওয়ায় জ্বিনদের আমরা দেখে ফেলি, এবং ধরিয়ে দিই পুলিশে। পুলিশ আমাদের জানিয়েছে যে, এরা মোটেও জ্বিন নয়, মানুষ।

মেয়েটি সম্পর্কে আমার ফুফু হন।

('মানুষ এবং অন্ধকারের প্রশংসা' থেকে)

news24bd.tv / নকিব

;