স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করলেন ব্যবসায়ী
স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করলেন ব্যবসায়ী

স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করলেন ব্যবসায়ী

অনলাইন ডেস্ক

দেনার দায়ে স্ত্রী ও ছেলেকে খুন করে আত্মহত্যার করেছেন সমীরকুমার গুহ (৫৮) নামের এক ব্যক্তি। ঘটনাস্থলে সুইসাইড নোটও উদ্ধার করেছে পুলিশ। সেখানে সমীর জানিয়েছেন, মৃত্যুর পর তার সম্পত্তি বিক্রি করে যেন পাওনাদারদের টাকা মিটিয়ে দেওয়া হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের সোদপুর এলাকায়।

শুক্রবার (০৪ জুন) সকালে থেকেই চাঞ্চল্য ঘটনাটি সোদপুরের বসাক বাগান এলাকায় ছড়িয়েছে। ঘটনাস্থলে এসে মরদেহ উদ্ধার করে খড়দহ থানার পুলিশ।

করোনা মহামারিতে ব্যবসায় মন্দাভাব দেখা দেওয়ায় কাপড় ব্যবসায়ী সমীর বেশ কয়েক মাস ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন।   

শুক্রবার সকালে সমীরের বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ পান প্রতিবেশীরা।

ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়া না পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ঘরের দরজা ভেঙে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেন।

পুলিশ জানায় , স্থানীয়রা খবর দিলে ঘটনাস্থলে এসে দুর্গন্ধ নাকে ভেসে আসে। পরে ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশেই দেখা যায় স্ত্রী ঝুমা গুহ (৪৮) এবং ছেলে বাবাই গুহ (২৩)-র দেহ পড়ে রয়েছে। সমীরবাবু গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন। ঝুমা এবং বাবাইয়ের দেহে রয়েছে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এই ঘটনার জেরে সোদপুর বসাক বাগান এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। ওই ঘর থেকে একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার হয়েছে। সেখানে সমীর জানিয়েছেন, মৃত্যুর পর তার সম্পত্তি বিক্রি করে যেন পাওনাদারদের টাকা মিটিয়ে দেওয়া হয়।

news24bd.tv/আলী