নেহাকে গর্ভপাত করে মেরে ফেলতে চেয়েছিলেন মা-বাবা!
নেহাকে গর্ভপাত করে মেরে ফেলতে চেয়েছিলেন মা-বাবা!

নেহাকে গর্ভপাত করে মেরে ফেলতে চেয়েছিলেন মা-বাবা!

অনলাইন ডেস্ক

সামাজিক মাধ্যমে ভক্তদের শুভেচ্ছা বার্তার বানভাসি।  ৩৩-এ পা রাখলেন নেহা কক্কর।  বিয়ের পর প্রথম জন্মদিন গায়িকার। স্বামী রোহনপ্রীত সিংহও আলাদা করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন স্ত্রীকে।

এমনই এক জন্মদিনে বোনের সত্যিকারের জীবনকথা সামনে এনেছিলেন দাদা টনি কক্কর। জানিয়েছিলেন, কক্কর পরিবারের অবাঞ্ছিত সন্তান নেহা! গর্ভপাত করে নেহাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিলেন তাদের মা-বাবা।

কেন নেহাকে জন্ম দিতে চাননি কক্কর দম্পতি? টনির মতে, ‘আমরা প্রচণ্ড গরিব ছিলাম। সংসারের আর্থিক অবস্থা ক্রমশ খারাপ হচ্ছিল। তত দিনে আমি আর সোনু জন্মেছি। মা তাই আর সন্তান চাননি। কিন্তু অজান্তেই নেহাকে গর্ভে ধারণ করে ফেলেছেন। ’


আরও পড়ুনঃ

চলমান বিধি-নিষেধ ‘লকডাউন’ বাড়ল ১৬ জুন পর্যন্ত

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত কমল

কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে বেগম খালেদা জিয়াকে

বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে এ পর্যন্ত ৬ হাজার ৩৪৩ কোটি টাকা টোল আদায়


নেহার দাদার দাবি, জানার পরেই তিনি গর্ভপাত করাতে চান। কিন্তু তত দিনে গর্ভস্থ সন্তানের বয়স ৮ মাস পেরিয়ে গেছে। অবশেষে এক গ্রীষ্মের বিকেলে জন্ম নেন নেহা।

প্রচণ্ড অভাবের মধ্যে বড় হয়েছেন নেহা-সোনু-টনি। ছোটবেলায় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ভজন গেয়ে সংসার চালিয়েছেন সোনু-নেহা। বরাবরই নেহার পথপ্রদর্শক সোনু। তিনিই বোনকে গানবাজনায় হাতেখড়ি দিয়েছিলেন।

পরবর্তীতে গানের রিয়েলিটি শো ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এ অংশ নেওয়ার পরেই ভাগ্য বদলে যায় নেহার। জনপ্রিয় গায়িকার জীবনের এই অধ্যায় প্রথম প্রকাশ্যে আসে ২০১৭ সালে ইউটিউবে।

news24bd.tv এমিজান্নাত